সেরা ৬ টি ইউটিউব ভিডিও চ্যানেল আইডিয়া

টিউন বিভাগ ইউটিউবিং
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 4
Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর

আসসালামু আলাইকুম। টেকটিউনস এর নতুন আরো একটি টিউনে আপনাকে স্বাগতম। আমি স্বপন আছি আপনাদের সাথে। আশাকরি সকলেই অনেক অনেক ভালো আছেন। তো বন্ধুরা আজকাল আমারা সবাই কম বেশি ইউটিউবিং এর সাথে জরিত অথবা ভিডিও কন্টেট মেকিং এর সাথে তো জরিত। আমরা পেশা হিসাবে হোক কিংবা শখের বশেই হোক ভিডিও বানাতে ভালোবাসি। আর সেই ভিডিও ইউটিউবে বা ফেসবুকে আপলোড করার মাঝে আমাদের অন্য রকম একটা খুশি অনুভব হয়। আপনি যাই করুন করুন সব ইইছুর মূলে কিন্তু একটা বিষয় ই থাকে সেটি হলো ইনকাম এর ইচ্ছা।

কিন্তু আমরা বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই অনেকেই দেখি ভিডিও কন্টেন্ট বানাই কিন্তু সফল হই না। কারণ হিসাবে চিহ্নিত করলে আমরা অনেক কিছুই খুঁজে পাই। সব তো আর এই এক টিউনে উল্লেট করা যায়। ইনশাআল্লাহ আস্তে আস্তে সব বিষয় নিয়ে বিস্তারিত টিউন নিয়ে আসবো। তবে আপনি ভিডিও কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হিসাবে সফল না হওয়ার পিছনে একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো আপনার সঠিক চ্যালেন নিশ/বিষয় বাছাই করতে আপনি ব্যার্থ।
তো আজকে আমি আপনাদের সেরা ৫ টি চ্যানেল নিশ নিয়ে আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ আপনি এই টিউন টি দেখার পর আপনার জন্য কোন নিশ টি বেটার হবে তার সঠিক ধারনা/সিন্ধান্ত নিতে পারবেন। আর উক্ত বিষয় গুলো নিয়ে যদি আপনি ভিডিও মেক করেন তো ইনশাআল্লাহ আপনি কন্টেন্ট ক্রিয়েটর হিসাবে সফল হবেন। কারন এসব বিষয়ে ভিউস এর অভাব হয় না। আর যে চ্যানেলে রহ রহ ভিউ আছে সেই চ্যানেলে টাকা আসবেই ১০০%।
তো সঠিক নিশ বাছাই পর্বে আজকে আমি আপনাদের সামনে সর্বপ্রথম যে বিষয় টি নিয়ে আলোচনা করবো তা হলোঃ

১. টেক ভিডিও

বর্তমানে সেরা একটি চয়েস হিসাবে আপনি টেক ভিডিও অপশন টি বাছাই করে নিতে পারেন। যদি আপনি ইন্টারনেট এর ব্যাপারে অনেকটাই পারদর্শি হন তাহলে আপনার জন্য টেক ভিডিও অপশন টি একটি সেরা অপশন হতে চলেছে। কারন এই টেক বিষয়ে ভিডিও কন্টেন্ট ক্রিয়েটর দের ইনকাম কিন্তু বেশ ভালো। এর মূল কারণ হলো টেক ভিডিও চ্যানেল গুলোতে এড আসা বন্ধ হয় না। আর এসব ভিডিওতে ভিউস ও অনেক হয়। কারণ বর্তমানে যে কারো ছোট্ট খাট্ট সমস্যা হলেই একমাত্র ভরসা আর সমাধানেত স্থান হলো ইউটিউব প্লাটফর্ম। যেখানে সবাই এসে তার প্রতিদিনের অনলাইন সমস্যা সমাধান এর জন্য সার্চ করে। মনে করুন কেউ সার্চ করলো ❝কিভাবে ফেসবুক একাউন্ট খোলা যায়❞ আর সেই সার্চে আপনার ভিডিও থাকলে সে অবশ্যই আপনার ভিডিও দেখবে। আর আপনার ভিডিও দেখে সে উপকৃত হলে অবশ্যই বার বার আপনার ভিডিও দেখতে আসবে। এভাবে আপনার ভিউস ও বারবে। আর যেতে টেক ভিডিওতে এডস আসা বন্ধ হয় না বা কম এডস আসে না সেহেতু আপনার ইনকাম এর পরিমান ও কিন্তু অনেক বেশি হবে। তাই নিসন্দেহ বলা বলা যায় সফলতার জন্য টেক ভিডিও চ্যানেল একটি সেরা ভিডিও ক্রিয়েটর চয়েস হতে পারে।

২. গেমিং চ্যানেল

বর্তমানে আমরা প্রায় ৯০% ছেলে মেয়ে উভয়ই গেমে আসক্ত। আমারা আমাদের দিনের প্রায় ৪/৫ ঘন্টাই গেমে ব্যয় করে ফেলি। আপনি কি জানেন বর্তমানে আপনার এই গেমের পিছে ব্যায় করা ৪/৫ ঘন্টা থেকে আপনি প্রচুর অর্থ ইনকাম করতে পারবেন। বিশ্বাদ হলো না তাইনা? বর্তমানে এমন অনেক গেমিং চ্যানেল বা গেমার আছে যারা তাদের খেলা গেমের ভিডিও ইউটিউবে আপলোড দিয়ে হাজার হাজার টাকা ইনকাম করে ফেলছে। আর এসব গেমিং ভিডিতে ৩/৪ ঘন্টায় প্রায় মিলিয়ন মিলিয়ম ভিউ আসে। আর আপনি যদি একটু ভালো খেলেন ভা ফানি টাইপের খেলা কিংবা ভয়েস দিয়ে গেমিং ভিডিও ইডিট দিতে পারেন তাহলে গেমিং চ্যানেল খুব সহজেই বড়ো করা সম্ভব। আর অনেক ভালো পরিমান টাকা সেই গেমিং ভিডিও চ্যানেল থেকে ইনকাম করা সম্ভব। যদিও গেমিং চ্যানেলে এডস লিমিটেড বা অনেক কম পরিমান এডস আসে। তবুও আপনি একজন ভালো গেমার হলে হিউস পরিমান টাকা আপনার ব্যয় করা সেই ৪/৫ ঘন্টা থেকে ইনকাম করতে পারবেন। আপনি যদি একজন গেমার হন তাহলে আপনার সেই সময় গুলো আর নষ্ট না করে গেমিং চ্যানেল নিস কে বাছাই করা আপনার জন্য একটি সেরা চয়েস হতে পারে।

৩. ভ্লোগিং ভিডিও

বর্ত্মান সময়ে আমরা সবাই কিন্তু নতুন নতুন যায়গা ঘুরতে অনেক ভালোবাসি। এক কথায় বলতে গেলে আমরা ৯০% মানুষই কিন্তু এখন ভ্রমন পিপাসু লোক। নতুন যায়গা দেখার আনন্দ যে কতোটা সুন্দর তা অন্য কাউকে বলে বুঝানো যাবে না। আপনার এই ভ্রমনে সঙ্গি হিসাবে জরিত করুন সারা দূনিয়াকে। নিশ্চয়ই অবাক হয়ে গেলেন তাই না। সেটা কিভাবে করবেন ভাবছেন তাইনা? তাহলে বলি শুনুন। আপনি যখন কোন একটি নতুন যায়গায় ভ্রমন করতে যাবেন তখন সেই যায়গার সুন্দর সুন্দর মূহুর্ত, সুন্দর সুন্দর যায়গা গুলির দৃশ্য আপনার ক্যামেরায় রেকড করে ফেলুন। পরে সেগুলো সুন্দর করে ইডিট করে আপনার একটি ইউটিউব চ্যালেনে ছাড়ুন। দেখবেন সুন্দর ভিডিওতে অনেক অনেক ভিউস পাবেন। আর ইনকাম ও অনেক ভালো হবে। এর মূল কারন হলো আমরা ভ্রমন পিপাসু লোক, নতুন যায়গা দেখার ইচ্ছা আমাদের মাঝে পিপাসার মতো কাজ করে। তাই আপনি যদি একজন ভ্রমন পিপাসু লোক হন তাহলে আপনার দেখা সেরা স্থানগুলোর বিশ্বের সবার সামনে তুলে ধরুন। আপনার জন্য ভ্লোগিং অপশন টি সেরা একটি চয়েস হতে পারে।

৪. রোষ্টিং কন্টেন্ট

এই কন্টেন্ট এ যদিও আমি আপনাকে উৎসাহ দিবো না। তবুও এটি কিন্তু বেশ জনপ্রিয় একটি ভিডিও নিশ। এই কন্টেন্ট এর উপর কাজ করলে অনেক ভালো পরিমান একটি ইনকাম করা সম্ভব। তবে রোস্টিং চ্যালেনে সব সময় একটি ঝুকি রয়েই যায়। ধরুন হঠাৎ করেই ইউটিউব কমিউনিটি থেকে আপনার চ্যানেল টি রিমোভ করে দিতে পারে। তবে সর্তকতা সাথে কাজ করলে মানে আপনি যদি রোষ্টিং ভিডিও বানান সেটা খারাপ ভাষা ব্যবহার না করে মার্জিত ভাষায় রোষ্ট করেন অথ্যাৎ সেখানে যদি তাকে তার ভুল মার্জিত ভাষায় ধরে দেন তাহলে সেটা কমিউনিটি গাইড লাইন খাবে না। যার ফলে রোষ্টিং ভিডিও করেও আপনার চ্যানেল ১০০% নিরাপদ রাখতে পারবেন। সব কথার এক কথা গালি দিয়ে সব হয় না। মার্জিত ভাষায় ভুল ধরিয়ে দিয়ে মানুষকে সঠিক পথে আনা সম্ভব। আর আপনি যদি চান তাহলে আপনি অবশ্যই একটি রোষ্টিং চ্যানেল খুলে কাজ শুরু করে দিতে পারেন। তবে মনে রাখবেন অবশ্যই ট্রেন্ডিং ভিডিও নিয়ে সবসময় কাজ করবেন।

৫. ট্রেন্ডিং ভিডিও

সেরা নিশ বাছাই পর্বে আমরা ৫ নম্বর বিষয়ে চলে আসছি ট্রেন্ডিং ভিডিও নিয়ে ভিডিও মেক করা। আচ্ছা এবার আপনার প্রশ্ন থাকতে পারে ট্রেন্ডিং বিষয়টি কি? ট্রেন্ডিং বিষয়টি হলো ফেসবুক, ইউটিউব সহ যাবতীয় সকল সোসাল মিডিয়ায় সদ্য ভাইরাল হওয়া ভিডিও সমূহ। যেমন মনে করুন বর্তমানের ভাইরাল একটি বিষয় হলো ❝ঘূর্ণিঝড় মোখা❞ আপনি চাইলে এই ঘূর্ণিঝড় মোখা কে নিয়ে ভিডিও বানাতে পারেন। এতে আপনার ভিডিও টি বেশি ভাইরাল হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। কারন বর্তমানের ট্রেন্ডিং একটি বিষয় হলো ঘূর্ণিঝড় মোখা। আর এটি ভাইরাল হলে আপনি একটি ভিডিও থেকে হিউস পরিমান একটি ইনকাম করতে পারবেন। আর বর্তমানে ট্রেন্ডিং ভিডিও সাক্সেস চাঞ্জ রেট অনেক হাই। আপনি চাইলে ট্রেন্ডিং ভিডিও মেকিং নিয়ে কাজ শুরু করে দিতে পারেন।

৬. প্রডাক্ট রিভিউ

বর্তমানে আমরা কিন্তু দোকানে যেয়ে পোডাক্ট কম কিনি। আমরা কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ ই অনলাইনের মাধ্যমে প্রডাক্ট কিনে থাকি। কিন্তু এই প্রডাক্ট গুলোর বিষয়ে আমরা না জেনে অনেকেই অর্ডার করে ফেলি। তারপর প্রডাক্ট হাতে পেয়ে টাকা পরিষোধ করি। কিন্তু তারপর প্রডাক্ট আনবক্স করে আমরা একদম হতাশ হয়ে যায়। কারণ হলো হয় আমরা আমাদের মনের মতো প্রডাক্ট পাই না বা ছবিতে যেমন দেখানো থাকে তেমন পাই না বা নষ্ট প্রডাক্ট পাই যা কাজ করে না। এতে আমাদের টাকা নষ্ট হয়ে যায়। তো বন্ধুরা কেমন হয় যদি আমরা কোনো প্রডাক্ট অর্ডার করার আগেই সেই প্রডাক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত সকল কিছু জানতে পারি?নিশ্চয় অনেক ভালো হয় তাই না? জনগনের অনলাইনের প্রডাক্ট অর্ডার নিয়ে এই ভোগান্তির সমাপ্তি হিসাবে প্রডাক্ট রিভিউ চ্যানেল বর্তমান সময়ে বেশ জনপ্রিয়। এখান থেকে আপনি অনেক বেশি পরিমান টাকা ইনকাম করতে পারবেন। কারন প্রডাক্ট রিভিউ বিষয়ে ইউটিউবে চ্যানেল খুব কম। কিন্তু এর চাহিদা অনেক বরো। আর ইনকাম ও অনেক বেশি। তাই আপনি চাইলে আজকেই আপনার সেরা বাছাই হিসাবে প্রডাক্ট রিভিউ চ্যানেল নিশ টি বেছে নিতে পারেন।
তো বন্ধুরা এই ছিলো আজকের ইউটিউব ভিডিও আইডিয়া নিয়ে সেরা ৬ টি চ্যানেল আইডিয়া। আপনি চাইলে এগুলো শুধু ইউটিউব এর জন্য না আপনি চাইলে এগুলো ফেসবুক ভিডিও কন্টেন্ট মেকিং এর জন্যো ব্যবহার কর‍তে পারবেন। আশাকরি টিউন টি আপনাদের ভালো লেগেছে। আর সামান্য টুকু হলেও কাজে আসবে। তো আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি। দেখা হয়ে পরবর্তী কোন টিউনে ততোক্ষন অব্দি সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আর টেকটিউনস এর সাথেই থাকবেন ধন্যবাদ।

Level 4

আমি স্বপন মিয়া। Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 39 টি টিউন ও 24 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

টেকনোলজি বিষয়ে জানতে শিখতে ও যেটুকু পারি তা অন্যর মাঝে তুলে ধরতে অনেক ভালো লাগে। এই ভালো লাগা থেকেই আমি নিয়মিত রাইটিং করি। আশা করি নতুন অনেক কিছুই জানতে ও শিখতে পারবেন।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস