NID হারালে যেসব ঝুঁকিতে পড়তে পারেন আপনি – বাঁচতে করণীয় কি? 

টিউন বিভাগ টিপস এন্ড ট্রিকস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 0
শিক্ষার্থী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া

বন্ধুরা, কেমন আছেন সবাই? আশাকরি অনেক ভালো আছেন! আমিও ভালো আছি। বন্ধুরা, আজকের টিউনসে আমরা জানবো আমাদের জাতীয় পরিচয় পত্র (NID) কার্ডটি ভুল করে যদি কোন স্ক্যামার বা অপরাধীর কাছে চলে যায় তাহলে আমরা কী কী গুরুতর সমস্যার মুখে পড়তে পারি। আর কি করলে আমরা এ থেকে পরিত্রাণ পেতে পারি।

➡NID হারিয়ে যেসব ঝুঁকির মধ্যে পড়তে পারেন

তথ্যপ্রযুক্তির অবাধ প্রবাহের এ দুনিয়ায় আপনার অজান্তে অতিস্পর্শকাতর ইনফরমেশন অন্যের হাতে চলে গেলেও এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই। কারণ, কিছুদিন আগে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সার্ভার থেকে ৫০ লক্ষ মানুষের ইনফরমেশন (নাম, এনআইডি নম্বর, ফোন নম্বর ও ইমেল এড্রেস) লিক হওয়ার গুঞ্জন উঠেছিল। সেটা যদি সত্যি হয় তাহলে আমাদের জেনারেশনের বড় একটা অংশ ঝুঁকিতে পড়তে পারে। যাকে তথ্যপ্রযুক্তির ভাষায় আইডেন্টেটি থেফট বা পরিচয় চুরি বলা হয়। হ্যাকাররা মোটা অংকে এসব তথ্য ডার্কওয়েবের বিভিন্ন সাইটে বিক্রি করে দেয়।

আপনি হয়তো মনে মনে ভাবছেন আমার হারানো এনআইডি এতক্ষণে হয়তো কোন ভুল ব্যক্তির কাছে চলে গেছে! তাহলে একটু নড়েচড়ে বসুন। কারণ আপনার ছোট্ট একটি অবহেলার কারণে কোন একদিন হয়তো আপনার বড় মাশুল গুনতে হতে পারে। আপনার সুন্দর উজ্জ্বল ভবিষ্যতে কালিমা লেপন করে দিতে পারে অসৎ ও উদ্দেশ্যপ্রবণ লোকেরা। অপরাধ না করেও আপনি হয়ে যেতে পারেন সাইবার, খুন বা অন্যকোন গুরুতর মামলায় অভিযুক্ত। দুঃখিত আমার কঠিন ভাষার জন্য। কিন্তু প্রায়শ এমন চিত্রই ভেসে উঠতে দেখা যায় দেশের জাতীয় দৈনিকগুলোতে।

এনআইডি হারালে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন।

  • ব্যাংক অ্যাকাউন্ট: কিছু ডকুমেন্টস আর NID কার্ডের ইনফরমেশন ব্যবহার করে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খোলা মামুলি ব্যপার মাত্র। অর্থাৎ আপনার পরিচয় ব্যবহার করে অন্য দেশ থেকে কেউ অবৈধ মানি লন্ডারিং করছে কিনা সেটাতো আপনি যানেন না। তাই যেখানে সেখানে আপনার মূল্যবান আইডিকার্ড ফেলে আসবেন না।

    দেখুন আপনি আপনার কোন ব্যাংক একাউন্টের ভুলে যাওয়া পিন পুনরুদ্ধার করতে তাদের কল সার্ভিস সেন্টারে ফোন করেন। তখন আপনার কাছ থেকে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে চাওয়া হয়। সেগুলো দিয়ে দিলেই আপনি যেভাবে সমাধান পেয়ে যান। সেভাবেই কোন হ্যাকার যদি আপনার তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করে সেই কলসার্ভিস সেন্টারের কর্মকর্তার মন জয় করতে পারে। সেও আপনার ব্যাংক একাউন্টের এক্সেস পেয়ে যেতে পারে।

  • সোশ্যাল মিডিয়া: সোশ্যাল মিডিয়ার অ্যাকাউন্টগুলো রিকভারিতে কিছু ইনফরমেশন দিলেই আইডির এক্সেস পাওয়া যায়। এখানে আপনার হারিয়ে যাওয়া পরিচয়পত্র দিয়ে যেকেউ আপনার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট হাতিয়ে নিতে পারে। কারণ হতে পারেন ব্লাকমেইলের শিকার।
  • অবৈধ জিনিস কেনাবেচা: আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র ব্যবহার করে ভুয়া পরিচয়ে অপরাধীরা অবৈধ অস্ত্র বেচাকেনা করতে পারে। এমনকি আপনার লোকেশনটিকেও তারা ব্যবহার করতে পারে। এ সংক্রান্ত ব্যাপারে পুলিশ তদন্ত করলে ঘুরেফিরে আপনার দিকেই আঙ্গুল উঠবে। তাই দেরি না করে চলুন জেনে নিই কি কি পথ যা অনুসরণ করলে রক্ষা পেতে পারে আপনার সুন্দর জীবন, আপনার ভবিষ্যৎ।

➡ NID হারিয়ে গেলে করণীয়

  • ➡ থানায় জিডি করুন

    আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র বা এনআইডি কার্ড হারিয়ে গেলে প্রথমে যথাসম্ভব আপনার নিকটস্থ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করবেন। ডায়েরির কপিটি আপনি নিজের কাছে সংরক্ষন করে রেখে দিবেন পরবর্তীতে এটি কাজে লাগতে পারে। এরপর আপনার অগোচরে সংঘটিত আইডিসংশ্লিস্ট কোন অপরাধের জন্য আপনি দায়ী থাকবেন না। কারণ আপনার করা জিডির এ কপি তার প্রমাণ হিসেবে কাজে দিবে। মনে রাখবেন আইন কাগজ ও প্রমাণে বিশ্বাসী অশ্রুসিক্ত আবেগী কথায় না।

  • ➡ হারানো NID অনলাইনে উত্তোলন

    এখন আসি হারানো আইডি কার্ড রি-ইস্যু বা পুনরায় উত্তোলনের জন্য কি করবেন। প্রথমে আপনাকে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের ওয়েবসাইটে গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে নিতে হবে। পূর্বে অ্যাকাউন্ট করা থাকলে জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর বা ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করবেন। লগইন সম্পন্ন হলে উপরের মেনুবারে রি-ইস্যু অপশনটি পেয়ে যাবেন। সেখানে থেকে জিডি নম্বর ও পুলিশ কর্মকর্তার তথ্য দিয়ে সরকার কর্তৃক নির্দিষ্ট ফি জমা দিতে হবে। ফি পরিষোধের পর এসএমএসের দিয়ে জানানো হবে। তাহলে আপনি এনআইডির অনলাইন কপিটি ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে একটি নির্দিষ্ট সময় পর তা ডাউনলোড করতে পারবেন না।

➡ পূর্বসতর্কতা

কোথায় এনআইডি ব্যবহার করছেন সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখুন। যেখানে সেখানে কারও কথায় উদ্বুদ্ধ হয়ে নিজের এনআইডি দিয়ে দিবেন না। যাদেরকে দিচ্ছেন তাদের অথোরিটি পূর্বেই যাচাই করে নিন।
নিজের নিরাপত্তা নিজেই নিশ্চিত করুন।

ধন্যবাদ।

Level 0

আমি মো শাহিন রাজা। শিক্ষার্থী, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 মাস 2 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 2 টি টিউন ও 2 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 4 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস