ই-মেইল এর মাধ্যমে চাকরির অফারের উত্তর দেয়ার ৪ টি কার্যকরী উপায়! উদাহরন সহ দেখে নিন

Level 6
শিক্ষার্থী, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, গাজীপুর

আপনি কি কোথাও চাকরির জন্য আবেদন করেছেন এবং সেখান থেকে চাকরির অফার পেয়েছেন? ভাবছেন কীভাবে এই অফার এর উত্তর দেবেন? চাকরির অফার পাওয়ার পরে সেটা কীভাবে গ্রহণ করবেন অথবা বাতিল করবেন তা শিখে নিন পুরো টিউনটি পড়ার মাধ্যমে। তাছাড়া কোম্পানির সাথে চাকরির বিষয়ে আলোচনা করতে চাইলে বা চাকরির অফারটি সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য কিছুটা সময় চেয়ে আবেদন করতে চাইলে তা কীভাবে করবেন সে সম্পর্কে আজকে একটি ক্লিয়ার ধারনা পাবেন।

আপনার ই-মেইলেে একটি চাকরির অফারের সাথে সাথে সাধারণত হাজারটা স্বপ্নের আনাগোনা হয়। হতে পারে বর্তমানে পাওয়া জব অফারটি আপনার ড্রিম জব, যার জন্য আপনি প্রতীক্ষায় বসে ছিলেন। অথবা এমনও হতে পারে যে চাকরির অফারটি মোটামুটি মানের। তাই এটি বাতিল করে আপনি পুনরায় চাকরি খুঁজতে চাইছেন। তবে অফারটি যেমনই হোক না কেন আপনাকে এই অফার এর একটি রিপ্লাই ই-মেইল অবশ্যই লিখতে হবে।

চাকরির অফার এর ওপর ভিত্তি করে আপনার সিদ্ধান্ত বিভিন্ন রকম হতে পারে। হয়তো আপনি চাকরির অফারটি গ্রহণ করবেন অথবা বাতিল করবেন। কিংবা চাকরির অফারটি সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে ঐ প্রতিষ্ঠানের সাথে আলোচনা করতে চাইবেন। কিংবা কিছুটা সময় নিয়ে বিবেচনা করতে চাইবেন যে চাকরির অফারটি আপনার জন্য গ্রহনযোগ্য কি-না। তো আপনার সিদ্ধান্ত যা-ই হোক না কেন আপনাকে অবশ্যই রেসপন্স করে তা জানিয়ে দিতে হবে।

এই চার ধরনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আপনার রিপ্লাই ই-মেইল কিন্তু চার ধরনের হবে। কীভাবে প্রফেশনাল ভাবে চাকরির অফার এর রিপ্লাই করবেন তার আলাদা আলাদা গাইডলাইন ও উদাহরণ ধারাবাহিক ভাবে উপস্থাপন করা হলো।

১. যেভাবে চাকরির অফার সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে একটু বেশি সময় চেয়ে নিবেন

যেভাবে চাকরির অফার সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নিতে একটু বেশি সময় চেয়ে নিবেন

আপনি প্রথমিক পর্যায়ে হয়তো মোবাইল এসএমএস এর মাধ্যমে একটি চাকরির অফার পেতে পারেন। অফারটি পাওয়ার সাথে সাথেই যে আপনাকে আপনার সিদ্ধান্ত জানাতে হবে বা রিপ্লাই করতে হবে এমনটা কিন্তু না। তাই প্রেশার না নিয়ে ভালোভাবে অফার টি বিবেচনা করার জন্য একটু সময় হাতে নিয়ে নিন। রিপ্লাই এসএম এর মাধ্যমে নিয়োগকর্তাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করার পাশাপাশি জানিয়ে দিন যে আপনি খুব শীঘ্রই আপনার সিদ্ধান্ত তাদের জানাবেন।

অনেক সময় নিয়োগকর্তা জানিয়ে দেন যে তারা কতোদিন এর মধ্যে আপনার কাছ থেকে সিদ্ধান্ত জানতে চায়। যদি এমনটা না হয় তাহলে আপনি নিজে থেকেই জিজ্ঞেস করে নিতে পারেন তাদের সিদ্ধান্ত গ্রহণ এর লাস্ট ডেট কবে। তবে একটি জব অফার এর রিপ্লাই করার স্ট্যান্ডার্ড টাইম এক সপ্তাহের মধ্যে হওয়া উচিত।

পরবর্তীতে আপনি হয়তো ই-মেইল এর মাধ্যমে একটি অফিসিয়াল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি পাবেন যেখানে চাকরির সুবিধা অসুবিধা সহ সকল বিষয় বিস্তারিত ভাবে দেয়া থাকবে। এই ই-মেইল এর উত্তরটি আপনাকে অফিসিয়াল ভাবেই দিতে হবে। তাই এই পর্যায়ে আপনার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী একটি ফর্মাল ই-মেইল তৈরি করে রিপ্লাই করুন।

আপনি যদি চাকরির অফার টির সম্পর্কে এখনও সিদ্ধান্ত নিতে না পারেন এবং আরও কিছু সময়ের প্রয়োজন হয় তাহলে সেটা ই-মেইল এর মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারেন। এই ধরনের পরিস্থিতিতে আপনার ই-মেইল টি কেমন হবে তা নিচের উদাহরণটি দেখে আয়ত্ত করে নিন। আপনি চাইলে এই ই-মেইল টি সরাসরি ব্যবহার করতে পারবেন।


Dear (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

Thank you for sharing the details of the offer for the (যে পদে চাকরির জন্য অফার পেয়েছেন).

I hate to delay my formal response to the job offer, but I am carefully considering the terms and would need a few days before responding. Could I get back to you on the offer by the (যে তারিখ এর মধ্যে সিদ্ধান্ত জানাতে চান)?

Thanks in advance.

Kind regards,

(আপনার নাম)

আপনি যদি ই-মেইল টি বাংলায় লিখতে চান তাহলে নিচের উদাহরণটি ব্যবহার করতে পারেন।


সম্মানিত (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

(যে পদে চাকরির অফার পেয়েছেন) পদে চাকরির অফার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য প্রদান করার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

উত্তর প্রদান করতে দেরি করার জন্য আমি আন্তরিক ভাবে দুঃখিত। কিন্তু আমি খুব ভালোভাবে সকল শর্ত ও নিয়মাবলি বিবেচনা করে দেখছি তাই না চাইতেও একটু সময় বেশি নিতে হচ্ছে। আমি কি আগামী (যে তারিখে সিদ্ধান্ত জানাতে চান তা এখানে লিখবেন) তারিখে আমার সিদ্ধান্ত জানাতে পারি?

আপনাকে অগ্রিম ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

শুভেচ্ছান্তে

(আপনার নাম)

যেহেতু আপনি হাতে কিছুটা সময় পাচ্ছেন, এই সময়ে আপনি আপনার চাহিদা ও যোগ্যতা অনুযায়ী অফারটি তুলনা করবেন। আপনার চাহিদা অনুযায়ী কতোটুকু সামঞ্জস্যপূর্ণ তা বিবেচনা করে আপনি আপনার সিদ্ধান্তটি নিয়োগকর্তাকে জানিয়ে দিতে পারবেন।

চাকরির অফার সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানার জন্য যেভাবে তথ্য চাইবেন

সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য সময় তো চেয়ে নিলেন। কিন্তু এরপর দেখতে পেলেন যে চাকরির অফারটি সম্পর্কে বিবেচনা করার জন্য প্রয়োজনীয় সকল তথ্য অফারে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি৷ কিছু কোম্পানি তাদের চাকরির অফারে সকল বিষয় সংযুক্ত করে দেয়, যাতে একজন প্রার্থী সকল দিক বিবেচনা করে চাকরিতে যোগদান করতে পারে। কিন্তু অনেক কোম্পানি এটা করে না বিধায় চাকরি প্রার্থীদের বিপাকে পড়তে হয়। এমন পরিস্থিতিতে পড়লে আপনাকে পুনরায় একটি ই-মেইল করে সকল তথ্য প্রদান করার জন্য অনুরোধ করতে হবে।

এক্ষেত্রে আপনার ই-মেইল টি নিচের উদাহরণ এর মতো হতে পারে।


Hello (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

Thank you for considering me for the position of Sales Manager. I enjoyed the interview process, and I am looking forward to becoming a part of the team!

I had a few questions after reviewing the offer that I wanted to run by you, particularly about the health insurance and paid leave. Is this something you’d be able to talk about soon? I’d really appreciate clarification of those terms, and I’m free to jump on a call at your earliest convenience. I’m free most afternoons around 2pm.

বাংলায় হলে


শুভেচ্ছান্তে,

(আপনার নাম)

ই-মেইল টি বাংলায় লিখতে চাইলে নিচের উদাহরণটি অনুসরণ করতে পারেন।

সম্মানিত (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

(যে পদে চাকরির অফার পেয়েছেন) পদে নিয়োগ দেয়ার ক্ষেত্রে আমাকে বিবেচনায় রাখার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনাদের আয়োজিত ইন্টারভিউ আমি দারুণভাবে উপভোগ করেছি।

চাকরির অফার সম্পর্কে ইতোমধ্যে আমি বিস্তারিত কয়েকবার পড়েছি। কিন্তু পুরো অফারটি কয়েকবার পড়ার শেষে আমি বেশ কিছু বিষয় সম্পর্কে স্পষ্ট ধারনা পাইনি। স্বাস্থ্য বিমা এবং পেইড ছুটির বিষয় সম্পর্কে আমার আর-ও কিছু তথ্য জানার ছিল। সরাসরি ফোনকলে কথা বললে বিষয়টি আমার কাছে আরও ক্লিয়ার হতো। আমি সাধারণত দুপুর ২ টার পরে পুরোপুরি ফ্রি থাকবো এবং বিস্তারিত ভাবে আলোচনা করতে পারবো।

আশাকরি আমার সমস্যা সমাধানের ক্ষেত্রে সহযোগী হিসেবে থাকবেন।

বিনীত,

(আপনার নাম)

২. চাকরির অফার সম্পর্কে আলোচনা করতে চাইলে যেভাবে জানাবেন

চাকরির অফার সম্পর্কে আলোচনা করতে চাইলে যেভাবে জানাবেন

অনেক সময় চাকরির অফারে উল্লেখিত শর্ত আপনার জন্য বেশ কঠিন বলে মনে হতে পারে। কিংবা আপনার যোগ্যতার তুলনায় বেতন স্কেল কম হতে পারে। এই ধরনের পরিস্থিতিতে আপনার উচিত সরাসরি নিয়োগকর্তার সাথে আলোচনা করা। আপনার চাহিদা সম্পর্কে আলোচনার মাধ্যমে তাদের অবগত করতে পারলে হয়তো বিষয়টি বিবেচনা করে দেখতে পারে। তাই এই বিষয়ে নার্ভাস না হয়ে কিংবা কোনো রকম লজ্জা না রেখে সরাসরি নিজের দাবি জানানো উচিত।

কম বেতনের একটি চাকরি আপনার ক্যারিয়ার ও আর্থিক সচ্ছলতার অন্তরায় হবে। আর চাহিদা অনুযায়ী বেতন পেলে আপনি ভালোভাবে কাজ করার অনুপ্রেরণা পাবেন। তাই বিষয়গুলো ভালোভাবে ক্লিয়ার করার জন্য অবশ্যই আলোচনার মাধ্যমে সমাধানে আসতে হবে।

সাধারণত এই ধরনের আলোচনা ফোনকলের মাধ্যমে সম্পন্ন করা হয়ে থাকে। কিন্তু বিষয়টি আপনাকে ই-মেইল এর মাধ্যমে শুরু করতে হবে। সেক্ষেত্রে আপনার ই-মেইল টি নিচের উদাহরণ এর মতো হতে পারে।


Hello (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

Thanks again for sharing the details of the offer with me earlier. Working with (যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতে চাচ্ছেন তার নাম) is something that I’ve worked towards for a while, and I’m excited at the prospect of joining the team.

However, I have a few questions about the compensation package and would like to know when you would be available to talk about it.

Do let me know. Thanks for your help in advance.

Yours ever,

(আপনার নাম)

বাংলায় ই-মেইল করতে চাইলে নিচের উদাহরণ টি ব্যবহার করতে পারবেন।


সম্মানিত (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

(যে পদে চাকরির অফার পেয়েছেন) পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কিত সকল তথ্য প্রদান করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

(আপনি যে প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতে চান তার নাম) এর সাথে কাজ করার সৌভাগ্য হবে এটা জেনে বেশ খুশি হয়েছি৷ আমি আপনাদের প্রতিষ্ঠানে চাকরিটা করার জন্য খুবই আগ্রহী।

কিন্তু এই পদে চাকরির ক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে আমার কথা বলা প্রয়োজন। সবথেকে ভালো হয় আমরা যদি ফোনকলে কথা বলতে পারি। আশাকরি আপনার সুবিধা অনুযায়ী আমার সাথে যোগাযোগ করে বাধিত করবেন।

দয়া করে আমাকে আপডেট জানাবেন। অগ্রিম ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

বিনীত,

(আপনার নাম)

আপনার হাতে একাধিক চাকরির অফার থাকলে যেভাবে আলোচনা করবেন

এমন হতে পারে যে আপনি একই সময়ে বেশকিছু চাকরির জন্য আবেদন করেছেন আর একসাথে সবগুলো আবেদন থেকে চাকরির অফার এসেছে। এক্ষেত্রে আপনাকে প্রতিটি কোম্পানিকে খুবই ন্যাচারাল ভাবে জানিয়ে দিতে হবে যে আপনার হাতে অন্য অপশন আছে। কিন্তু আপনার লেখার স্টাইলে অবশ্যই মাধুর্যতা থাকতে হবে যাতে করে কোনো কোম্পানি আপনাকে রিজেক্ট করতে না পারে।

বরং আপনি এই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে আলোচনায় যুক্তি উপস্থাপন করতে পারবেন। আলোচনার মাধ্যমে যে অফারটি সুবিধাজনক মনে হবে সেটাকেই প্রাধান্য দিতে পারবেন। আপনার হাতে একাধিক চাকরির অফার থাকলে প্রতিটি কোম্পানিকে নিচের উদাহরণ অনুসরণ করে ই-মেইল পাঠাতে পারবেন।


Hi (যার কাছে ই-মেইল পাঠাবেন তার নাম),

I was thrilled to receive the offer for the role of (যে পদে কাজ করবেন) at (কোম্পানির নাম). Thank you for the smooth interview process and your patience with addressing all my concerns.

I wanted to let you know that I received another job offer unexpectedly this week, and while that position appeals to me as well, working with you would be my first choice. However, the salary offered was significantly higher than this offer. And that is making my decision difficult.

Is there any room for negotiation when it comes to the salary and benefits?

Sincerely,

(আমার নাম)

আপনি যদি ই-মেইল টি বাংলায় লিখতে চান সেক্ষেত্রে নিচের উদাহরনটা ফলো করতে পারেন।


সম্মানিত (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

আপনার কোম্পানি থেকে চাকরির অফার পেয়ে আমি সত্যিই খুব আনন্দিত হয়েছি। সুপরিকল্পিত ও সহজ একটি ইন্টারভিউ এর আয়োজন করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

ইতোমধ্যে অপ্রত্যাশিত ভাবে আমি আরও একটি চাকরির অফার পেয়েছি। তাদের কাজের বিস্তারিত জানার পরেও আমি আপনার প্রতিষ্ঠানে চাকরি করার জন্য খুবই আগ্রহী। কিন্তু উল্লিখিত কোম্পানি তুলনামূলক বেশি বেতনে কাজ করার জন্য ইতোমধ্যে আমাকে অফার করেছে।

আপনাদের সাথে বেতন বিষয়ক আলোচনা করার কোনো অপশন আছে কি? আমি চাই আলোচনা সাপেক্ষে আপনাদের সাথে একটি সমাধানে এসে একটি আন্তরিক সম্পর্ক গড়ে তুলতে। আশাকরি খুব শীঘ্রই আমাকে আপডেট জানানো হবে। ধন্যবাদ।

বিনীত,

(আপনার নাম)

কোম্পানি যদি আপনাকে একজন যোগ্য ব্যক্তি হিসেবে বিবেচনা করে তাহলে অবশ্যই বেতন বিষয়ে আলোচনা করার জন্য একটি সুযোগ প্রদান করবে। সেক্ষেত্রে যদি মনে করেন আপনি আপনার যোগ্যতা অনুযায়ী স্যালারি পাচ্ছেন তাহলে একটি চুক্তিবদ্ধ সম্পর্ক স্থাপন করতে পারেন। নয়তো যে অফারটি আপনার জন্য গ্রহনযোগ্য মনে হয় সেটা গ্রহন করতে পারেন।

৩. যেভাবে একটি চাকরির অফার গ্রহন করবেন

যেভাবে একটি চাকরির অফার গ্রহন করবেন

হতে পারে আপনার কাছে আগত চাকরির অফারটি আপনার ড্রিম জব। তাই অফারটি পাওয়ার সাথে সাথে আপনি সেটি গ্রহন করতে চান। সেক্ষেত্রে আপনার রিপ্লাই ই-মেইল টি খুব বেশি বড় করার দরকার নেই। পাশাপাশি আপনার কথাগুলো অবশ্যই স্পষ্ট এবং সহজবোধ্য করতে উপস্থাপন করবেন।

প্রথমেই নিয়োগকর্তাকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে আপনি জানিয়ে দিন যে আপনি চাকরির অফারটি গ্রহন করেছেন। তারপর আপনার যোগদান এর তারিখ ও পরবর্তী কার্যক্রম সম্পর্কে আপনার প্রশ্ন উপস্থাপন করে ই-মেইল টি সমাপ্ত করতে পারবেন। এক্ষেত্রে নিচের উদাহরনটা ফলো করতে পারেন।


Hello (যার কাছে ই-মেইল লিখছেন তার নাম)

Thank you once more for sharing the offer’s details with me earlier. I’ve gone over the terms and am thrilled to join your company as a content strategist. I’m really excited about this opportunity and can’t wait to start on (যে তারিখে জয়েন করতে চান)

Please let me know what the next steps are and if you require any additional documentation or information from me.

Yours ever,

(আপনার নাম)

ই-মেইল টি বাংলায় লিখতে চাইলে নিচের উদাহরনটা ফলো করতে পারেন।


সম্মানিত (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

(যে পদে চাকরির অফার পেয়েছেন) পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সম্পর্কিত সকল তথ্য প্রদান করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ। আমি আপনার প্রতিষ্ঠানের সকল শর্তাবলি ইতোমধ্যে পড়েছি এবং আমার দায়িত্ব সম্পর্কে অবগত হয়েছি। সবকিছু বিস্তারিত জানার পরে আমি অতি আনন্দের সাথে জানাচ্ছি যে আমি এই চাকরিতে যোগদান করতে আগ্রহী। আপনার প্রতিষ্ঠানে চাকরি দিতে আমাকে বাছাই করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ।

আমি কবে থেকে কাজে জয়েন করবো এবং আমার পরবর্তী করণীয় কী সে সম্পর্কে নির্দেশনা দিয়ে বাধিত করবেন। ধন্যবাদ।

বিনীত,

(আপনার নাম)

যে কোনো চাকরির অফার গ্রহন করার আগে অবশ্যই তাদের সকল শর্তাবলি সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নিবেন। চাকরির অফার গ্রহন করার ক্ষেত্রে রিপ্লাই ই-মেইলেে কোনো প্রকার ভুল ত্রুটি করা যাবে না। সার্বিক দিক বিবেচনা করে সব ঠিকঠাক থাকলে আশা করতে পারেন খুব শীঘ্রই আপনি চাকরিতে জয়েন হতে পারবেন।

৪. যেভাবে একটি চাকরির অফার প্রত্যাখ্যান করবেন

যেভাবে একটি চাকরির অফার প্রত্যাখ্যান করবেন

সকল দিক বিবেচনা করে যদি আপনার মনে হয় যে চাকরিটা আপনার জন্য উপযুক্ত না তাহলে নিয়োগকর্তাকে সরাসরি সেটা জানিয়ে দিতে হবে। তবে যে কোনো চাকরির অফার প্রত্যাখ্যান করার আগে অবশ্যই খুব ভালোভাবে চিন্তা ভাবনা করে নিতে হবে। কোননা আপনি যে অবস্থানেই থাকুন না কেন সরাসরি কোনো নিয়োগ প্রত্যাখ্যান করা আপনার জন্য ইতিবাচক হবে না।

এক্ষেত্রে আপনি খুবই শর্ট ই-মেইল এর মাধ্যমে নিয়োগকর্তাকে অবগত করে দিন যে আপাতত আপনি এই অফার টি গ্রহণ করতে পারছেন না। তবে আপনার লেখার স্টাইল হতে হবে বিনীত এবং মার্জিত। তবে ঠিক কী কারণে আপনি অফারটি প্রত্যাখ্যান করছেন সে বিষয়ে বিস্তারিত না বলাই ভালো। সবশেষে নিয়োগকর্তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে এবং আপনার সাথে সংযুক্ত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়ে আপনার ই-মেইল এর সমাপ্তি টানবেন।

চাকরির অফার প্রত্যাখ্যান করতে চাইলে আপনার ই-মেইল টি যেমন হওয়া উচিত তা দেখে নিন।


Hello (যার কাছে ই-মেইল পাঠাবেন তার নাম)

Thank you once again for allowing me to meet the team last week. It was great to learn more about the (যে পদে চাকরি করতে চাইছেন) position, and I was thrilled to be offered the job. However, after much thought, I’ve decided that this position isn’t the best fit for my career goals at this time.

It’s been a pleasure getting to know you, and I hope we’ll be able to collaborate again in the future. Please keep in touch!

Sincerely,

(আপনার নাম)

বাংলায় লিখতে চাইলে যেভাবে লিখবেন তা দেখে নিন।


সম্মানিত (যার কাছে ই-মেইল পাঠাচ্ছেন তার নাম),

আপনার সাথে গত সপ্তাহে দেখা করার সুযোগ পেয়ে নিজেকে গর্বিত মনে হচ্ছে। চমৎকার একটা ইন্টারভিউ এর আয়োজন করার জন্য ধন্যবাদ। (যে পদে চাকরি করতে চাইছেন) পদে কাজ করার বিষয়ে আমি কিছুদিন যাবৎ বেশ রিসার্চ করেছি। অবশেষে মনে হলো আপাতত কাজটি আমার জন্য উপযুক্ত হবে না। তাই এই মুহুর্তে আমি বিষয়টি নিয়ে আগাতে চাইছি না।

আপনার সাথে পরিচিত হয়ে আমি খুবই আনন্দিত। পরবর্তীতে আপনার সাথে যোগাযোগ করার আশা রাখছি। অনুগ্রহ করে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন না করার অনুরোধ রইলো। ধন্যবাদ।

বিনীত,

(আপনার নাম)

শেষকথা

চাকরির অফার এর উত্তর প্রদানের ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনাকে প্রফেশনাল হতে হবে। আশাকরি আজকের টিউনটি আপনাদের জন্য উপযুক্ত ছিল। প্রয়োজন অনুযায়ী যে কোনো একটি ই-মেইল বাছাই করে আপনি আপনার মতো কাস্টমাইজ করে ব্যবহার করতে পারবেন। পাশাপাশি প্রফেশনাল ই-মেইল তৈরি করার জন্য আপনার রাইটিং স্কিল ডেভেলপ করতে হবে। কেননা উদাহরণ ফলো করলেও আপনার মূল বিষয়বস্তু তো আপনাকেই উপস্থাপন করতে হবে।

Level 6

আমি শারমিন আক্তার। শিক্ষার্থী, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, গাজীপুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 মাস 4 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 88 টি টিউন ও 29 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 6 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস