ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার করার ৭ টি উপায়

Level 4
শিক্ষার্থী, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, গাজীপুর

ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার করা এখন খুব সাধারণ একটি বিষয়। অনলাইন বিজনেস হোক কিংবা অফলাইন বিজনেস উভয় ক্ষেত্রেই ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার করা যায়৷ আর অনলাইন মার্কেটিং এর সবথেকে সহজ মাধ্যম হলো ফেসবুক। তাই প্রাথমিক পর্যায়ে সকলেই ব্যবসার প্রচারের জন্য ফেসবুককে প্রাধান্য দিয়ে থাকে।

অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ার থেকে ফেসবুকে তুলনামূলক বেশি দর্শক পাওয়া যায়। ফলে ফেসবুক বিজনেস এর ক্ষেত্রে প্রত্যেকের ব্যবসায়িক কার্যক্রম তুলনামূলক বেশি লোকের কাছে পৌঁছে যায়। কিন্তু ফেসবুকের দর্শক আবার বিভিন্ন সেক্টরে বিভক্ত হয়ে থাকে। তাই মার্কেটিং-ও আলাদা আলাদা সেক্টরে ভাগ হয়ে যায়।

আপনি যদি ফেসবুকের সকল সেক্টরের দর্শকের কাছে আপনার ব্যবসায়িক কার্যক্রমের বিষয়টি পৌঁছে দিতে চান তাহলে ফেসবুকে ব্যবসার প্রচারের সবগুলো উপায় সম্পর্কে জানা উচিত। আজকের টিউনে ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচারের ৬ টি কার্যকরী উপায় সম্পর্কে জানতে পারবেন। ফলে ফেসবুকের প্রতিটি সেক্টরের দর্শকের কাছেই আপনার প্রচারকৃত পণ্যের পরিচিতি পৌঁছে দিতে পারবেন। তাই দেরি না করে গুরুত্বপূর্ণ ৬ টি উপায় সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

১. ফেসবুক পেইজ

ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার

ফেসবুকে ব্যবসার প্রচারের সবথেকে জনপ্রিয় ও অফিসিয়াল মাধ্যম হলো ফেসবুক পেইজ। আপনার ফেসবুক পেইজ হতে পারে আপনার ব্যবসার মূল ব্রান্ডিং। এটিকে আপনার অনলাইন দোকনও বলতে পারেন। এই ফেসবুক পেইজের অফিসিয়াল সেটআপ ঠিক করে এবং প্রফেশনাল ভাবে সেল টিউন করার মাধ্যমে আপনার ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন।

ফেসবুক পেইজের মাধ্যমে আপনি চাইলে পেইড বিজ্ঞাপণ দিতে পারবেন। আবার কোনোভাবে পেইজের একটি ব্রান্ডিং হয়ে গেলে সাধারণ ভাবেই ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন। পেইজে টেক্সট কনটেন্ট, ফটো কনটেন্ট ও ভিডিও কনটেন্ট সহ সব ধরনের কনটেন্ট এর মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন।

তাই ফেসবুক বিজনেস শুরু করার আগে একটি প্রফেশনাল ফেসবুক পেইজ তৈরি করা অত্যন্ত জরুরি। তাছাড়া পেইজে নিয়মিত কনটেন্ট আপলোড করে ও তথ্য হালনাগাদ রেখে পেইজের বিশ্বস্ততা ধরে রাখতে হবে। এভাবে ফেসবুক পেইজকে আপনার ব্যবসার জন্য ব্রান্ডে পরিনত করতে পারলে ব্যবসার প্রচার সবথেকে ভালো হবে।

২. ফেসবুক প্রোফাইল

ফেসবুক প্রোফাইলের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার

অনেকেই মনে করেন ব্যবসার প্রচারের জন্য ফেসবুক পেইজ-ই যথেষ্ট। হ্যাঁ, ফেসবুক পেইজ দিয়ে আপনি আপনার ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন। কিন্তু আগেই বলেছি যে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বিভিন্ন সেক্টরে বিভক্ত হয়ে থাকে। অনেকেই আপনার প্রোফাইলের সাথে এনগেজড আছে কিন্তু তারা পেইজের সাথে এনগেজড নেই। তাহলে তাদের কাছে আপনার ব্যবসা সম্পর্কে তথ্য তুলে ধরবেন কীভাবে?

ঠিক এই কারনেই পেইজের পাশাপাশি আপনার প্রোফাইলেও নিয়মিত ব্যবসায়িক কার্যক্রম সম্পর্কিত কনটেন্ট আপলোড করতে হবে। এর মাধ্যমে আপনি নিজের একটি পার্সোনাল ব্রান্ডিং তৈরি করতে পারবেন। তাছাড়া তুলনামূলক বেশি লোকের কাছে আপনার ব্যবসার পরিচিতি তুলে ধরতে পারবেন। তাই ব্যবসায়িক দিক থেকে সফল হতে চাইলে নিজের প্রোফাইলে অনলাইন দোকান বানিয়ে ফেলতে পারেন।

অনেকেই মনে করেন প্রোফাইলে ব্যবসায়িক কনটেন্ট আপলোড করলে প্রেস্টিজ নষ্ট হবে। আসলে অনলাইন বিজনেস হলো এমন একটা বিষয় যেখানে প্রতিটি সুযোগ আপনার কাজে লাগাতে হবে। কে কী বললো, কে কী ভাবলো এগুলো নিয়ে চিন্তা করলে এগিয়ে যেতে পারবেন না। তাই ব্যবসায়ের খুঁটিনাটি প্রতিটি বিষয়, প্রতিটি বিজ্ঞাপণ আপনার প্রোফাইলের মাধ্যমে ছড়িয়ে দিন। আপনার ব্যবসা-ই হবে আপনার প্রথম পরিচয়।

৩. ফেসবুক স্টোরি

ফেসবুক স্টোরির মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার

ফেসবুকের একটি জনপ্রিয় ফিচার আছে যা ফেসবুক স্টোরি নামে পরিচিত। আমরা কমবেশি সবাই জানি এই স্টোরি ২৪ ঘন্টা স্থায়ী হয়। আর এখানে কোনো কনটেন্ট আপলোড করলে তুলনামূলক রিচ বেশি হয়। এই স্টোরি ফিচারটি কিন্তু ফেসবুক পেইজে-ও আছে আবার প্রোফাইলেও আছে। তাই দুদিক থেকেই আপনি এই সুবিধাটি নিতে পারবেন৷

স্টোরির স্থায়িত্বকাল যেহেতু খুব বেশি নয় তাই স্টোরির প্রতি সবার আগ্রহ বেশি। তাই এখানে দর্শক-ও বেশি। আরেকটি বিষয় হলো স্টোরি থেকে সম্ভাব্য ক্রেতা আপনাকে সরাসরি মেসেজ করতে পারবে। তাই কাস্টমার হ্যান্ডেল করা আপনার জন্য খুব সহজ হবে। আর কয়জন দর্শক আপনার স্টোরি দেখেছে তা-ও আপনি বুঝতে পারবেন।

তাই ব্যবসার প্রচার আরও ভালোভাবে করতে চাইলে আপনাকে ফেসবুকের স্টোরি ফিচারটি কাজে লাগাতে হবে। এভাবে কনটেন্ট এর রিচ বেশি হবে ফলে এখান থেকে দু একটি অর্ডার আসার সম্ভাবনা তো থাকবেই৷ আর যে কনটেন্ট আপনি প্রোফাইলে আপলোড করবেন ঐ কনটেন্ট-ই কপি করে আপনি স্টোরিতে যোগ করতে পারবেন। তাই নতুন করে কনটেন্ট নিয়ে ভাবারও কোনো চাপ নেই।

৪. রিলস ভিডিও

ফেসবুকে রিলস ভিডিওর মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার

আপনি কী জানেন ফেসবুকে এখন সবথেকে বেশি জনপ্রিয়তা পাচ্ছে রিলস ভিডিও? রিলস ভিডিও বা শর্ট ভিডিও খুব তাড়াতাড়ি রিচ হয় এবং দর্শক এনগেজড করতে পারে। তাই আপনার ব্যবসার প্রচারের একটি কার্যকর উপায় হতে পারে রিলস ভিডিও।

আপনি যখন আপনার পণ্যের ছবি তুলবেন তখন একই সাথে ৩০ বা ৪০ সেকেন্ডের দু একটি শর্ট ভিডিও তৈরি করে নিতে পারেন। এই ভিডিও ফেসবুকের রিলস অপশনে গিয়ে আপলোড করে দিলেই হবে। সেই সাথে ভিডিও আপলোড করার সময় ফেসবুক থেকেই কোনো একটি মিউজিক যুক্ত করে দিতে পারেন। ফলে ভিডিওটি আরও একটু আকর্ষণীয় হবে এবং ভালো রিচ হবে।

চাইলে ছবি দিয়েও রিলস ভিডিও তৈরি করতে পারবেন। এজন্য ফেসবুকের রিলস অপশনে গিয়ে এক বা একাধিক ছবি যোগ করে একটি মিউজিক যুক্ত করে দিলেই ভিডিও তৈরি হয়ে যাবে৷ এভাবে আপনার পণ্যের প্রচার করতে পারবেন খুব সহজেই।

বেশিরভাগ কনটেন্ট ক্রিয়েটর এবং ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান খুব দ্রুত ভাইরাল হওয়ার জন্য এই ফিচারটিকে সবথেকে বেশি গুরুত্ব দেয়। তাহলে আপনি এই সুযোগ ছাড়বেন কেন? আজ থেকেই রিলস ভিডিও তৈরির মাধ্যমে ব্যবসার প্রচারে এক নতুন ধারা যোগ করুন।

৫. ফেসবুক মার্কেটপ্লেস

ফেসবুক মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার

ফেসবুকে ব্যবসা করার জন্য কিন্তু ফেসবুক কর্তৃপক্ষ নিজেই এক চমৎকার ব্যবস্থা করে রেখেছেন৷ বুঝতেই পারছেন আমি কোন বিষয়টির কথা বলছি। হ্যাঁ, ফেসবুক মার্কেটপ্লেস ফিচারটি তৈরি করা হয়েছে পুরোপুরি ফেসবুক বিজনেসকে উদ্যেশ্য করে। এর মাধ্যমে ক্রেতা বিক্রেতাদের মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও সহজ হয়েছে। ফলে ব্যবসার প্রচার করাও খুব সহজ হয়ে গেছে৷

ফেসবুকের হোম পেইজ, মেসেজিং অপশন, ভিডিও অপশন, নোটিফিকেশন অপশন এর সাথেই এক সারিতে মার্কেটপ্লেস অপশনটি পেয়ে যাবেন৷ সেখান থেকে মার্কেটপ্লেসে প্রবেশ করে আপনার পণ্যের বিবরণ, ছবি, দাম সহ সকল বিষয় যুক্ত করে মার্কেটপ্লেসে একটি বিজ্ঞাপণ তৈরি করতে পারবেন৷ মার্কেট প্লেসে কোনো ক্রেতা প্রবেশ করলে আপনার বিজ্ঞাপনটি দেখতে পাবে। প্রয়োজন হলে পণ্যটি তারা অর্ডার করতে পারবে।

এভাবে ফেসবুক মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে খুব সহজেই আপনি ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন। আর এখান থেকে ব্যবসার প্রচার করতে আপনার কোনো টাকা খরচ করতে হবে না। তাই আজ থেকে ফেসবুকের অন্যান্য ফিচার গুলোর পাশাপাশি মার্কেট প্লেসকে কাজে লাগানো শুরু করুন আর ব্যবসার প্রচার বাড়ান।

৬. ফেসবুক গ্রুপ

ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার করুন

বর্তমানে ফেসবুকে বিভিন্ন ধরনের গ্রুপ রয়েছে যেখানে শুধু ক্রয় বিক্রয় নিয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। বাংলাদেশে এমন বেশ কয়েকটি জনপ্রিয় বিক্রয় গ্রুপ আছে। কোনো কোনো গ্রুপ আবার বিশেষ বিশেষ পণ্য নিয়ে কাজ করছে। আর এখানে কিন্তু নিয়মিত কেনা বেচা-ও হয় অনেক।

আপনি চাইলে এই সকল গ্রুপে নিয়মিত থেকে নিজের পরিচিতি তৈরি করতে পারেন। এর মাধ্যমে আপনার পার্সোনাল ব্রান্ডিং এর মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন। তবে সব গ্রুপে মাঝে মাঝে একটিভ না থেকে বিশেষ কোনো একটি গ্রুপে একটিভ থাকুন। ফলে ঐ কমিউনিটির লোকজন আপনাকে সহজেই চিনবে এবং আপনার ব্যবসা সম্পর্কে জানবে।

এভাবে ফেসবুক গ্রুপ কে কাজে লাগিয়ে আপনি কোনো প্রকার খরচ ছাড়াই নিজের ব্যবসার প্রচার করতে পারবেন। কোন গ্রুপে আপনি সময় দেবেন এটা নির্বাচন করবেন গ্রুপের বিষয়বস্তু, মেম্বার সংখ্যা ও জনপ্রিয়তা পর্যবেক্ষণ করে।

৭. লাইভ ভিডিও

ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে ব্যবসার প্রচার

লাইভ ভিডিও ফেসবুক বিজনেস প্রচারের সবথেকে কার্যকরী ও নির্ভরযোগ্য উপায়। ফেসবুক পেইজ থেকে লাইভ ভিডিও করে সরাসরি পণ্যের বিজ্ঞাপণ দিতে পারবেন। লাইভ ভিডিও দেখার মাধ্যমে সম্ভাব্য ক্রেতা আপনার পণ্যটি স্বচক্ষে দেখে যাচাই বাছাই করে কিনতে পারবে। ফলে আপনার ব্যবসার প্রতি তাদের একটি ইতিবাচক ধারনা তৈরি হবে। আপনি ফেসবুকে দেখে থাকবেন স্বনামধন্য প্রায় সবগুলো ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান লাইভে এসে তাদের পণ্যের প্রচার করে থাকে।

তবে লাইভের মাধ্যমে পণ্যের প্রচার করতে চাইলে আগে আপনার পেইজের দর্শক বাড়াতে হবে। পেইজের রিচ যতো বেশি থাকবে লাইভে ততো বেশি লোকজন এনগেজড থাকবে। ফলে আপনার সম্ভাব্য ক্রেতার সংখ্যা বাড়বে। তাই পেইজের সকল বিষয় ভালোভাবে সেটআপ করে পণ্য স্টক করে লাইভের দিকে অগ্রসর হওয়া উচিত।

শেষকথা

আশাকরি ফেসবুক এর মাধ্যমে ব্যবসায়ের প্রচারের ক্ষেত্রে উপরোক্ত টিপস গুলো আপনার ব্যবসাকে কয়েক ধাপ সামনে এগিয়ে নেবে। তাই ফেসবুকের প্রতিটি ফিচার কাজে লাগিয়ে ব্যবসায়ের প্রচার করুন। মনে রাখবেন আপনার পণ্যের পরিচিতি যতো বেশি সম্ভাব্য ক্রেতার কাছে পৌঁছে দিতে পারবেন ততোই বিক্রয় বৃদ্ধি পাবে। আর ফেসবুক তো আমাদের জন্য সকল সুবর্ণ সুযোগ করেই রেখেছে।

টিউনটি ভালো লাগলে একটি জোসস করতে পারেন। আর অনলাইন বিজনেস রিলেটেড আরও গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন টিপস ও টিউটোরিয়াল পেতে আমাকে ফলো করে রাখতে পারেন। ধন্যবাদ।

Level 4

আমি শারমিন আক্তার। শিক্ষার্থী, ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, গাজীপুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 4 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 39 টি টিউন ও 24 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস