বিশ্বে টাকা উপার্জনকারী শীর্ষ কিছু ওয়েবসাইট

টিউন বিভাগ প্রযুক্তি কথন
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

বর্তমান যুগকে বলা হয় প্রযুক্তি এবং উন্নয়নের যুগ, যেখানে যে যত বেশি দক্ষ সে তত বেশি এগিয়ে। অর্থ উপার্জনের ক্ষেত্রেও তাই, যেসকল ওয়েবসাইট বা কোম্পানি দিন বদলানোর সাথে সাথে নতুন কিছু মানুষকে উপহার দিতে পেরেছে তারাই টিকে রয়েছে। আজকে তেমনই কিছু ওয়েবসাইট নিয়ে বলব যারা সারা বিশ্বে বিলিয়ন মিলিয়ন আয় করে চলেছে প্রতি সেকেন্ডে। হয়ত আপনি নিজেও সেসকল ওয়েবসাইটে যুক্ত আছেন প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে।

১। আমাজন

আয়ের দিক দিয়ে বর্তমানে সবথেকে শীর্ষে রয়েছে আমাজন, যদিও আমাজন এবং গুগল এর মধ্যে কম বেশি সবসময় একটা হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই চলতেই থাকে। আমাজন তার বিভিন্ন এফ্লিয়েটেড ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ইনকামের শীর্ষে পৌছে গেছে। আমাজন প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৪ সালে, এর প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস তার গ্যারেজে বসে এটি তৈরি করে। কি হাস্যকর লাগছে? কিন্তু এটাই সত্যি, গ্যারাজে প্রতিষ্ঠিত আমাজন এখন সারা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মানুষের কাছে অনলাইন কেনাকাটার জনপ্রিয় মাধ্যম হয়ে উঠেছে।

আপনি জানেন কি আমাজনের প্রতি সেকেন্ডের উপার্জন কত? প্রতি সেকেন্ডে আমাজন প্রায় ১৫০০০ ইউএস ডলার ইনকাম করছে। শুধু তাই নয় ২০২১ সালে এর মোট রেভিনিউ ছিল প্রায় ৪৬৯.৮২ বিলিয়ন ডলার।

২। গুগল

আমাজনের পরে বর্তমানে সবথেকে বেশি আয় করছে গুগল। গুগল প্রতি মিনিটে প্রায় সাড়ে চার লাখ ইউএস ডলার আয় করে। এটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৯৮ সালে ক্যালিফোর্নিয়াতে। গুগল মুলত ইন্টারনেট সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে সবথেকে বেশি জনপ্রিয়। জনগনের হাতের নাগালে সকল ইউনিভার্সাল ইনফরমেশন এনে দেওয়ায় গুগলের উদ্দেশ্য।

আচ্ছা আপনাকে যদি প্রশ্ন করা হয় গুগলের ফুল এভ্রিভেশন বলুন তো, তাহলে আপনি পারবেন কি? আমি জানি অনেকেই হয়ত পারবেন আবার অনেকেই পারবেন না। গুগলের ফুল মিনিং হচ্ছে Global Organization of Oriented Group Language of Earth, কি আপনি জানতেন গুগলের আসল এভ্রিভেশন? যদি জেনে থাকেন তাহলে অবশ্যই টিউমেন্ট করবেন। গুগল শব্দটি এসেছে মুলত গোগোল (googol) থেকে যার বাংলা অর্থ দাঁড়ায় একটি বিশাল সংখ্যা।

বর্তমানে প্রায় ৪.৩ বিলিয়ন মানুষ গুগল ব্যবহার করছে এবং গুগল ব্যবহারকৃত দেশের মধ্যে সবথেকে এগিয়ে আছে আমেরিকা। গুগলের বেশিরভাগ ইনকাম আসে এর মালিকানাধিন বিভিন্ন সাইটে দেয়া বিজ্ঞাপণের মাধ্যমে।

৩। ফেসবুক

টাকা উপার্জনের তালিকার প্রথম দিকে ফেসবুকের নাম টিও রয়েছে। আমাদের সবার কাছে যেমন একটি এন্ড্রয়েট মোবাইল বা কম্পিউটার রয়েছে ঠিক তেমনি কম-বেশি সবার একটি ফেসবুক একাউন্টও রয়েছে তাই না! ফেসবুক মুলত আমাদের যোগাযোগ মাধ্যমকে অনেক সহজ করে দিয়েছে। ফেসবুকের মাধ্যমে আমরা যেকোনো স্থান থেকে আমাদের দৈনন্দিন জীবনের মুহূর্তগুলোকে শেয়ার করতে পারি। জানতে পারি জানা অজানা অনেক তথ্য, দেখতে পারি অনেক না দেখা স্থান। আমরা সবাই জানি ফেসবুক আমাদের জীবনের বেশ অনেক জায়গা জুড়ে রয়েছে তাই নয় কি?

মার্ক জুকারবার্গ ২০০৪ সালে এটি প্রতিষ্ঠা করেন, যেটা প্রতিনিয়ত নতুন নতুন আপডেট নিয়ে আসছে আমাদের কাছে। আপনি জানেন কি ফেসবুকের প্রায় ৩ বিলিয়ন মাসিক একটিভ ইউসার রয়েছে, এবং আপনি জানলে অবাক হবেন প্রতিদিন প্রায় ১ বিলিয়নের বেশি স্টোরি টিউন হয় ফেসবুকে।

বর্তমানে ফেসবুক ব্যবহারের শীর্ষে রয়েছে আমাদের পাশের দেশ ভারত এবং দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে আমেরিকা। ফেসবুক প্রতি সেকেন্ডে প্রায় ৩৭০০ মার্কিন ডলায় আয় করছে এবং ২০২১ সালে এটি মোস্ট ভ্যালুয়েবল ব্রান্ডের সাত নম্বরে স্থান করে নেয়।

এছাড়া অর্থ আয়ের তালিকায় রয়েছে জেডি.কম, ইয়াহু.কম, আলিবাবা, পেপাল আরও বেশ জনপ্রিয় কিছু সাইট। কিন্তু আজকের এই ব্লগে শুধু তিনটি সাইট নিয়েই আলোচনা করেছি, আশা করছি আপনারা আর্টিকেলটি পড়ে উপকৃত হবেন। এখানে যে স্ট্যাস্টিকাল ফিগারের কথা বলা হয়েছে সেগুলো আমি যেখান থেকে সংগ্রহ করেছি তার লিংক দিয়ে দেয়া হচ্ছে যাতে আপনাদের কোনো সন্দেহ থাকলে দেখে নিতে পারেন।

সংযুক্তিঃ

https://www.cnbc.com/2021/05/01/how-much-revenue-tech-giants-like-amazon-and-apple-make-per-minute.html
https://www.javatpoint.com/full-form-of-google
https://blog.hootsuite.com/facebook-statistics/
https://www.scrolldroll.com/interesting-facts-about-amazon/
https://www.helium10.com/blog/how-much-does-amazon-make-a-day/

Level 1

আমি রফিক মেহফুজ। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 7 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস