ওয়েব ডিজাইনের ভবিষ্যৎ কি আসলেই সমৃদ্ধ?

Level 4
Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর

আসসালামু আলাইকুম। টেকটিউনস এর নতুন একটি টিউনে আপনাকে স্বাগতম। বরাবরের মতো, আমি স্বপন আছি আপনাদের সাথে। আমরা প্রায়শই আমাদের মূল্যবান সময় গুলো নষ্ট করে থাকি, মোবাইল স্ক্রল করতে গিয়ে। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে স্কিল শিখা কতটা জরুরি, তা আমরা সঠিক সময়ে বুঝতে পারি না। তো, আজকে আমরা কথা বলব কীভাবে একজন প্রফেশনাল ওয়েব ডিজাইনার হওয়া যায়। তো বন্ধুরা মূল কথায় আশা যাক।

তো বন্ধুরা, আপনাদের মনে প্রশ্ন আসতেই পারে ওয়েবসাইট কী?ওয়েবসাইট হলো কয়েকটি ওয়েবপেজের সমন্বয়। যেমন আপনি আমাদের ট্রিক নিউ ডট কমে এসে আর্টিকেলটা পড়ছেন, এটাও একটা ওয়েবসাইট। আজকে আমরা কথা বলব, ওয়েবসাইট কীভাবে ডিজাইন করা যায়? আপনারা বলতে পারেন যে, ওয়েব ডিজাইনার হয়ে কি আসলেই অনেক টাকা ইনকাম করা সম্ভব?

উত্তর হলো: জি, হ্যাঁ সম্ভব।

ওয়েব ডিজাইন বলতে কোন একটি ওয়েবসাইট এর ডিজাইন বা নকশা করাকে বুঝায়। যা ইন্টারনেট ব্রাউজারকারীরা কোন একটি ওয়েব সাইটে ঢুকে দেখতে পারে, ওয়েবসাইট টা কত সুন্দর। এ কাজটা যারা করে থাকে তাদেরই বলা হয় ওয়েব ডিজাইনার। ওয়েব ডিজাইন হলো ওয়েব ডেভেলপমেন্টের একটি গুরুত্বপূর্ণ ধাপ। এটির মাধ্যমে আপনি ব্যবহারকারীদের জন্য আকর্ষণীয় এবং ব্যবহারযোগ্য ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারেন। এ জন্য আপনাকে প্রথমেই শিখতে হবে এইচটিএমএল। html এর পূর্ণরূপ হলো Hyper Text Tranfer Proocol এবং সিএসএস ক্যাসক্যাডিং স্টাইল শিট। কারণ, একটি ওয়েবসাইটের মূল কাঠামো তৈরিই হয় এইচটিএমএলের মাধ্যমে। তাই এইচটিএমএলে থাকা বিভিন্ন ট্যাগের ব্যবহার জানা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

১. ওয়েব ডিজাইনারদের কাজ

যদিও একজন ওয়েব ডিজাইনারকে তার কাজের সৌন্দয্য বাড়ানোর জন্য অনেক ধরনের কাজই করতে হয়। তবুও ওয়েব ডিজাইনারদের কাজ মূলত ২ ধরনের। একজন সফল ওয়েব ডিজাইন মূলত নিম্নের দুটি উপায়ে ওয়েব ডিজাইন কার্যক্রম ভাগ করে নিয়ে তারপর কাজ করেন। কাজগুলো হলোঃ

  1. ফ্রন্ট-ইন্ড ডেভলপিং
  2. ব্যাক-ইন্ড ডেভলপিং।

ফ্রন্ট ইন্ড ডেভলপিং কোনো ওয়েবসাইটের বাইরের যে অংশটি আমাদের কাছে দৃশ্যমান অর্থাৎ, ক্লায়েন্ট সাইড, সে অংশটি নিয়ে কাজ করে। আপনি যদি যেকোনো একটি মার্কেটপ্লেসে যান যেমন ধরেন (ফাইবার) ওখানে গিয়ে যদি লেখেন আপনার ফ্রন্ট ইন ডেভেলপার দরকার, তাহলে আপনি দেখবেন হাজার হাজার মানুষ এই স্কিলে পারদর্শী হয়ে বসে আছে, এবং সাথে সাথে দেখবেন যে হাজার হাজার মানুষ এরকম স্কিল ফুল মানুষদেরকে খুঁজছে কাজ দেওয়ার জন্য।

ব্যাক এন্ড ডেভেলপমেন্ট ওয়েবসাইটের ভিতরের অদৃশ্যমান বা সার্ভার অংশটি নিয়ে কাজ করে। আর ফুল-স্ট্যাক ডেভেলপমেন্ট ফ্রন্ট এন্ড এবং ব্যাক এন্ড উভয়ের কাজই করে থাকে।

ওয়েব ডিজাইনার হতে কত সময় লাগবে তা নির্ভর করে বেশ কিছু বিষয়ের উপর। ডেভলপার হতে আপনার প্রায় চার মাস সময় লাগবে, কিন্তু অন্যান্য যে সকল মার্কেটপ্লেস আছে, ওই জায়গায় হাজার হাজার মানুষ এরকম স্কিলফুল মানুষদেরকে খুঁজছে হেল্প করার জন্য তাদের এজেন্সিতে। তাই আপনি যদি এই স্কিলটা শিখেন তাহলে আপনার একটি ভালো চাহিদা হবে মার্কেটপ্লেসে।

২. ওয়েব ডিজাইন শিখতে কত সময় লাগে?

যদি আপনার আগে থেকেই গ্রাফিক্স ডিজাইন, কোডিং, বা ওয়েব ডেভেলপমেন্টের অভিজ্ঞতা থাকে, তাহলে আপনি দ্রুত ওয়েব ডিজাইন শিখতে পারবেন। আপনি কত দ্রুত নতুন টপিকগুলি শেখেন এবং তা কতটা দ্রুত বাস্তবায়ন করতে পারেন তার উপর নির্ভর করে আপনার শেখা দ্রুত হবে। আপনার সময়ের প্রতি ডেডিকেশন আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য প্রতিদিন সময় ব্যয় করতে পারেন, তাহলে অনেক তাড়াতাড়ি শিখতে পারবেন। আপনি কোন মাধ্যমে ওয়েব ডিজাইন শিখছেন যেমন অনলাইন কোর্স, বই, টিউটোরিয়াল, ইত্যাদি। সাধারণভাবে, ওয়েব ডিজাইনের মূল বিষয়গুলি শিখতে 2-3 মাস সময় লাগে। ত। তবে একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হতে ৬ মাসের মতো লাগে।

টিপস এন্ড ট্রিকস বিভিন্ন কোডিং ভাষা শেখা, ওয়েব ডিজাইনের নীতিমালা সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করা, ওয়েব ডেভেলপমেন্টের প্রাথমিক ধারণা সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করা। এই সকল বিষয়গুলি শিখতে আরও 6-12 মাস সময় লাগতে পারে। তবে, মনে রাখতে হবে, ওয়েব ডিজাইন একটি চলমান প্রক্রিয়া। নতুন নতুন প্রযুক্তি এবং ট্রেন্ড আসছে প্রতিদিন। তাই, একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হতে হলে আপনাকে নিজেকে আপডেট রাখতে হবে। ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য অতিরিক্ত কিছু টিপস!

৩. নিজের লক্ষ্য নির্ধারণ করুন

একজন আদর্শ এবং দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে আপনাকে সর্বপ্রথম নিজের লক্ষ্যকে স্থির করতে হবে। আপনি আপনার জীবন থেকে অনেকটা সময় ব্যয় করে ওয়েব ডিজাইন শিখলেন কিন্তু আপনি কেন ওয়েব ডিজাইন শিখছেন? ওয়েব ডিজাইন শিখে কী করবেন? ওয়েব ডিজাইন নিয়ে ভবিষ্যৎ কেমন? এ সমস্ত বিষয়গুলো নিয়ে আপনি জানেনই না, তাহলে ভবিষ্যতে ওয়েব ডিজাইন নিয়ে নিজের ক্যারিয়ার গড়ে তোলা আপনার জন্য অনেক বেশি মুশকিল হয়ে যাবেন। এমনকি একটা সময় ওয়েব ডিজাইন নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে নিয়ে সফলতা না পাওয়ার কারণে আপনি হতাশায় ভেঙ্গে পড়বেন। তাই ওয়েব ডিজাইন নিয়ে নিজে ক্যারিয়ার বানাতে চাইলে শুরুতেই আপনাকে মনস্থির করতে হবে আপনি কেন ওয়েব ডিজাইন শিখতে চান? আপনি কি ফ্রিল্যান্সিং করতে চান? নাকি চাকরি করতে চান?

ওয়েব ডিজাইন শিখে কি আসলেই আপনি আপনার ক্যারিয়ারের জন্য ভালো কিছু করতে পারবেন? আপনি যখন এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তরের মাঝে নিজেকে খুঁজে পাবেন তখনই মনে করবেন আপনার লক্ষ্য একজন সফল ওয়েব ডিজাইনার হিসাবে নিজের ক্যারিয়ার গড়ে তোলার জন্য সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত। এভাবে আপনি যদি ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজের মাঝে শক্তভাবে নিজের লক্ষ্য নির্ধারণ এবং ওয়েব ডিজাইনকে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে নেওয়ার জন্য অনেক বেশি আগ্রহী হয়ে উঠেন কেবলমাত্র তখনই আপনি একজন সফল ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজের সফল ক্যারিয়ার গঠন করতে পারবেন। তাই অবশ্যই শুরুতে আপনাকে ওয়েব ডিজাইনার হওয়ার জন্য একটি নির্দিষ্ট লক্ষ্য নির্ধারণ করতে হবে।

৪. একটি শেখার পরিকল্পনা তৈরি করুন

এবার আপনি যখন নিজেকে সম্পূর্ণ রূপে ওয়েব ডিজাইন শেখার জন্য প্রস্তুত করে ফেলেছেন তখন আপনাকে শেখার জন্য আলাদা করে একটি পরিকল্পনা নির্ধারণ করতে হবে। কারণ কোন কাজর শুরুতে অবশ্যই পরিকল্পনা মত কাজ করা উত্তম। তাহলে উক্ত কাজে সফল হওয়ার চান্স অনেক অংশে বেড়ে যায়। যেহেতু আপনি একজন ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজের সফল ক্যারিয়ার সুষ্ঠুভাবে গড়ে তোলার জন্য পরিকল্পনা করছেন, সেহেতু আপনাকে অন্যান্য কাজের পরিকল্পনার তুলনায় আলাদাভাবে পরিকল্পনা সাজাতে হবে। এবার আমার মত আপনাদের মনে প্রশ্ন আসতে পারে, কীভাবে সফল ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজের ক্যারিয়ার গঠন করার জন্য কার্যকারী পরিকল্পনা গ্রহণ করা যায়?

পরিকল্পনা গ্রহণের প্রথম ধাপে বেশ কয়েকটি পদ্ধতি আপনাকে অনুসরণ করতে হবে। পরিকল্পনাগুলো অনেক ছোট হলেও বেশ কার্যকারী পরিকল্পনা হিসেবে ওয়েব ডিজাইন শেখার ক্যারিয়ারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। পরিকল্পনাগুলো হল, আপনি কীভাবে ওয়েব ডিজাইন শিখবেন? কী বিষয় শিখবেন? কত সময় ধরে শিখবেন? একজন সফল ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজেকে পরিচিতি দেওয়ার পর আপনি কোন প্লাটফর্মে কাজ করে নিজের ক্যারিয়ার গঠন করবেন এই সমস্ত বিষয়। এ বিষয়গুলো নিয়ে পরিকল্পনা তৈরি করার জন্য সবচেয়ে বেশি ফোকাস করবেন আপনি নিজের সময়টাকে। কোন সময় থাকতে পারবেন? কতটা সময় দিতে পারবেন? কোন সময়টা আপনার জন্য উপযুক্ত ইত্যাদি। এই সমস্ত কিছু যদি আপনি সুন্দর ভাবে মেইনটেইনেন্স করতে পারেন তাহলে ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজের সফল ক্যারিয়ার গঠন করার জন্য আপনি সম্পূর্ণ প্রস্তুত।

৫. অনলাইন রিসোর্স ব্যবহার করুন

আমরা অনেক সময় ইন্টারনেটে থাকি, এই ইন্টারনেটের মাধ্যমেই আমরা ওয়েব ডিজাইন শিখতে সক্ষম। ইন্টারনেটে ওয়েব ডিজাইন শিখাও প্র্যাকটিস করার জন্য প্রচুর রিসোর্স আছে। যেমন, অনলাইন কোর্স, বই, টিউটোরিয়াল, ইত্যাদি, এবং প্রচুর পরিমাণে প্র্যাকটিস করুন। বর্তমান বাজারে ওয়েব ডিজাইনের চাহিদা খুবই ব্যাপক। আপনি পৃথিবীর যেই কোন জিনিস শিখতে চান, যদি আপনার কাছে একটি ডিভাইস এবং ইন্টারনেট সংযোগ থাকে, তাহলে আপনার কাঙ্ক্ষিত বিষয়টি শিখতে সক্ষম হবেন। ইউটিউব এবং গুগল এর মাধ্যমে আমরা প্রায় অনেক কিছু শিখতে পারি আমাদের স্কিল গেইন করার জন্য। কথায় আছে টাকার পিছনে না ছুটে স্কিল এর পিছনে ছোটা উচিত। আপনার যদি স্কিল থাকে, পৃথিবীর যে কোনো স্থানে আপনি টাকা ইনকাম করতে সক্ষম হবেন।

অনলাইনে প্রচুর টিউটোরিয়াল আছে এবং ইউটিউব ও গুগল যেমন : wrox, apress পাবলিকেশনের অনেক ভালো ভালো বই আছে এখান থেকে শিখতে পারেন। এই সাইটেও প্রচুর রিসোর্স আছে। (অ্যাডভান্সড পিএইচপি,  ডেটাবেস ডিজাইন,  ডেটাবেস পিএইচপি,  OOPHP,  পিএইচপি ফ্রেমওয়ার্ক,  কোডইগনাইটার,  জেন্ট,  জুমলা,  SEO)

৬. ওয়েব ডিজাইনের চাহিদা

একজন সফল ওয়েব ডিজাইনার হওয়ার জন্য আপনি আপনার লাইফ থেকে অনেকটা সময় ওয়েব ডিজাইন শেখার বিষয়ে ব্যয় করে ফেলবেন। যেহেতু আপনি ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে নিজের সফল ক্যারিয়ার গঠন করার জন্য অনেকটা সময় ইনভেস্ট করছেন সেহেতু আপনার মনে প্রশ্ন আসতেই পারে, বর্তমানে মার্কেটপ্লেসে ওয়েব ডিজাইনারদের চাহিদা কেমন? আপনার মনের এই প্রশ্নের এক কথায় সহজ উত্তর দিতে চাইলে, বর্তমান সময়ে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনারদের চাহিদা প্রায় আকাশছোঁয়া। মার্কেটপ্লেস থেকে একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার হায়ার করতে চাইলে প্রতি ঘণ্টার জন্য আপনাকে দুই থেকে তিন হাজার টাকারও বেশি ইনভেস্ট করতে হবে। এত টাকা ইনভেস্ট করার পরেও অনেক সময় দেখা যায় একজন দক্ষ ও ওয়েব ডিজাইনার পাওয়া যায় না।

ওয়েব ডিজাইনে এখনো উচ্চ চাহিদা রয়েছে, এবং ভবিষ্যতেও এটি আরও গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে। আপনি যদি ওয়েব ডিজাইনে এক্সপার্ট হন, তাহলে আপনি ফ্রিল্যান্সিং এবং চাকরিও করতে পারবেন, এবং ভালো মানের টাকা ইনকাম করতে পারবেন। বিভিন্ন আইটি কোম্পানি ওয়েব ডিজাইনারদের হায়ার করে, এবং বৈশ্বিক বিশ্বে এখনো এর অনেক চাহিদা আছে।

তাহলে এবার আপনি নিজেই বুঝে নিন, অনলাইন মার্কেটপ্লেসে একজন সফল এবং দক্ষ ওয়েব ডিজাইনের চাহিদা কেমন! এখানে আরো একটি বিষয় কিছুক্ষণ আগে আমি বলেছিলাম একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনার প্রতি ঘণ্টায় হায়ার প্রাইজ প্রায় দুই থেকে তিন হাজার টাকা বেশি। তাহলে এবার আপনি ভাবতে থাকুন আর গুনতে থাকুন একজন দক্ষ এবং এক্সপার্ট ওয়েব ডিজাইনার মাসে কত টাকা ইনকাম করতে পারে। আমার বলা সবগুলো কথাই একদম সত্যি। হ্যাঁ, বর্তমান সময়ে অনলাইন মার্কেটপ্লেসে একজন দক্ষ আর অনেক বেশি অভিজ্ঞতা সম্পন্ন ওয়েব ডিজাইনারের চাহিদা প্রায় আকাশ ছোঁয়া। তাই আপনি ওয়েব ডিজাইনকে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে চাইলে নিশ্চিন্তে ওয়েব ডিজাইনের শিক্ষার কার্যক্রম শুরু করতে পারেন।

৭. ওয়েব ডিজাইনের ভবিষ্যৎ

ক্যারিয়ার হিসেবে ওয়েব ডিজাইন করা ক্যারিয়ারের জন্য কতটা সফল কার্যক্রম তা আশাকরি এতক্ষণের টিউন পড়ে আপনারা খুব ভালোভাবেই বুঝতে পেরেছেন। কোন একজন ব্যক্তি নিজেকে সফল কখন ভাবতে থাকেন? যখন তার কাছে অনেক টাকা থাকে, সফল ক্যারিয়ার হিসেবে কোন ভাল চাকরি যা করে তিনি মাস শেষে অনেক ভাল পরিমাণ অর্থ ইনকাম করেন। মানুষ তখনই নিজেকে পরিপূর্ণভাবে সফলভাবে যখন সে অন্য কারো প্রতি ভরসা না করে নিজেকে নিজে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আর্থিক, মানসিক এবং তার মৌলিক সকল চাহিদা নিজে নিজে পূরণ করতে পারে কেবলমাত্র তখনই সে ব্যক্তিকে একজন সফল ব্যক্তি হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

দিনে দিনে পৃথিবী ডিজিটাল হচ্ছে, মানুষ এখন ঘরকেই অফিস মনে করে কাজ করছে বহির্বিশ্বে। এই কাজকে রিমোট জব বলা হয়। বর্তমান যুগে Ai এর যুগ কিন্তু এখনো Ai ওয়েব ডিজাইন করতে অসক্ষম। যেহেতু ওয়েব ডিজাইনারদের এখনো অনেক চাহিদা আছে, তাই আগামী ১০-১৫ বছর এর চাহিদা থাকবে বলে বিশেষজ্ঞদের মতামত। মনে রাখবেন এটি একটি প্রেডিকশন, তাই এ ব্যাপারে চিন্তিত না হয়ে এই স্কিলটা শিখুন। কোন স্কিল এই ফেলে দেওয়ার মতো জিনিস না।

যদিও বর্তমান সময়টা Ai এর যুগ। তবে আপনি জানলে অবাক হবেন যে, Ai  নিজে নিজে স্বয়ংক্রিয় হবে স্বয়ংসম্পূর্ণ নয়। যার কারণে মানুষ Ai দ্বারা ওয়েবসাইট ডিজাইন করতে পারবে তবে মানুষ মানুষের চাহিদা মত উচ্চ আকাঙ্ক্ষা সম্পূর্ণভাবে মেটাতে পারবে না। কেবলমাত্র একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনাররাই পারে মানুষের চাহিদা অনুযায়ী যে কোন ডিজাইন তৈরি করে দিতে। যার কারণে আমি মনে করি প্রযুক্তির স্বয়ংক্রিয়ভাবে উন্নয়নের কারণেও ওয়েব ডিজাইনারদের তেমন কোন সমস্যা সম্মুখীন হতে হবে না। আমি মনে করি, দিন যত যাবে একজন দক্ষ ওয়েব ডিজাইনারের চাহিদা ও তত বেশি বৃদ্ধি পাবে। তাই আপনি নিশ্চিন্তে ওয়েব ডিজাইন প্ল্যাটফর্মকে নিজের ক্যারিয়ার হিসেবে নিতে পারেন।

৮. মার্কেটপ্লেসে ফ্রিল্যান্সিং

ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে আপনি মার্কেটপ্লেসে নিজের পোর্টফোলিও বানিয়ে এর মাধ্যমে আয় করতে পারেন। আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার ডটকম, ফাইভার ইত্যাদি মার্কেটপ্লেসে ওয়েব ডিজাইনের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে এখনো যা পজিটিভ সাইন। আপনি মার্কেটপ্লেস সাইটে আপনার কাজের বিবরণ দিয়ে গিগ সাজাতে পারেন এবং নিজের পোর্টফোলিওকে সবার সামনে উপস্থাপন করতে পারেন।

 আপনার কাজের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার মাধ্যমে নানা ধরনের বিগ প্রজেক্টে কাজ করতে পারবেন। ওয়েব ডিজাইন শিখে অনেক টাকা আয় করতে পারবেন মার্কেটপ্লেসের দ্বারা। শুরুর দিকে কাজ পেতে একটু সময় লাগতে পারে এবং বিষয়টা স্বাভাবিক। তবে আপনি যদি সঠিকভাবে আপনার কাজের দক্ষতাও পারদর্শিতা উপস্থাপন করতে পারেন তবে পরবর্তীতে খুব সহজেই কাজ পাবেন। অনলাইনে যত বেশি কাজ করবেন তত বেশি আপনার আয় বাড়াতে পারবেন। এখানে আয়ের নির্দিষ্ট কোনো পরিমাণ নেই।

শেষকথা

মানুষ প্রতিনিয়তই ওয়েবসাইট বানাচ্ছে। যতদিন মানুষ ওয়েবসাইট বানাবে ততদিনই ওয়েব ডিজাইনারদের দরকার। যদি আপনি ওয়েব ডিজাইনের এই স্কিলটা শিখতে চান, তাহলে আজকে থেকেই শুরু করে দিন। ওয়েব ডিজাইন নিয়ে যেকোনো সমস্যায় আমাদের ওয়েবসাইটে। টিউমেন্ট করুন, আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করব সাহায্য করার জন্য। আপনার উত্তরোত্তর সফলতা কামনা করছি। এছাড়াও আপনার কোন মতামত থাকলে তা অবশ্যই টিউমেন্ট বক্সে জানিয়ে যাবেন আপনার মতামতটি গ্রহণযোগ্য হলে তা অবশ্যই আমাদের টিউনে যুক্ত করে নেব।

তো বন্ধুরা, এই ছিল আমাদের আজকের টিউন, ওয়েব ডিজাইনের ভবিষ্যৎ কী আসলেই সমৃদ্ধ? আশাকরি টিউন টি আপনাদের একটু হলেও হেল্পফুল হবে। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি, দেখা হবে পরবর্তী টিউনে নতুন কোন বিষয় নিয়ে। ততক্ষণ অবধি সবাই ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন এবং টেকটিউনস এর সাথেই থাকবেন।

Level 4

আমি স্বপন মিয়া। Sonic টিউনার, টেকটিউনস, গাইবান্ধা, রংপুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 বছর 2 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 61 টি টিউন ও 28 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 3 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

টেকনোলজি বিষয়ে জানতে শিখতে ও যেটুকু পারি তা অন্যর মাঝে তুলে ধরতে অনেক ভালো লাগে। এই ভালো লাগা থেকেই আমি নিয়মিত রাইটিং করি। আশা করি নতুন অনেক কিছুই জানতে ও শিখতে পারবেন।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস