বাসায় থেকে, Distraction মুক্ত হয়ে, কাজে ফোকাস করে, কাজ করার ৫ টি টুল

টিউন বিভাগ টিপস এন্ড ট্রিকস
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 34
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন টেকটিউনস কমিউনিটি? আশা করছি সবাই ভাল আছেন। আজকে আবার হাজির হলাম নতুন টিউন নিয়ে। চলুন শুরু করা যাক।

আমরা অফিসে যখন কাজ করি তখন স্বাভাবিক ভাবেই মনোযোগের সাথে কাজ করতে পারি কিন্তু বাসায় কাজ করতে গেলে বিভিন্ন ভাবেই আমাদের মনোযোগ নষ্ট হয়। কিন্তু বাসায় মনোযোগের সাথে কাজ করারও কিছু strategie এবং অ্যাপ  আছে যা আপনাকে মনোযোগের সাথে কাজ করতে সাহায্য করবে।

যদিও আমরা বর্তমানে এমন অনেক রিসোর্সের সাথে পরিচিত যা দিয়ে ঘরেই অফিস সেট করা যায় কিন্তু অর্থনৈতিক বা বিভিন্ন জটিলতায় তা করা সবসময় সম্ভব হয় না।

আজকের টিউনে আমি বেস্ট কিছু অ্যাপ, টুল, টেকনিকের সাথে পরিচয় করিয়ে দেব যার মাধ্যমেই ঘরে বসেই মনোযোগের সাথে অফিসের কাজ করতে পারবেন।

১. Hide feed

ধরুন আপনি মনোযোগ দিয়ে কোন এসাইনমেন্ট করছে হটাৎ করে ফেসবুক, ইউটিউব থেকে এমন নোটিফিকেশন চলে আসলো যে আপনি তা চেক করতে বাধ্য হলেন সাথে সাথে কোন দিক দিয়ে ঘণ্টা চলে গেলে টেরই পেলেন না। মাজার ব্যাপার হচ্ছে সোশাল মিডিয়া গুলো আসলে ডিজাইন করা হয়েছে এই ভাবেই যাতে আপনার মনোযোগ আকর্ষণ করা যায়।

আমি বলছি না ফেসবুক ইউটিউব ব্লক করে দিন তবে আপনার কাজের মনোযোগ বাড়াতে এই সোশ্যাল মিডিয়ার ফিড গুলো হাইট রাখতে পারেন।

এখন আমি পরিচয় করিয়ে দেব Hide feeds ব্রাউজার এক্সটেনশনের সাথে যা আপনার মনোযোগ বাড়াতে যথেষ্ট কার্যকরী। এই এক্সটেনশন টি এনে-বল করে রাখলে আপনি ফেসবুকে বন্ধুদের মেসেজ দিতে পারবেন কিন্তু ফেসবুক ওয়াল দেখতে পারবেন না, ইউটিউবে সার্চ দিয়ে নির্দিষ্ট ভিডিও দেখতে পারবেন কিন্তু Recommended ভিডিও আসবে না।

একই ভাবে বাকি সোশ্যাল মিডিয়া গুলোতে ছাড়াও Gmail, Reddit, Twitter, Instagram, LinkedIn, Amazon, Netflix ব্যবহারে একই সুবিধা পাবেন।

এই চমৎকার এক্সটেনশনটি মনোযোগ নষ্ট হওয়া থেকে বাঁচাবে সাথে সাথে কাজের প্রতি আকৃষ্ট হতে বিভিন্ন মনোযোগ আকর্ষণ কারী ওয়ালপেপার শো করবে। আপনি চাইলে শিডিউল করেও এই সেবা ব্যবহার করতে পারেন। Hide feeds এর মাধ্যমে আপনি আরও জানতে পারবেন এটি ব্যবহার করে প্রতিদিন কত ঘণ্টা আপনার বেচে গেছে।

২. Matter

আপনার প্রতিদিনের কাজ গুলো একের পর এক মনোযোগ এর সাথে করতে এই ওয়েবসাইট আপনাকে দারুণ ভাবে সহায়তা করবে। চলে যান Matter এর ওয়েবসাইটে এবং New বাটনে ক্লিক করে আপনার টাস্ক গুলো সাজিয়ে নিন সিরিয়াল ভাবে। এখানে শুধু মাত্র টেক্সটের মাধ্যমে টাস্ক তৈরি করতে পারবেন।

আপনার কাজ গুলো prioritize এর মাধ্যমে সিরিয়াল করতে পারবেন এবং কোন কাজটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ এটা সার্কেলের মাধ্যমে নির্দিষ্ট করতে পারেন যেমন, বড় সার্কেলের টাস্কটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কাজ শেষ হলে finish বাটনে ক্লিক করে লিস্ট থেকে ডিলিটও করে দিতে পারবেন নির্দিষ্ট টাস্ক।

ওয়েবসাইটটি আপনি চাইলে ডার্ক/লাইট দুই মুডেই ব্যবহার করতে পারেন এবং ইচ্ছে মত ফন্টের ধরন এবং সাইজও পরিবর্তন করতে পারেন।

Matter আপনার ডাটা গুলো মনে করিয়ে দিতে দারুণ সাহায্য করবে এবং প্রতিদিনের কাজের লিস্ট রাখবে। সারাদিন কি কি করবেন তা লিস্ট করে আপনার দিনটি শুরু করতে পারেন Matter দিয়ে।

৩. Cleverest

এই Cleverest অ্যাপ জানে কিভাবে আপনার ফোন আপনার মনোযোগ নষ্ট করে, আপনি কিভাবে মাত্র ১০ সেকেন্ডের জন্য কোন মেসেজ চেক করতে গিয়ে হারিয়ে যান। এই অ্যাপ টি আপনার সকল নির্দিষ্ট করে দেবে যার মাধ্যমে আপনি অন্যদিকে অতিরিক্ত সময় দিতে পারবেন না।

আপনি Cleverest অ্যাপ টি ওপেন করেই social, work, এবং relax এর জন্য নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করে দিতে পারবেন। তারপর চেক করবে আপনি কাজ রেখে ফোনে অন্য কিছু করছেন কিনা।

Cleverest অ্যাপ আপনাকে প্রায়ই নোটিফিকেশন দেবে যা আপনি ইগ্নুর করতে পারবেন না। আপনি অ্যাপ থেকে বেরিয়ে অন্য কিছু করলে এটি ১০ সেকেন্ড কাউন্টডাউন করবে এবং আপনি ফিরে না আসলে সেশন ক্যান্সেল হয়ে যাবে।

আপনি মনোযোগের সাথে কাজ করার জন্য Cleverest একটি দারুণ strategy অবলম্বন করে। একই সাথে এই অ্যাপ আপনার প্রতিদিনের সকল সেশন গুলোর ডাটাও সেভ করে রাখবে। আপনি চেক করতে পারবেন আপনার কাজের পরিমাণ।

৪. I Miss The Office

এবার আলোচনা করব আমার দেখা সেরা টুলটি নিয়ে। অনেকে আছেন যারা শুধু মাত্র অফিসেই কাজ করতে অভ্যস্ত, বাসায় নীরব পরিবেশে কাজে মন বসে না। এমনি কি বিভিন্ন রিসার্চেও উঠে এসেছে অফিস, কফি-শপ বা বিভিন্ন কোলাহল পূর্ণ জায়গায় বেশি সৃজনশীল চিন্তা মাথায় আসে। তাই আপনার  ঘরে, অফিসের ফিল দিতে আছে চমৎকার এই I Miss The Office ওয়েবসাইট।

I Miss The Office এই ওয়েব অ্যাপটি মোটামুটি আপনাকে একটি কর্মক্ষেত্রের সাউন্ড দিতে পারে। এখানে বিভিন্ন ইলিমেন্টে ক্লিক করে, এসির সাউন্ড সহ আরও অনেক ইলিমেন্টের সাউন্ড শুনতে পারবেন। নিচের ডান পাশ থেকে সিলেক্ট করতে পারবেন আপনার আশেপাশে কয়জন colleague থাকবে।

একটি অফিসে যত ধরনের শব্দ হয় সবই শুনতে পারবেন I Miss The Office এই ওয়েব অ্যাপটির মাধ্যমে যেমন, কথোপকথন, হাসাহাসি, গুনগুন করা ইত্যাদি।

এখানে সিলেক্ট করা আপনার কলিগরাও প্রিন্টার, ওয়াটার কুলার, কম্পিউটার ইত্যাদি ব্যবহার করবে এবং আপনি এগুলো চালানোর সাউন্ড পাবেন। চাইলে নিজের ইচ্ছে মত যেকোনো ইলিমেন্টে ক্লিক করে সেটা অফ/অন করতে পারবেন। আপনি ঘরের বাইরে যেকোনো জায়গায় ও আপনার এই ভার্চুয়াল অফিসের পরিবেশ ব্যবহার করতে পারবেন।

৫. Distraction Journal এবং Pass তৈরি করুন

টিউনের এই পর্যায়ে আমি কোন অ্যাপ বা টুলের কথা আলোচনা করব না এবার আমি আপনার পরিচয় করিয়ে দেব দুইটি কার্যকারী ব্লগের সাথে, যেখানে আপনি কাজে মনোযোগী হবার বিভিন্ন টেকনিক খুঁজে পাবেন। এর মধ্যে দুইটি টেকনিক আমি এখানে তুলে ধরব।

আসলে আমাদের কাজের মধ্যে Distraction থাকবেই তবুও চেষ্টা করতে হবে কিভাবে সেটা কমিয়ে আনা যায়।

এই Work Awesome ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনি বিভিন্ন টেকনিক পেতে পারেন যেমন, তারা সাজেস্ট করে, আপনি নিজেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ Distraction pass দিন। প্রতিদিন অন্তত তিনটি পাস ব্যবহার করুন। মানে হচ্ছে আপনি প্রতিদিন কাজের পাশাপাশি, মনোযোগ কিছুটা নষ্ট হলেও নির্দিষ্ট কিছু কাজ করতে পারবেন। যেমন কাজে আরও সৃজনশীল হতে আপনার ব্রেন কে কিছুটা বিশ্রাম অথবা বিনোদন দিতে পারেন।

এই The Financial Diet ওয়েবসাইট আপনাকে সাজেস্ট করে, আপনি যখন কাজ করে বেশি ক্লান্ত হয়ে যান তখন কিছুটা বিরতি নিয়ে একটা জার্নাল লিখে ফেলুন। এতে করে আপনি ব্রেনকে কিছুটা বিশ্রাম দিয়ে আবার কাজে ফিরতে পারবেন।

উপরের দুইটি পদ্ধতি আপনাকে মেন্টাল লোড কমেতে সাহায্য করবে। আমি মনে করি Distraction এর বিরুদ্ধে লড়াই করার চেয়ে এর মাঝেই উপরের দুই পদ্ধতি ব্যবহার করে কাজে মনোযোগী হওয়া বেশি সহজ।

কাজের ফোকাস কন্ট্রোল করতে কোলাহল কন্ট্রোল করুন

এই টিউনে বর্ণিত অ্যাপ গুলো বা এক্সটেনশন গুলোর মাধ্যমে হয়তো নোটিফিকেশন বা ডিভাইস সংক্রান্ত ঝামেলা মিটাতে পারবেন কিন্তু ভাল কাজের পরিবেশ পেতে আপনাকে শান্ত এবং নিবিড় পরিবেশ লাগবে। আপনি কখনোই বাজে কোলাহলপূর্ণ পরিবেশে কাজ করতে পারবেন না। তাই আপনার আশপাশ কোলাহল মুক্ত রাখুন।

শেষ কথাঃ

আমি মনে করছি উপরের পদ্ধতি গুলো অবলম্বন করে আপনি বাসায় থেকেও অফিসের পরিবেশ পেতে পারেন এবং মনোযোগ দিয়ে কাজ করতে পারেন। এবং কিছু ক্ষেত্রে কাজে রিফ্রেশমেন্ট পেতে অবশ্যই নিজের ব্রেনকে বিশ্রাম দিন।

কেমন হল আজকের টিউন তা অবশ্যই টিউমেন্টের মাধ্যমে জানাবেন।

পরবর্তী টিউন পর্যন্ত ভাল থাকুন। আমাদের সমসাময়িক যে সংকট চলছে এর থেকে রক্ষা পেতে সবাই সচেতন থাকবেন কারণ আপনার সচেতনতাই পারে আমাদের সবাইকে খারাপ অবস্থা থেকে বাঁচাতে। সবাই বাসায় থাকুন আর আল্লাহর উপর ভরসা রাখুন, আল্লাহ হা-ফেজ।

Level 34

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 9 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 568 টি টিউন ও 200 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 116 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস