যেভাবে নিরাপদে ও নিশ্চিন্তে ডার্ক-ওয়েবে এক্সেস করবেন

Level 31
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

আসসালামু আলাইকুম টেকটিউনস কমিউনিটি, কেমন আছেন সবাই? আশা করছি ভাল আছেন। বরাবরেই মত আজকেও চলে এসেছি নতুন টিউন নিয়ে। আজকে আলোচনা করব কিভাবে নিরাপদে ডার্ক ওয়েবসাইট ভিজিট করা যায়।

ডার্ক ওয়েবে এক্সেস নেয়ার ইচ্ছা মোটামুটি অনেকেরই আছে, অনেকে আগ্রহের বশে আবার অনেকে প্রয়োজনে ডার্ক ওয়েব ব্যবহার করে। যে কারণেই আপনি ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করতে চান না কেন, সেক্ষেত্রে আপনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ ধাপ ফলো করা উচিৎ। যেহেতু এটি নিষিদ্ধ বিষয় সেহেতু এখানে সব সময় রিস্ক থেকেই যায়। ভাইরাস থেকে শুরু করে সাইবার ক্রাইমে পর্যন্ত আপনার নাম চলে যেতে পারে। সুতরাং আপনার যদি ডার্ক ওয়েবে ঢুকতেই হয় তাহলে অবশ্যই নিরাপদ ওয়েতে ঢুকতে হবে।

সব সময় কেবল খারাপ উদ্দেশ্যেই মানুষ ডার্ক ওয়েবে ঢুকে এমনটি নয় ভাল কাজেও অনেক সময় ডার্ক ওয়েব ব্যবহৃত হয়। চলুন কিছু মেথড দেখে নেয়া যাক যার মাধ্যমে আপনি নিরাপদে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করতে পারবেন।

১. VPN ব্যবহার করুন

অনলাইনে যেকোনো কাজে নিরাপদ থাকতে VPN গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। আপনি যদি VPN ব্যবহার করে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করেন তাহলে এটা আপনার ISP ও সরকার কেউই ট্র‍্যাক কর‍তে পারবে না।

অনেকে ভেবে থাকে Tor ব্রাউজার বা Tor টেকনোলজি ব্যবহার করলে কেউই ট্র‍্যাক করতে পারবে না, এটা ভুল। এর আগে ২০১৮ সালে Tor ব্রাউজার আইপি লিকের শিকার হয়েছিল। সেখানে টর ব্রাউজার বাইপাস হয়ে রিমোট হোস্টে অপারেটিং সিস্টেম কানেক্ট হয়ে গিয়েছিল। এই লিকের নাম ছিল TorMoil। সে সময় macOS এবং Linux অপারেটিং সিস্টেমের ইউজাররা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে ছিল।

তো আপনি Tor ব্রাউজারে নিরাপদে প্রবেশ করতে অবশ্যই VPN ব্যবহার করুন। VPN এ আপনি কানেক্ট হবার সাথে সাথে আপনার কানেকশন এনক্রিপট হয়ে যাবে এবং নিরাপদে আপনাকে হাইড করতে পারবেন।

২. অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে Tor Browser ডাউনলোড করুন

Tor Browser এর আগে অনেক সিকিউরিটি সমস্যা ছিল তবে বর্তমানে ডার্ক ওয়েবে প্রবেশ করার সবচেয়ে নিরাপদ এবং জনপ্রিয় মাধ্যম হচ্ছে Tor ব্রাউজার। ব্রাউজারটি আগের তুলনায় অনেক সিকিউর এবং আপডেট।

বর্তমানে মার্কেটে Tor Browser সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং এটি দিয়ে নিষিদ্ধ জিনিসে প্রবেশের সুযোগ থাকায় অনেকেই এটি ক্লোন করতে পারে, এতে আশ্চর্য হবার কিছু নাই।

সুতরাং আপনার উচিৎ অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে Tor ব্রাউজার ডাউনলোড করা। আপনি চাইলে Tor এর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে ফ্রিতে এটি ডাউনলোড এবং ইন্সটল করতে পারবেন।

অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড এবং ইন্সটল করার পর আপনাকে নিশ্চিত করতে হবে ইন্সটল দেয়া ব্রাউজারটি আপ টু ডেট কিনা। আপডেট না করলে সিকিউরিটি ইস্যু থাকতে পারে এজন্য ব্রাউজার সব সময় আপ টু ডেট রাখার চেষ্টা করুন।

Tor Browser

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Tor Browser

৩. সর্তক থাকুন

সব সময় আপনার মাথায় রাখতে হবে ডার্ক ওয়েব এমন একটি জায়গা যেখানে, হ্যাকার, সাইবার ক্রিমিনাল, ম্যালওয়ার ক্রিয়েটরদের অবাধ বিচরণ। আপনি কখনোই চাইবেন না তাদের ফাঁদে পড়তে, তাই আপনাকে সব সময় এই বিষয়টিতে সতর্ক থাকতে হবে।

কিছু পয়েন্টে আপনি তাদের প্রতিহত করতে পারেন তবে, প্রাইভেসি বা অন্য সিকিউরিটি লঙ্ঘনের ঝুঁকি থেকেই যায়। নিরাপদ থাকতে কিছু কাজ কর‍তে পারেন। Tor ব্রাউজার যখন ব্যবহার করবেন তখন বাকি সব কাজ অফ রাখুন। মানে বাকি সকল অ্যাপ ক্লোজ রাখা বুদ্ধিমানের কাজ হবে। অপ্রয়োজনীয় সার্ভিস গুলোও অফ রাখুন৷ ওয়েবক্যামটি কাগজ বা ট্যাপ দিয়ে ঢেকে দিন। খেয়াল করে দেখবেন ডিফল্ট ভাবে Tor ব্রাউজার ফুল স্ক্রিনে ওপেন হয় না, মিনিমাইজ উইন্ডোতে ওপেন হয়, এভাবেই ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

অনেক এক্সপার্ট ফুলস্ক্রিনে Tor Brower ব্যবহার করতে নিষেধ করেন কারণ ফুল স্ক্রিনে ব্রাউজার এমন অনেক এক্সেস পেয়ে যায় যা আপনার পরিচয় ফাঁস করে দিতে পারে। এমনকি ব্রাউজারের মাধ্যমে লোকেশন বা ডেটা ট্র‍্যাক হতে পারে।

তাছাড়া Tor অফিসিয়াল ভাবে মিনিমাইজ উইন্ডোজে ব্রাউজার ব্যবহারকেই রিকোমেন্ড করে।

৪. TAILS ইন্সটল করুন

Tails বা The Amnesiac Incognito Live System হচ্ছে লিনাক্সের ডেবিয়ান বেসড একটি অপারেটিং সিস্টেম। এই অপারেটিং সিস্টেম এর সুবিধা হল এটি কোন ইউজারের কোন ধরনের এক্টিভিটি সেভ রাখে না। এই অপারেটিং সিস্টেম টি আপনি ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন। যা USB অথবা DVD দিয়ে বুট করা যায়।

TAILS আপনার পারমিশন ছাড়া হার্ড ড্রাইভে কোন ধরনের cookies বা ফাইল সেভ করবে না। ব্রাউজারের কোন হিস্ট্রি বা ডেটাও সেভ হবে না বা অন্য কোথাও ট্রান্সফার হবে না।

তাছাড়া, TAILS এ টর ব্রাউজার ডিফল্ট ভাবে ইন্সটল করা থাকে, আপনাকে ইন্সটল করা নিয়ে ঝামেলা পোহাতে হবে না। Tails মেশিনের সব ট্রাফিক টর কানেকশনের মাধ্যমে আদানপ্রদান হবে, যদি এটি কোন Non-Anonymous কানেকশন ডিটেক্ট করতে পারে, সরাসরি সেটা ব্লক করে দেবে।

TAILS এর বিল্ড-ইন কিছু প্রোডাক্টিভিটি টুল যেমন ওয়ার্ড, ইমেইল ক্লাইন্ট রয়েছে তার মানে আপনি ব্রাউজিং ছাড়া অন্য সুবিধাও পাবেন।

TAILS

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ TAILS

৫. কোথায় যাচ্ছেন জানুন

ডার্ক ওয়েব কখনোই গুগলের মত সাজানো গুছানো রেজাল্ট দেয় না। আপনি যা খুঁজবেন তা বের করা বেশ জটিল একই সাথে ভুল জায়গায়ও চলে যেতে পারেন। ডার্ক ওয়েব সাইট গুলো বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ডিরেক্টরি বেসড হয়। প্রয়োজন মত তথ্য পেতে আপনাকে ভাল ডিরেক্টরি ওয়েবসাইটের সাহায্য নিতে হবে।

ডার্ক ওয়েবে অনেক ডিরেক্টরি ওয়েবসাইট আছে তবে নতুনদের জন্য সবচেয়ে ভাল হচ্ছে The Hidden Wiki আপনি এই লিংকটি দিয়ে The Hidden Wiki তে এক্সেস নিতে পারেন।

The Hidden Wiki

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ The Hidden Wiki

আপনি সেরা ডার্কওয়েবের লিংক পেতে আমার এই, "১০ টি সেরা ও নিরাপদ ডার্ক-ওয়েব ওয়েবসাইট! যেগুলো গুগলে খুঁজে পাবেন না" টিউনটি থেকেও ঘুরে আসতে পারেন।

৬. সকল ধরনের লেনদেনে ক্রিপটোকারেন্সি ব্যবহার করুন

আপনি যদি ডার্কওয়েব মার্কেটপ্লেস থেকে কিছু কিনতে চান তাহলে অবশ্যই ক্রিপটোকারেন্সি ব্যবহার করুন। আপনি না চাইলেও সেলাররাই রেগুলার ক্রেডিট কার্ড দিয়ে লেনদেন করতে চাইবে না।

ক্রিপটোকারেন্সি জগতে সবচেয়ে জনপ্রিয় হচ্ছে Bitcoin। আপনিও এটি পুরোপুরি Anonymous ভাবতে পারেন তবে অভিজ্ঞরা ভিন্ন কথা বলে। এক্সপার্টরা বলছে কুকিস ট্র‍্যাকিং, ব্লকচেইন এনালাইটিক, এর মত বিষয় গুলোর ফলে যেকেউ চাইলে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য লেনদেনে লিংক করে ফেলতে পারবে।

সেক্ষেত্রে অবশ্য আপনি চাইলে “Bitcoin mixer” ব্যবহার করতে পারেন তবে এটি বেশ ব্যয়বহুল। এখানে আবার থার্ডপার্টির কাছে ডেট চলে যাবার ভয়ও থাকে।

সবচেয়ে ভাল হয় আপনি যদি প্রাইভেসি ফোকাস কয়েন গুলো ব্যবহার করেন। সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রাইভেসি ফোকাস দুইটি কারেন্সি হল Monero এবং Zcash। Monero এবং Zcash ছাড়াও আরও অনেক প্রাইভেসি ফোকাস কয়েন আপনি পাবেন যেগুলো দিয়ে আপনি নিশ্চিন্তে লেনদেন করতে পারবেন।

৭. সব কিছু ক্লোজ করুন

ডার্ক ওয়েবসাইট ভিজিটের, ব্রাউজারের সকল ট্যাব ক্লোজ করুন, ব্রাউজারটিও ক্লোজ করুন এবং অতিরিক্ত সব টুলে কানেক্টেড ছিলেন সব কিছু বন্ধ করে দিন।

আপনি যদি TAILS, ব্যবহার করেন তাহলে সেটা অফ করুন এবং সিস্টেম রিবুট করুন। ম্যাক ও উইন্ডোজ ইউজাররা অবশ্যই রিস্টার্ট করুন।

শেষ কথা

ডার্ক ওয়েবে এক্সেস নিতে গিয়ে আপনি যদি উপরের সাতটা টিপস ফলো কর‍তে পারেন তাহলে বলা যায় আপনি নিরাপদে ডার্ক ওয়েবে ভিজিট করতে পারবেন। রিস্ক কিছু থাকবে তবে আপনি সতর্ক থাকলে কোন সমস্যা হবার কথা না।

তো আজকে এ পর্যন্তই পরবর্তী টিউন পর্যন্ত ভাল থাকুন, আল্লাহকে হাফেজ।

Level 31

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 522 টি টিউন ও 195 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 76 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস