তৈরি করুন মনের মত এক্সপি সিডি [পর্ব-০৬] :: এক্সপি কাস্টমাইজ করুন মনের মত

তৈরি করুন মনের মত এক্সপি সিডি

এ পর্বে আমরা এক্সপি সিডিতে এড করবো হটফিক্স বা এড-অনস যা আমরা ইতিপূর্বে Nlite Add-on Maker এবং SFX Maker দিয়ে তৈরি করেছি, এড করবো পছন্দের থিম যা থিম পর্বে ইন্সটল করেছি, এড করবো নাম, সিরিয়াল কী সহ আরো অনেক কিছু যাতে সেটাপ প্রক্রিয়া অটোমেটিক সম্পন্ন হয়।
আমরা আমাদের এক্সপি সিডিকে কপি করে Customize CD নামক ফোল্ডারে রেখেছি এর আগের পর্বে। ঐ ফোল্ডারটাই আমাদের এক্সপি সিডিSource এবং ওটাকেই আমাদের পছন্দের এক্সপি বানাবো। আপনারা Resource Hakcer দিয়ে এক্সপির যে ফাইলগুলো কাস্টমাইজ করেছিলেন তা makecab করে Customize CD ফোল্ডারের I386 নামক ফোল্ডারে Replace করুন। তাহলে এক্সপি সেটাপ হওয়ার পর আপনার ফাইলগুলোই উইন্ডোজে কাজ করবে। makecab কিভাবে করবেন তা এখানে দেখতে পারেন। সমস্যা হলে জানাতেও পারেন। এবার এক্সপি সিডিকে কাস্টমাইজ করার প্রস্তুতি। কাস্টমাইজ করার জন্য যে সফটওয়ারটা আমরা ব্যবহার করবো তার নাম হল nLite। এর পরিচয় আর ব্যবহার আপনারা নিশ্চয় জানেন। এরকম আরো অনেক সফটওয়ার আছে যা দিয়ে এক্সপি সিডি তৈরির কাজটি করা যায়। তবে সবচেয়ে সহজ আর উন্নত হল nLite। তবে ইনস্টলের জন্য MS.net Framework 2.0 লাগবে। এটা ইন্সটল না থাকলে ইন্সটল করে নিন। তারপর nLite ইন্সটল করে রান করুন এবং Next দিয়ে যান। এরপর নিচের স্ক্রীনশট অনুযায়ী কাজ করে যান। স্ক্রীন শটে আমি সিরিয়াল নম্বর দিয়েছি। সিরিয়াল নং হল কোথায় মাউস দিয়ে আগে ক্লিক করবেন তা বুঝানোর জন্য। আপনারা ধারাবাহিকভাবে কাজগুলো করে যাবেন।
১। Location the Windows Installtion: এখানে ব্রাউজ করে আপনার এক্সপি সিডিSource (Customize CD ফোল্ডার) টা দেখিয়ে দিন।
কিছুক্ষনের মধ্যেই এড হয়ে যাবে। এরপর Next দিন পরের স্ক্রনিশট পর্যন্ত।
২। Task Selection: এখানে Bootable ISO টা ছাড়া সবগুলো সিলেক্ট করুন।
Next দিন পরের স্ক্রনিশট পর্যন্ত।
৩। Service Pack: আমাদের সিডিটাতে Service Pack2 আছে। এটিই আমরা বর্তমানে ব্যবহার করছি। এরপর মাইক্রোসফট Service Pack3 বের করেছে এবং বর্তমান ল্যাপটপ সহ সব পিসির জন্য এটি বেশি উপযোগী। তবে এটি খুব ভারী। তাই এটি ব্যবহার করতে ৫১২ মেঃবাঃ এর উপর RAM ব্যবহার করতে হবে। না হয় পিসি স্লো হবে। তাই কম RAM থাকলে Service Pack2 ই সবচেয়ে ভাল। আপনি যদি Service Pack3 এড করতে চান তাহলে এখানে Service Pack3 সিলেক্ট করে ব্রাউজ করে দেখিয়ে দিন। Integration শুরু হবে। প্রক্রিয়াটি কয়েক মিনিট চলবে। অপেক্ষা করুন। Integration শেষ হলে Next দিন।
বিঃ দ্রঃ Service Pack3 এড করলে Service Pack2 এর সব ফাইল আপডেট হয়ে যাবে অর্থাৎ পুরনো ফাইলগুলো মুছে নতুন ফাইল যুক্ত হবে। তাই আপনার Replace করা কাস্টমাইজ ফাইলগুলোও আপডেট হয়ে যাবে। তাই আপনি  Service Pack3 এড করতে চায়লে Service Pack3 এর ফাইলকেই কাস্টমাইজ করেন এবং Service Pack3 এড করার পর বা এই পর্বের শেষে তা আপনার Customize CD তে Replace করেন। যদি Service Pack3 এড করতে না চান তাহলে কোন কিছু না করেই Next দিন।
৪। Hotfix, Add-ons Update Pack: এখানে Nlite Add-on Maker এবং SFX Maker দিয়ে তৈরি করা Hotfix বা Add-on গুলো এড করবেন। একসাথে সবগুলো (Crtl+A) বা একটা একটা করে এড করতে পারেন।
এড শেষে Next দিন।
৫। Drivers: এর মাধ্যমে আপনার মাদারবোর্ড, প্রিন্টার সহ বিভিন্ন ড্রাইভার ইন্সটল করতে পারবেন। সবগুলো ড্রাইভার একটা ফোল্ডারে রাখুন। তারপর একটা একটা বা সবগুলো একসাথে এড করতে পারেন। 
 মাদারবোর্ড ড্রাইভার সম্পর্কে পরের পর্বে বিস্তারিত আলোচনা হবে। তাই ইচ্ছে করলে এখানে ড্রাইভারের কাজটি বাদ দিতে পারেন। Next দিন। কোন Massage আসলে OK দিন।
৬। Components: এক্সপি সিডিতে অনেক জিনীস এড করা থাকে। যেমন Game, Theme, Language, Keyboard, Software ইত্যাদি। ওখানে অনেক জিনীস আমাদের দরকার হয় না। যেমন Game, সব Language, Keyboard সহ আরো অনেক কিছু। যেটা যেটা আপনাদের দরকার নেই সেটা এখান থেকে ডিলিট করতে পারেন। এতে আপনার সিডির সাইজও কমে যাবে। কারণ এটি আপনার সিডি থেকে একেবারেই মুছে যাবে। তাই মুছার আগে চিন্তা করে নেবেন ওটা আপনার লাগবে কিনা। তবে এখানে Drivers, Hardware Support, Services থেকে কিছু মুছবেন না। আর লাল চিহ্নিত জিনীসগুলোও মুছবেন না। ওগুলোতে উইন্ডোজের গুরুত্বপূর্ণ জিনীস আছে যা যেকনো সময় প্রয়োজন হতে পারে। যেটা মুছতে চান তার উপর ক্লিক করে টিক চিহ্ন দিন। আমি কয়েকটা করে দেখালাম। কোন একটার উপর মাউস ধরলে এর সাইজ ও বর্ণনা পাবেন ডানপাশে। 
সবশেষে Next দিন। Next দেয়ার আগে আরেকবার দেখে নিন।
৭। Unattended: এখানে অনেক অপশন আছে। এক্সপি সেটাপ হওয়ার সময় কখনো সিরিয়াল কী আবার কখনো নেক্সট, কখনো কম্পিউটার নেম, কখনো বা ইউজার নেম ইত্যাদি দেয়ার জন্য একজন মানুষ বসে থাকতে হয়। ঐ সমস্ত কাজ এ অপশনগুলোর মাধ্যমে করতে পারেন। তাহলে সেটাপের সময় আর কোন মানুষ লাগবে না। শুধু C ড্রাইভ (উইন্ডোজ ড্রাইভ) সিলেক্ট করে Format দিলেই হবে। অপশনগুলো দেখি।
General: XP’র সিরিয়াল কী দিন। Firewall, Hibernate, System Restore অফ করার কাজটিও করতে পারেন। অফ করার জন্য নির্দিষ্ট অপশনটিতে টিক চিহ্ন দিন। আর যদি অফ করতে না চান তাহলে কিছু করার প্রয়োজন নেই।  System Restore যদি একেবারে অফ না করে ড্রাইভগুলোতে নির্দিষ্ট সাইজ ভাগ করে দিতে চান তাও পারেন। ডিফল্ট হিসেবে ১২% থাকে আপনি আরো কমিয়ে দিতে পারেন। কত দিন তা জমা থাকবে তাও নির্দিষ্ট করে দিতে পারেন। বাকি কোন সেটিংস পরিবর্তন করবেন না।
Network settings: আপনি যদি আপনার সিডিতে NetworkIP সেট করতে চান তা এখানে করতে পারেন। সেট করার জন্য Custom সিলেক্ট করে আপনার প্রয়োজনীয় IP টা বসান। আর যদি প্রয়োজন মনে না করেন তাহলে এখানে কোন কিছু করার দরকার নেই।
RunOnce: এখানে ডসের কমান্ড লেখে দিতে হবে। কমান্ডগুলো এক্সপি সেটাপ শেষে ডেস্কটপ দেখার আগে প্রয়োগ হবে। প্রতি সেটাপেই কাজটি হবে। আমরা আমাদের রেজিঃ ফাইলটা Windows ডিরেক্টরি থেকে রান হওয়ার কমান্ড দিলাম। regedit /s কমান্ডের মাধ্যমে রেজিঃ ফাইলটি রান হবে কিন্তু কোন Yes/No চায়বে না। আপনারা regedit /s এরপর একটা স্পেস দিয়ে আপনাদের রেজিঃ ফাইলটার নাম দেবেন এডেস সহ। কমান্ড লেখে এড এ ক্লিক করবেন। এভাবে অনেক কমান্ড এড করতে পারেন।
Desktop themes: আমাদের ৩য় পর্বে আমরা থিম নিয়ে কাজ করেছিলাম। ঐ সময় আপনাদের পছন্দের থিমগুলো নিশ্চয় ইন্সটল করেছেন। এখন সেগুলো এড করার পালা। Insert all local এ ক্লিক করলে সকল থিম এড হবে। যদি কোন একটা বাদ দিতে চান তাহলে সেটি সিলেক্ট করে Remove দেবেন। এড করা থিম গুলো থেকে কোনটিকে ডিফল্ট থিম বানাতে চান সেটি সিলেক্ট করে দিন (চিহ্ন-২)। ডিফল্ট থিম বলতে সেটাপের পর যেটি সেট হবে। এরপর Start Menu হিসেবে কোনটা চান। যদি Classic Start Menu চান তাহলে ওটাতে টিক চিহ্ন দিন।
Users: এখানে তিনটা অপশন চিত্রের মত দিন।
Automatic Updates: আপডেট অপশন ডিজেবল করে দিন। তাহলে নেট কানেকশন হলে উইন্ডোজ অটোমেটিক আপডেট হবে না।
Owner and Network ID: এখানে আপনাদের তথ্যগুলো দিন পছন্দমত। কোন ঘর বাকি রাখবেন না।
Display: এটি ডেস্কটপ রেজুলেশন। এখানে কোন কিছু করবে না। সেটাপের পর এটি অটোমেটিক সেট হবে।
Components: এখানেও কোন কিছু করার দরকার নেই।
Regional: এখানে (GMT+6:00) Astana, Dhaka দিন। আর কিছু করার দরকার নেই।
সবকিছু হয়েগেলে আরেকবার করে নিন এবং সবশেষে Next দিন।
৮। Options: এখানে কয়েকটা অপশন রয়েছে। তম্মধ্যে আমি দুটো অপশন দেখাচ্ছি। এক্সপি সিডি ঢুকালে বুট হওয়ার সময় একটা অপশন আসে Press any Key to boot From CD। কী-বোর্ড চাপলে সেটাপ শুরু হয় আর না চাপলে সেটাপ হয় না। ১ নং অপশনটা যদি Disable করে দেন তাহলে মেসেজটি আসবে না। বরং কী-বোর্ড থেকে কিছু না চাপলেও সেটাপ শুরু হবে। আপনারা যদি ঐ রকম সেটাপ চান তাহলে এ অপশনটি Disable করে দিতে পারেন। কিন্তু এটি করা ভাল না। কারণ ভুলক্রমে সিডিরমে সিডিটি থাকলে আর সিডি থেকে বুট হওয়ার অপশন এনাবল থাকলে আপনার অজান্তেই এক্সপি ইন্সটল শুরু হবে। তাই বুঝে শুনেই অপশনটা ব্যবহার করুন।
আপনি nlite দিয়ে এক্সপি কাস্টমাইজ করছেন। তাতে কি কি কাজ করছেন তার একটি কপি আপনার Customize CD ফোল্ডারে সেভ হবে এবং রাইট করলে সিডিতেও রাইট হয়ে যাবে। বিরক্তিকর মনে হলে এটি Disable করে দিতে পারেন। Disable করে দিলে আর সেভ হবে না।
Patches: থিম ইনস্টলের সময় আমরা Theme Patcher ইনস্টল করেছিলাম মনে আছে নিশ্চয়। কারণ এটি ছাড়া আমাদের থিমগুলো কাজ করবে না। এখানে এ অপশনটি Enable করে দিন। তাহলে আর Theme Patcher ইনস্টল করতে হবে না।
 Next দিন। 
৯। Tweaks: রেজিস্ট্রি সেটিংস এর জন্য বিশাল এক সংগ্রহশালা এটি। এখানে অসংখ্য রেজিঃ সেটিংস আছে। কোন একটার উপর মাউস ধরলে এর কাজ একটি বর্ণনা Footer এ দেখতে পাবেন। যেটা দরকার সেটাতে চেক মার্ক দিন। আমি কয়েকটি দেখালাম।
Services: My Computer>Manage>Services and Applications>Services এ গিয়ে উইন্ডোজের যে বিভিন্ন সার্ভিস নিয়ে আমরা কাজ করি এটি তা। এখানে কাজ না করাই ভাল। কারণ আমরা ডিফল্ট সেটিংসটা আমরা খুব একটা পরিবর্তন করি না বা করার প্রয়োজন হয় না।

Next দিন। Yes/No চায়লে Yes দিন। তাহলে আমাদের কাস্টমাইজ প্রক্রিয়া শুরু হবে। কাজ চলাবস্থায় অন্য কাজ না করাই ভাল। কাজ শেষ হলে নিচের মত আসবে। ওখানে আপনার সিডির সাইজ দেখতে পাবেন। Next>Finish দিন। স্ক্রীন শট গুলো বড় সাইজে পেতে চায়লে এখান থেকে ডাউনলোড করে নিন।

Level 2

আমি Kamrul Cox। , Chittagong। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর 9 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 71 টি টিউন ও 645 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 5 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

অসহায়দের সাহায্যে এগিয়ে আসুন।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

দারুন

kamrul cox আপনার ব্লগ টিতে প্রবেস করলাম আপনার ব্লগ খুব সুন্দর আপনার html code/templte come আমার ইমেইল এ পাঠিয়ে দেবেন–আমার ইমেইল নাম্বার—— [email protected]