আশেপাশে হিডেন ক্যামেরা আছে কিনা জানুন স্মার্ট-ফোনের মাধ্যমে

টিউন বিভাগ টিপস এন্ড ট্রিকস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 34
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

টেকটিউনস কমিউনিটি, কেমন আছেন সবাই? আশা করছি সবাই ভাল আছেন। বরাবরের মত চলে এসেছি নতুন কোন টিউন নিয়ে। আজকে আলোচনা করব হিডেন ক্যামেরা নিয়ে। চলুন শুরু করা যাক।

শুরুর কথাঃ

নিরাপত্তার জন্য আমরা সবাই বিভিন্ন সিসি টিভি ক্যামেরার সাথে পরিচিত এবং গোয়েন্দা কাজে গোপন ক্যামেরার ব্যবহার সম্পর্কেও হয়তো বা আমরা জানি। কিন্তু আপনি যেখানে বসবাস করছেন বা কিছু সময় কাটাচ্ছেন সেখানে গোপন ক্যামেরা থাকা কিন্তু সত্যিই চিন্তার বিষয়। বিভিন্ন শপিং-মলের ট্রায়েল রুম, হোটেল কক্ষ এমনকি পাবলিক রেস্ট-রুম গুলোতে এই ধরনের ক্যামেরা আপনার প্রাইভেসিকে ব্যাপক ঝুঁকিতে ফেলতে পারে।

কিছু দিন আগে Airbnb এর এক গ্রাহক দাবী করে করে যে তার হোটেল রুমের স্মুক ডিটেক্টরে গোপন ক্যামেরা বসানো ছিল। সাধারণত Airbnb, তাদের হোস্টদের ক্যামেরার লিস্ট চায় এবং কখনোই বাথরুম বা হোটেলের বেডরুমে ক্যামেরা সেট করতে দেয় না। কিন্তু সেই গ্রাহক দাবী করেছিল তাকে গোপন ক্যামেরা সম্পর্কে আগে বলা হয় নি। এই বিষয়টি শুধু মাত্র Airbnb পর্যন্তই সীমাবদ্ধ ছিল না, বেশ কয়েকটি নিউজে উঠে এসেছে সাউথ কোরিয়ার বিভিন্ন হোটেল থেকে এসব ক্যামেরা দিয়ে লাইভ স্টিমিং করা হচ্ছে। জানা গেছে ১৫০০ এর বেশি হোটেল গেস্টদের ভিডিও ধারণ এবং লাইভ স্ট্রিমিং করে তা ইন্টারনেটেও ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

এসব ক্যামেরার ম্যানুফেকচাররা এমন ভাবে ক্যামেরা গুলো ডিজাইন করছে যা সহজেই বিভিন্ন স্মুক ডিটেক্টর, ঘড়ি, USB Hub, এমনকি ওয়্যারলেস চার্জারে লুকিয়ে রাখা যায়। এই ডিজাইনের ক্যামেরা গুলো হয়ত আপনার বাড়ির নিরাপত্তা বাড়াতে অথবা বিভিন্ন নজরদারিতে কাজে লাগতে পারে, তবে আপনি কিভাবে নিশ্চিত হবে এগুলো দিয়ে আপনাকে মনিটরিং করা হচ্ছে কিনা?

আজকে এই টিউনে আমি আলোচনা করার চেষ্টা করব কিভাবে আপনি ফোনের মধ্যমে গোপন ক্যামেরা ডিটেক্ট করতে পারবেন। দুটি মেথড ফলো করে আপনি আপনার আশেপাশে থাকা হিডেন ক্যামেরা খুঁজে বের করতে পারেন।

প্রথম মেথড হচ্ছে আপনার ফোনের ওয়াইফাই স্ক্যান। আপনি আপনার ফোনের ওয়াইফাই অন করে নেটওয়ার্ক সার্চ দিয়ে সহজেই হিডেন ক্যামেরার সন্ধান করতে পারেন। বেশির ভাগ হিডেন ক্যামেরা গুলো প্রতিষ্ঠানের লোকাল নেটওয়ার্ক এর সাথে কানেক্ট থাকে, সুতরাং নির্দিষ্ট কিছু নামের নেটওয়ার্ক পেলে আপনি মোটামুটি নিশ্চিত হতে পারবেন আপনার আশেপাশে কোন ক্যামেরা আছে কিনা।

দ্বিতীয় মেথড হচ্ছে আপনার ফোনের মাধ্যমে নাইট ভিশন ক্যামেরা সার্চ করা। যদি কোন কারণে ক্যামেরা গুলোর ওয়াইফাই বন্ধ থাকে তাহলে এই পদ্ধতিতেও আপনি সেগুলো খুঁজতে পারবেন।

যদি ক্যামেরা গুলোতে ওয়াইফাই এবং নাইট ভিশন ফিচার না থাকে তাহলে দুইটি পদ্ধতি থেকে কোনটিই কাজ করবে না তবে এই পর্যন্ত বেশিরভাগ ক্যামেরা এই দুটি পদ্ধতিতেই ডিটেক্ট করা হয়েছে।

ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক স্ক্যান

অনেক সময় বিভিন্ন কোম্পানি বা প্রতিষ্ঠান আপনাকে তাদের লোকাল নেটওয়ার্কে কানেক্ট হবার সুযোগ দেয়। এই সুবিধাটি কাজে লাগিয়ে আপনি বের করে ফেলতে পারেন হিডেন ক্যামেরা। এই কাজে আপনাকে সাহায্য করবে Fing নামে একটি অ্যাপ। যা দিয়ে আপনি সহজেই বের করতে পারবেন লোকাল নেটওয়ার্কটিতে কি কি ডিভাইস কানেক্ট আছে।

iOs, Android, দুই ভার্সনেই অ্যাপটি পাওয়া যায়। ফ্রি আপ হলেও এতে অতিরিক্ত এডের ঝামেলা নেই।

Fing

ডাউনলোড লিংক @ iOs, Android

Fing এর মাধ্যমে আপনি লোকাল নেটওয়ার্কে কানেক্ট থাকা সকল ডিভাইস গুলো দেখতে পারবেন। এজন্য প্রথমে লোকাল নেটওয়ার্কে আপনার ডিভাইসটি কানেক্ট করুন এবং Fing ওপেন করুন।

আপনার ফোন অ্যান্ড্রয়েড হলে উপরের ডান পাশ থেকে Refresh আইকনে ক্লিক করুন, আই-ফোন ইউজার হলে কিছুই করতে হবে না স্বয়ংক্রিয় ভাবেই হবে।

কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন আপনার নেটওয়ার্কে স্ক্যান করবে এবং নেটওয়ার্কে কানেক্ট সকল ডিভাইস খুঁজে বের করবে। নেটওয়ার্কের তালিকায় খেয়াল করে দেখুন ক্যামেরা আইকন, IP Camera, অথবা ক্যামেরা ম্যানুফেকচারের (Nest, Arlo, Wyze) নাম আছে কিনা।

যদি এই লিস্টের মাধ্যমে আপনি ধরতে না পারেন কোনটি হিডেন ক্যামেরা তাহলে ডিভাইস গুলোর আইপি এড্রেস গুলো নোট করুন।

এবার আপনার ওপেন পোর্ট খুঁজে বের করার পালা। Network এ ক্লিক করুন।

“Find Open Ports” এ ক্লিক করুন

এবার সন্দেহজনক নেটওয়ার্ক এর আইপি এড্রেস লিখুন যা আগে নোট করেছিলেন এবং “Find Open Ports” এ ক্লিক করুন।

এবার ওপেন পোর্ট গুলো শো করবে এবং দেখাবে তারা কি সার্ভিসে ব্যবহৃত হয়। ভাল করে খেয়াল করুন RTSP এবং RTMP খুঁজে পান কিনা। RTSP এবং RTMP সাধারণত ভিডিও স্ট্রিমিং এ ব্যবহৃত হয়। আপনি যেকোনো HTTP, HTTPS সার্ভিসও ব্রাউজারে কানেক্ট করে দেখতে পারেন। ব্রাউজারের এড্রেস-বারে গিয়ে নিচের নিয়মে কোলন দিয়ে আলাদা করা আইপি এড্রেসটি লিখুন এবং দেখুন এটি হিডেন ক্যামেরা কিনা।

192.168.0.15:80

কিভাবে নাইট ভিশন ক্যামেরা ডিটেক্ট করবেন

আপনি কখনো কখনো কোন লোকাল নেটওয়ার্কে যুক্ত নাও হতে পারেন অথবা হিডেন ক্যামেরা গুলো আলাদা নেটওয়ার্কেও যুক্ত থাকতে পারে সেক্ষেত্রে আপনাকে সাহায্য করবে নাইট ভিশন ক্যামেরা।

আপনি খালি চোখে কোন ক্যামেরা দেখতে না পেলেও সেটা  Infrared Light মাধ্যমে দেখতে পারেন। বেশিরভাগ আইপি ক্যামেরা গুলো নাইট ভিশনের জন্য Infrared Light ব্যবহার করে। খালি চোখে দেখা না গেলেও স্মার্ট-ফোনের ক্যামেরার মাধ্যমে Infrared Light দেখা যায়।

কখনো কখনো আমাদের ফোন গুলোতে আধুনিক ফিচাররে জন্য Infrared Light ব্লক করা থাকে এজন্য আপনাকে আগে নিশ্চিত হতে হবে যে আপনার ফোনের ক্যামেরাটি Infrared Light শো করার জন্য উপযুক্ত কিনা। আপনার আশেপাশের যেকোনো কিছুর রিমোট নিন, হতে পারে টিভি অথবা এসি। এবার রিমোটের নিচের দিকের লাইটি ক্যামেরা বরাবর ধরে যেকোনো বোটমে চাপ দিন। স্বাভাবিক ভাবে খালি চোখে ওই লাইটের আলো না দেখলেও ক্যামেরা দিয়ে দেখার কথা। যদি ক্যামেরায় কোন আলো দেখতে পান তাহলে আপনি নিশ্চিত যে, আপনার ফোনের ক্যামেরা দিয়ে হিডেন ক্যামেরা ট্র্যাক করতে পারবেন। যদি কোন কারণে পেছনের ক্যামেরাতে লাইট না দেখতে পান তাহলে সামনের ক্যামেরা দিয়ে ট্রাই করুন।

এবার রুমের সব লাইট নিভিয়ে ফেলুন। ফোনের ক্যামেরা অন করে চারপাশে কয়েকবার ঘুরিয়ে দেখুন নিচের ছবির মত কোন আলো চোখে পড়ে কিনা। ক্যামেরা গুলোর কোন স্ট্যান্ডার্ড কনফিগারেশন নেই সুতরাং আপনি কখনো একটি, দুইটি, তিনটি, অথবা এক সাথে অনেক গুলো লাইট দেখতে পারেন।

লাইট গুলো সাধারণত পার্পল অথবা সাদা কালারের হতে পারে। ক্যামেরা গুলো ডিটেক্ট করতে সব সময় আপনাকে কাছাকাছি থাকতে হবে এমনটি নয়, দুর থেকেও সেটা দৃশ্যমান হতে পারে। নিচের ছবিটি খেয়াল করুন এখানে দূরের একটি ক্যামেরা দেখা যাচ্ছে।

এ ছাড়াও খেয়াল করুন রুমে অতিরিক্ত কোন স্মুক ডিটেক্টর আছে কিনা যা সন্দেহজনক, রুমে USB Hub আছে কিনা যা কোন ইলেকট্রনিক ডিভাইসের সাথে কানেক্ট নয়। রুমের আয়না গুলো ভাল করে লক্ষ্য করুন, আপনার আঙুল দিয়ে গ্লাসে স্পর্শ করুন দেখুন মাঝ খানে ফাকা আছে কিনা। স্বাভাবিক ভাবে সাধারণ গ্লাস গুলোর ক্ষেত্রে আপনার আঙুলের মাঝে ফাকা থাকবে। নিচের ছবিটি ভাল করে দেখুন।

শেষ কথাঃ

যেহেতু প্রযুক্তি দিন দিন আরও আধুনিক হচ্ছে সুতরাং সব সময় আমার উল্লেখিত পদ্ধতি গুলো আপনাকে শতভাগ নিশ্চয়তা দেবে সেটা বলা যায় না, তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এই মেথড গুলো বিভিন্ন জায়গায় ভাল কাজ করছে। বলা যায় এই সতর্কতা গুলো আপনার প্রাইভেসি লিক হওয়া অনেকাংশে বাঁচিয়ে দিতে পারে। অন্তত মনের শান্তির জন্য হলেও নিজ দায়িত্বে একবার এই মেথড গুলো ফলো করে যাচাই করে নিতে পারেন আপনি মনিটরিং এর শিকার হচ্ছেন কিনা।

কোন বিষয় না বুঝতে পারলে অথবা কোন প্রশ্ন থাকলে টিউমেন্ট করুন। পরবর্তী টিউন পর্যন্ত ভাল থাকুন। আল্লাহ হা-ফেজ।

Level 34

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 516 টি টিউন ও 200 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 114 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস