১০ টি জনপ্রিয় সফটওয়্যার যা এখন থেকে উইন্ডোজ স্টোরে পাওয়া যাবে !!

অবশেষে, প্রায় এক দশক পর মাইক্রোসফট তাদের উইন্ডোজ অ্যাপ স্টোর এর পরিচালনার প্রতি নজর দিল।অ্যাপল অ্যাপ স্টোর এর ৫ বছর পর মাইক্রোসফট তাদের অ্যাপ স্টোর ২০১২ সালে প্রথম জনগনের জন্য পাবলিকলি উন্মুক্ত করে।

উইন্ডোজ ৮ এর সময় উইন্ডোজ স্টোর থেকে ডাউনলোড করা অ্যাপলিকেশনে সিকিউরিটি রিস্ক,ফেক অ্যাপ এগুলো খুবই ভয়ংকর ইস্যু ছিলো। তবে এই বছরে উইন্ডোজ এর নতুন ১০ এস এর সাথে আসা উইন্ডোজ স্টোরে এরকম সমস্যা থাকবে না।

এই টিউনে ১০ টি জনপ্রিয় উইন্ডোজ অ্যাপলিকেশন উল্লেখিত করা হল - যা সম্পর্কে হয়ত আপনি জানেনই না তা উইন্ডোজ স্টোরে এভেইলেবল!!

মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫ পার্সোনালঃ

এই বছর উইন্ডোজ ১০ এস লঞ্চ করার সময়, মাইক্রোসফট অফিস ৩৬৫ এর উইন্ডোজ স্টোর ভার্সন লঞ্চ করে।এটা এতদিন কেবল সার্ফেস ল্যাপটপ ব্যবহারকারীদের জন্য উপলব্ধ ছিল। তবে তা এখন পরিবর্তিত হয়ে গেল। যেকেউ উইন্ডোজ স্টোর থেকে এই অফিস ৩৬৫ এর সাবস্ক্রিপশন কিনতে পারবে।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

গ্র্যান্ড থেফট অটোঃ স্যানএন্ডরেস

ইতিমধ্যে,অনেক ছোটকাট আরকেড টাইপের গেমস উইন্ডোজ স্টোরে বিদ্যমান। তবে স্যানএন্ডরেস এর মতন গেমস? এটি হল জিটিএ সিরিজের একটি ফুল ফিচারড পিসি গেমস। তবে হ্যা এটিও এখন উইন্ডোজ স্টোরে পাওয়া যাবে।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

উবুন্টুঃ

হ্যা আপনি উইন্ডোজ স্টোর থেকে লিনাক্স ভিত্তিক উবুন্টু অপারেটিং সিস্টেম ডাউনলোড করতে পারবেন। জুলাই মাসের মাঝামাঝি থেকে এটি উইন্ডোজ স্টোরে মিলছে।

  • দ্রুতগতির ডাউনলোডঃ স্টোরটির ব্লক-বেসড ডাউনলোড মেকানিসম এর মানে আপনাকে আর ঝুলে থাকতে হবে না ডাউনলোড এর জন্য।
  • সাইড বাই সাইড ডিস্ট্রোসঃ এখান থেকে উবুন্টুর কয়েকটি প্রকার ডাউনলোড করা যাবে, আর এগুলো পরস্পর থেকে থাকবে বিচ্ছিন্ন।
  • রান করুন মাল্টিপল ডিস্ট্রোঃ একই সাথে কয়কটি ডিস্ট্রো চালনা করতে পারবেন।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

কোডিঃ

উইন্ডোজ স্টোরে ওপেন সোর্স হোম থিয়েটার প্রোগ্রাম কোডি (Download) এর জন্য পাওয়া যাবে। এটি একটি মিডিয়া সফটওয়্যার যা ডিজাইন করা বড় মাপের ডিসপ্লে এর জন্য। আপনার মিডিয়া, সিনেমা এগুলো ব্রাউজ করার জন্য এটি সেরা একটি সফটওয়্যার হতে পারে।

কোডি প্রধানত পার্সোনাল মিডিয়া ফাইলগুলো এক্সেস করার জন্য একটি সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে আপনি আপনার ডিভাইস এর ডিজিটাল অডিও, ভিজুয়াল কনটেন্ট এগুলো এক্সেস করতে পারবেন সুন্দর এই প্লাটফর্মে।এটা বলতে গেলে আপনার কম্পিউটারের মিডিয়া সেন্টার। এটি একটি ফ্রী ও ওপেন সোর্স সফটওয়্যার। এর মাধ্যমে আপনার কম্পিউটারের সকল ডিজিটাল কনটেন্ট চলে আসছে; একটি সিঙ্গেল লোকেশনে। এটি সর্ব প্রথম ২০০২ সালে লঞ্চ করা হয়। এর নাম তখন ছিলো XBMP বা এক্স বক্স মিডিয়া প্লেয়ার। এটি এক্স বি এম পি নামেই বেশি পরিচিত ছিলো। তবে ২০০৪ সালে এই সফটও্যারটিকে পূর্নগঠন করা হয় এবং এর নাম হয়ে যায় Kodi।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

ডুয়োলিংগোঃ

আপনার মাতৃভাষার পাশাপাশি সেকেন্ড কোনো ভাষা শিখতে চান? তবে ডুয়োলিংগো (Diolingo) সফটওয়্যারটি আপনার জন্য। আপনি যদি এই সফটওয়্যারটি যথাযথ ভবে ব্যবহার করতে পারেন; তবে এটি আপনার জন্য খুবই দরকারী একটি টুল হিসেবে কাজ করবে। উইন্ডোজ স্টোরে আপনি এটিও পাবেন। এর মাধ্যমে আপনি ভোকাবুলারী, কাল(টেন্স), সেনটেন্স এগুলো শিখতে পারবেন।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

স্পটিফাইঃ

এটি একটি জনপ্রিয় মিউজিক স্ট্রিমিং সার্ভিস। এতে অনেক গুলো গানের ভালো এবং বড়সর একটি কালেকশন বিদ্যমান। এর ইউজার ইন্টারফেস যেমন সুন্দার,তেমনই এর মিউজিক ডিসকভারি টুলসটি খুবই কাজের!

স্পটিফাই একটি মিউজিক, পডকাস্ট,ভিডিও স্ট্রিমিং সার্ভিস। এটি অফিসিয়ালি লঞ্চ করা হয় ২০০৮ সালের ৭ ই অক্টোবর। এটি সুইডেন এ ডেভেলপ করা হয়। এটি মিডিয়া বা কনটেন্ট প্রোভাইডার কোম্পানি,রেকর্ড লেভেল এদের তথ্য সংরক্ষন অধিকার বা সহজ ভাষায় বলতে গেলে কপিরাইট নিশ্চিত করে। এটি একটি ফ্রীমিয়াম সার্ভিস। অর্থাত বলতে গেলে সম্পূর্ন ফ্রী নয়। বিজ্ঞাপন এর সাথে স্টোটিফাই এর বেসিক সুবিধাগুলো ফ্রী; আরো ফিচারস গুলো পেতে গেলে মাসিক সাবস্ক্রিপশন কিনতে হয়।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

পেইন্ট ডট নেটঃ

পেইন্ট ডট নেট হল মাইক্রোসফট পেইন্ট সফটওয়্যারটির জন্য মরন সংবাদ এবং মাইক্রোসফট পেইন্ট এর সেরা একটি বিকল্প। এটি এখনও উইন্ডোজ স্টোরে আসেনি : তবে শীঘ্রই চলে আসবে।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Coming Soon..

আই-টিউনস এবং অ্যাপল মিউজিকঃ

i-tunes মূলত অ্যাপেল কেন্দ্রিক, উইন্ডোজের জন্য আন রেস্পন্সিভ এবং স্লো হওয়ার কারনে উইন্ডোজ ব্যবহারকারীদের কাছে তেমন জনপ্রিয় না এটি। তাও মাইক্রোসফট এ বছরের মে মাসে জানিয়েছে ডিসেম্বর এর মধ্যে উইন্ডোজ স্টোরে এই I Tunes সফটওয়্যারটি পাওয়া যাবে।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Coming Soon..

এফ.লাক্স

এটি উইন্ডোজের জন্য একটি ডিসপ্লে ও কালার এডজাস্টমেন্ট প্রোগ্রাম। এটি আপনার পারিপার্শ্বিক আবহাওয়াগত অবস্হার ওপর ভিত্তি করে ডিসপ্লে কালার বেড়ে দিবে, স্ক্রীনে নীল, কালো টোন আসবে এবং বড় ডিসপ্লে এর জন্য স্ক্রীন এর এডজাস্টমেন্ট ঠিক করবে।

তবে হ্যা,নাইটলাইট এখন উইন্ডোজের স্ট্যান্ডার্ড একটি ইনবিল্ট ফিচার; তবে আপনি যদি আরও বেশী কিছু চান - তবে উইন্ডোজ স্টোর থেকে এই সফটওয়্যার নামিয়ে নিতে পারবেন।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

ফাইলবোট

আপনার কম্পিউটারের যাবতীয় মিডিয়া তথা; সিনেমা, গান,ভিডিও এসব অর্গানাইজ করার জন্য Filebot সফটওয়্যারটি আপনার কাজে আসবে। এটি এসবে অটোমেটিক মেটা-ডাটা,আর্টওয়ার্ক,সাবটাইটেল এসব যোগ করবে।

উইন্ডোজ স্টোরঃ Download

Level 6

আমি Durbar। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 5 বছর 10 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 266 টি টিউন ও 88 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 20 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

ভালোবাসি প্রযুক্তি নিয়ে লিখতে, ভালবাসি প্রযুক্তি নিয়ে ভাবতে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

windows store ছাড়া অন্য কোথাও পাওয়া যাবে?