স্মার্টফোনের ৫ টি বিপদজনক সেটিংস, যা আপনার জেনে রাখা উচিত

আসসালামু আলাইকুম, সবাই কেমন আছেন? আশাকরি আল্লাহর অশেষ রহমতে সবাই ভালো আছেন আলহামদুলিল্লাহ। বরাবরের মতো আজকেও নতুন আরেকটি টিউন নিয়ে হাজির হয়েছি আপনাদের মাঝে।

বর্তমান যুগে স্মার্টফোন ব্যবহার ব্যবহার করছে দেশের বেশিরভাগ মানুষ। স্মার্টফোন শুধু ব্যবহার করলেই হবে না, ধারণা রাখতে হবে আপনার হাতে থাকা স্মার্টফোনের সেটিংস সম্পর্কে। এই টিউনে স্মার্টফোনের এমন ৫ টি বিপদ জনক সেটিংস নিয়ে আলোচনা করব, যেগুলো যদি আপনি ভুল বসত করে ফেলেন অথবা আপনার স্মার্টফোনে করা থাকে তাহলে কিন্তু আপনি অনেক বড় বিপদের সম্মুখীন হতে পারেন। কি সেই সেটিংস, কীভাবে এই সেটিংস গুলো বন্ধ রাখবেন এবং কীভাবে আপনি আপনার স্মার্টফোনকে নিরাপদ রাখবেন এই সমস্ত বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করব আজকের এই টিউনে। তাহলে চলুন আর দেরি না করে মূল টপিকে চলে যাই।

প্রথম সেটিংস: ব্রাউজারে পাসওয়ার্ড সেভ করা

 

যখন আমরা Google Chrome অথবা অন্য কোন ব্রাউজারে ফেসবুক অথবা অন্য কোন আইডি পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করতে যাই তখন বলে পাসওয়ার্ড সেভ করে রাখার জন্য, আর এই অবস্থায় আপনি যদি আপনার ব্রাউজারে পাসওয়ার্ড সেভ করে রাখেন তাহলে সেটা কিন্তু আপনার জন্য অনেক বড় একটা বিপদের ব্যাপার তার কারণ হলো এই পাসওয়ার্ড সেভ করলে কিন্তু আপনার ব্রাউজারে থেকে যাবে, তখন কেউ যদি আপনার ফোনটা হাতে নেয় নিয়ে যদি সে ব্রাউজারের সেটিংসে যায় তাহলে কিন্তু সে ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড দেখতে পারবে তাই আশাকরি আপনি বুঝতেই পারছেন এটা আপনার জন্য কত রিস্ক এর ব্যাপার। এখন মেইন বিষয় হলো আপনি যখন কোন আইডি লগইন করবেন তখন পাসওয়ার্ড সেভ করে রাখবেন না, তাহলেই কিন্তু আপনার আইডি সুরক্ষিত থাকবে অর্থাৎ কেউ আপনার আইডি হ্যাক করে নিতে পারবে না।

দ্বিতীয় সেটিংস: আপনার ফোনের WiFi Scaning বন্ধ রাখুন

আপনাকে অবশ্যই আপনার ফোনের WiFi scaning বন্ধ রাখতে হবে, না হলে আপনি সারাদিন যেখানেই যাবেন অল টাইম আপনার স্মার্টফোনের WiFi scanning করতে থাকবে। আপনার স্মার্টফোনের WiFi যদি সারাদিন scanning করতে থাকে তাহলে কিন্তু আপনার ফোন ব্যস্ত থাকবে, আপনার ব্যাটারির উপর অনেক প্রভাব ফেলবে, আপনার ফোন অনেক স্লো কাজ করবে এবং আপনার ফোন যেকোনো জায়গায় এক্সেস নেওয়ার চেষ্টা করবে এগুলো কিন্তু অনেক বিপদের একটা ব্যাপার, তাই আপনার ফোনের WiFi scanning বন্ধ করতে হবে, বন্ধ করার জন্য নিচের স্টেপ গুলো ফলো করুন।

১. প্রথমে আপনার ফোনের সেটিংসে যাবেন।

২. সেটিংসে যাওয়ার পরে এই যে সার্চ বার আছে এখানে গিয়ে সার্চ করবেন Wifi লিখে।

৩. সার্চ করার পর একটু নিচের দিকে স্ক্রল করলে একটি অপশন পাবেন Wifi scanning এই অপশনের উপর ক্লিক করবেন।

৪. এখানে দেখতে পাচ্ছেন দুটি অপশন আছে একটি হলো Wifi scaning আর আরেকটি হলো Bluetooth scanning এই দুটি কিন্তু অফ করে দিবেন। কারণ এই দুটি যদি চালু থাকে তাহলে সারাদিন ডিভাইস খুঁজতে থাকবে। আপনার ক্ষতি একটু বেশি করার সম্ভাবনা রয়েছে এই দুটি সেটিংসের কারণে। আমি আপনাদের ভালোর জন্য পরামর্শ দিবো এই দুটি সেটিংস বন্ধ করে রাখার জন্য। আবার যদি বিশেষ কোন প্রয়োজন হয় তাহলে অন করে কাজ করলেই হয়।

তৃতীয় সেটিংস: গুগলে এড আসা বন্ধ করুন

আমরা যখন গুগলে কোন কিছু সার্চ করি তখন গুগল সেই অনুপাতে অর্থাৎ আমাদের সার্চের উপর ভিত্তি করে গুগল আমাদের সামনে এড অফ করায়। কিন্তু এই এড কেউ দেখতে চায় না এটা সবার জন্য একটা বিরক্তিকর বিষয় তাই আপনিও চাইলে এই এড গুলো কিছুটা কমাতে পারেন ওবং কীভাবে কমাবেন চলুন দেখিয়ে দেই।

১. প্রথমে আপনি আপনার ফোনের সেটিংসে চলে যাবেন।

২. সেটিংসে যাওয়ার পরে আপনি Google নামে একটি অপশন খুঁজে পাবেন, Google অপশনটি খুঁজে বের করার পর এটার উপর ট্যাপ করবেন।

৩. ট্যাপ করার পর এখানে দেখতে পাচ্ছেন Manage your Google account এটার উপর ক্লিক করবেন।

৪. এখান থেকে Data & privacy নামে একটি অপশন পাবেন এটার উপর ক্লিক করবেন।

৫. তারপর একটু স্ক্রল করে নিচের দিকে আসবেন। একটু স্ক্রল করে নিচের দিকে আসলেই দেখতে পাবেন Web & app activity এটার উপর ক্লিক করে দিবেন।

৬. এটা এখানে অন করা রয়েছে আর এখান থেকে আপনাকে কিছু সেটিংস অফ করে দিতে হব
৭. এখানে যে ২ টি ঠিক চিহ্ন আছে এগুলো তুলে দিবেন।

৮. এখন আপনি গুগলে যা কিছু সার্চ করেন না কেন সেগুলো অনুযায়ী আর এড শো করবে না।

৯. এবার আপনি একবার ব্যাক বাটনে ক্লিক করুন।

১০. এখান থেকে YouTube history যে অপশন আছে এটার উপর ক্লিক করবেন।

১১. এখান থেকে এটাও অফ করে দিবেন। এটা অফ করলে আপনার এড একেবারেই অফ হবে না কিন্তু এড এর সংখ্যা কমে যাবে।

১২. তারপর আরেকটু স্ক্রল করে নিচের দিকে পাবেন MY Ad centre এটার উপর ক্লিক করবেন।

১৩. এখানে Web & app activity এটার উপর ক্লিক করে দিবেন।

১৪. Use & web activity to personalize ads এর ডান পাশে একটি অপশন দেখতে পাচ্ছেন এটা অফ করে দিবেন।

এই সেটিংস গুলো করলে আপনি বিরক্তিকর এড থেকে অনেকটা বেচে যাবেন।

চতুর্থ সেটিংস: অ্যাপের সকল পারমিশন দেওয়া থেকে বিরত থাকুন

আমরা যখন আমাদের স্মার্টফোনে কোন অ্যাপস ইন্সটল করি তখন আমাদের অনেক বেশি পারমিশন দিতে হয়, হতে পারে সেটা মাইক্রোফোন এর, হতে পারে সেটা ক্যামেরার, হতে পারে সেটা লোকেশন এর এরকম অনেক অনুমতি দিয়েই কিন্তু আমরা আমাদের স্মার্টফোনে Run করি তার মধ্যে কিছু কিছু অ্যাপস যেগুলো ইন্সটল করতে আমাদের এতকিছুর অনুমতি দেওয়ার প্রয়োজন নেই যেমন- আমি যদি ছবি এডিট করার একটা অ্যাপ ইন্সটল করি তাহলে এই অ্যাপে লোকেশনের অনুমতি দেওয়ার প্রয়োজন নেই, আমার ক্যামেরার অনুমতি দেওয়ার প্রয়োজন নেই কারণ আমি গ্যালারি থেকে ছবি নিয়ে এডিট করব, কিন্তু অনেক সময় এই অ্যাপ গুলো বে - আইনি ভাবে এগুলোর অনুমতি নিয়ে নেয় এবং তারা চাইলে তাদের মতো করে এড শো করাতে পারে আবার অনেকেই এই সুযোগ নিয়ে বিভিন্ন ধরনের অপকর্ম করে।

বড় বড় অ্যাপ যেগুলো আছে যেমন- ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম এরকম সফটওয়্যার গুলো কিছু কিছু অনুমতি নেয় কিন্তু তারা এমন একটা ট্র্যাকিং করে না। ছোট ছোট অ্যাপ যেগুলো আছে তারা বেশিরভাগ এরকম করে থাকে। আমরা চাইলে এটি বন্ধ করতে পারি, বন্ধ করতে হলে নিচের স্টেপ গুলো ফলো করুন।

১. প্রথমে আপনাকে সেটিংসে যেতে হবে।

২. সেটিংসে যাওয়ার পরে একটি অপশন পাবেন Apps বা App management এটার উপর ট্যাপ করবেন।

৩. এখানে আপনার সামনে আপনার ফোনে থাকা সমস্ত অ্যাপ শো করবে। এখান থেকে যেই অ্যাপ আপনার বেশি গুরুত্বপূর্ণ না এটার উপর ক্লিক করে দেখতে পাবেন অনেক কিছুর পারমিশন নিয়ে রেখেছে যেগুলো আসলে এই অ্যাপের প্রয়োজন পড়ে না। আপনি যেগুলো মনে করবেন কোন কারণ ছাড়াই পারমিশন নিয়ে রেখেছে এগুলো Don't allow করে দিবেন।

এভাবেই কিন্তু একটা একটা করে অ্যাপ চেক করার পরে যেগুলো মনে করবেন কোন কারণ ছাড়াই পারমিশন নিয়ে রেখেছে এগুলো Don't allow করে দিবেন। আর এই সেটিংস গুলো করলেই কিন্তু আপনার ফোন নিরাপদ ও সুরক্ষিত থাকবে।

স্মার্টফোন ব্যবহার করে অনেকেই অনেক সমস্যায় পড়ে আছেন, আর এই সমস্যাগুলো হচ্ছে আমাদের সতর্ক না থাকার কারণে। আমরা যখন গুগলে আমাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগইন করি তখন যদি Save Password দিয়ে দেই তাহলে কিন্তু তারা আমাদের পাসওয়ার্ড রেখে দেয়, তখন যদি আমাদের ফোনটা বিক্রি করে দেই কারো কাছে তাহলে কিন্তু সে আমার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগইন করে ব্যবহার করতে পারবে।

আবার অনেক সময় আমরা Play Store থেকে বিভিন্ন অ্যাপস ইন্সটল করে থাকি, তখন অ্যাপস গুলো প্রয়োজন ছাড়াও কিছু পারমিশন নিয়ে নেয় এতে করে ও বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা থেকেই যায়। তাই স্মার্টফোন ব্যবহারের ক্ষেত্রে আমাদের সতর্ক থাকা অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ।  এই টিউনে আমি এরকম যে সেটিংস নিয়ে আলোচনা করেছি আমার মতে এগুলো সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে আমাদের, এতে করে স্মার্টফোন ও নিরাপদ থাকবে এবং নিজেও। তাই আজকের এই টিউন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। টিউনটি ভালো করে ফলো করলে এই সেটিংস সম্পর্কে ভালো একটি ধারণা পেয়ে যাবেন আশাকরি।

আশাকরি আজকের টিউন আপনাদের উপকারে আসবে। আজকের মতো এখানেই বিদায় নিচ্ছি। দেখা হবে আবার পরবর্তী কোন টিউনে নতুন কোন টপিক নিয়ে, আল্লাহ হাফেজ।

Level 5

আমি মাহবুব আলম তারেক। Sonic টিউনার, টেকটিউনস, সিলেট। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 69 টি টিউন ও 128 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 7 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 3 টিউনারকে ফলো করি।

I am a Graphics Designer, and have worked on a few other Web Sites.


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস