সন্তানের ওপর মা-বাবার রক্তের প্রভাব (বিয়ের আগেই জেনে নিন, না হলে পস্তাইবেন। কারন বিয়ের আগে বড় ও কনের রক্তের গ্রুপ জেনে নেয়া খুবই প্রয়োজন, যা ভবিষৎ এ কাজে লাগবে)!!!

আস্‌সালামুআল্লাইকুম!!! সবাইকে শুভেচ্ছা। নিশ্চই আপনারা সবাই ভাল আছেন। আজ নতুন একটা বিষয় আপনাদের জানাবো। যা আপনাদের জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। না দেখলে পস্তাইবেন ভবিষতের জন্য। আসুন তাহলে দেখে নেই............

বর্তমানে প্রচুর পরিমানে থ্যালাসেমিয়া(রক্তের গ্রুপের উপর নির্ভর করে না। রক্ত এ রোগের পজেটিভ এবং নেগেটিভ বাহক হিসাবে কাজ করে। তাই রক্ত পরিক্ষা করে নিন আপনি এর বাহক কিনা), আরএইচ হিমোলাইটিক, হাইড্রপস ফিটালিস ইত্যাদি রোগ ধরা পড়ছে। যার প্রভাব শিশুদের উপর সবচেয়ে বেশি। আর এ রোগ গুলি আসে পিতা মাতার রক্তের গ্রুপ ভিত্তিক গরমিল থেকে। স্বামী এবং স্ত্রীর রক্ত (রক্তের গ্রুপের) উপর নির্ভর করে শিশুর সুস্থতা। আর এই গ্রুপের গরমিল হলেই আপনার শিশু ঝুঁকিতে পড়তে পারে। তাই বিয়ের আগেই আপনারা সবাই নিজে এবং যাকে বিয়ে করে নিশ্চিত হয়ে নিন যে আপনারা উপযুক্ত কিনা ? আরও সুবিধার জন্য আমি নিচে একটা চার্ট দিয়ে দিলাম যা দেখলে আপনারাই বুঝে যাবেন যে আপনার কোন রক্তের গ্রুপ আর আপনি কোন রক্তের গ্রুপের সঙ্গীকে বিয়ে করবেন। আর ও বিস্তারিত জানার জন্য একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন

আসুন তাহলে দেখে নেয়া যাক..........

ঝুঁকির সম্ভাবনা:

মায়ের পজেটিভ(+) ও নেগেটিভ (-) রক্তের গ্রুপের সঙ্গে বাবার পজেটিভ (+) ও নেগেটিভ (-) রক্তের গ্রুপের সম্পর্ক-ঝুঁকি।

মায়ের রক্তের গ্রুপ

বাবার রক্তের গ্রুপ

ঝুঁকি

এ+, বি+, ও+ বা এবি+

এ+, বি+, ও+ বা এবি+,এ-, বি-, ও- বা এবি-

ঝুঁকি নেই।

এ-, বি-, ও- বা এবি-

এ-, বি-, ও- বা এবি-

ঝুঁকি নেই।

এ-

এ+

১৬%

বি+

বাচ্চার রক্তে গ্রুপের ওপর নির্ভর করে ২-১৬% ঝুঁকি।

ও+

১৬%

এবি+

বাচ্চার রক্তে গ্রুপের ওপর নির্ভর করে ২-১৬% ঝুঁকি।

বি-

এ+

বাচ্চার রক্তে গ্রুপের ওপর নির্ভর করে ২-১৬% ঝুঁকি।

বি+

১৬%

ও+

১৬%

এবি+

বাচ্চার রক্তে গ্রুপের ওপর নির্ভর করে ২-১৬% ঝুঁকি।

ও-

এ+

বাচ্চার রক্তে গ্রুপের ওপর নির্ভর করে ২-১৬% ঝুঁকি।

বি+

বাচ্চার রক্তে গ্রুপের ওপর নির্ভর করে ২-১৬% ঝুঁকি।

ও+

১৬%

এবি+

২%

এবি-

এ+, বি+, ও+ বা এবি+

১৬%

সাবধানতা :

১. বিয়ের আগে সবার (বর/কনে) রক্তের গ্রুপ টেস্ট করে নেওয়া দরকার যাতে পরবর্তীতের বড় ধরনের সমস্যা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।

২. আপনি যদি থ্যালাসেমিয়া বাহক হন তাহলে এ বাহক যেন আপনার বউ এর না হয় সেই ভাবে বিয়ের প্রস্তুতি গ্রহন করুন।( এখানে আপনাকে রক্ত পরিক্ষা করতে হবে যে আপনি বাহক কিনা বা আপনার যে বউ হবে সে বাহক কিনা। এখানে রক্তের গ্রুপ পরিক্ষা করার প্রয়োজন নেই)

৩. পরিকল্পিত পরিবার গড়ার জন্য সবসময় সচেতন থাকুন এবং বিশিষ্ট ডাক্তারের পরামর্শ গ্রহন করুন।

৪. রক্ত গ্রহনের সময় বহনকারী রক্ত ভাল করে পরীক্ষা করে নিন।

৫. একি সিরিঞ্জ বার বার ব্যবহার করবেন না। অন্যের সিরিঞ্জ নিজে ব্যবহার করবেন না।

৬. আপনার জন্য যেন আপনার সন্তান পরবর্তীতে বিপদে না পড়ে সেই জন্য আগের প্রস্তুতি গ্রহন করুন।

৭. আর ও বিস্তারিত জানার জন্য একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

আজ এ পর্যন্তই। আবার আপনাদের সাথে দেখা হবে নতুন কোন বিষয় নিয়ে। কোন ভুল হলে ধরিয়ে দিবেন। কিছু জানার থাকলে কমেন্ট করে জানাবেন। আল্লাহ্‌ হাফেজ!!!

Level 0

আমি Golam Muhammad Sabbir। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 8 টি টিউন ও 115 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

Donnobad, Shundor ekti information dear jonno. Valo thakun.

    @FARID:
    ধন্যবাদ!!! আরো বিস্তারিত জানার জন্য একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

যখন বর এবং কনে হয়ে যায় তখন আর রক্ত পরীক্ষাকরে কি লাভ? বিয়ে করা বউ রক্ত পরীক্ষা করার পর নেগেটিভ হলে কি করবেন?? বরং পরীক্ষাটা আর আগে করা দরকার।

    @বাধঁন:
    হ্যা আগে করার জন্য আপনাদের কে জানানো হলো। তাছারা বিয়ের পর ও পরিক্ষা করে দেখতে পারেন যে আপনি বাহক কি না?

Level 0

thanks brother for good tune because i am unmarried . so i think this and take system before marriage.

    @wahabvoipp:
    ধন্যবাদ!!! আরো বিস্তারিত জানার জন্য একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

cousin-k bia kora thake biroto thakun…..Serious !

    @damnamsogood:
    না এটা বলা যায় না। তা জানার জন্য একজন অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

      @Golam Muhammad Sabbir: Bro , my uncle is doactor and GODPROMISE , he has no daughter :P; he told me that. besides i have read an article on this, around 12 years ago.. sorry cant give you the references . i am sure that you can get the evidence of my comment.

        @damnamsogood:
        @damnamsogood:
        ok!!! thanks!!!
        আপনার পরিচয় টা আমার জানার দরকার। পরিচয় দিলে ভাল হয়। ভাল থাকবেন। আমার জন্য দোয়া করবেন।

@Golam Muhammad Sabbir, tune করার আগে ভালভাবে জেনে শুনে তা করা উচিত। blood group-এর গরমিলের কারণে thalassemia হয় এই প্রথম শুনলাম। মায়ের রক্তের গ্রুপ negative এবং বাবার রক্তের গ্রুপ positive হলে যদি মায়ের গর্ভের বাচ্চার রক্তের গ্রুপ positive থাকে তবে দ্বিতীয় বার গর্ভ ধারণের সময় positive বাচ্চার jaundice বা hydrops fetalis হতে পারে। এটাকে বলে Rh incompatibility বলে। মায়ের রক্তের গ্রুপ ‘ও’ হলে এবং বাচ্চার রক্তের গ্রুপ ‘এ’ বা ‘বি’ হলে অনেক সময় নবজাতকের jaundice-এর মাত্রা বেশি হতে পারে। এটাকে বলে র ABO imcompatibility। সচেতন থাকলে এবং দ্রুত ব্যবস্থা নিলে নবজাতকের ক্ষতি এড়ানো সম্ভব বা চিকিৎসা সম্ভব। অন্যান্য ক্ষেত্রে যে ভীতি সঞ্চার করা হয়েছে তা অবান্তর। তবে কোন বাবা মা যদি thalassemia ক্যারিয়ার থাকে তবে বাচ্চার thalassemia হতে পারে। তাই বিয়ের আগে thalassemia ক্যারিয়ার কিনা তা পরীক্ষা করা উচিত। রক্তের গ্রুপের সাথে কোন সম্পর্ক নেই। রক্তের গ্রুপ নিয়ে অহেতুক ভীতি সৃষ্টি করা ঠিক হয়নি। আশা করি ভবিষ্যতে এই ধরণের tune করলে তা কোথা থেকে সংগ্রহ করেছেন তার reference দিবেন।

    @mohsinhasan77:
    ধন্যবাদ ভূল ধরিয়ে দেয়ার জন্য( আমি সংশোধন করেছি। পোষ্টা একটু ভাল করে পড়ুন প্লিজ)। আরেক টা কথা আমি কিন্তু শুধু thalassemia রোগের কথা বলি নাই। পোষ্টা একটু আপনার ভালকরে পড়া উচিত ছিল। তারপর কমেন্ট করা দরকার ছিল। যাই হোক। hydrops fetalis, hydrops fetalis, jaundice– এই রোগ গুলি যদি আপনার কাছে ক্ষুদ্র মনে হয়ে থাকে তাহলে আমার কিছু বলার নাই। আগেই সাবধান হওয়া কি ভাল নয় বলুন!!! আর আমি তো পোষ্টের কোথাও বলিনি যে এ রোগ গুলির কোন চিকিৎসা নেই। আর আমি কারো মনে কোনো ভীতি ও সৃষ্টি করি নাই। সবাই কে একটু সাবধানতা অবলম্বন করতে বলেছি। আপনি না পড়ে না বুঝে এ কমেন্ট করেছেন। আর যাই হোক। কমেন্ট করার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আর আপনি রেফারেল চেয়েছেন। তাই বলছি একজন ভাল ডাক্তারের পরামর্শ নিন যে আমার কথা গুলো ঠিক আছে কিনা। খামখা রেগে যান কেন? (রেগে গেলেন তো হেরে গেলেন)…

যেই একখান ভয় পাইচিলাম, আমার “ইয়ের” (যদিও বিয়া হয় নাই) রক্তের গ্রুপ এ- আর আমার ও+ কিনা ! বাঁচাইলেন ভাই । @>mohsinhasan77

    @Dark Prince:
    ভাইয়া আমি আপনাকে ভয়ের কিছু বলি নাই। সাধারন একটা জিনিস। আপনি কি চান আপনার সন্তান পৃথিবির মুখ দেখে সামান্য অসুস্থ থাকুক। নিশ্চই চান না। তাই আগে থেকেই সাবধান থাকা ভাল। ধন্যবাদ আপনাকে!!!

Level 0

এত কিছু হিসাব করে দুনিয়া চলে না।

    @iamnayem:
    just সামান্য একটু সাবধানতা। এই আর কি? ভাল থাকবেন।

Level 0

বাহ্ আমি দেখি যে কাওকে বিয়ে করতে পারব। 😉

    @nucleus: @nucleus:
    চমৎকার !!!

    @nucleus: r ami kauk na 😉

      @damnamsogood:
      কেন পারবেন না। অবশ্যই পারবেন। আসলে আপনি কাজিন কে উল্লেখ করেছেন বলে মনে হয়। নো টেনশন ডাক্তার রা আছেন কিসের জন্য বলেন। ইনশাল্লাহ আপনি অনেক সুন্দরি একজনকে পাবনে। আল্লাহ আপনার সহায় হোন।

Share korar jonno tnx

@Golam Muhammad Sabbir:
থ্যালাসেমিয়া(রক্তের গ্রুপের উপর
নির্ভর করে না। রক্ত এ রোগের
পজেটিভ এবং নেগেটিভ বাহক
হিসাবে কাজ করে।
আপনার কথা ধরেই বলছি, রক্ত কোন দিনও থ্যালাসেমিয়া র বাহক হিসেব কাজ করেনা। রক্তের হিমোগ্লোবি ন ইলেক্ট্রোফোরেসিস পরীক্ষার মাধ্যমে থ্যালাসেমিয়া বাহক সনাক্ত করা যায় মাত্র। গর্ভাবস্থায় chorionic villus sampling বা amniocentesis এর মাধ্যমে বাচ্চার রোগ আগেই বলে দেয়া সম্ভব। এই রোগ রক্তের মাধ্যমে ছড়ায় না। এটা একটা genetic disease. এমনকি বাবা মা সম্পূর্ণ সুস্থ থাকার পরেও কোন কোন ক্ষেত্রে এটি হতে পারে।তবে বিয়ের আগে hemoglobin electrophoresis করে নেওয়াটা ভাল। দুই জন বাহকের মধ্যে বিয়ে হওয়াটা ঠিক নয়। cousin marriage পরিহার করলে genetic disease – মাত্রা কমানো সম্ভব হতে পারে।
আপনি genetic problem আর blood group একসাথে মিশিয়ে ফেলেছেন।
আপনার লেখার heading দেখে মনে হয় blood group ই সব কিছুর জন্য দায়ী।

    @mohsinhasan77:
    আবার আপনাকে ধন্যবাদ কমেন্ট করার জন্য!!!
    (আপনার কথা ধরেই বলছি, রক্ত কোন দিনও থ্যালাসেমিয়া র বাহক হিসেব কাজ করেনা। রক্তের হিমোগ্লোবি ন ইলেক্ট্রোফোরেসিস পরীক্ষার মাধ্যমে থ্যালাসেমিয়া বাহক সনাক্ত করা যায় মাত্র)। আপনি এটা বলতে কি বুঝিয়েছেন তা নিজেই বোঝেন নি। রক্ত যদি বাহকই না হবে তাহলে কিভাবে এটা সনাক্ত করবেন। আর হিমোগ্লোবিন কি রক্তের কোন অংশ নয়? আপনি বার বার গ্রুপের কথা বলেছেন। আমি আসলে এখানে সার্বিক ভাবে আলোচনা করেছি। শুধু থ্যালাসেমিয়া নিয়ে নয়। আর আমি কোথাও বলিনি যে রক্তের মাধ্যমে থ্যালাসেমিয়া ছরায়। বলেছি পিতা মাতা যদি বাহক হিসেবে কাজ করে তাহলেই এ রোগ শিশুর হতে পারে আবার নাও হতে পারে।আর আপনি বলেছেন–(তবে বিয়ের আগে hemoglobin electrophoresis করে নেওয়াটা ভাল। দুই জন বাহকের মধ্যে বিয়ে হওয়াটা ঠিক নয়)— আর এই কথাটাই আমি পোষ্টে বুঝিয়েছি। কিন্তু আপনিই গুলিয়ে ফেলেছেন। আপনি আবার বলেছেন–(আপনি genetic problem আর blood group একসাথে মিশিয়ে ফেলেছেন)— আসলে এখানে আপনি বুঝতে ভুল করেছেন। এখানে আমি সার্বিক ভাবে আলোচনা করেছি। আপনি আবার বলেছেন—(আপনার লেখার heading দেখে মনে হয় blood group ই সব কিছুর জন্য দায়ী।)—- এখানেও আপনি ভুল করছেন। আমি বলেছি “সন্তানের ওপর মা-বাবার রক্তের প্রভাব (বিয়ের আগেই জেনে নিন, না হলে পস্তাইবেন। কারন বিয়ের আগে বড় ও কনের রক্তের গ্রুপ জেনে নেয়া খুবই প্রয়োজন, যা ভবিষৎ এ কাজে লাগবে)!!!” —- আপনি একটু লক্ষ করলেই দেখতে পারবেন যে — এখানে আমি রক্তের প্রভাব এর কথা বলেছি। আর ব্রাকেটে গ্রুপের কথা বলেছি। কিন্তু আপনি উল্টা দেখেছেন। আপনার হেডিং টা ভাল করে পড়া উচিত ছিল। কিছু মনে করবেন না , এখানে আমি সার্বিক আলোচনা করেছি। আবার বলছি আপনি একটু ভাল করে পড়ে নিন। কমেন্টে আপনি যা বলেছেন ঠিক সেই কথা গুলিই আমি বলেছি। আপনি বুঝতে পারলে আমি ধন্য হবো!!!

আমার তিন চাচা একই রোগে মারা গেছেন।তাদের রোগটা ছিল প্রধানত একটি অন্যরকমের যা প্রধানত পায়খানার ধারে হত । প্রথমে পায়খানা কষা হত । এর পরে রক্ত আসা শুরু করত এবং এক সময় পায়খানার ধারে মাংসের পিন্ডের ন্যায় কিছু বের হত । এবং এরা ভেবেছিল যে এটি নাকি গুটির ব্যারাম । তাই তার গাছ লাগিয়ে ছিল এটি কেটে ফেলার জন্য।এরপর এটি কেটে পড়ে যায় এবং ধীরে ধীরে তারা ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে পড়ে । এরপর তিন চার বছর ধরে অসুখে পড়ে থেকে প্রথমে চাচা মোঃ আশরাফুল আলম (বয়স হয়েছিল25বছর) । এর পাঁচ মাস পর রেজাউল করিম(27) (আমার জীবনে নবী (সাঃ)ও আমার পিতা মাতার পর যে মানুষটি সবচাইতে প্রিয় ছিল)। তারা আজ থেকে প্রায়10বছর আগে মারা গেছেন । এ রোগ তাদের প্রায় একসাথেই হয়েছিল । তার দুজনেই অবিবাহিত ছিলেন ।
এরপর গত 17ই ডিসেম্বর 2012 সোমবার রাত ৯টার পর অরেক চাচা মোঃ গোলাম মোস্তফা মারা গেছেন । তিনি বিবাহিত ছিলেন।তার বয়স হয়েছিল ৩২বছর । তারও একই রোগ হয়েছিল । এবং প্রচুর চিকিত্‍সা করা হয়েছিল । তবুও তাদের এ দুনিয়াতে জায়গা হল না।
তবে আমার দাদা তার আপন মামাত বোনকে বিয়ে করছিলেন । তারা যথাক্রমে1997ও1998 সালে মারা গেছেন । অনেকের মুখে শুনি যে দাদীর ও এই রোগ ছিল।তাহলে কি তারা বংস গত ভাবে এমন রোগে আক্রান্ত হয়েছিল নাকি রক্তের সম্পর্ক ? তাদের রোগ সারানোর কি কোন পথ ছিল ?

    @মোঃ আসাদউল্লাহ আসাদ:
    আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। এ রোগ গুলো আসলে আনেক জটিল। আনেকে আনেক নাম ধরে ডাকে। আনেকের ধারনা এটা বংশ গত। আবার আনেকের এমনিও হয়। তবে ভয়ের কিছু নাই। এখন এরোগের অনেক সুন্দর চিকিৎসা আছে। শুরুতে চিকিৎসা করলে এরোগ সহজে ভাল হয়।
    সবচেয়ে ভাল হয় আপনি একজন ভাল অভিজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন। তাহলে উপকার পাবেন। এ বিষয়ের অনেক ভাল ডাক্তার আছেন। ইনশাল্লাহ্‌ ভাল পরামর্শ পাবেন।

      @Golam Muhammad Sabbir: ধন্যবাদ । তবে এখন আর ডাক্তারের কাছে যাইতে মন চায়না ভাই । কারন যেয়েও কোন লাভ নাই । যাদের জন্য ডাক্তারের কাছে যাব তারা কেউইতো বেচে নেই ।

        @মোঃ আসাদউল্লাহ আসাদ:
        আপনাকেও ধন্যবাদ।
        যদি আপনি মনে করেন এটি বংশ গত। তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ নেয়া জুরুরি। তাদের জন্য দোয়া করবেন তারা যেন বেহেস্তে থাকে। আল্লাহ তাদের সহায় হোন। আর নিজেরা আগেই সাবধান হওয়ার চেষ্টা করব।

@onirban:
১% ঝুকি নিয়েও কি কেউ কোন কাজ করতে চাই বলুন ভাই? আর তেমন কোন সমস্যা নয় । ভাল ডাক্তারের পরামর্শ নিলেই তা সমাধান হবে। তবে থ্যালাসেমিয়াটা খুব খারাপ । এটা কখুনোই ঠিক হয় না। আপনি কেন ঝুকি নেবেন? সাবধান থাকা কি ভাল নয়। আল্লাহ আমাদের সহায় হোন!!!

চমৎকার একটি পোস্ট দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ………………………………..

Level 0

নিশন্দেহে অসাধারন