মাউসের উপর নির্ভরশীলতা কমান, আসুন কীবোর্ড দিয়ে কম্পিউটার পরিচালনা করি।(উইন্ডোজ এক্সপি)[আপেডেটড]

একবার ভাবুনতো যখন মাউস ছিলোনা তখন মানুষ কীভাবে কম্পিউটার চালাতো। এখনতো আমরা মাউস ছাড়া কম্পিউটার চালানোর চিন্তা মাথায় আনতেই পারি না। আমি আমার অনেক বন্ধুকে দেখেছি সামান্য কাজ যেটা কীবোর্ড দিয়ে করলে দ্রুত করা যায় সেটা মাউস দিয়ে করে। অনেকে তো খালি ফাইল/ফোল্ডার রিনেম করা ছাড়া কীবোর্ড ব্যাবহার করতেই চাননা। তাই আমি আমার সীমিত জ্ঞান দিয়ে শুধুমাত্র কীবোর্ড দিয়ে কম্পিউটার চালনা পদ্ধতি শেয়ার করছি।

কীবোর্ডের নিচের সারিতে দেখুন উইন্ডোজের লোগো সম্বলিত একটি কী আছে। একে উইন কী বলে। এই winkey+E চেপে উইন্ডোজ এক্সপ্লোরার ওপেন করা যায়। এরকম উইন কী –র কয়েকটি শর্টকাট হলোঃ

শর্টকাটফলাফল
Winkey+Fসার্চ
Winkey+Rরান
Winkey+Uইউটিলিটি ম্যানেজার
Winkey+Dডেস্কটপের সকল উইনোড মিনিমাইজ(২য় বার চাপলে পুনরায় ম্যাক্সিমাইজ হবে।)
Winkey+Lডেস্কটপ লক
Winkey+Mডেস্কটপের সকল উইনোড মিনিমাইজ

আপডেটঃ মিনহাজুল হক শাওন  ভাইয়ের সৌজন্যে আরও কিছু শর্টকাট নিচে দেওয়া হলোঃ

F1 = Help
F2 = Rename
F3 = Search (Any app, browser)
F4 = Navigate cursor to address bar
F5 = Reload (browser) or Refresh
Shift + F10 = Context menu
Ctrl + Shift + Esc = Task Manager
Win+Pause = System Properties
Win+G = Desktop Gadgets
Win+Tab = Toggle open windows

এবার চলুন একটি উইন্ডোর মেনুবার কীবোর্ড দিয়ে ব্যাবহার করতে শিখি। আপনি যদি উইন্ডোজ এক্সপ্লোরার এর মেনু বার (file, edit etc.) নিম্নের মত থাকে।

এবার কীবোর্ডের Alt বাটন চাপলে নিম্নের মতো করে দেখাবে।

ভালোভাবে দেখুন প্রতিাটি মেনুতে একটি করে letter এ আন্ডালাইন(_) আছে। যেমন File এর F  এ। এর মানে আপনি Alt+আন্ডারলাইনকৃত লেটার প্রেস করলে ঐ মেনু দেখা যাবে। যেমন View মেনুর জন্য Alt+V

মেনুতো ওপেন হলো। এবার দেখুন কয়েকটি শব্দের letter নিচে আন্ডালাইন(_)আছে। তবে এবার শুধুমাত্র আন্ডারলাইনকৃত  letter চাপলে ঐ কাজটি হবে। আর আপডাউন করার জন্য অ্যারো কী তো আছেই।

এবার উইন্ডো ক্লোজ করা সম্পর্কে জানি। Alt+F4 চেপে যে কোনো উইন্ডো ক্লোজ করা যায় এটা আমরা অনেকেই জানি। আরও একটি পদ্ধতি আছে। এ পদ্ধতিতে উইন্ডো ক্লোজ,মিনিমাইজ,মুভ, রেস্টোর ও ম্যাক্সিমাইজ করা যায়। এটা হচ্ছে টাস্কবার থেকে রাইট বাটন প্রেস করার বিকল্প। এজন্য Alt+স্পেস বার(space bar) চাপুন। দেখন বাম পাশের কর্ণারে একটি মেনু এসেছে। আগের মতই আন্ডারলাইনকৃত letter টি প্রেস করলে সেই অনুযায়ী কাজ হবে।  যেমন ক্লোজ করার জন্য Alt+Space+C ।

আমরা আবার ফাইল পেনড্রাইভে সেন্ড করতে পছন্দ করি। এজন্য ফাইলটি সিলেক্ট করে Space Bar এর ডান পাশে অবস্থিত Ctrl, Alt এর মাঝে একটি Contex Menu কী আছে। এটি চাপুন। এরপর নিচের চিত্রটা দেখুন।

ফাইল সম্পাদনার কয়েকটি কমান্ড(কমবেশি সবাই জানেন):

শর্টকাটফলাফল
Ctrl+Cকপি
Ctrl+Xকাট
Ctrl+Vপেস্ট
Ctrl+Fফাইন্ড/সার্চ
Alt+Enterফাইল/ফোল্ডার প্রোপারটিজ

এবার আমি কী করে কীবোর্ড দিয়ে মাউস  কিবোর্ড দিয়ে ব্যাবহার করতে হয় তা বলব।(ইতপূর্বে অবশ্য এ নিয়ে বেশ কয়েকটি টিউন হয়েছে। তারপরও আমি আমার নিজের মত করে টিউনটি করছি। এখানে আমি কারেও লেখা বা স্ক্রিনশট কপি-পেস্ট করছি না)

নিচের পদ্ধতিটা আমাদের কারও মাউস নেই ধরে করতেছি।

প্রথমে উইন কি প্রেস করে স্টার্ট মেনু ওপেন করুন। এবার Settings থেকে Control Panel এ যান। এবার Accessibility Option সিলেক্ট করে এন্টার চাপুন। নিচের উইন্ডে ওপেন হবে।

এবার কয়েকবার Tab বা Shift+Tab একবার চাপলে নিচের চিত্রের মতো Keyboard লেখায় বক্স পাওয়া যাবে।

এবার কীবোর্ডের রাইট এরো কী চেপে Mouse ট্যাবে আসুন। Alt+M প্রেস করে Use MouseKeys সিলেক্ট করুন। কেনো M চাপতে বলা হলো নিশ্চই উপরের লেখা থেকে বুঝতে পেরেছেন।

এবারে অ্যাপ্লাই করার জন্য Alt+A চাপুন। এবং সবশেষে Enter চেপে বেড়িয়ে আসুন। কাজাটি সফল করতে পারলে সীস্টেম ট্রেতে একটি মাউস এর আইকন দেখতে পারবেন।

কীবোড দিয়ে মাউস ব্যাবহার করার জন্য নিউমিরিক প্যাড ব্যাবহার করতে হবে। নিউমারিক প্যাড এর কোন কী কোন ডিরেকশনে ব্যাবহার হবে তা নিচে দেওয়া হলো।

কীডিরেকশন/ব্যবহার
1Left-down
2Down
3Right-down
4Left
5Single click
6Right
7Up-left
8Up
9Up-right
-Right button selected( 5 to right click)
/Left Button selected ( 5 to left click)
+Double click
Num LockMouseKeys on/off

উপরের কীগুলো অনুযায়ী কাজ করলে আর মাউস লাগবে না। এটি আপনি আপনার কোন বন্ধুকে দেখিয়ে তাক লাগাতে পারেন।

কম্পিউটার বন্ধ করতে কীবোর্ডের Power বাটন চাপলেই হবে।

আপডেট:

এবার আসুন আমরা স্টিকি কী সম্পর্কে জানি। স্টিকি কী অন থাকলে Ctrl, Alt, Shift ও Winkey বাটনগুলো এক/দুইবার প্রেস করলেই কীগুলো স্টিকি হয়ে যায়। । অর্থাৎ আপনকে ঐ কী চেপে না ধরলেও চলে।

স্টিকি কীগুলো অন করার জন্য দ্রুতার সাথে Shift পাঁচবার চাপুন। তাহলে যে উইন্ডে দেখতে পারবেন সেখান থেকে স্টিকি কী অন রাখার জন্য Ok বাটনে ক্লিক করুন বা এন্টার চাপুন। তাহলে টাস্কবারের সিস্টেম ট্রেতে একটি  আইকন দেখতে পারবেন।

এবার মনে করুন আপনি Ctrl+U চাপবেন। কিন্তু আপনার কীবোর্ডের উপর অতটা দক্ষতা নেই। তাই আপনাকে Ctrl চেপে ধরে থেকে  U খুজে বের করতে হয়, যা অনেকসময় বিরক্তিকর। স্টিকি কী অন থাকলে Ctrl একবার প্রেস করলেই প্রেস হয়ে থাকে। এরপর আপনি আরাম করে U চাপতে পারেন। এটা Alt, Shift ও Winkey-র ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। স্টিকি কীগুলো ২ বার চপলে একসাথে আরেকবার না চাপা পর্য়ন্ত অন হয়ে থাকে।  এর সুবিধা হলো, মনে করুন আপনি একাধিক ফাইল একসাথে সিলেক্ট করবেন । এজন্য স্টিকি কী অন রেখে Ctrl দুইবার চাপুন। এবার ফাইল গুলোতে ক্লিক করুন বা অ্যারো কী দিয়ে ব্রাউজ করে ফাইল নির্বচন করে Space  Bar চাপুন। কাজ শেষ হয়ে Ctrl একবার চাপুন। স্টিকি কী বন্ধ করতে পুনরায় দ্রুততার সাথে ৫বার Shift চাপুন।

এবার একটি অপ্রিয় সত্য কথা বলি। টেকটিউনসের প্রথম পাতাটি প্রতিদিন অনলাইনে আয় করুন জাতীয় পোস্ট দিয়ে ভরা থাকে। এজন্য ভালো টিউন খুজে পেতে কষ্ট হয়। তাই এ সকল টিউন আলাদা বিভাগে জমা রাখার জন্য আবেদন করতেছি। যারা টাকা আয় করতে চান তারা যেন ঐ বিভাগে গিয়ে টিউন দেখে। আর টিউনাগণের প্রতি আমার বিনীত আবেদন এই যে, আপনারা জিদ্দু লিংক দেয়া থেকে বিরত থাকুন। কারণ জিদ্দু থেকে আমি ব্যাক্তিগতভাবে ডাউনলোড করতে পারি না। ডাউনলোড স্পিড থাকে ২-৪ কিবা/সে. তাই ৬ মেবা. ফাইল ডাউনলোড করতে আমার আধাঘন্টার মত সময় লাগে। এখন আবার নতুন যন্ত্রণা শুরু হয়েছে। অনেকেই লিংক শর্ট করে পোস্ট করে তবে উদ্দেশ্য টাকা ইনকাম। দেখা যায় একটি ২ মেবা এর ফাইল ডাউনলোড করার জন্য লিংকে ক্লিক করলে  ৫ সে. ওয়েট করে তা্রপর মেইন লিংকে যায়। এমনিতে ইন্টারনেট স্লো তার উপরে মহাযন্ত্রনা।

আমার এইচএসসি পরীক্ষা চলছে। আমার জন্য দোয়া করবেন।

Level New

আমি সাকিব। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 21 টি টিউন ও 155 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

প্রথম সেমিস্টার, প্রথম বর্ষ, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, রংপুর।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

ঝাক্কাস হইসে । অপ্রিয় সত্য কথা গুলোর সাথে একমত

F1 = Help
F2 = Rename
F3 = Search (Any app, browser)
F4 = Navigate cursor to address bar
F5 = Reload (browser) or Refresh
Shift + F10 = Context menu
Ctrl + Shift + Esc = Task Manager
Win+Pause = System Properties
Win+G = Desktop Gadgets
Win+Tab = Toggle open windows

আর আপনি তো খুবই ব্যাবহৃত Alt + Tab, Ctrl + Tab, Ctrl + Z (Undo), Ctrl + Y (Redo) এর বর্ণনা দিলেন না। Sticky keys নিয়ে লিখেবন। একটা ভুল ধরিয়ে দেই, "Winkey+L" হল Lock desktop. সিলেক্ট ইউজার করতে হলে Log off করতে হয়। যাই হোক, ভালো টিউন, ভালো এক্সাম দেন 🙂

    পরীক্ষার কারনে সময় না পাওয়ায় অনেক কিছু লিখতে পারি নাই। আগামীকা্ল আপডেট করার চেষ্টা করব। Sticky keys নিয়েও লিখব ইনশাল্লাহ। আর ভুল ধরিয়ে দেবার জন্য ধন্যবাদ।

    টিউনটি আপডেট করলাম। এবার দেখুনতো।

    বাহ! চমৎকার 🙂

ভাই আপনার আপ্রিয় সত্য কথাটা আমার খুব ভাল লাগল।আসলেই, টাকা আয় করা অনেক কঠিন।আমি টাকা আয়ের সত্যিকার পথের কথা বলছি।

***ধরুন আপনি photoshop,iilustrator সহ অনেকগুলো photo editor এর কাজ ভাল পারেন।শুধু ভাল পারলে চলবে না,খুব ভাল পারতে হবে।
***তারপর,freelancing এর ওয়েবসাইট এ যেতে হবে।যেমন ধরুন http://www.scriptlance.com এ যেতে হবে ,একটা account খুলতে হবে।
***এরপর,logo তে যেতে হবে।তারপর,দেখবেন কত কাজ।
***ধরুন একটা কাজ যেটাতে বলা আছে আমাকে একটা shirt এর design করে দিতে হবে,যেটাতে ৩টা baseball থাকবে,১ টা baseball bat থাকবে, আর নাম হবে iceshot, আর এই design টা হবে পানিতে ভাসমান।
***এর জন্য আপনাকে দিবে 10 ডলার।মানে ৭০০ টাকা।
***এতো সহজে টাকা দিয়ে দিবে।না।
***ওখানে আপনাকে যে কাজ দিবে তাকে আপনার কাজের একটা ডিজাইন পাঠাতে হবে।তারপর, আপনি বলবেন এটা আমার প্রাথমিক কাজ।আমার sample টা আপনার এতো ভালো লাগছে।আমাকে কাজটা দেন।আমি আপনার মনমত এরচেয়ে অনেক ভাল কাজ করে দিব।
***আপনি জানেন এরকম অনেকে একটা sample দিবে।
***ধরুন সবাইকে হারিয়ে আপনি কাজটা পেয়ে গেলেন।
***এতেই কি শেষ।না।
***এবার আপনি যে main কাজটা দিবেন তা মালিকের পছন্দ হতে হবে।তারপর,টাকা।
***সেখানে যে কাজ দেয় সে comment করতে পারে।ধরুন একজন আপনার account এ bad comment করল।পরে যারা কাজ দিবে তারা bad comment দেখে আপনাকে কাজ দিবে না।

***এক্তা সত্যি কথা কি, যদি সত্যি কাজ পারেন তবে এসব web site এ যান।দেখবেন কাজ আপনাকে খুজে নিবে।

    জঠিল বলেছেন। সহমত।

    সত্যি দারুণ বলেছেন।

Level 0

সাহায্যকারী টিউন এর জন্য ধন্যবাদ ।

Level 0

Donnobad bay

    আপনাকেও কমেন্ট করার জন্য ধন্যবাদ।

ভাই খুবই সুন্দর টিউন করছেন। পরীক্ষার মধ্যেও আমাদেরকে না ভূলার জন্য ধন্যবাদ
আর আসলেই ইন্টারনেট আয় এর লেখা গুলোকে মনে হয় ফিল্টার করে আলাদা করা উচিত।
এগিয়ে যান।

Level 0

কোনো ফাইলকে পেন্ড্রাইভে সেন্ড করার জন্য এর মেনু থেকে "send to" সিলেক্ট করতে হয় কিন্তু মেনুটা কীবোর্ডে কীভাবে আনতে হয় তা বলেননি। ঐ ফাইল বা ফোল্ডার সিলেক্ট করে কীবোর্ডের right ctrl বাটনের ঠিক বাম পাশের বাটন দিয়ে ঐ মেনু আনতে হয়

টিউন ভালো হয়েছে। পরীক্ষার জন্য শুভকামনা। 😀

    মন্তব্য করার জন্য ধন্যবাদ।

Thanx

Level 0

মামা টিউন টা অনেক সুন্দর হয়েছে !!!

ভাই আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। বেশ কিছু শর্টকাট আমি নিজেও জানতাম। আবার কয়েকটা এখান থেকেও শিখলাম। পুরো লিখাটি কপি করে রাখলাম। আবারো ধন্যবাদ।

    নতুন কিছু শেখাতে পেরেছি জেনে খুশি হলাম। আপনাকে ধন্যবাদ।

    টিউনটি আপডে করলাম। একবার দেখলে খুশি হবো।

দারুন টিউন….

    ভাই আপনাকে ধন্যবাদ।