Samsung ইউজারদের জন্য সেরা ১০ টি ফিচার

টিউন বিভাগ টিপস এন্ড ট্রিকস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 34
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন টেকটিউনস কমিউনিটি? আশা করছি সবাই ভাল আছেন। আজকে আবার হাজির হলাম নতুন টিউন নিয়ে।

Samsung Galaxy ফোন ইউজারদের জন্য আজকের এই টিউন। প্রতিনিয়ত আপডেটের মাধ্যমে Galaxy ফোনে আসছে নতুন নতুন সব ফিচার। সব ফিচার আপনাকে আকৃষ্ট করবে এমনটি নয় তবে কিছু ফিচার আছে যেগুলো আপনার কাছে চমৎকার লাগতে পারে। একই সাথে দারুণ কাজেরও হতে পারে। চলুন ১০ টি অজানা ফিচার সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

১. Gesture এর মাধ্যমে Undo / Redo

আপনি পিসিতে টাইপিং এর ক্ষেত্রে Undo ফিচারটি ব্যবহার করেন, Ctrl/Command+Z শর্টকাট দিয়ে। আইফোনেও আছে Undo করার একটি Gesture। আপনি হয়তো জানেন না Galaxy ফোনেও এমন একটি Gesture রয়েছে।

Samsung Keyboard এ Swipe ফিচারটি অফ থাকলে আপনি Undo সুবিধাটি পেতে পারেন। কোন কিছু লিখে দুই আঙ্গুলে বাম থেকে ডানে swipe করলে Undo হবে এবং অপজিড ডিরেকশন দিলে Redo হবে।

২. সুপার কাস্টমাইজেশনের জন্য Good Lock

কোন ধরনের থার্ডপার্টি অ্যাপ ছাড়াই আপনার ফোনে আনলিমিটেড কাস্টমাইজেশনের সুবিধা পাবেন Good Lock অ্যাপ এর মাধ্যমে। নাম দেখে শুধু মাত্র Lock রিলেটেড অ্যাপ ভেবে ভুল করবেন না। সুপার কাস্টমাইজেশন অ্যাপ হচ্ছে এটি।

“Good Lock” রয়েছে অসংখ্য Module যা আপনার ফোনে অতিরিক্ত ফাংশনালিটি যোগ করতে পারে। ফোনের বিভিন্ন পার্ট যেমন, নোটিফিকেশন লুক, ঘড়ি, মাল্টিটাস্ক স্ক্রিন, নেভিগেশন বার, লক স্ক্রিন সহ আর অনেক কিছু কাস্টমাইজ করতে পারবেন এটি দিয়ে।

ব্যাপারটি আসলেই দারুণ! আর কোন ফোনে নিজস্ব অ্যাপ দিয়ে আপনি কখনোই এত বেশি কাস্টমাইজেশনের সুযোগ পাবেন না।

৩. ভাল কোয়ালিটির ভিডিও অভিজ্ঞতা

Samsung ফোন ডিসপ্লের দিক থেকে সবার চেয়ে এগিয়ে এটা নতুন করে বলার কিছু নেই। তাহলে কেন আপনি ভিডিও দেখাকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলবেন না। ভিডিওকে আরও ভাল দেখাতে ব্যবহার করতে পারেন “Video Enhancer” ফিচার।

Video Enhancer এনেভল করে দিলে ফোনের ব্রাইটনেস বাড়ার সাথে সাথে কালার গুলো আরও Vibrant হবে। ম্যানুয়াল ভাবে আপনাকে ব্রাইটনেস বাড়াতে হবে ফিচারটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে সেটা করে নেবে।

৪. Wallpaper এর Color Palette

Samsung Galaxy ডিভাইস গুলোতে থিমের সুবিধা অনেক আগে থেকেই ছিল কিন্তু Color Palettes ফিচারটি এসেছে Android 12 থেকে। Wallpaper থেকে কালার পিক করে এটি ফোনের বিভিন্ন এরিয়াতে ম্যাচ করতে পারে।

Wallpaper সিলেক্ট করার পর এটি ফোনের বিভিন্ন এরিয়ার কালার কেমন হবে সেটা চুজ করতে দেয়। যেমন নোটিফিকেশন শেড এর কালার কেমন হবে, বিভিন্ন টেক্সট এর কালার কেমন হবে ইত্যাদি। থিম ফোনের লুক চেঞ্জ করে দিতে পারে কিন্তু Color Palettes ফিচারটি ফোনকে দেয় আরও দুর্দান্ত লুক।

৫. Edge Panels এর মাধ্যমে Quick Access

দ্রুত সময়ের মধ্যে যেকোনো অ্যাপে এক্সেস করা বেশ গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। আপনি হয়তো জানেন না আপনার ফোনে রয়েছে Edge Panel। যেখানে আপনি চাইলেই প্রয়োজনীয় অ্যাপ গুলো পিন করে রাখতে পারেন।

Edge Panel এ আপনি Contacts, Weather, Reminders, এমনকি clipboard রাখতে পারেন। ডিফল্ট ভাবে কিছু প্যানেল থাকলেও Galaxy Store থেকেও আপনি অনেক গুলো প্যানেল ইন্সটল করতে পারেন। তো আর কি, হালকা একটি সোয়াপ করুন আর প্রয়োজনীয় অ্যাপে এক্সেস নিন।

৬. কাস্টম লক স্ক্রিন শর্টকাট

আমাদের ফোনে প্রথম যে স্ক্রিনটি দেখি সেটা হচ্ছে লক স্ক্রিন। ডিফল্ট ভাবে কিছু শর্টকাট থাকে তবে আপনি চাইলে যেকোনো অ্যাপ এখানে এড করতে পারেন।

শর্টকাট স্ক্রিনের নিচে ডান এবং বা পাশে থাকে। অ্যাপ গুলো উপরে ড্র‍্যাগ করে নির্দিষ্ট অ্যাপটি আপনি লক থাকা অবস্থায়ও ওপেন করতে পারেন।

৭. Quick Settings এ মিউজিক

আপনি আপনার ফোনের সকল মিউজিক প্লেয়ারের এক্সেস পেতে পারেন Quick Settings থেকেই।
Galaxy ফোন গুলোতে এখন "Media Output” নামে একটি ম্যানু পাওয়া যায়, যাকে আপনি অ্যাপ শর্টকাট হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। এখানে আপনি ফেব্রিট মিডিয়া অ্যাপ গুলো সিলেক্ট করে রাখতে পারেন।

৮. Shutter Button এ সহজে এক্সেস

Samsung ফোন গুলো মোটামুটি বড় সাইজের হওয়াতে প্রায় সময় ছবি তুলার সময় আপনি ক্লিক করতে ঝামেলা ফেস করতে পারেন। এর রয়েছে দারুণ সমাধান। চাইলে শাটার বাটনের পজিশন আপনি ইচ্ছা মত চেঞ্জ করতে পারবেন।

Samsung এই ফিচারটির নাম দিয়েছে “floating” শাটার বাটম. শাটার বাটম কিছুক্ষণ প্রেস করে রাখুন এবার যেকোনো জায়গায় নিয়ে যেতে পারবেন।

৯. Secure Folder এর মাধ্যমে অ্যাপ ক্লোন

“Secure Folder” ফিচারটি অনেকেই দেখি কিন্তু ভাবী হয়তো এটা শুধু মাত্র ছবি ভিডিও লক করে রাখার জন্য। কিন্তু আপনি এটি দিয়ে অ্যাপ ক্লোনও করতে পারেন।

Secure Folder এমন একটি ব্যবস্থা যেখানে আপনি ফোনের মধ্যেই আলাদা একটি Sandboxed এনভায়রনমেন্ট তৈরি করতে পারেন। দারুণ এই ফিচারের মাধ্যমে সম্পূর্ণ আলাদা ভাবে আপনি অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন।

১০. ফ্লিপের মাধ্যমে কল সাইলেন্স করা

আপনি যখন ব্যস্ত থাকবেন তখন চাইলেই যেকোনো কল সাইলেন্স করতে পারবেন ফোন ফ্লিপ করার মাধ্যমে, কল সাইলেন্স করতে কোন বাটমে প্রেস করতে হবে না।

সেটিংস থেকে Advanced Feature > Motion and Gesture > Mute with Gesture এনেভল করে দিন। ব্যাস এখন কল আসলে বা এলার্ম বাজলে ফোন উপুড় করে রাখুন।

শেষ কথা

আপনি অনেক দিন ফোন ব্যবহার করার পরেও হয়তো এই ফিচার গুলো সম্পর্কে জানেন না। কিছু ফিচার সম্পর্কে জানলেও হয়তো কয়েকটা সম্পর্কে জানতেন না। আশা করছি এই ফিচার গুলো আপনার Galaxy ফোন ইউজ করার অভিজ্ঞতা আরও উন্নত করে তুলবে।

তো আজকে এই পর্যন্তই পরবর্তী টিউন পর্যন্ত ভাল থাকুন আল্লাহ হাফেজ।

Level 34

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 9 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 539 টি টিউন ও 200 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 115 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস