5 Small free but powerful windows software – ছোট- কিন্তু খুবই কাজের

টিউন বিভাগ টিপস এন্ড ট্রিকস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

তথ্য

উইন্ডোজ এরকম অনেক সফটওয়্যার আছে। সেগুলো আকারে খুবই ছোট, বাট ভেরি পাওয়ারফুল এবং এই সফটওয়্যার গুলো অনেকেরই নজরের আড়ালে থাকে। আজকে আমি আপনাদের সাথে সেই রকম সফটওয়্যার পরিচয় করিয়ে দেব। সফটওয়্যার গুলো কমপ্লিটলি ফ্রি আকারে খুবই ছোট কিন্তু খুবই কাজের, খুবই প্রডাক্টিভ খুবই পাওয়ারফুল। এই সফটওয়্যার গুলো আমি দীর্ঘদিন ধরে ইউজ করছি।

আমাদের লিস্টের প্রথম সফটওয়্যারের নাম হচ্ছেঃ এভরিথিং।
এর ফাইল ১.৪ মেগাবাইট মাত্র। এটা কাজ হচ্ছে সার্চ করা। আপনারা লক্ষ করবেন যেকোন সার্চ করলে খুবই স্লো ভাবে সার্চ করে কিন্তু এভরিথিং এ সার্চ করলে ইন্সট্যান্টলি আপনার ফাইল খুঁজেপেতে পারেন। আপনার সার্চটম কমপ্লিট করার আগেই চলে আসে। যেটা খুবই ফাস্ট ও স্পন্টানিয়াস। আমি দীর্ঘদিন ধরে ইউজ করছি এবং আপনার প্রত্যেকটা ডিরক্টরস, প্রত্যেকটা ড্রাইভ থেকে যত কিছু আছে না কেন সবকিছু ভেতর থেকে ফাইল খুঁজে বের করে নিয়ে আসবে।

আমাদের লিস্টের দ্বিতীয় সফটওয়্যারটির নাম হচ্ছেঃ আনলকার।
এটা খুবই ছোট এবং এটার সাইজ হচ্ছে মাত্র ৩৯৩ কেলোবাইট। আমাদের কম্পিউটারে পাজি কিছু ফাইল কিংবা ফোল্ডার থাকে। যেগুলো ডিলিট হয় না, মুব হয়, রিল হয় না। সেই ফাইল ফোল্ডার গুলো ডিলিট করার জন্য আপনার এই আনলকার ইউজ করতে পারেন। যেটা দিয়ে ইন্সটন্টলি ফাইল ফোল্ডার ডিলিট হয়ে যাবে।

আমাদের লিস্টের তিন নাম্বার সফটওয়্যারটির নাম হচ্ছেঃ টেক্সটা।
যেটার সাইজ মাএ ৪৬২ কলোবাইট। এটার কাজ হলো সংক্ষিপ্ত লেখাকে সঠিকে রুপান্তরিত করা। উদাহরণ স্বরূপঃআপনি 'আমার' লেখাকে সংক্ষিপ্ত করে লিখলেন (amr) তখন এই সফটওয়্যারটি (amr)লিখাকে সঠিক করে দিবে। অর্থাৎ যেকোন ধরনের সংক্ষিপ্ত লেখাকে তার সঠিক শব্দে নিয়ে আসবে। তাই এই সফটওয়্যারটি আমার কাছে দারুণ ও বেশ কাজের মনে হয়েছে।

চার নাম্বার সফটওয়্যারটি হচ্ছেঃ আনচেকইট।
এই সফটওয়্যারটি সাইজ ১.২  মেগাবাইট এবং এই সফটওয়ারটি খুবই কাজের। খেয়াল করবেন আমরা যখনই উইন্ডোজে কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করি, তখন নানান রকমের বক্সে টিক চিহ্ন দিতে হয়। আপনি কোন সফটওয়্যার ইন্সটল করলে, মাঝখানে কিন্তু আপনার কাছে পারমিশন চাচ্ছে। একটা সফটওয়্যার ইন্সটল করার পর অনেকের ব্রাউজারে দেখবেন নানা রকমের টুলবার, আবার অটোমেটিক অনেক কিছু ইন্সটল হয়ে গেছে, সার্চ বার চেইঞ্জ হয়ে যায় ইত্যাদি। কিন্তুু আনচেকইট সফটওয়্যারটি ব্যবহার করলে এই রকম সমস্যা হবে না। তাই এটিও কাজের।

পাচঁ নাম্বার সফটওয়্যারটির নাম হচ্ছেঃ কিউটি ট্যাব-বার।
এই সফটওয়্যারটির সাইজ প্রায় সাড়ে চার মেগাবাইটের মত। এটি খুবই কাজের। এই সফটওয়্যার দিয়ে আপনি চাইলে উইন্ডোগুলো কে ট্যাব আকারে সাজিয়ে রাখতে পারেন। যেমন আমরা যখন কোন ওয়েব ব্রাউজার ওপেন করি, তখন প্রত্যেকটা ওয়েবসাইট আমরা একটা একটা ট্যাবে ওপেন করি। কিন্তু আমরা যখন উইন্ডোজ মাল্টিপল ফোল্ডার ওপেন করি, তখন সেই উইন্ডোগুলো কিন্তু স্ক্যাটার থাকে বা টাস্কবারে অনেকগুলো বারথাকে। আপনারা চাইলে এই অ্যাপ দিয়ে, সে গুলোকে ওয়েব ব্রাউজার এর মত দেখতে পারেন। তাই সফটওয়্যারটি আমার কাছে খুবই কাজের মনে হয়েছে।

আমার কিছু কথা

আমাদের টউনটি কেমন লাগলে টিউমেন্ট করে জানাবেন। আরো এরকম প্রয়োজনীয় টিউন পেতে আমাদেরকে ফলো করুন এবং একটি জোসস দিন। ধন্যবাদ দেখা হবে পরের টিউনে।

Level 0

আমি মেহেদী হাসান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 সপ্তাহ 3 দিন যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 6 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস