নিউরালিংক কী? Neuralink এর তৈরি চিপ বা ব্রেন-ইমপ্ল্যান্ট কম্পিউটার মানুষের মস্তিকে কীভাবে কাজ করে?

Level 15
কন্টেন্ট রাইটার, টেল টেক আইটি, গাইবান্ধা

২০২৩ সালের শেষের দিক থেকে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে অনেক বেশি হাইপ তৈরি হয়েছিল। আর তারপর থেকেই Google, Facebook সহ সকল কোম্পানির তাদের বিভিন্ন সার্ভিসের জন্য এআই প্রযুক্তি সামনে নিয়ে আসে। তবে, এগুলোর মধ্যে থেকে সবচেয়ে বেশি আলোচনা তৈরি করেছে OpenAI এর তৈরি করা ChatGPT।

আর এর পরবর্তী সময়ে এসব প্রযুক্তিকে ছাড়িয়ে আরো সবচেয়ে বেশি যে প্রযুক্তি বেশি আলোচনা তৈরি করেছে, সেটি হল ইলন মাস্ক এর তৈরি করা ব্রেন-ইমপ্ল্যান্ট কম্পিউটার বা Neuralink চীপ।

আজকের এই টিউনে নিউরালিংক কী এবং Neuralink কীভাবে কাজ করে, তা সম্পর্কে সহজভাবে ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করব।

নিউরালিংক (Neuralink) কী?

নিউরালিংক (Neuralink) কী?

নিউরালিংক হলো একটি ব্রেন কম্পিউটার ইন্টারফেস, যা একটি সার্জিক্যাল রোবট দিয়ে মানুষের মস্তিষ্কে বসানো হয়। নিউরালিংক ডিভাইসটি একজন রোগীর মস্তিষ্কে বসানো হলে, এটি একটি External কম্পিউটারের সাথে যোগাযোগ করতে পারে।

এটি মূলত পক্ষাঘাত-গ্রস্ত ব্যক্তি, হাত-পা ও শরীর নড়াচড়া করতে অক্ষম এরকম রোগীদের জন্য তৈরি করা হয়েছে। এই কোম্পানিটির বর্তমান ফোকাস প্যারাপ্লেজিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তি, দৃষ্টিশক্তি, বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধকতা, বিষণ্ণতা, সিজোফ্রেনিয়া, স্থূলতা সহ আরো বিভিন্ন শারীরিক সমস্যার সমাধানের জন্য এটি দিয়ে কাজ করা হবে। যাতে করে সেসব রোগীরা সহজে এবং আরো স্বাভাবিক জীবনযাপনে সাহায্য করা যায়।

নিউরালিংক নিয়ে এমনভাবে কাজ করা হচ্ছে, যাতে করে মানুষ তার চিন্তাশক্তি দিয়ে স্মার্টফোন এবং কম্পিউটার মাউসের মতো ডিভাইস গুলোর নিয়ন্ত্রণ করতে পারে। সেই সাথে, নিউরালিংক চিপ মানুষের মস্তিষ্কে স্থাপন করার মাধ্যমে তার মস্তিষ্কের সিগন্যাল এবং সেই সাথে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের নড়াচড়ার প্রভাবগুলো বিশ্লেষণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

নিউরালিংক এর তৈরি চিপ বা ব্রেন-ইমপ্ল্যান্ট কম্পিউটার মানুষের মস্তিকে কীভাবে কাজ করে?

নিউরালিংক এর তৈরি চিপ বা ব্রেন-ইমপ্ল্যান্ট কম্পিউটার মানুষের মস্তিকে কীভাবে কাজ করে?

সাম্প্রতিক সময়ে ইলন মাস্কের প্রতিষ্ঠান নিউরালিংক মানুষের মস্তিষ্কে নিজেদের তৈরি ব্রেনচিপ সফলভাবে স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছে। আর ইলন মার্কস একটি টুইট বার্তায় এমনটি ও বলেছেন যে, যাকে এই ব্রেন চিপটি পড়ানো হয়েছিল, তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেছেন। আর প্রাথমিকভাবে এই চিপটির মাধ্যমে মানব মস্তিষ্ক থেকে নিউরোস্পাইক সনাক্ত করা গেছে।

নিউরালিংক এর তৈরি এই চিপটি তাদের তৈরি করা বিশেষ এক রোবটের মাধ্যমে মানুষের মস্তিষ্কে সার্জারি এর মাধ্যমে স্থাপন করা হয়। যেখানে, এই ডিভাইসটির সাইজ একটি কয়েনের চেয়েও ছোট। আর এতে রয়েছে সূক্ষ্ম তার, যেগুলো সেই রোবটের মাধ্যমে মানুষের মস্তিষ্কে সাবধানে স্থাপন করা হবে।

তারপর, ব্রেন-ইমপ্ল্যান্ট কম্পিউটার টি মস্তিষ্ক থেকে রাসায়নিক সিগন্যাল গুলো গ্রহণ করার পর তা ব্লুটুথ এর মাধ্যমে অন্য ডিভাইসে পাঠায়।

Neuralink বৈদ্যুতিক আবেগ সনাক্ত করতে, রেকর্ড করতে এবং তা পাঠাতে ক্ষুদ্র ইলেক্ট্রোড ব্যবহার করে। নিউরালিংক এ থাকা ইলেক্ট্রোডগুলি সেন্সর হিসাবে কাজ করে, যা ইলেকট্রিক্যাল সিগন্যালগুলো সনাক্ত করে এবং সেগুলো ডিভাইসে পাঠায়। একই সময়ে মানুষের চিন্তা এবং অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের কাজ করার বিষয়টি নিউরালিংক বিশ্লেষণ করে এবং তা ওয়ারলেস এর মাধ্যমে অন্য ডিভাইসে প্রেরণ করা যায়।

নিউরালিংক এর এই ডিভাইসটি ওয়ারলেস এর মাধ্যমে চার্জিং হয় এবং একইভাবে ওয়্যারলেস এর মাধ্যমে মোবাইলে এই ডাটা ট্রান্সফার হয়।

নিউরালিংক এর ব্রেন-ইমপ্ল্যান্ট টেকনোলজিটি আসলে এই মুহূর্তে শারীরিক অসুস্থতা, বড় কোন আঘাত এবং জেনেটিক বিভিন্ন জটিল অবস্থার ক্ষেত্রে সাহায্য করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। আর পূর্বেও এমনটি বলা হয়েছে, Neuralink মূলত বিভিন্ন শারীরিক অক্ষমতা সম্পন্ন রোগীদের স্বাভাবিক জীবন যাপনের সাহায্য করার জন্য কাজ করবে। এক্ষেত্রে, Parkinson's, Alzheimer's এবং আরো অন্যান্য স্নায়ুবী রোগে আক্রান্ত রোগীরা ও নিউরালিংক ইমপ্ল্যান্ট থেকে উপকৃত হতে পারেন বলে আশা করা যায়।

Neuralink চিপটি কী নিরাপদ?

Neuralink চিপটি কী নিরাপদ?

ভবিষ্যৎ প্রযুক্তিতে এআই এবং ব্রেন ইমপ্ল্যান্ট নিয়ে অনেকের মধ্যেই অনেক উদ্বেগ বিরাজ করছে। আর ইতিমধ্যেই অনেকেই এমনটি দাবি করেছেন যে, কীভাবে এসব ডিজিটাল ব্রেন ইমপ্ল্যান্ট আমাদের জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে। এমনটি বলার পেছনে তাদের অন্যতম যুক্তি হলো, এই ইমপ্ল্যান্টগুলো মানসিক অসুস্থতার কারণ হতে পারে। ‌আবার কেউ কেউ এমনটি মনে করেন যে, এ ধরনের ব্রেন চিপ এর মাধ্যমে‌ ভবিষ্যতে মানুষের মন নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব।

কিন্তু, Neuralink নিয়ে এ ধরনের মন্তব্য সবই সায়েন্টিফিক মুভি এর মত। ‌তাহলে, নিউরালিংক মানুষের ব্রেনে স্থাপন করলে, এতে কী কোন ঝুঁকির কারণ হবে না?

এই মুহূর্তে নিউরালিংকের মত ব্রেন-ইমপ্ল্যান্ট কম্পিউটার বা চিপ কতটা নিরাপদ হবে তা বলা বেশ কঠিন। ‌ কারণ, এই মুহূর্তে ও নিউরালিংক এর তৈরি চিপ ব্যাপকভাবে মানুষের শরীরে স্থাপন করা হয়নি। যদিও সম্প্রতিক সময়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হিসেবে একজন মানুষের মস্তিষ্কে নিউরালিংক স্থাপন করা হয়েছে এবং তিনি সুস্থ হয়েও উঠেছেন বলে দাবি করা হচ্ছে।

যাইহোক, এই মুহূর্ত পর্যন্ত Neuralink এর এই চিপটি অনেক প্রাণীর উপর পরীক্ষা করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে যেমন: শুকর, ইঁদুর এবং বানর। আর একটি শুকরের উপর একটি বিশেষ পরীক্ষায় দেখা গিয়েছে যে, প্রয়োজনে তার শরীর থেকে নিউরালিংক ইমপ্ল্যান্ট নিরাপদে অপসারণ ও করা যেতে পারে।

তার মানে হল যে, কোন একজন মানুষের শরীরে আজীবন এই ইমপ্ল্যান্ট বা ব্রেন চিপ স্থাপন করার প্রয়োজন নেই। এক্ষেত্রে, যেকোনো সময় সেই মানুষের শরীর থেকে নিউরালিংক চিপটি অপসারণ করা ও সম্ভব। আর বর্তমানে এই ব্রেন চিপটি মানুষের মস্তিষ্কে স্থাপন করার জন্য নিউরালিংক বিশেষ এক ধরনের রোবট বা সার্জিক্যাল মেশিন তৈরি করেছে, যা কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই নিখুঁতভাবে মানুষের মস্তিষ্কে নিউরালিংক ডিভাইসটি কোন ধরনের জটিলতা ছাড়াই স্থাপন করতে সক্ষম।

শেষ কথা

নিউরালিংক এর লক্ষ্য হলো যে, যাতে করে শারীরিক অক্ষম ব্যক্তিদের স্বাভাবিক জীবন যাপনে সাহায্য করে যায়। ‌নিউরোটেকনোলজিতে অগ্রগতি করার ক্ষেত্রে নিউরালিংক সত্যিই অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা যায়। আর ইতিমধ্যেই অনেক প্রতিষ্ঠান‌ এ ধরনের ইমপ্ল্যান্ট নিয়ে কাজ করছে এবং তারা যথেষ্ট সাফল্য অর্জন করছে।

তাই এখন দেখার বিষয় হল যে, নিউরালিংক সত্যিই প্যারাপ্লেজিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তি, দৃষ্টিশক্তি, বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধকতা, বিষণ্ণতা, সিজোফ্রেনিয়া, স্থূলতা সহ আরো অন্যান্য ব্যক্তিদের স্বাভাবিক জীবন যাপনের ফিরিয়ে আনতে কাজ করতে পারে কিনা। তবে, নিউরালিংক এর ভাষ্যমতে, তারা এই ডিভাইসটির বিভিন্ন ট্রায়ালে আশানুরূপ ফলাফল পেয়েছে, এমনটি বলছে।

Level 15

আমি মো আতিকুর ইসলাম। কন্টেন্ট রাইটার, টেল টেক আইটি, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 364 টি টিউন ও 93 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 61 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 3 টিউনারকে ফলো করি।

“আল্লাহর ভয়ে তুমি যা কিছু ছেড়ে দিবে, আল্লাহ্ তোমাকে তার চেয়ে উত্তম কিছু অবশ্যই দান করবেন।” —হযরত মোহাম্মদ (সঃ)


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস