যেসকল কারণে আপনার এখনই Windows 8.1 এ আপডেট করা উচিত

উইন্ডোজ ৮.১ রিলিজের পর থেকে প্ল্যান করছিলাম কবে নাগাত ইন্সটল দিতে পারবো। পর্যাপ্ত নেট স্পিড না থাকায় ডাউনলোড করার সাহস করে উঠেনি। হটাৎ করে এক ছোট ভাইয়ের কাছে গিয়ে দেখি সে ৮.১ চালায়। সাথে সাথে তার থেকে ব্যাকআপ ফাইল নিয়ে পিসিতে ইন্সটল দিই কাংখিত উইন্ডোজ ৮.১। আপনারা যারা এখনো উইন্ডোজ এক্সপি বা ৭ এর মধ্যে সীমাবদ্ধ আছেন, নতুন এই উইন্ডোজ ৮.১ আপনার কম্পিউটার বাবহারের অভিজ্ঞতাকে আরও এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে। কিভাবে? সেটাই জন্যই আজকের এই টিউন।

উইন্ডোজ ৮.১ এর আগের ভার্সনের তুলনায় অনেক বেশি ত্রুটিমুক্ত, যোগ করা হয়েছে অনেক এক্সট্রা ফিচার এবং টুলস। মাইক্রোসফট এর এই ভার্সন এখন মোবাইল, ট্যাবলেট, টাচ স্ক্রীন এবং ঐতিহ্যবাহী কম্পিউটার এ এক নতুন মাত্রা যোগ করেছে। আর আপনি কেবল মাত্র এর উল্লেখযোগ্য সুবিধা গুলো পাবেন আপগ্রেডের মাধ্যমে। তাহলে আপনি কেনই বা উইন্ডোজ ৮.১ ইন্সটল করবেন? চলুন দেখা যাক।

স্মার্ট সার্চ

স্মার্ট সার্চ

উইন্ডোজ ৮.১ এর স্মার্ট সার্চ এ আপনার কম্পিউটার এবং স্কাইড্রাইভ এর সার্চ রেজাল্ট এর পাশাপাশি বিং থেকেও প্রাসঙ্গিক রেজাল্ট শো করবে। তবে সব সার্চ এর ক্ষেত্রে এটি কাজ করবে না, এবং আপনি চাইলে এটি বন্ধ ও করে রাখতে পারেন। মিউজিক সার্চ লোকাল ট্রাক এর পাশাপাশি ওয়েব থেকে ব্যান্ড এর ইনফো শো করবে। এছাড়া ইমেজ সার্চ ও অনেকটা সুন্দর এবং সুবিধা জনক হয়েছে, ওয়েবসাইট প্রিভিউ টাও ভালো।

নতুন ও আরও উন্নত অ্যাপস

নতুন ও আরও উন্নত অ্যাপস

মাইক্রোসফট তাদের কিছু নিজেদের অ্যাপস যেমন, মেইল ও ফটোতে কিছু পরিবর্তন এনেছে। পাশাপাশি থার্ড-পার্টি ডেভেলপাররা ও তাদের গেমকে এখন উন্নত করতে শুরু করেছে। মাইক্রোসফট তাদের Netfix app কে আরও উন্নত করেছে। আপনি যদি বড় স্ক্রীন এ দেখেন তাহলে এটার তফাৎ বুজতে পারবেন। ডক অ্যাপস অথবা অ্যাপ ডকিং সিস্টেম কে আরও উন্নত করেছে মাইক্রোসফট। আপনি খুব সহজে একসাথে স্মার্ট স্ক্রীন ও ডেক্সটপ অ্যাপস পাশাপাশি রেখে ব্যবহার করতে পারবেন। তাছাড়া এখন আপনি বড় স্ক্রীনে তিন চারটি অ্যাপস কে একসাথে চালাতেও পারবেন।

ক্লাউড ক্যাপাবিলিটি

ক্লাউড ক্যাপাবিলিটি

মাইক্রোসফট তাদের স্কাইড্রাইভ নামের পরিবর্তন আনার পূর্বাভাস দিয়েছে। কিন্তু সার্ভিস আগের মতই রাখবে। মাইক্রোসফট তাদের ক্লাউড-বেসড  ফাইল সংরক্ষন পদ্ধতিকে আরও উন্নত করেছে উইন্ডোজ ৮.১ এ। এখান থেকে আপনি পাচ্চেন সিনক্রোনাইজড ও ব্যাকআপ সুবিধা এবং সহজে অনলাইন এ ফাইল শেয়ার করার সুবিধা। ড্রপবক্স ব্যবহার করেন না কে কে? যারা করেন তাদের জন্য একটি ফ্রী অফিসিয়াল ডেক্সটপ ও স্মার্ট স্ক্রীন  অ্যাপস র ব্যাবস্থা করেছে মাইক্রোসফট।

ডেক্সটপ ভিউ এখন আরও উন্নত

ডেক্সটপ ভিউ

উইন্ডোজ ৮.১ এর আগের ভার্সনের তুলনায় ডেক্সটপ ভিউকে আরও উন্নত করা হয়েছে। মাইক্রোসফট নিয়ে এসেছে নতুন একটি ডেক্সটপ ডিসপ্লে স্কেলিং ফাংশন যা আপনার ছোট কিংবা বড় স্ক্রীনের পারফরমেন্স কে বাড়িয়ে দিবে। । Computer পরিবর্তন করে যোগ করা হয়েছে This PC এবং রাইট-কিল্ক স্টার্ট মেনুতে কিছু অতিরিক্ত কমান্ড যোগ করা হয়েছে। আরও আকর্ষণীয় করা হয়েছে ডেক্সটপ ওয়ালপেপার। এছাড়া উইন্ডোজ ৮ যারা একদম বামের নিচের কোণায় স্টার্ট বাটন এর অভাব অনুভব করতেন তাদের জন্য উইন্ডোজ ৮.১ এ নতুন এই স্টার্ট বাটন যোগ করা হয়েছে। এটা শুধু মাত্র স্টার্ট বাটন, স্টার্ট মেনু না। স্টার্ট বাটনে  যোগ করা হয়েছে সাট ডাউন অপশন যার সাহায্যে  সাট ডাউন, রি-স্টার্ট, স্লিপ করে নিতে পারেন সহজে।

আরও কাস্টমাইজেশান

কাস্টমাইজেশান

এখন আপনি উইন্ডোজ ৮ থেকে আপনার স্মার্ট স্ক্রীন কে আরও বেশি  করে কন্ট্রোল করতে পারবেন। এটিতে রয়েছে অনেক কালার ও ব্যাকগ্রাউন্ড পছন্দ করার ব্যাবস্থা, রয়েছে লক স্ক্রীনে স্থির ছবির পরিবর্তে স্লাইডশো ছবির ব্যাবস্থা। এমনকি আপনি স্মার্ট স্ক্রীন এর পরিবর্তে অ্যাপস পেজও দিয়ে রাখতে পারেন। এছাড়া ডেস্কটপে hot corners নামে একটি ফাংশন যা আপনার সুবিধা মত পরিবর্তন করতে পারেন।

ডেস্কটপে বুট করুন সরাসরি

ডেস্কটপে বুট

এখন আপনি সহজে আপনার ডেক্সটপ কে বুট করতে পারেন। মানে উইন্ডোজ চালু করার সাথে আপনি সরাসরি আপনার ডেস্কটপে যেতে পারবেন। কোন স্মার্ট স্ক্রীন এর ঝামেলায় জড়াতে হবে না। যদিও উইন্ডোজ ৮ এ  ধরনের কোন অপশন ছিল না। এমনকি আপনি একই ওয়ালপেপার আপনার ডেক্সটপ ও স্মার্ট স্ক্রীন এ একসাথে ব্যবহার করতে পারেন। এখানে আপনি যদি ট্যাবলেট ব্যবহারকারী হন তাহলে স্মার্ট স্ক্রীন এ থাকাই ভালো। আর কম্পিউটার ব্যবহারকারীরা সরাসরি ডেক্সটপ এ বুট করতে পারেন।

বেটার স্টোর

বেটার স্টোর

যখন এটি প্রথম নিয়ে আনা হয়েছিল তখন উইন্ডোজ ৮ স্টোর এতটা সম্পূর্ণ ছিল না। কিন্তু উইন্ডোজ ৮.১ স্টোর কাজে ও দেখতে দুটোতেই অনেক এগিয়ে। সব সফটওয়্যার কে একই স্থানে রেখে কাজ করতে পারবেন এবং রয়েছে সয়ংক্রিয় অ্যাপস আপডেটের সুবিধা। স্টোরে যোগ করা হয়েছে নতুন লুপ সাথে আছে বিভিন্ন অ্যাপসের বর্ণনা ও রেটিং যার মাধ্যমে আপনার পছন্দের সেরা সেরা প্রোগ্রাম ও গেমসকে বেছে নিতে পারেন সহজে।

স্কাইপ ও ফেসবুক

স্কাইপ

সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং কে আরও  একধাপ এগিয়ে এনেছে উইন্ডোজ ৮.১। স্কাইড্রাইভের মত এটিতে যুক্ত হয়েছে বর্তমান সময়ের দুটি জনপ্রিয় অ্যাপস ফেসবুক ও স্কাইপ। মানে একাধারে আপনি স্কাইপ এ ভিডিও কলিং, অডিও কলিং এবং ইনস্ট্যান্ট মেসেঞ্জিং করার পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ফেসবুকে কানেন্ট থাকতে পারবেন সহজে। এছাড়াও উইন্ডোজ ৮.১ এ যুক্ত হয়েছে পিপল(people) নামে একটি প্রি-ইন্সটলড অ্যাপস যার মাধ্যমে বিভিন্ন যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে যুক্ত থাকতে পারেন।

সহজ কনফিগারেশন

সহজ কনফিগারেশন

বেশিরভাগ টেক-পাগল যারা তাদের কম্পিউটার এ বিভিন্ন সেটিংস নিয়ে ঘাটাতে পছন্দ করে তারা হয়তো উইন্ডোজ ৮ এ সেটা মিস করেছেন। কারন উইন্ডোজ ৮ এর পিসি সেটিংস ও সুপরিচিত কন্ট্রোল প্যানেল মিলে একটি জগাখিচুড়ি করে ফেলেছে। কিন্তু উইন্ডোজ ৮.১ এর সেটিং অ্যাপ টি খুবি বিস্তৃত। সুতরাং অধিকাংশ সেটিং উভয় জায়াগাতেই রয়েছে আর আপনার পিসি কে কাস্টমাইজ করা আরো সহজ হয়ে গেছে।

ফিউচার টেক

ফিউচার টেক

মাইক্রোসফট তাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা মাথায় রেখে উইন্ডোজ ৮.১ এ  কিছু ছোট ছোট জিনিসের উন্নতিসাধন করেছে মাইক্রোসফট। উইন্ডোজ ৮.১ এ রয়েছে 3D প্রিন্টিং করার ক্ষমতা, রয়েছে Wi-Fi সাপোর্টের মাধ্যমে সরাসরি পেইন্ট অ্যাপস থেকে কোন ড্রয়িং প্রিন্টারে প্রিন্ট করার সুবিধা।

উইন্ডোজ ৮.১ নিয়ে আর জানতে মুশফিকুস সালেহীন ভাইয়ের নির্বাচিত এক্সক্লুসিভ টিউনটি দেখে আসতে পারেন।

তাহলে কেন আপনি উইন্ডোজ এক্সপি বা সেভেনে আঁটকে থাকবেন! চলে আসুন উইন্ডোজ ৮.১ এ আর উপভোগ করুন দারুণ সব ফিচার। অনেক বর্ণনা দিয়ে ফেলেছি। অন্য একদিন অন্য কিছু নিয়ে হাজির হব। সবাইকে ধন্যবাদ ধৈর্য সহকারে পড়ার জন্য।

ফেসবুকে

আমি

Level 0

আমি রনি সাটিয়ার। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 13 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 16 টি টিউন ও 573 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

দারুন লিখেছেন রনি ভাই। শুভকামনা রইলো!

আমি উইন্ডোজ ৮.১ ব্যবহার করছি, আসলেই অনেক জোস! এর নতুন ফিচার গুলো আমার খুবি ভালো লেগেছে। আর উইন্ডোজ ৮.১ এ এক্সপি বা সেভেন থেকে খুব কম ভাইরাস এটাক করতে পারে।

আর এটি এক্সপি বা সেভেন থেকে খুবি পাতলা…

    @কম্পিউটার লাভার: আপডেট ফিচার গুলো আসলেই কাজের। ধন্যবাদ টিউমেন্ট এর জন্য। তোমারদের টিউমেন্ট পেলে টিউন করার ইচ্ছা আরও বেড়ে যায়।

Level New

What About Gaming? Windows 8 Game er jonne baje silo tai 7 a phire ashsi. 8.1 er gaming performance kemon? + game a problem kore kina? like windows 8 a Bully Se, Rise of nations etc game a problem korto. graphics error korto.

    @saif_precio: আমি নিজে তেমন গেম-টেম খেলি না। তাই কোন অভিজ্ঞতা নাই। আপনার পরিচিত কারো পিসিতে বা আপনার টাতে ট্রাই করে দেখতে পারেন। ধন্যবাদ আপনাকে।

    @saif_precio: আমি বুলি খেলেছি উইন্ডোজ ৮ এ সমস্যা করে নি। তবে হ্যা, উইন্ডোজ ৮ এ ড্রাইভার নিয়ে কিছু সমস্যা করতো। ৮.১ এ কোন সমস্যা করে না। আপনি ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

      Level 0

      @কম্পিউটার লাভার:
      আমাকে একজন বলল ল্যাপটপে নাকি সব ড্রাইভার পায়না, সেক্ষেত্রে .NET 3.5 এ নাকি convert করে নিতে হয়, যেহেতু জানালা ৮ এর .NET 4.5
      এ ব্যপারটা একটু ক্লিয়ার করেন।
      -ধন্যবাদ।

Level 0

ফাটাফাটি হয়েছে । ভালো লাগলো উইন্ডোজ ৮.১ ফিচার গুলো ।অনেকদিন থেকেই আশা আছে উইন্ডোজ ৮.১ ব্যবহার করব । কিন্তু আপনার টিউন পড়ে ইচ্ছাটা আরো বেড়ে গেল। আমার ১জিবি র্যাম, ইনটেল কোর ২ ডুয়েল প্রসেসার স্পিড ১.২ গিগা তো আমি কি উইন্ডোজ ৮.১ ভালো চালাতে পাড়ব ?
বর্তমানে আমি এক্সপি ও সেভেন দুটোই চালাই । আর কারো কাছে ৮.১ এর হাইলি কমপ্রেষ্ড ফাইল থাকলে দিতে পারেন।
ধন্যবাদ

@saif_precio: vai apni online benchmarking site gula dekhen. Win 7 e win8.1 theke samano fps beshi paoya jai. Tasara r sob ekoi. Esara win7 theke win 8.1 multitasking valo pare. Apni nije ekbar try kore dekhen na.

    @অনিক: আপনাকে ধন্যবাদ সাহায্য করার জন্য। 🙂

    Level New

    @অনিক: ebar windows 8.1 download kori. but ami shunesilam. jader Windows 8 pro ase tara naki direct upgrade korte parbe? eta ki true?

      Level 2

      @saif_precio: আমি তোশিবা ল্যাপটপে অরজিনাল উইন্ডোজ 8 ব্যবহার করতাম। আমি তিনদিন আগে আপগ্রেট করেছি ষ্টোরথেকে ফ্রি। কোন প্রকার ঝামেলা হয় নাই। আপনি চেষ্টা করে দেখতে পারেন। তবে আপগ্রেট করার আগে আপনি ব্যাকআপ নিয়ে নিবেন। ধন্যবাদ টিউনারকে। ধন্যবাদ টেকটিউনসকে।

        @kabirul: আপনি অরিজিনাল উইন্ডোজ ব্যবহার করে শুনে ভাল লাগলো। কিনার ক্ষমতা নাই। 🙁

      @saif_precio: হ্যা সরাসরি আপগ্রেড করতে পারবে। কিন্তু আমরা পারবো না। কারন আমাদের উইন্ডোজ ৮ KMS দিয়ে একটিভ করা। সরাসরি ইন্সটল করাটাই ভালো।

        Level New

        @কম্পিউটার লাভার: Amar ta ekta command diya active kora 😀 problem nai. 8.1 download diyesi. morning er moddhe hoye jabe.

Level 0

রনি ভাই সব তো ভালো লাগলো। এর সেটআপ ও জোগার করে নিয়েছি কিন্তু activator কোথায় পাই তুমিই বল। এটা না হলে যে সব টিউন বেকার।

Level 0

চমৎকার টিউনের জন্য ধন্যবাদ ভাইয়া ! ৩ জিবি ডাউনলোড দিতে ভয় লাগে, অ্যাকটিভেট করতে কি না কি ঝামেলা আছে বলে !!! এ ব্যাপারে সাহায্য করলে উপকৃত হতাম ।

    @Skylark: একটিভেট করতে কিছুটা ঝামেলা, তবে একটিভেট হয়। ঝামেলা বলতে একটু কঠিন বলতে পারেন।

      Level 0

      @কম্পিউটার লাভার: অ্যাকটিভেট করা নিয়ে বিস্তারিত একটা টিউন করেন না ভাই, তাহলে বাংলার আপামর জনসাধারন উপকৃত হতো ! 🙂

    @Skylark: facebook e janala 8 grupe add hon, okane help korar jonno loker avav hobe na. Link-
    http://www.facebook.com/groups/502863303070823?refid=27

Level 0

দারুন টিউন!
আমি Windows 8 Pro ব্যাবহার করি যেটা একটিভেট করা হয়নি। এখন খুবই প্রবলেম দিচ্ছে। ২ মিনিট পর পর একটিভেশন এলার্ত দিচ্ছে। তাই ঠিক করলাম Windows 8.1 এ আপগ্রেড করব। কিভাবে করলে ভাল হবে? সরাসরি ইন্সটল করব নাকি Windows Store থেকে আপগ্রেড করব? কোন লিঙ্ক থাকলে প্লীজ শেয়ার করুন।

    @Shamir: উইন্ডোজ স্টোর থেকে আপডেট করলে সরাসরি ৮ থেক ৮.১ আসতে পারবেন। কিন্তু অরিজিনাল উইন্ডোজ কিনতে হবে। তাই ক্রাক ইন্সটল করলে ভাল হবে। https://www.facebook.com/groups/janala8/ হেল্প নিতে পারেন।

AMI 8 PRO… BT KAL LINX DIBO INSHALLAH.. 😛

windows 7 এর সাথে কিভাবে ডুয়াল বুট করব, বললে ভাল হত 🙂

    Level New

    @হিরন্ময়: partition manager diye c: drive er sathe ekta b drive ba. je kono jaygay te ekta drive create korun. then oitay windows 8 install koren. its simple. partition korar jonne minitool partition wizard use kore paren.

vai ami windows 7(64bit)original proffessional version chalai.ami kivabe os 8.1 a update korbo?r jodi update na korte pari tobe ki ami windows 8.1 install korar por amar genuine os 7 activation key os 8.1 a kaj korbe?

Level 0

Vai,ami windows 8.1 ar disk kinsi.
install korar por windows active korbo kivabe???

আমি অরিজিনাল উইনডোস ৮ ব্যবহার করি। ৮.১ রিলিজ হওয়ার পর সাথে সাথে আপডেট করে নিয়েছি। সব কিছুই ঠিক আছে কিন্তু সমস্যা দেখা দিয়েছে ইন্টারনেট ব্যবহার করার সময়। আমি যখন ইউটিউব ব্যবহার করি তখন ৮/১০ মিনিট পর অটোমেটিক ল্যাপটপ ডিসকানেক্ট হয়ে যায়। রিস্টার্ট দিলে আবার কানেক্টেড হয়।সহ্য করতে না পেরে আবার ডাউনগ্রেড করলাম। এখন সবকিছু আগের মত ঠিক। বুঝতে পারিনি কেন এমন হলো। বলা বাহুল্য ল্যাপটপে কোন ভাইরাস ছিলনা।

    @রিজভী: আমার ব্রডব্যান্ড কানেকশান এ কোন ঝামেলা করে নি। সব কিছু ঠিক আছে।

মির্জা জাহিদ ভাইয়ের সহায়তায় স্কাইপি দিয়ে এ্যাক্টিভেশন সম্পন্ন করে 8.1 ব্যবহার করছি। আমার কাছে তো ভিষন ভালো লাগছে। বিশেষ করে বাপের উপকার করেছে যে ফিচারটি তার নাম আমি জানিনা। ফিচারটি হলো উইন্ডোজ 8 এ একই সার্ভরে ল্যান দ্বারা সংযুক্ত পিসিতে ঢুকতে (উক্ত পিসির আইপি দিয়ে) আমার পিসিতেও আইপি থাকা মাষ্ট ছিলো কিন্তু 8.1 এ আমার পিসিতে আইপি না বসিয়েও অন্যান্য এক্সপি বা সেভেন এ ঢুকতে পারছি। অনুভূতি 😉 কি আনন্দ আকাশে বাতাসে 😀 এতোদিন কোথায় ছিলে । টিউনের জন্য ধন্যবাদ। বাই দ্যা ওয়ে 8.1 এর সবচেয়ে নির্ভযোগ্য এ্যাক্টিভেশন হলো স্কাইপি অ্যাক্টিভেশন। আমি এই গ্রুপের সহায়তায় সফল। আপনি চাইলে ওদের সাহায্য নিয়ে এ্যাক্টিভেশন করতে পারেন। https://www.facebook.com/groups/janala8/

    @মোহাম্মদ খালিদ হোসাইন: ঠিকই বলেছেন খালিদ ভাই। স্কাইপ মেথড হল সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য পদ্ধতি। কিন্তু আমি এখন একটিভেট করি নি। 🙂 ধন্যবাদ আপনার টিউমেন্ট এর জন্য।

Level 1

vhai windows 8.1 pro or enterprise er modde konta valo. plz janaben.

    @polash: উইন্ডোজ এন্টারপ্রাইজ থেকে প্রো তে কিছু ফিচার বেশি পাবেন। ইন্সটল যখন করবেন তখন প্রো ইন্সটল করাটাই ভাল মনে হয় আমার কাছে। ধন্যবাদ আপনার টিউমেন্ট এর জন্য।

আমি গতকাল উইন্ডোজ ৮.১ সেটআপ দিলাম। ২টা বিষয় বুঝতাছি না, মাদারবোর্ডের ড্রাইভার আর গ্রাফিক্স দেয়া লাগে নাই। কিন্তু আসলে কি সেটা দেয়া উচিত? মানে গ্রাফিক্স আর সাউন্ড কি আরও ভালো পাবো নাকি এই নিয়ে নিয়েছে আপডেট ড্রাইভার? আর একটি হচ্ছে এর বিল্টইন স্কাইপ এ লগইন করলে লগআউট হতে চায় না।