বিটকয়েন এর ১০ টি সেরা অর্জন

টিউন বিভাগ টিপস এন্ড ট্রিকস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 34
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন টেকটিউনস কমিউনিটি? আশা করছি সবাই ভাল আছেন। আজকে আবার হাজির হলাম নতুন টিউন নিয়ে। আজকের টিউনে আমরা বিটকয়েনের ১০ টি সেরা অগ্রগতি সম্পর্কে জানব।

সংবাদের শিরোনামে মূল্যহ্রাস, ক্রিপ্টো কোলাপ্স (Crypto Collapse) থাকলেও একই বছরে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি সাধিত হয়েছে বিটকয়েনে। আমরা দেখেছি বিটকয়েন একটি প্রোটোকল হিসেবে কিভাবে উদ্ভাবন দিয়ে সকল উদ্যোক্তা এবং ডেভেলপারদের প্রয়োজন মিটিয়েছে সেক্ষেত্রে প্রোটোকলে উল্লেখযোগ্য কোন পরিবর্তন পর্যন্ত করতে হয় নি।

১. শতভাগ আপটাইম

এ বছর বিটকয়েনের ব্যাপক অগ্রগতি ছিল আপ টাইমের ক্ষেত্রে, এটি ১০০ % আপটাইম নিশ্চিত করেছে। বিটকয়েনে কোন ধরনের সমস্যা ছাড়া নিরবচ্ছিন্ন ভাবে লেনদেন করা গেছে। লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্লক টাইম ছিল দশ মিনিট। এটি যথাযথ ভাবে মেনে চলেছে ২০০৮ সেট করা সাতোশি নাকামোটোর শ্বেতপত্র। কোন ধরনের সমস্যা ছাড়াই এ বছর বিলিয়ন ডলার সমমূল্যের বিটকয়েন লেনদেন হয়েছে প্রতিদিন।

আর বিটকয়েন এই সব করেছে কোনও ধরনের ইনভেস্টার, কর্মচারী, লিডার, ফাউন্ডেশন ছাড়াই। এটি প্রমাণ করেছে তারা নিরবচ্ছিন্ন অগ্রগতির যে ভবিষ্যৎবাণী করেছিল তা চলমান আছে এবং সামনেও থাকবে।

২. Lightning Network এর গ্রোথ

বিটকয়েনের সেকেন্ডারি নেটওয়ার্ক লেয়ার হচ্ছে Lightning Network যা প্রতিটি লেনদেনের ইফিসিয়েন্সি নিশ্চিত করে। বিটকয়েনের বেইস লেয়ার আগের মত থাকলেও এর Lighting Network এ ম্যাসিভ গ্রোথ নিয়ে আসা হয়েছে ২০২২ সালে। Lightning Network বিটকয়েনের এমন একটি ব্যবস্থা যেখানে দ্রুত লেনদেন করা যায়, ট্রানজেকশন সম্পন্ন হবার জন্য দীর্ঘসময় অপেক্ষা করতে হয় না। এটি সম্পূর্ণরূপে বিকেন্দ্রীভূত এবং পারমিশন হীন। এটি বিটকয়েনের বেইস লেয়ারের সিকিউরিটি এবং সেটেলমেন্ট ঠিক রেখে এর স্কেলেবেলিটি উন্নত করে। ডেইলি ইউজ যেমন অনলাইন কেনাকাটার ক্ষেত্রে বিটকয়েন পিছিয়ে ছিল, তো এই সমস্যার সমাধান দেয় Lighting Network। বর্তমানে নেটওয়ার্কের পাবলিক লিকুয়েডিটি বা তারল্য ১০৫৮ BTC থেকে ৪৭৭১ BTC তে বৃদ্ধি পেয়েছে।

Lightning Network চ্যানেল বৃদ্ধি পেয়েছে ৮০% এর মত যেখানে আগে ছিল 37, 298 টি চ্যানেল এখন 67, 339 টি চ্যানেল। অন্যদিকে পাবলিক ভিজিবল Lightning Network নোড বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ৮৮%, যা আগে ছিল 8, 295 টি এখন 15, 636 টি।

সবাই বলেছে, লাইটনিং নেটওয়ার্কের বৃদ্ধি এই বছর চমকপ্রদ ছিল, যেখানে অসংখ্য ওয়ালেট লঞ্চ হয়েছে, আরও টুল নিয়ে আসা হয়েছে ইউজারদের জন্য, তৈরি করা হয়েছে এডুকেশনাল টুল। তাছাড়া ইউজাররা পিয়ার-টু-পিয়ার এক্সচেঞ্জ করতে চাওয়ায় চিপ পেমেন্ট হয়েছে ব্যাপক হারে।

৩. আল সালভাদর, প্রথম বিটকয়েন দেশ

২০২২ সালে প্রেসিডেন্ট Nayib Bukele এর নেতৃত্বে আল সালভাদর নিজেকে রিব্র‍্যান্ডিং করেছে বিটকয়েনের মাধ্যমে। Nayib Bukele, বিটকয়েন ম্যাগাজিনের ফিচার হয়েছেন যাকে হাইপার বিটকয়েনাইজেশনের জনক হিসেবে দেখানো হয়েছে। তিনিই প্রথমবারের মত দেশের অর্থনৈতিক বিষয়ে বিটকয়েনকে অন্তর্ভুক্ত করার সাহস দেখিয়েছেন এবং তার জনগণকে অর্থনৈতিক স্বাধীনতা প্রদান করেছেন।

কলামে Bukele বিশ্বের সকল বিটকয়েনারদের জানান কিভাবে আল সালভাদর বিশ্বের এলিটদের সাথে বিটকয়েনের মাধ্যমে লড়াই করে যাচ্ছে। বিটকয়েন কতটা যুগান্তকারী একটি লেনদেন ব্যবস্থা তা আল সালভাদর বিটকয়েন গ্রহণ করার মাধ্যমে বুঝিয়ে দিয়েছে। আল সালভাদর দেখিয়েছে এর মাধ্যমে কিভাবে তাদের পর্যটন খাতে ব্যাপক অগ্রগতি হয়েছে এবং GDP বৃদ্ধি পেয়েছে।

অক্টোবরে আল সালভাদর সুইজারল্যান্ডের লুগানোতে 'Bitcoin Embassy' স্থাপন করে। এই চেম্বার অফ কমার্সের নেতৃত্বে থাকবেন সালভাদরের বিটকয়েন মাইনার, বিনিয়োগকারী, এবং বিটকয়েন কূটনীতিক "Honorary Consul" জোসু লোপেজ। নভেম্বরে আল সালভাদের প্রেসিডেন্ট অফিসের মধ্যে খোলা হয় বিটকয়েন অফিস। বিশ্বব্যাপী ইনভেস্টারদের ইনফরমেশন এক্সেসের ডিমান্ডের কথা চিন্তা করে এই অফিস খুলা হয়েছে। আল সালভাদর চায় অন্যান্য দেশও যেন তাদের মত হাইপার বিটকয়েনাইজেশন এক্সেপ্ট করে। দেশটির প্রেসিডেন্ট ঘোষণা করে তদের প্রতিদিন অন্তত একটি করে বিটকয়েন কেনার পরিকল্পনা রয়েছে।

৪. Machankura – আফ্রিকা জুড়ে বিটকয়েন লেনদেন হচ্ছে ফোনে

ইন্টারনেট ছাড়াই ব্যাসিক ফোনে বিটকয়েন লেনদেন করার জন্য উদ্ভাবিত হয়েছে Machankura নামের একটি সার্ভিস। দারুণ এই সার্ভিসটি কিছু দিন আগেই আফ্রিকাতে চালু হয়। বেশির ভাগ আফ্রিকানরা ব্যাসিক ফোন ইউজ করে এবং ইন্টারনেট কানেকশনও সব জায়গায় এভেইলেবল না তার সমাধান নিয়ে এসেছে ডেভেলপার Kgothatso Ngako। Machankura মাধ্যমে ইউজাররা ইন্টারনেট ছাড়াই বিটকয়েন রিসিভ, সেন্ড এবং ব্যয় করতে পারে। Caribou, এর রিপোর্ট অনুযায়ী আফ্রিকা জুড়ে প্রায় ৯৪% লেনদেন হয় টেক্সটের মাধ্যমে এবং মাত্র ৬% হয় মোবাইল অ্যাপ দিয়ে। Machankura এর মত সার্ভিস আফ্রিকা জুড়ে ডিজিটাল মানি হিসেবে বিটকয়েন গ্রহণ করাকে তরান্বিত করছে।

৫. Taro – Lightning Network এ নতুন প্রোটোকল

এ বছর, Lightning Labs বিটকয়েন এবং লাইটনিং নেটওয়ার্কের জন্য একটি প্রোটোকল তৈরি করেছে। যার মাধ্যমে নেটওয়ার্কে এসেস্ট মিন্টিং, সেন্ডিং এবং রিসিভ করা যাবে। এটির মাধ্যমে বিটকয়েনকে একটি মাল্টি-অ্যাসেট নেটওয়ার্কে পরিণত করা যেতে পারে। এটি ব্যবহার করে ইউজাররা স্থিতিশীলতার সাথে কম ফি তে তাৎক্ষণিক, বিশ্বব্যাপী বিটকয়েনে লেনদেন করতে পারবে।

Taro, বিটকয়েনের সর্বশেষ প্রোটোকল আপগ্রেড, Taproot ব্যবহার করে কাজ করে। এটি বিটকয়েন ব্লকচেইনে যেকোনো এসেস্ট দ্রুত ইস্যু করতে পারে। এটি মূলত পূর্বের প্রুফ-অফ-ওয়ার্ক কনসেনসাস মেকানিজমই ব্যবহার করে। Taro এর মাধ্যমে বিটকয়েন প্রোটোকলে স্টেবলকয়েন, স্টক এবং বন্ডের মতো এসেস্ট ইস্যু করা যায়।

৬. Impervious.ai – প্রথম P2P Lightning ন্যাটিভ ব্রাউজার

Impervious Technologies বিটকয়েনের সেকেন্ড লেয়ার স্ক্যালিং সিস্টেমের উপর ব্রাউজার তৈরি করেছে। এটি একটি Peer to Peer ওয়েব ব্রাউজার যাতে কোন ধরনের মিডল-ম্যান ছাড়া করা যাবে কমিউনিকেশন, ডাটা ট্রান্সফার, এবং লাইটেনিং পেমেন্ট। এতে রয়েছে সিকিউর P2P মেসেজিং, ভিডিও কল, ওয়ার্ক-স্পেস আবার বিকেন্দ্রীভূত আইডেন্টেকটিউনস ম্যানেজমেন্ট, ডেটা স্টোরেজ, এবং মনিটাইজেশন। এই টুল গুলো সম্পূর্ণ এনক্রিপ্টেড যেখানে সকল ডেটা নিরাপদে থাকবে কেন্দ্রীয় কোন পক্ষ চাইলেও ইউজারের ডেটা কালেক্ট এবং বিক্রয় করতে পারবে না। এখানে বিটকয়েন এবং লাইটেনিং নেটওয়ার্কের বিকেন্দ্রীভূত বৈশিষ্ট্য ব্যবহার করা Impervious Technologies আসলে জানাচ্ছে ভবিষ্যৎ কেমন হতে পারে।

৭. FediMints – কোলাবোরেটিভ বিটকয়েন Custody

বিটকয়েনে Custody হচ্ছে এমন একটি ব্যবস্থা যেখানে একটি পক্ষ অন্যের ডিজিটাল এসেস্ট স্টোর করে সেটার নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। FediMints এমন একটি সার্ভিস যার লক্ষ্য ইউজারদের বিটকয়েন স্টোর বা হেফাজত করতে কোলাবোরেটিভ Custody কমিউনিটি গড়ে তুলা। এখানে একে অপরের বিটকয়েনের প্রাইভেসি নিশ্চিত করবে। মানুষ যেমন কাছের লোকদের বিশ্বাস করে তেমনি কাস্টডিতেও পরস্পর পরস্পরের বিটকয়েন কয়েন হেফাজত করে থাকে। এখানে মূলত David Chaumian e-cash প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়। এই ব্যবস্থায় পুরো কমিউনিটিতে Custody শেয়ার করা হয় যাতে গ্রুপের ব্যক্তিদের মধ্যে গোপনীয়তা বজায় থাকে। এই কাস্টডি সলিউশনটি বিটকয়েনকে স্কেল করা, প্রাইভেসি আরও উন্নত করা, এবং অন-চেইন ফি কমানোর মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে আরও বেশি মানুষকে নিজস্ব বিটকয়েন কাস্টডির প্রতি আগ্রহী করে তুলছে।

৮. Value-4-Value - যেকোনো জায়গায় পেমেন্ট

Value-4-Value কন্টেন্ট পাবলিশের নতুন এক মেথড যেখানে কাস্টমাররা কন্টেন্ট ইঞ্জয় করলে ক্রিয়েটররা লাইটেনিং নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ভ্যালু পাবে। ১০, ০০০ বেশি কন্টেন্ট ক্রিয়েটর ইতিমধ্যে তাদের পডকাস্ট LightningAddresses, Bolt-12 invoices, সহ আরও অনেক কন্টেন্টে Value-4-Value ইমপ্লিমেন্ট করেছে।

৯. Plebnet Lightning – Lighting Network কমিউনিটি

একটি টেলিগ্রাম গ্রুপে কিছু সাধারণ মানুষ তাদের নিজস্ব লাইটনিং নোড চালাতে আগ্রহ প্রকাশ করে, যেখানে ইতিমধ্যে সদস্য সংখ্যা ৫৮০০ অতিক্রম করেছে।

এখানে মেম্বাররা বিভিন্ন ভাবে নিজেদেরকে সাপোর্টই করছে না বরং অসংখ্য ওপেন সোর্স সফটওয়্যার ডেভেলপ করছে এবং রিলিজ করছে। Lighting Network যেকারো এক্সেসযোগ্য হতে এডভান্সড ফিচার দেয়া হচ্ছে অ্যাপ গুলোতে।

যেমন sdLightning Terminal একটি ব্রাউজার বেসড ইন্টারফেস যেখানে সেলফ হোস্টেড লাইটেনিং নোডে চ্যানেল লিকুয়েডিটি ম্যানেজ করা যায়, লাইটেনিং লুপ সার্ভিসে সাবমেরিন সোয়াপ করা যায়, চ্যানেল ক্লাসিফাই করা যায়, এবং loopd, poold, faraday daemon ইন্টিগ্রেট করা যায়। আবার LNDg এবং Lightning Jet নোড মনিটর এবং সর্বোচ্চ ইফিসিয়েন্সির জন্য আরও এডভান্সড ফিচার অফার করে।

১০. BTC মাইনিং এ নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ

বিশ্বজুড়ে মানুষ স্বাভাবিক ভাবেই বিদ্যুৎ সংকটে ভোগে। কোথাও অল্প এবং ব্যয়বহুল আবার কোথাও একদমই নেই। বিটকয়েন মাইনিং এই বিষয়টি চেঞ্জ করে দিচ্ছে। টুইটারের সাবেক CEO একবার শেয়ার করে কোরিয়ার একটি গ্রামে বিটকয়েন মাইনিং এর জন্য বিদ্যুৎ দেয়া হয়। নেটওয়ার্ক যাতে সিকিউর থাকে সেজন্য অতিরিক্ত জলবিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়। ২০০০ মানুষের জন্য প্রতি মাসে বিদ্যুৎ রেট ১০ থেকে ৪ ডলারে নামিয়ে আনা হয়।

এছাড়াও Stillmark VC এবং Block, আফ্রিকা জুড়ে বিটকয়েন মাইনিং সিকিউর করতে ২ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করে।

শেষ কথা

বিশ্ব জুড়ে অর্থনীতি কোথাও স্থিতিশীল আবার কোথাও অস্থিতিশীল থাকলেও বিটকয়েন তার সাফল্য ধরে রাখতে পেরেছে। বিটকয়েন প্রমাণ করেছে যে তাঁর উদ্ভাবন, আসছে দিন গুলোতেও অব্যাহত থাকবে এবং ইউজাররা বিশ্বাসযোগ্য ভাবে লেনদেন চালিয়ে যেতে পারবে।

তো আজকে এই পর্যন্তই পরবর্তী টিউন পর্যন্ত ভাল থাকুন আল্লাহ হাফেজ।

Level 34

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 421 টি টিউন ও 200 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 114 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস