২০২৩ সালের সেরা ফ্রি ওয়ার্ডপ্রেস থিম

টিউন বিভাগ ওয়ার্ডপ্রেস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

আপনি জেনে অবাক হবেন বর্তমানে ওয়ার্ডপ্রেসের এমন কিছু থিম ফ্রিতে পাওয়া যায় যা আপনার সাইটের এসইও স্কোর বাড়িয়ে দেবে বহুগুণ। 99 শতাংশ পর্যন্ত হবে আপনার বেশি থাকবে আপনার পেইজ স্পিড যা গুগলে র‌্যাঙ্ক করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যে থিমই ব্যবহার করুন না কেন আজকে যে থিমগুলোর কথা বলছি সেগুলো একবার চেষ্টা করে দেখতেই পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস এই সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (সিএমএস)। আপনি ওয়েব ডিজাইন কিংবা ব্লগিংয়ে একেবারেই নতুন? জানেন না ওয়ার্ডপ্রেস কি? তবে এখনই জেনে নিন। তবেই এই পোস্টটি আপনার জন্য খুব কাজে লাগবে। ওয়ার্ডপ্রেস এমন একটি  সিএমএস যা মূলত থিম নির্ভর।

ওয়ার্ডপ্রেস থিম কি?

ওয়ার্ডপ্রেস থিম হলো মূলত একটি ডিজাইন প্রিসেট বা টেমপ্লেট। আপনি যদি কোন ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান তবে তা ডিজাইন করতে হবে। ওয়ার্ডপ্রেস থিমই হলো মূলত সেই ডিজাইন। অর্থাৎ আপনি যখন ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করবেন তখন আপনাকে আলাদা করে ডিজাইন করতে হবে না। যে থিমটি আপনি ব্যবহার করবেন সেটিই হলো আপনার সাইটের মূল ডিজাইন। যেহেতু থিমের ভেতরে ডিজাইন করাই থাকে তাই আপনাকে শুধু কনটেন্ট আপলোড করলেই আপনার ওয়েবসাইট তৈরি হয়ে যাবে। তাহলে সহজ কথায় বললে ওয়ার্ডপ্রেসের ক্ষেত্রে একটি ওয়েবসাইটের ডিজাইন বা টেমপ্লেটকেই থিম বলা হয়। থিমে প্রচুর অপশন থাকে যা আপনি ইচ্ছেমতো কাস্টমাইজ করে আপনার প্রয়োজনমতো ডিজাইনের একটি ওয়েবসাইট আপনি বানিয়ে নিতে পারেন।

২০২৩ সালের সেরা ওয়ার্ডপ্রেস থিম কোনগুলো?

প্রতিদিন নতুন নতুন ওয়ার্ডপ্রেস থিম যুক্ত হচ্ছে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে। বিভিন্ন অথর বিভিন্ন ক্যাটাগরির থিম ডেভেলপ করছে। ব্যবসার ধরন অনুযায়ী প্রায় সব ধরনের ব্যবসার জন্য থিম পাওয়া যায় ওয়ার্ডপ্রেসে। তবে সব থিমই সমান গুরুত্বপূর্ণ নয়, সব থিমই সমান জনপ্রিয় নয়। ব্যবহারকারীর চাহিদা অনুযায়ী বিভিন্ন থিম বিভিন্ন সময় জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। কিন্তু কিছু থিম আছে যা সবসময়ই একই হারে জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছে। যে থিমগুলো সবদিক থেকেই ব্যবহারকারিকে সুবিধা দেয় সে থিমগুলোই সবসময় জনপ্রিয় থাকে। আপনাদের এমন কিছু থিম সম্পর্কে বলবো যেগুলো সবসময়ই জনপ্রিয়।

রিশি থিম

সম্প্রতি প্রকাশ হওয়া সবচেয়ে ক্ষমতাসম্পন্ন ওয়ার্ডপ্রেস থিম হলো রিশি থিম। গুগল র‌্যাঙ্কিংয়ের জন্য রিশি থিম টেকনিক্যালি সবচেয়ে বেশি উপযোগী। একটি ওয়েবসাইটের সব ধরনের শর্ত পূরণ করার পরও গুগলে র‌্যাঙ্ক পাওয়ায় যায় না। যদি ওয়েব সাইটের স্পিড ভালো না থাকে। রিশি থিম এমন একটি থিম যা ইনস্টল করার পর আপনার পেজ স্পিড অন্তত ৯০ তো হবেই।

অন্যান্য থিমে যত ধরনের সুযোগ সুবিধা আছে রিশি থিমেই কোনটিরই কমতি নেই। স্ক্রিপ্ট মিনিফাই, ট্রান্সপারেন্ট হেডার, হেডার ও ফুটার কাস্টমাইজেশন, কুকিজ কনসেন্ট এবং এসইওর সব প্যারামিটারও রয়েছে রিশি থিমে। এগুলো যথাযথভাবে কাস্টমাইজ করলে আপনার ওয়েব সাইট হবে সবচেয়ে ফাস্ট লোডেড ওয়েব সাইট। রিশি থিমে ডিজাইন করা ওয়েবসাইট লোড নিতে সময় লাগে ৫০০ মিলি সেকেন্ড। এ থিমটির ফ্রন্ট এন্ডের সাইজ মাত্র ৯০ কিলোবাইট।

সবচেয়ে মজার বিষয় হলো রিশি থিম ব্যবহার করলে আপনাকে অন্য কোন প্লাগইন ব্যবহার করার দরকার হবে না। আমরা সাধারণত ওয়েব সাইটের পারম্যান্স বাড়ানোর জন্য বিভিন্ন প্লাগইন ব্যবহার করি। সাধারণত অন্য যে কোন থিম ব্যবহার করলেই অনেক প্লাগইন ব্যবহার করার দরকার হয়। অন্য যে কোন থিমে প্লাগইন ব্যবহার করার পর সাইটের পারম্যান্স যেমন হয় রিশি থিম ব্যবহার করলে কোন প্লাগইন ছাড়াই সেরকম পারম্যান্স পাওয়া যায়। ব্লগ, পোর্টফোলিও, শিক্ষামূলক ওয়েবসাইট, এজেন্সি, ডিজিটাল মার্কেটিং ওয়েবসাইট এবং ই-কমার্স ওয়েবসাইটের জন্য রিশি থিম সবচেয়ে জনপ্রিয়।

এস্ট্রা থিম

ওয়ার্ডপ্রেসের অন্যতম জনপ্রিয় থিম হলো এস্ট্রা। এস্ট্রাতে রিশি থিমের মতো খুব বেশি সুযোগ সুবিধা না থাকলেও স্পিডের ক্ষেত্রে এস্ট্রা থিম সবচেয়ে বেশি কার্যকরী। এই থিম ১০০% স্পিড অপটিমাইজড। এ থিমের ওজন রিশি থিমের তুলনায় অনেক কম যা মাত্র ৩৭ কিলোবাইট।

ক্লিক করা মাত্রই এস্ট্রা থিমে ডিজাইন করা ওয়েবসাইট লোড হয়। এস্ট্রা থিমে যে সকল অপশন রয়েছে তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো পেজ স্পিড, ট্রান্সপারেন্ট হেডার, হেডার, ফুটার কাস্টমাইজেশন।

এস্ট্রা থিমের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো এতে রয়েছে এটি অন্যান্য থিমের চেয়ে কম সময়ে লোড হয়। ফলে আপনার ভিজিটর বিরক্ত হবে না। বাউন্স রেট অন্য থিমের তুলনায় কম থাকবে। এস্ট্রাতে রয়েছে প্রচুর পেজ লেআউট যা ব্যবহার করে সহজেই ওযেব সাইট তৈরি করা যায়। তবে খারাপ দিক শুধু একটিই তা হলো এস্ট্রা রিশি থিমের চেয়ে অনেকটা বেশিই দামি।

ওশান ডব্লিউপি

ওশান ডব্লিউপি ওয়ার্ডপ্রেসের একটি সার্বজনীন থিম। এ থিম ব্যবহার করে যে কোন ধরনের ওয়েব সাইট তৈরি করতে পারবেন। অন্যান্য থিমের চেয়ে ওশান ডব্লিউপি সবচেয়ে বেশি ইউজার ফ্রেন্ডলি। সবচেয়ে বেশি কাস্টমাইজেরও অপশনও রয়েছে ওশান ডব্লিউপি থিমে।

আপনি চাইলে প্রত্যেক পেজের জন্য আলাদা আলাদা হেডার ডিজাইন করতে পারবেন এই থিম ব্যবহার করে। ইচ্ছে মতো যে কোন পেজে বা নির্দিষ্ট কোন টিউনের ক্ষেত্রেও চাইলে সাইডবার যোগ করতে পারবেন এবং বাদ দিতে পারবেন। একটি থিমের সব অপশনের পাশাপাশি কাস্টম হেডার ও সাইডবার পাওয়া যায় এমন থিম প্রায় নেই চলে তাই আমি ব্যক্তিগতভাবে ওশান ডব্লিউপি থিমটি পছন্দ করি।

ওশান ডব্লিউ থিম হলো একমাত্র থিম যা ব্যবহারকারীর জন্য সবচেয়ে বেশি অপশন দিয়ে থাকে। নতুন ব্যবহারকারী হোক কিংবা অভিজ্ঞ ডেভেলপার, সবার জন্যই ওশান ডব্লিউপি খুব পছন্দের একটি থিম। তবে এর খারাপ দিক হলো এটি লোড হতে রিশি কিংবা এস্ট্রা থিমের চেয়ে একটু বেশি সময় লাগে। রিশি থিমের ক্ষেত্রে আমরা যা দেখি কোন প্লাগইন ব্যবহার না করলেও খুব দ্রুত লোড হয়। তবে দু:খজনক হলেও সত্য ওশান ডব্লিউপি থিমের সাথে হাতে গোনা কিছু প্লাগইন ব্যবহার করলেই এ থিমের পেজ স্পিড আশানুরূপ পাও য়ায়। অনেক বেশি কাস্টমাইজের অপশন থাকায় ওশান ডব্লিউপি থিমের দাম রিশি থিমের চেয়ে ‍তুলনামূলক একটু বেশি তবে এস্ট্রা থিমের চেয়ে অনেক কম।

ওয়ার্ডপেস মানেই থিম আর প্লাগইন। থিম ছাড়া ওয়ার্ডপ্রেস একেবারেই অর্থহীন। এছাড়া সহজেই কোন ওয়েবসাইট তৈরি করতে গেলে ওয়ার্ডপ্রেসেরও কোন বিকল্প নেই। তাই ওয়ার্ডপ্রেসে কোন ওয়েবসাইট তৈরি করতে হলে অবশ্যই আপনাকে কোন না কোন থিম ব্যবহার করতে হবেই। যেহেতু থিম ব্যবহার করতেই হবে তবে কেন ভালো থিমটি বেছে নিবেন না। উল্লেখিত তিনটি থিমের ফ্রি এবং প্রো ভার্সন আছে। ফ্রি থিম ব্যবহার করে অবশ্যই যাচাই করেও নিতে পারবেন আসলে কোন থিমটি আপনার জন্য উপযোগী।

ব্যক্তিগতভাবে যদি বলি তবে সাধারণ ওয়েবসাইটের জন্য আমি আপনাকে রিশি থিম ব্যবহারের পরামর্শ দিতে পারি। তবে যদি ই-কমার্স ওয়েবসাইট তৈরি করতে চান সেক্ষেত্রে অবশ্যই পরামর্শ থাকবে এস্ট্রা ব্যবহার করার। এই পোস্টটি আপনার কাজে লাগলে অবশ্য টিউমেন্টে জানাতে ভুলবেন না। আপনি কি জানতে চান ই-কমার্সের জন্য সেরা ওয়ার্ডপ্রেস থিম কোনগুলো? জানতে চাইলে টিউমেন্টে জানান। অবশ্যই খুব শিগগিরই নতুন টিউন পাবলিশ করবো আপনাদের জন্য সে পর্যন্ত ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন।

Level 1

আমি সারোয়ার আলম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 3 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 10 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

শুন্য থেকে যাত্রা শুরু, শুন্যেই হবে শেষ...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস