বন্ধের পথে Youtube Vanced! এখনি লুফে নিন সেরা বিকল্প গুলো

Level 31
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন টেকটিউনস কমিউনিটি? আশা করছি সবাই ভাল আছেন। আজকে আবার হাজির হলাম নতুন টিউন নিয়ে। আজকে আলোচনা করব Youtube Vanced এর কিছু বিকল্প নিয়ে।

Youtube Vanced কী?

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ভিডিও প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে ইউটিউব। আর জনপ্রিয়তার সুযোগে গুগল প্রতিনিয়ত ইউটিউবে এড এর পরিমাণ বাড়িয়ে দিচ্ছে। ডিফল্ট ভাবে ইউটিউব অ্যাপে ইউজাররা তাদের চাহিদা মত সব ফিচার তো পায়ই না সাথে সাথে এড দেখতে দেখতে সবাই বিরক্ত। গুগল অবশ্য এর সমাধান রেখেছে ইউটিউব প্রিমিয়াম ভার্সনে। তবে কয়জন ইউজার আছে যে টাকা দিয়ে ইউটিউব ব্যবহার করবে?

তো বিনামূল্যে এড-ফ্রি অভিজ্ঞতা পেতে এবং অতিরিক্ত ফিচার পেতে ইউজাররা দীর্ঘদিন ধরে Youtube Vanced ব্যবহার করে আসছিল। Youtube Vanced হচ্ছে হুবহু ইউটিউব এর মতই দেখতে একটি অ্যাপ যেখানে ইউটিউব এর সকল সুবিধা পাওয়া যায়। পাওয়া যেতো ইউটিউব এর এক দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা যেখানে ছিল ব্যাকগ্রাউন্ড প্লেব্যাক সুবিধা, ভিডিও ডিসলাইক কাউন্ট, সহ পুরোপুরি এড ফ্রি এক্সপেরিয়েন্স। এমনকি যেসব ডিভাইসে ইউটিউব এর ডিফল্ট অ্যাপ লগইন করা যেতো না সেখানেও এই Youtube Vanced কাজ করতো। কিন্তু সম্প্রতি গুগলের এক নিষেধাজ্ঞার কারণে ইউজাররা এখন Youtube Vanced এর বিকল্প খুঁজে বেড়াচ্ছে। আর তাদের জন্যই বিশেষ করে আজকের টিউন। আপনি যদি Youtube Vanced সম্পর্কে আরও জানতে চান তাহলে "ইউটিউব এর Boss! YouTube Vanced" টিউনটি দেখে আসতে পারেন।

বন্ধের পথে Youtube Vanced

সম্প্রতি গুগল থেকে একটি বন্ধ এবং প্রত্যাহার আদেশ পাওয়ার পর Youtube Vanced ডেভেলপাররা এটিকে অফলাইনে নিয়ে গেছে। Youtube Vanced এর সাথে যুক্ত একজন এডমিনের সাথে Discord এ যোগাযোগ করে জানা যায়, ইউটিউবের নাম ব্যবহার করে এমন প্যাকেজ অফার করা থেকে তারা যেন বিরত থাকে এজন্য তাদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। যেহেতু এটি ইউটিউব এর টার্ম এন্ড কন্ডিশনকে ভঙ্গ করে এবং গুগলের দাবীও অযৌক্তিক নয় তাই তারা বাধ্য হয়ে অ্যাপ টির ডাউনলোড লিংক সরিয়ে দিয়েছে।

সুতরাং এখন ইউজাররা Vanced ওয়েবসাইট থেকে Vanced Manager ডাউনলোড করতে পারবে না। তবে যদি ইউজারদের ফোনে Vanced Manager ইন্সটল থাকলে তারা YouTube Vanced, Vanced Music, এবং Vanced microG ডাউনলোড এবং ইন্সটল করতে পারবে।

বর্তমান YouTube Vanced ভার্সনটি এখনো কাজ করে বা করবে কারণ এটি সম্প্রতি আপডেট হওয়া ইউটিউব ভার্সন এর কপি। তবে যদি ভবিষ্যতে ইউটিউব এমন কোন আপডেট নিয় আসে যে আপডেট ছাড়া ইউজার ইউটিউব ব্যবহার করতে পারবে না, তাহলে হয় আপনাকে ইউটিউব এর স্বাভাবিক ভার্সনে ফিরে যেতে হবে অথবা Youtube Vanced বিকল্প খুঁজতে হবে।

Vanced এর সেরা বিকল্প

Vanced এর সকল ফিচারকে মাথায় রেখে আমি এর সেরা বিকল্প গুলো আজকে তুলে ধরার চেষ্টা করব যেন Vanced বন্ধ হয়ে গেলেও আপনারা মুল সুবিধা গুলো পেতে পারেন। Vanced এর বিকল্প এর এই লিস্টে আপনি পরিচিত হতে যাচ্ছেন দারুণ কিছু অ্যাপ এর সাথে, যেগুলো মিস করা আপনার একদম উচিৎ হবে না। আমি বলব না এই বিকল্প গুলো আপনাকে পুরোপুরি Vanced এর অভিজ্ঞতা দেবে তবে আপনি কাছাকাছি সকল সুবিধাই পাবেন।

১. YouTube Premium কিনুন

প্রথমে আমার সাজেশন থাকবে, সবচেয়ে ভাল হয় যদি আপনি ইউটিউব এর প্রিমিয়াম প্যাকেজ কিনে নেন। এতে বন্ধ হবারও ভয় থাকবে না আপনি পুরো লিগ্যাল ওয়েতে অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন। হয়তো গুগল এক সময় না একসময় সকল মুড অ্যাপ বন্ধ করে দেবে কিন্তু প্রিমিয়াম ভার্সনটি আপনারই থাকবে।

আপনি ক্রিয়েটরদের সাপোর্ট করতেও মুড ভার্সন গুলো এড়িয়ে যেতে পারেন কারণ Vanced এর মত অ্যাপ গুলো ব্যবহারের ফলে ক্রিয়েটররা এড এর ইনকাম থেকে বঞ্চিত হয়। তাছাড়া প্রিমিয়াম ভার্সনে আপনি পাবেন দারুণ সব আপডেট ফিচার৷

ইউটিউব প্রিমিয়াম প্যাকেজ যদি আপনি কিনতে চান তাহলে আপনার জেনে নেয়া উচিৎ, এটি ব্যবহারে মাসে আপনাকে ১১.৯৯ ডলার পে করতে হবে তবে বার্ষিক প্যাকেজ, স্টুডেন্ট প্ল্যান, ও ফ্যামিলি প্ল্যানে কিছুটা ডিসকাউন্ট পেতে পারেন।

যদি আপনার প্রিমিয়াম প্ল্যান কেনার সামর্থ্য না থাকে তাহলে নিচের অপশন গুলো আপনার জন্য।

YouTube Premium

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ YouTube Premium

২. NewPipe

NewPipe হচ্ছে  Vanced এর একটি ক্লাসিক বিকল্প। এটি Vanced এরও আগে থেকে ইউজারদের সেবা দিচ্ছে। এটি পুরোপুরি ফ্রি এবং ওপেন সোর্স একটি প্রোগ্রাম ইউজাররা পাবে, Background Playback, Picture-in-picture, ভিডিও ডাউনলোডিং সহ আরও অনেক ফিচার। এটি প্রতিনিয়ত নতুন ফিচারের সাথে আপডেট হচ্ছে এবং ডেভেলপাররাও বেশ প্রাইভেসি সচেতন।

এই অ্যাপ এর অসুবিধা হচ্ছে এখানে আপনি গুগল একাউন্ট কানেক্ট করতে পারবেন না। তবে সুবিধা হিসেবে আছে এড ফ্রি অভিজ্ঞতা এবং গুগল অ্যাপ নেই এমন ফোনেও ইউটিউব ব্যবহারের সুবিধা। আপনি চাইলে রেগুলার ইউটিউব অ্যাপ থেকে ভিডিও শেয়ার দিয়ে NewPipe এ দেখতে পারেন। আপনি NewPipe সম্পর্কে আরও বিস্তারিত জানতে এই "নিন Youtube ব্যবহারের অনন্য অভিজ্ঞতা – NewPipe দিয়ে – AD Free, ব্যাকগ্রাউন্ড প্লে, পিকচার ইন পিকচার মুড, কাস্টম বুকমার্ক সহ Impossible সব ফিচার!" টিউনটি দেখতে পারেন।

আপনি চাইলে NewPipe এর মূল ভার্সন অথবা SponsorBlock এর মেইনটেইন করা এবং কন্ট্রোল করা ভার্সনও ইন্সটল দিতে পারেন। আপনি F-Droid থেকে NewPipe ইন্সটল করতে পারেন অথবা নিচের লিংকও ফলো করতে পারেন।

NewPipe

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ NewPipe

SponsorBlock ভার্সন @ NewPipe

৩. SkyTube

SkyTube ও দারুণ একটি ইউটিউব প্লেয়ার৷ এটির দুইটি ভার্সন হয়। SkyTube Extra ভার্সনটিতে ক্লোজড একটি লাইব্রেরী রয়েছে এবং এতে রয়েছে অফিসিয়াল ইউটিউব প্লেয়ার এবং কাস্টিং এর সাপোর্ট। অন্য ভার্সনটি পুরোপুরি ওপেন সোর্স একটি প্রোগ্রাম যা F-Droid এ পাবলিশ করা আছে। এই ভার্সনের আপডেট একটু দেরিতে আসে এবং অতিরিক্ত ফিচার নেই বললেই চলে।

তবে আপনি যে ভার্সনই ব্যবহার করেন উভয় ভার্সনে পাবেন, ভিডিও ডাউনলোডিং সুবিধা, ব্যাকগ্রাউন্ড প্লে, ভিডিও ব্লকিং এবং এড ফ্রি অভিজ্ঞতা সহ আরও অনেক কিছু। SkyTube আপনি F-Droid থেকে ডাউনলোড করে ফেলতে পারবেন তবে SkyTube Extra এর জন্য অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে হবে।

SkyTube

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ SkyTube Extra

F-Droid লিংক @ SkyTube

৪. LibreTube

চমৎকার একটি ইউটিউব অ্যাপ হল LibreTube। এটি এখনো বেটা ভার্সনে আছে তবে এর ফিচার গুলোতে আপনি অবাক হতে বাধ্য। এই অ্যাপ এর দারুণ একটি বিষয় হল এতে ভিডিও দেখতে আপনাকে সরাসরি গুগলের সার্ভারের সাথে কানেক্ট হতে হবে না। অ্যাপ এর সার্ভারে আপনি রেজিস্ট্রেশন করে নির্দিষ্ট চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করতে পারেন এতে গুগলের অন্য কোন সার্ভিসে আপনাকে যুক্ত হতে হবে না।

আপনি চাইলে LibreTube এর ভিডিও গুলো VLC প্লেয়ারেও প্লে করতে পারেন। ভিডিওতে লাইক এর সংখ্যা দেখা গেলেও আপনি ডিসলাইকের কোন কাউন্ট পাবেন না। এই মুহূর্তে অ্যাপটি কেবল github এ পাবেন।

LibreTube

গিটহাব লিংক @ LibreTube

৫. Kiwi Browser

আপনি যদি উপরের কোন অ্যাপই ব্যবহার করতে না চান তাহলে Kiwi Browser ব্রাউজার ব্যবহার করে দারুণ ইউটিউব অভিজ্ঞতা পেতে পারেন। Kiwi Browser একটি ক্রোমিয়াম বেসড ব্রাউজার যাতে ডেক্সটপ এক্সটেনশন সাপোর্ট করে৷

ক্রোমে ব্যবহার করার এমন অনেক এক্সটেনশন আছে যেগুলো ইউটিউবে যোগ করতে পারে চমৎকার সব ফিচার। আর যেহেতু Kiwi Browser এ আপনি সকল এক্সটেনশন ইন্সটল দিতে পারছেন সেহেতু সেই ফিচার গুলো ফোনেই পাবেন।

আপনি Kiwi Browser এ SponsorBlock, Return YouTube Dislike, uBlock Origin, এবং YouTube Enhancer এক্সটেনশন গুলো ইন্সটল দিতে পারেন। এক্সটেনশন গুলো ভালই কাজ করবে তবে ইউটিউব এখানে ডেক্সটপ মুডে ব্যবহার করতে হবে। যাই হোক অভ্যাস হয়ে গেলে আর সমস্যা হবার কথা না।

সুতরাং আপনি Kiwi Browser এর মাধ্যমে পাচ্ছেন HD ভিডিও, এড ফ্রি অভিজ্ঞতা, এবং ডিসলাইক বাটন। এই ব্রাউজারে ভিডিও শেয়ার করা এবং ডেক্সটপ মুডে ভিডিও দেখা একটু বিরক্তিকর লাগতেই পারে কিন্তু আপনাকে এর সুবিধা গুলোও মাথায় রাখতে হবে।

তবে আপনি যদি এডই ব্লক করতে চান তাহলে Firefox ইন্সটল দিয়ে এর স্টোর থেকে uBlock Origin এক্সটেনশনটি ইন্সটল করে নিতে পারেন। মোবাইল সাইটেই এড-ফ্রি সুবিধা পাবেন।

Kiwi Browser

প্লে-স্টোর লিংক @ Kiwi Browser

অফিসিয়াল ওয়েবসাইট @ Kiwi Browser

শেষ কথা

গুগল সব সময় তার ক্ষমতার ব্যবহার করে আসছে। যখনই কেউ গুগলের কোন কিছু ফ্রিতে বা মুড করে ব্যবহার করতে চায় তখনই গুগল সেখানে হস্তক্ষেপ করে। এটা নতুন না আর এটাই বর্তমানে হয়েছে Vanced এর সাথে। আশা করছি বর্তমান পরিস্থিতিতে উপরের বিকল্প গুলো আপনার উপকারে আসবে।

Vanced বন্ধ হলেও ভয়ের কিছুই নেই কারণ ডেভেলপাররা কখনোই বসে থাকে না হয়তো তারা নতুন কোন প্রজেক্ট নিয়ে আবার কাজ শুরু করে দিয়েছে।

তো আজকে এই পর্যন্তই সবাই ভাল থাকুন, নিরাপদে থাকুন আল্লাহ হাফেজ।

Level 31

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 587 টি টিউন ও 196 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 88 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস