ইউটিউবে ইনকাম করার সেরা ও সহজ চারটি উপায় 2021

আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহু। সম্মানিত পাঠক গনেরা আশাকরি আপনারা সকলেই ভাল আছেন! ইউটিউব থেকে যারা টাকা ইনকাম করতে চান! তাদের জন্য আমার আজকের এই আর্টিকেল টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ইউটিউব থেকে ইনকাম করার একটি উপায় বা মাধ্যম আজকে আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি। অবশ্যই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়তে থাকুন।

ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার জন্য নানা রকম উপায় রয়েছে। তার মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং সহজ মাধ্যম গুলো আপনাদের সাথে শেয়ার করব। ইউটিউবে এখন বাংলাদেশি প্রায় কোটি কোটি চ্যানেল রয়েছে। অনেকেই ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে যারা কখনোই অন্য কাজ করেনা। অর্থাৎ তারা ইউটিউব টাকে ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নিয়েছে।

এমনকি ইউটিউবে এত পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারছে যে, তাদের অন্য কোন কাজ করার প্রয়োজন হয় না। আপনিও চাইলে ইউটিউবে কাজ করে প্রচুর পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারবেন। এই কারণে আজকে আমি আপনাদের সাথে ইউটিউব থেকে ইনকাম করার চারটি সহজ মাধ্যম শেয়ার করতে যাচ্ছি। এই চারটি উপায় আপনারা খুব সহজেই এবং ইউজ পরিমাণে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারবেন। চলুন এবার জেনে নেয়া যাক বিস্তারিত।

ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার সেরা চারটি মাধ্যম?

  1. ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম শুরু করতে চাইলে সর্বপ্রথম আপনার চ্যানেল টি মনিটাইজেশন অন করতে হবে। মনিটাইজেশন অন না করতে পারলে কোনভাবে আপনি টাকা ইনকাম করতে পারবেন না ইউটিউব থেকে। ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করার সর্ব প্রথম ধাপ হলো মনিটাইজেশন অন করা।
  2. ইউটিউব এর মনিটাইজেশন অন করার জন্য, আপনার চ্যানেলে থাকতে হবে 1000 সাবস্ক্রাইব এবং 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম। এবং 12 মাসের ভিতর এই এই কাজ দুটি সম্পূর্ণ করলে আপনি মনেটিজেশন এর জন্য আবেদন করতে পারেন।

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার সর্বপ্রথম মাধ্যম?

  1. *গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে। আপনি চাইলে খুব সহজেই গুগল এডসেন্সের মাধ্যমে বিজ্ঞাপণ দেখিয়ে আপনার ইউটিউব চ্যানেলে, টাকা ইনকাম করতে পারেন। গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার জন্য তাদের নিয়ম নীতি ও গাইডলাইনের কোন বিকল্প নেই। আপনাকে অবশ্যই তাদের নিয়ম নীতি ও গাইডলাইন মেনে গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করতে পারেন। গুগল এডসেন্স থেকে ইনকাম করার জন্য শুধুমাত্র তাদের বিজ্ঞাপণ নিয়ে আপনার চ্যানেলে দেখিয়ে ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে। গুগল এডসেন্স হলো বিজ্ঞাপণের কর্মকর্তা। গুগল অ্যাডসেন্সে নানা ধরনের ক্যাটাগরি বিজ্ঞাপণ রয়েছে। আপনার ইচ্ছা অনুযায়ী আপনি যেকোনো বিজ্ঞাপণ আপনার ইউটিউব চ্যানেলের ভিডিওতে দেখিয়ে, আয় করতে পারেন।

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার দ্বিতীয় মাধ্যম?

  1. *আপনার চ্যানেলের জন্য ইনকাম করার দ্বিতীয় মাধ্যমটি খুবই জনপ্রিয়। আর সেটা হলো অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে। হ্যাঁ আপনি ঠিকই শুনেছেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে খুব সহজে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারেন। আপনি চাইলে বড় বড় কোম্পানির সাথে কনট্রাক্ট করে, অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং ইউটিউব এর মাধ্যমে করে। টাকা ইনকাম করতে পারেন খুব সহজেই। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হল: তাদের প্রোডাক্ট গুলো আপনাকে বিক্রি করে দিতে হবে। আপনি তাদের যত প্রোডাক্ট বিক্রি করে দিতে পারবেন ততো বেশি ইনকাম করতে পারবেন। প্রতিটা প্রোডাক্টের জন্য আপনার একাউন্টে কিছু কমিশন আসবে। যত প্রোডাক্ট বিক্রি করবেন তত বেশি কমিশন আসবে। এ প্রোডাক্টগুলো আপনি ইউটিউব এর ভিডিওর মাধ্যমে খুব সহজে প্রচার করতে পারেন। এবং অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারেন খুব সহজে। বাংলাদেশ প্রায় হাজার হাজার অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং রয়েছে। সবথেকে জনপ্রিয় এফিলিয়েট মার্কেটিং হল অ্যামাজন থেকে। খুব সহজেই আপনি অ্যামাজনে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে ইনকাম করতে পারেন ইউটিউব এর মাধ্যমে।

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার তৃতীয় মাধ্যম?

  1. *আপনার ইউটিউব চ্যানেলের জন্য ইনকাম করার তৃতীয় মাধ্যমটি হলো: নিজের প্রোডাক্ট অথবা আপনার আত্মীয়-স্বজনের প্রোডাক্ট বিক্রি করা। এই পদ্ধতিতে আপনি দুভাবে ইনকাম করতে পারেন। যার প্রোডাক্ট বিক্রি করে দিবেন সে একদিকে কমিশন দিবে, অন্যদিকে আপনি ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারছেন, ইউটিউবে মনেটিজেশন এনেবেল করে। এটা খুবই জনপ্রিয় একটি মাধ্যম। এমনকি আপনি চাইলে আপনার নিজের প্রোডাক্ট নিজে সেল করে ইনকাম করতে পারেন। তবে তার জন্য আপনার চ্যানেলে ভালো পরিমান ভিজিটর থাকা লাগবে। এবং সাবস্ক্রাইব বেশি থাকতে হবে। ভিউ এবং সাবস্ক্রাইব যদি আপনার ইউটিউব চ্যানেলের বেশি বা অনেক থাকে তাহলে, খুব সহজেই এই পদ্ধতি অবলম্বন করে ইউটিউব থেকে ইনকাম করতে পারেন। এই পদ্ধতিতে প্রায় হাজার হাজার মানুষ তাদের নিজের প্রোডাক্ট বিক্রি করে, অথবা অন্য কারোর প্রোডাক্ট বিক্রি করে ইনকাম করছে। তার পাশাপাশি নিজের চ্যানেল মনিটাইজেশন এর মাধ্যমেও ইনকাম করছে। আপনারা চাইলে এই পদ্ধতি অবলম্বন করে নিজের ইউটিউব চ্যানেল থেকে ইনকাম করতে পারেন সহজেই।

ইউটিউব থেকে ইনকাম করার চতুর্থ নম্বর পদ্ধতি?

  1. *স্পন্সর এর মাধ্যমে। স্পন্সর এর মাধ্যমে প্রায় হাজার হাজার চ্যানেল টাকা ইনকাম করে যাচ্ছে। আপনিও চাইলে স্পন্সর এর মাধ্যমে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করতে পারেন। স্পন্সর হলো বড় বড় কোম্পানির বিজ্ঞাপনগুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলে দেখিয়ে ইনকাম। যেমন গ্রামীণফোন একটি বড় কোম্পানি, আপনি চাইলে এই কোম্পানির বিজ্ঞাপণ গুলো দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে অনেক টাকা ইনকাম করতে পারবেন। আদার বিকাশ কোম্পানি যেটা খুবই জনপ্রিয়। আপনি চাইলে বিকাশ কম্পানিয়ে বিজ্ঞাপনগুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলের দেখিয়ে ইনকাম করতে পারবেন। তবে তার জন্য আপনার চ্যানেল টি মনিটাইজেশন অন থাকতে হবে। এবং আপনার চ্যানেলের প্রায়ই 5 লাখ সাবস্ক্রাইব থাকতে হবে কমপক্ষে। কমপক্ষে আপনার চ্যানেলে 5 লাখ সাবস্ক্রাইব থাকলেই আপনি স্পন্সর এর কাজ করতে পারেন। স্পন্সর এর ইনকাম দিনে দিনে বাড়তে থাকে। ইউটিউব থেকে যে ইনকাম করতে পারবেন, , , তার থেকে অন্যান্য কাজের মাধ্যমে আপনি বেশি ইনকাম করতে পারবেন।

পরিশেষে বন্ধুরা, যদি আজকের এই আর্টিকেল থেকে, একটু হলেও উপকৃত হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই টিউমেন্ট করে জানাবেন আপনার মতামত। আর যদি ভালো লাগে তাহলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে পারেন। তো সবাই ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন এই কামনা করে আজকের মত বিদায় নিচ্ছি, , আসসালামুআলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ।

Level 0

আমি Md Munna hossen। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 3 টি টিউন ও 8 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

নির্দেশনা [০১]

প্রিয় টিউনার,

আপনার টিউনটি ‘টেকটিউনস টিউন গাইডলাইন’ অনুযায়ী হয়নি।

কারণ:

লিস্ট বেইসড টিউনে ফরমেটিং সঠিক হয়নি।

লিস্ট বেইসড টিউনে লিস্টের

  1. প্রতিটি আইটেমের হেডিং H2 হতে হয়।
  2. প্রতিটি আইটেমের ক্রমিক নম্বর থাকতে হয় এবং প্রতিটি আইটেমের ক্রমিক নম্বর টেকটিউনস গাইডলাইন ফরমেট অনুযায়ী হতে হয়।
  3. প্রতিটি আইটেমের হেডিং এর অধীনে, আইটেমের সাথে প্রাসঙ্গিক, আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করে এমন ও ‘টেকটিউনস কপিরাইট ম্যাটেরিয়াল গাইডলাইন’ অনুসরণ করে ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ থাকতে হয়।
  4. প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ গুলো H2 হেডিং এর ঠিক নিচে থাকতে হয়। অর্থাৎ H2 হেডিং এর ঠিক পরেই প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ থাকতে হয়।
খেয়াল রাখুন

১. টিউনে H2, H3 বা H4 সহ যে কোন হেডিং কখনও বোল্ড করা যায় না ও লিংক করা যায় না।

২. লিস্ট বেইসড টিউনে প্রতি আইটেমের ক্রমিক নম্বর থাকতে হয়।

লিস্ট বেইসড টিউনে প্রতি আইটেমের ক্রমিক নম্বর বাংলা নিচের ফরমেটে থাকতে হয়।

১. আইটেম ১
২. আইটেম ২

এখানে প্রথমে বাংলা ক্রমিক নম্বর, তারপর একটি ডট, ডটের পর স্পেস তারপর আইটেমের নাম।

লিস্ট বেইসড টিউনে লিস্টের প্রতি আইটেমে হুবহু এই ফরমেটে ক্রমিক নম্বর থাকতে হয়।

উদারহরণ সরূপ টিউন ১,টিউন ২, টিউন ৩ লক্ষ করুন।

এখানে লিস্ট বেইড টিউনে লিস্টের

  1. প্রতিটি আইটেমের হেডিং H2 রয়েছে।
  2. প্রতিটি আইটেমের ক্রমিক নম্বরের ফরমেট টেকটিউনস গাইডলাইন অনুসরণ করে রয়েছে।
  3. প্রতিটি আইটেমের হেডিং এর অধীনে, আইটেমের সাথে প্রাসঙ্গিক, আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করে এমন ও ‘টেকটিউনস কপিরাইট ম্যাটেরিয়াল গাইডলাইন’ অনুসরণ করে ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ রয়েছে।
  4. প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ গুলো H2 হেডিং এর ঠিক নিচে অর্থাৎ H2 হেডিং এর ঠিক পরেই প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ রয়েছে।

করণীয়:

গাইডলাইন অনুযায়ী সংশোধন করুন।

উপরের নির্দেশিত সংশোধন করে এই টিউমেন্টের রিপ্লাই দিন।

খেয়াল করুন, এই টিউমেন্টের রিপ্লাই বাটনে ক্লিক করে রিপ্লাই না করে টিউনে টিউমেন্ট করলে তার নোটিফিশেন ‘টেকটিউনস কন্টেন্ট অপস’ টিম পাবে না। তাই অবশ্যই এই টিউমেন্টের রিপ্লাই বাটনে ক্লিক করে রিপ্লাই করুন।

    আমি নতুন ভাবে আবার ফটোগুলো আপলোড বা আপডেট দিয়েছি। আরে হেডিং গুলো আমার এডিট অপশনে নাই। তাই লেখা গুলো হেডিং করতে পারিনি। কেন হেডিট অপশনগুলো আমার এডিট অপশনে নেই? আশা করি সমাধান করবেন। আমার আপডেট দেওয়ার পরে যদি আর কোন সমস্যা হয় তবে বিস্তারিত জানাবেন দয়া করে। আমি সংশোধন হয়ে নিব ইনশাআল্লাহ।

আমি নতুন ভাবে আবার ফটোগুলো আপলোড বা আপডেট দিয়েছি। আরে হেডিং গুলো আমার এডিট অপশনে নাই। তাই লেখা গুলো হেডিং করতে পারিনি। কেন হেডিট অপশনগুলো আমার এডিট অপশনে নেই? আশা করি সমাধান করবেন। আমার আপডেট দেওয়ার পরে যদি আর কোন সমস্যা হয় তবে বিস্তারিত জানাবেন দয়া করে। আমি সংশোধন হয়ে নিব ইনশাআল্লাহ।

নির্দেশনা [০২]

প্রিয় টিউনার,

আপনার টিউনটি ‘টেকটিউনস টিউন গাইডলাইন’ অনুযায়ী হয়নি।

কারণ:

লিস্ট বেইসড টিউনে ফরমেটিং সঠিক হয়নি।

লিস্ট বেইসড টিউনে লিস্টের

  1. প্রতিটি আইটেমের হেডিং H2 হতে হয়।
  2. প্রতিটি আইটেমের ক্রমিক নম্বর থাকতে হয় এবং প্রতিটি আইটেমের ক্রমিক নম্বর টেকটিউনস গাইডলাইন ফরমেট অনুযায়ী হতে হয়।
  3. প্রতিটি আইটেমের হেডিং এর অধীনে, আইটেমের সাথে প্রাসঙ্গিক, আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করে এমন ও ‘টেকটিউনস কপিরাইট ম্যাটেরিয়াল গাইডলাইন’ অনুসরণ করে ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ থাকতে হয়।
  4. প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ গুলো H2 হেডিং এর ঠিক নিচে থাকতে হয়। অর্থাৎ H2 হেডিং এর ঠিক পরেই প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ থাকতে হয়।
খেয়াল রাখুন

১. টিউনে H2, H3 বা H4 সহ যে কোন হেডিং কখনও বোল্ড করা যায় না ও লিংক করা যায় না।

২. লিস্ট বেইসড টিউনে প্রতি আইটেমের ক্রমিক নম্বর থাকতে হয়।

লিস্ট বেইসড টিউনে প্রতি আইটেমের ক্রমিক নম্বর বাংলা নিচের ফরমেটে থাকতে হয়।

১. আইটেম ১
২. আইটেম ২

এখানে প্রথমে বাংলা ক্রমিক নম্বর, তারপর একটি ডট, ডটের পর স্পেস তারপর আইটেমের নাম।

লিস্ট বেইসড টিউনে লিস্টের প্রতি আইটেমে হুবহু এই ফরমেটে ক্রমিক নম্বর থাকতে হয়।

উদারহরণ সরূপ টিউন ১,টিউন ২, টিউন ৩ লক্ষ করুন।

এখানে লিস্ট বেইড টিউনে লিস্টের

  1. প্রতিটি আইটেমের হেডিং H2 রয়েছে।
  2. প্রতিটি আইটেমের ক্রমিক নম্বরের ফরমেট টেকটিউনস গাইডলাইন অনুসরণ করে রয়েছে।
  3. প্রতিটি আইটেমের হেডিং এর অধীনে, আইটেমের সাথে প্রাসঙ্গিক, আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করে এমন ও ‘টেকটিউনস কপিরাইট ম্যাটেরিয়াল গাইডলাইন’ অনুসরণ করে ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ রয়েছে।
  4. প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ গুলো H2 হেডিং এর ঠিক নিচে অর্থাৎ H2 হেডিং এর ঠিক পরেই প্রতিটি আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করা ছবি/স্ক্রিনসট/ইমেইজ রয়েছে।

করণীয়:

গাইডলাইন অনুযায়ী সংশোধন করুন।

উপরের নির্দেশিত সংশোধন করে এই টিউমেন্টের রিপ্লাই দিন।

খেয়াল করুন, এই টিউমেন্টের রিপ্লাই বাটনে ক্লিক করে রিপ্লাই না করে টিউনে টিউমেন্ট করলে তার নোটিফিশেন ‘টেকটিউনস কন্টেন্ট অপস’ টিম পাবে না। তাই অবশ্যই এই টিউমেন্টের রিপ্লাই বাটনে ক্লিক করে রিপ্লাই করুন।

নির্দেশনা [০৩]

প্রিয় টিউনার,

আপনার টিউনটি ‘টেকটিউনস টিউন গাইডলাইন’ অনুযায়ী হয়নি।

কারণ:

টিউনে সঠিক রেজুলেশন ও সঠিক ডাইমেনশন এর ইমেইজ যোগ করা হয়নি।

টেকটিউনস টিউন গাইডলাইন অনুযায়ী টিউনে লো-রেজুলেশন ও লো ডাইমেনশন এর ইমেইজ যোগ করা যায় না।

টিউন গাইডলাইন অনুযায়ী লিস্ট বেইসড টিউনে লিস্টের প্রতিটি আইটেমের হেডিং এর অধীনে, আইটেমের সাথে প্রাসঙ্গিক, আইটেমকে রিপ্রেজেন্ট করে এমন ও ‘টেকটিউনস কপিরাইট ম্যাটেরিয়াল গাইডলাইন’ অনুসরণ করে ছবি/ইমেইজ থাকতে হয়।

লিস্ট বেইসড টিউনে লিস্টের প্রতিটি আইটেমের হেডিং এর অধীনে যোগ করা ইমেইজের ডাইমেনশন 1920X1080 px হতে হয়। লিস্ট বেইসড টিউনে লিস্টের প্রতিটি আইটেমের হেডিং এর অধীনে যোগ করা ইমেইজের ডাইমেনশন 1920×1080 এর বেশি বা ইমেইজের ডাইমেনশন 1920×1080 px এর বেশি কম হওয়া যায় না। ইমেইজের ডাইমেনশন Exact 1920×1080 px হতে হয়।

অর্থাৎ টিউনে যোগ করা ‘ইমেইজের Aspect Ratio’ Exact 16:9 ও ‘ইমেইজের ডাইমেনশন’ Exact 1920X1080 px হতে হয়।

করণীয়:

‘টেকটিউনস কপিরাইট ম্যাটেরিয়াল গাইডলাইন’ এ উল্লেখ করা Copyright Free এবং Royalty-Free Stock Photo সোর্স থেকে আপনার টিউনের সাথে প্রাসঙ্গিক ছবি/ইমেইজ খুঁজে বের করুন ও টিউনে Exact 1920×1080 px ডাইমেনশনে ছবি/ইমেইজ যোগ করুন।

যদি, টিউনের সাথে প্রাসঙ্গিক, আপনার খুঁজে পাওয়া ছবি/ইমেইজটি Exact 1920×1080 px ডাইমেনশনে না থাকে তবে ‘ইমেইজের Aspect Ratio’ Exact 16:9 ও ‘ইমেইজের ডাইমেনশন’ Exact 1920X1080 px রেখে রিসাইজ করে টিউনে যুক্ত করুন।

উদারহরণ সরূপ টিউন ১,টিউন ২ লক্ষ করুন:

টিউনে

  1. ‘টেকটিউনস কপিরাইট ম্যাটেরিয়াল গাইডলাইন’ এ উল্লেখ করা Copyright Free এবং Royalty-Free Stock Photo সোর্স থেকে টিউনের সাথে প্রাসঙ্গিক ছবি/ইমেইজ খুঁজে বের করে Exact 1920×1080 px ডাইমেনশনে ছবি/ইমেইজ টিউনে যুক্ত করা হয়েছে।
  2. Copyright Free এবং Royalty-Free Stock Photo সোর্সে খুঁজে পাওয়া ইমেইজটি Exact 1920×1080 px ডাইমেনশনে না থাকায় ‘ইমেইজের Aspect Ratio’ Exact 16:9 ও ‘ইমেইজের ডাইমেনশন’ Exact 1920X1080 px রেখে রিসাইজ করে টিউনে যুক্ত করা হয়েছে।

আপনার যদি ফটোশপ, ইমেইজ রিসাইজ, ইমেইজের Aspect Ratio, ইমেইজের ডাইমেনশন সর্বপরি গ্রাফিক্স এডিটিং সম্পর্কে বেসিক আইডিয়া না থাকে তবে ‘ইমেইজের Aspect Ratio’ Exact 16:9 ও ‘ইমেইজের ডাইমেনশন’ Exact 1920X1080 px রেখে ইমেইজ রিসাইজ করতে টিউনে সঠিক রেজুলেশন ও সঠিক ডাইমেনশন এর ইমেইজ রিসাইজ গাইডলাইন ও গাইডলাইনে উল্লেখিত টুল ব্যবহার করুন। টিউনে সঠিক রেজুলেশন ও সঠিক ডাইমেনশন এর ইমেইজ রিসাইজ গাইডলাইন ও গাইডলাইনে উল্লেখিত টুলের মাধ্যমে গ্রাফিক্স এডিটিং এর বেসিক না জানা থাকলেও খুবই সহজে ও দ্রুত ‘ইমেইজের Aspect Ratio’ Exact 16:9 ও ‘ইমেইজের ডাইমেনশন’ Exact 1920X1080 px রেখে ইমেইজ রিসাইজ করতে পারবেন।

খেয়াল করুন: আপনার যদি ফটোশপ, ইমেইজ রিসাইজ, ইমেইজের Aspect Ratio, ইমেইজের ডাইমেনশন সর্বপরি গ্রাফিক্স এডিটিং সম্পর্কে বেসিক আইডিয়া না থাকে তবে ‘ইমেইজের Aspect Ratio’ Exact 16:9 ও ‘ইমেইজের ডাইমেনশন’ Exact 1920X1080 px রেখে ইমেইজ রিসাইজ করতে অবশ্যই এবং অবশ্যই টিউনে সঠিক রেজুলেশন ও সঠিক ডাইমেনশন এর ইমেইজ রিসাইজ গাইডলাইন ও গাইডলাইনে উল্লেখিত টুল ব্যবহার করুন। আপনার যদি গ্রাফিক্স এডিটিং সম্পর্কে বেসিক আইডিয়া না থাকে তবে অন্য যে কোন অনলাইন বা অ্যাপ রিসাইজ টুল ব্যবহার করে ইমেইজ রিসাইজ করবেন না কেননা টিউনে সঠিক রেজুলেশন ও সঠিক ডাইমেনশন এর ইমেইজ রিসাইজ গাইডলাইন ও গাইডলাইনে উল্লেখিত টুলটি ইমেইজ রিসাইজ করতে ইমেইজের কোয়ালিটি যথা সম্ভব ঠিক রাখে এবং ইমেইজ রিসাইজ করতে ইমেইজকে Squeeze করে না।

আপনার যদি গ্রাফিক্স এডিটিং সম্পর্কে বেসিক আইডিয়া না থাকে তবে অন্য ইমেইজ রিসাইজ টুল দিয়ে ইমেইজ রিসাইজ করতে আপনার ‘ইমেইজের Aspect Ratio’ Exact 16:9 ও ‘ইমেইজের ডাইমেনশন’ Exact 1920X1080 px নাও হতে পারে এবং ইমেইজ রিসাইজ করতে ইমেইজ Squeeze হয়ে যেতে পারে। টেকটিউনস টিউন গাইডলাইন অনুযায়ী Squeezed ইমেইজ টিউনে যোগ করা যায় না।

নির্দেশনা মোতাবেক টিউনের সকল ইমেইজ ঠিক করুন।

উপরের নির্দেশিত সংশোধন করে এই টিউমেন্টের রিপ্লাই দিন।

খেয়াল করুন, এই টিউমেন্টের রিপ্লাই বাটনে ক্লিক করে রিপ্লাই না করে টিউনে টিউমেন্ট করলে তার নোটিফিশেন ‘টেকটিউনস কন্টেন্ট অপস’ টিম পাবে না। তাই অবশ্যই এই টিউমেন্টের রিপ্লাই বাটনে ক্লিক করে রিপ্লাই করুন।