কার্বন নিরপেক্ষতা অর্জনে এক বছরে মাইক্রোসফটের অর্জন

Level 28
সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা

গত এক বছর আগে, মাইক্রোসফট ২০৩০ সালের মধ্যে একটি কার্বন নিরপেক্ষ সংস্থা হওয়ার একটি দু: সাহসিক পরিকল্পনা প্রকাশ করেছিল। মাইক্রোসফট এর মত একটি টেক জায়েন্ট কোম্পানি যার উপস্থিতি প্রতিটি মহাদেশে রয়েছে, এমন একটি কোম্পানির পক্ষে এই অল্প সময়ে এই পরিকল্পনা কতটা কার্যকর হতে পারে, এটিই ভাবছে বিশেষজ্ঞরা। তো এক বছর পরে এখনো কি মাইক্রোসফট তার লক্ষ্যে রয়েছে?

মাইক্রোসফট এর প্রেসিডেন্ট ব্র্যাড স্মিথ তাদের Microsoft blog এ তাদের অগ্রগতি সম্পর্কে একটি বিশদ বিবরণ প্রদান করেছেন।

মাইক্রোসফট ইতিমধ্যে যে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক স্পর্শ করেছে সেগুলো তালিকাবদ্ধ করেছে স্মিথঃ

  • মাইক্রোসফট  এর কার্বন নিঃসরণ ৬ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে যা প্রায় ৩০, ০০০ মেট্রিক টন।
  • মাইক্রোসফট বিশ্বব্যাপী ২৬ টি প্রকল্পে অবদান রেখে ১.৩ মিলিয়ন মেট্রিক টন কার্বন অপসারণ করেছে।
  • বার্ষিক স্থায়িত্ব প্রতিবেদন নিরীক্ষণের জন্য অ্যাকাউন্টিং ফার্ম Deloitte এর সাথে কাজ করে, স্বচ্ছতা নিশ্চিত করা হচ্ছে।

মাইক্রোসফট আরও কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছে। উদাহরণস্বরূপ, কোম্পানিটি "scope 3 emissions" নামে আরও পণ্য অন্তর্ভুক্ত করতে তাদের অভ্যন্তরীণ কার্বন কর বাড়িয়েছে।

"কয়েক বছর ধরে আমরা আমাদের Scope 1 এবং 2, নিঃসরণে অভ্যন্তরীণ কার্বন কর প্রয়োগ করেছি। এর অর্থ হল মাইক্রোসফট প্রতিটি ভ্রমণ এবং ইলেক্ট্রিসিটি এর জন্য প্রত্যক্ষ নির্গমনে অভ্যন্তরীণভাবে (মেট্রিক টন প্রতি ১৫ ডলার হিসাবে) অর্থ প্রদান করেছিল। গত জুলাই ১ আমাদের নতুন অর্থবছরের শুরুতে, Amy Hood আমাদের অভ্যন্তরীণ কার্বন করকে বাড়িয়ে 3 স্কোপ এর অন্তর্ভুক্ত করেছে, যেখানে শুরুতে প্রতি টন পাঁচ ডলার করে হলেও প্রতিবছর তা বৃদ্ধি পাবে"।

অন্যান্য ক্ষেত্রেও মাইক্রোসফট ছোট ছোট পরিবর্তনের মাধ্যমে এগিয়ে গিয়েছে। যেমন নতুন Xbox কনসোলগুলিতে একটি নতুন ফিচার অন্তর্ভুক্ত রয়েছে যা ডিভাইস স্ট্যান্ডবাই মোডে প্রবেশ করার সময় বিদ্যুৎ অপচয় 15W থেকে 2W বিদ্যুৎ ব্যবহার কমিয়ে দেয়। যদি ১০ মিলিয়ন কনসোলের হিসেব করা হয় তাহলে দেখা যায় এটি দুর্দান্ত।

মাইক্রোসফ্টের চিফ এনভায়রনমেন্টাল অফিসার লুকাস জোপ্পার অফিশিয়াল মাইক্রোসফ্ট ব্লগে আরেকটি প্রতিবেদনে টেকসইযোগ্যতা লক্ষ্য সম্পর্কিত আরও তথ্য প্রদান করেছেন।

"মাইক্রোসফটের অভ্যন্তরে আমাদের শর্তগুলি অবশ্যই, স্পষ্ট টেকসই বিনিয়োগ এবং উদ্ভাবনের সংস্কৃতি তৈরি করতে, আমাদের শাসন ও জবাবদিহিতা কাঠামোকে সম্প্রসারণ ও জোরদার করে। একই সাথে জানা গেছে ২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিরপেক্ষতায় পৌঁছানোর লক্ষ্য অর্জন করতে মাইক্রোসফট ছয় শর্ত পালন করতে বাধ্য রয়েছে।

বলা যায়, মাইক্রোসফ্ট যদি তাদের লক্ষ্য এগিয়ে যায় তাহলে, ২০৩০ সালের মধ্যে তাদের অঙ্গীকার বা কার্বন নিরপেক্ষতা অর্জন করতে না পারলেও পৃথিবীকে অনেক কিছু দিতে পারবে।

-
টেকটিউনস টেকবুম - ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২১

Level 28

আমি সোহানুর রহমান। সুপ্রিম টিউনার, টেকটিউনস, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 480 টি টিউন ও 186 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 56 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো প্রজাপতির ডানা ঝাপটানোর মত ঘটনা পুরো পৃথিবী বদলে দিতে পারে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস