শাওমির যে ফাস্ট চার্জার টি দিয়ে ৮ মিনিটে মোবাইল ফুল চার্জ করা যাবে

টিউন বিভাগ প্রযুক্তি কথন
প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 6
এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা

বন্ধুরা সবাই কেমন আছেন? আশা করছি বরাবরের মত আপনারা সবাই আল্লাহর রহমতে অনেক ভাল আছেন। আমিও বরাবরের মত আপনাদের জন্য নতুন একটি টিউন নিয়ে হাজির হয়েছি। তো চলুন, কথা না বাড়িয়ে টিউনটি শুরু করা যাক।

বর্তমানে আমরা যারা নতুন স্মার্টফোন কিনতে চাই তাদের ক্ষেত্রে দরকার পড়ে বেশি ক্ষমতা সম্পন্ন ব্যাটারি। যেখানে আমাদের সারাদিন মোবাইল ব্যবহার করার দরকার পড়ে। কিন্তু আমরা সারাদিন মোবাইল ব্যবহার করার পর যখন মোবাইলে চার্জ ফুরিয়ে যায়, তখন আমাদের ব্যস্ততার শেষ থাকে না। কেন যে আমাদের মোবাইলের চার্জ শেষ হয়ে গেল, এটি ভেবেই মন অস্থির হয়ে যায়। যেখানে মোবাইল চার্জ দেওয়ার ক্ষেত্রে আমাদের ব্যস্ততার কারণে স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান গুলো নিয়ে এসেছে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা।

কেমন হবে শাওমির তৈরি এই ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি?

ফাস্ট চার্জিং সুবিধার ফলে খুব অল্প সময়েই আমরা আমাদের এই স্মার্টফোনটিকে চার্জ করতে পারছি। কিন্তু বর্তমানে যে ফাস্ট চার্জিং সুবিধাটি রয়েছে এটিও হয়তোবা আমাদের জন্য মনের মত নয়। যেখানে আমরা চাই আরো বেশি তাড়াতাড়ি যেন আমাদের মোবাইলে চার্জ হয়। কেননা আমাদের প্রতিটি মুহূর্তের মূল্য অনেক বেশি। আর যাই হোক, আমাদের মোবাইলে চার্জ দ্রুত হওয়াই চাই।

আর আর এজন্য নতুন মোবাইল কেনার ক্ষেত্রে আমরা বেশি ওয়াট যুক্ত ফাস্ট চার্জিং সুবিধা যুক্ত মোবাইল খুঁজে থাকি। আর এই চাহিদা থেকেই স্মার্ট ফোন প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলোও চেষ্টা করে যাচ্ছে বেশি ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং সুবিধা দেওয়ার। আর এখান থেকে তৈরি হয়েছে বিভিন্ন কোম্পানির মধ্যে এক ধরনের ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি নিয়ে প্রতিযোগিতা। যেখানে ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি নিয়ে আমরা স্মার্ট ফোন প্রস্তুতকারক কোম্পানি গুলোর মধ্যে সব সময় এক ধরনের প্রতিযোগিতা লক্ষ্য করি। আর এই প্রতিযোগিতার থেকেই সম্প্রতি চীনা কোম্পানি শাওমি তাদের সবচাইতে শক্তিশালী ফাস্ট চার্জিং সুবিধার ডেমো প্রদর্শন করেছে।

যেখানে শাওমি বলেছে, তাদের তৈরী এই তারযুক্ত এবং ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি বিশ্বের নতুন রেকর্ড হতে চলেছে। অর্থাৎ, এটি হবে এখন পর্যন্ত তাদের তৈরি সর্বোচ্চ ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি; যা বিশ্বে এখন পর্যন্ত প্রথম। এজন্য শাওমি তাদের Mi 11 Pro ফোনটিতে মডিফাই করে সেটিতে ফাস্ট চার্জিং এর এই সুবিধাটি ডেমো হিসেবে দেখিয়েছে। যেখানে শাওমি এই ফাস্ট চার্জিং এর নাম রেখেছে “হাইপারচার্জ”। শাওমির এই হাইপার চার্জ প্রযুক্তিটি মূলত বর্তমান সময়ের সবচাইতে বেশি ক্ষমতা সম্পন্ন চার্জিং সিস্টেম।

যেখানে শাওমি বলেছে, তাদের তৈরি এই চার্জারটির ক্ষমতা ২০০ ওয়াট। এই তারযুক্ত চার্জিং সিস্টেম টি কোন একটি 4000mAh এর ব্যাটারি কে মাত্র ৮ মিনিটে সম্পূর্ণ চার্জ করতে সক্ষম। অপরদিকে ১২০W এর একটি ওয়্যারলেস চার্জিং যেখানে 15 মিনিটে একটি 4000 এমএইচ ব্যাটারি কে ফুল চার্জ করতে সক্ষম। আর এর ফলে আশা করা যায় যে, এই প্রযুক্তির ফলে ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তিতে এক ধরনের নতুন গতি পাবে। যেই প্রযুক্তিটি এখনকার সময়ে সর্বোচ্চ এবং কম সময়ে চার্জ দেবার ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা এনে দিবে।

এছাড়া শাওমি দেখিয়েছে যে, এই প্রযুক্তি ব্যবহার করে একটি 4000mAh এর ব্যাটারি কে ৪৪ সেকেন্ডের মধ্যে ০% চার্জ থেকে কিভাবে ১০% চার্জ করা যায়। আবার যেখানে ৫০% চার্জ হতে সময় নেয় মাত্র তিন মিনিট এবং ফুল চার্জ হতে বা ১০০% চার্জ পূর্ণ হতে সময় নেয় ৮ মিনিট। যা বর্তমান সময়ে বাজারে থাকা অন্যান্য সকল ফাস্ট চার্জিং চার্জার এর চাইতে অনেক বেশি। বর্তমান বাজারে সবচাইতে শক্তিশালী বা সবচাইতে বেশি ফাস্ট চার্জিং সুবিধার চার্জার রয়েছে ১২৫ ওয়াটের। যেই প্রযুক্তিটি বর্তমানে অপ্পোর ১২৫W সুপার ফ্ল্যাশ চার্জ প্রযুক্তি।

যেখানে ওপর এই চার্জারটি দিয়ে ৪০০০ এমএএইচ একটি ব্যাটারিকে চার্জ করতে সময় লাগে ২০ মিনিট। যেখানে বর্তমানে শাওমির তৈরি এই চার্জারটি দিয়ে চার্জ করতে সময় লাগে মাত্র ৮ মিনিট। যা হবে বর্তমান সময়ে বাজারের সবচাইতে বেশি ক্ষমতা সম্পন্ন ফাস্ট চার্জার সুবিধা। তবে শাওমির তৈরি এই হাইপার চার্জ প্রযুক্তিটি কবে নাগাদ বাজারের স্মার্টফোনগুলোতে আসবে সেটির ব্যাপারে এখনও কিছু জানা যায়নি। তবে আশা করা যায় যে, খুব শীঘ্রই এই প্রযুক্তিটি আমাদের শাওমির ভবিষ্যতে স্মার্টফোনগুলোতে দেওয়া হবে; আর যখন এটি আসবে, তখন আপনারা নিশ্চয় সেটি দেখতেই পারবেন।

যেখানে প্রতিনিয়ত আমাদের চাহিদা বাড়ছে স্মার্টফোন ব্যবহার করার, সেখানে আমাদের ভবিষ্যতে এরকম ফাস্ট চার্জিং সুবিধা তো লাগবেই। বর্তমানে আমরা সারাদিন স্মার্টফোন ব্যবহার করলেও চার্জ দেবার ক্ষেত্রে সেই ধৈর্য টুকু আর ধরে রাখতে পারিনা। ‌ আর এই সমস্যা থেকে সমাধান করার জন্যই আমাদের মাঝে প্রত্যেকটি স্মার্ট ফোন প্রস্তুতকারক কোম্পানি ফাস্ট চার্জিং সুবিধা নিয়ে আসছে। ‌ যেখানে আমরা চাই আরো দ্রুতগতিতে আমাদের এই স্মার্টফোনটিকে যেন চার্জ করা যায়। আর এই চাহিদাটি ও ভবিষ্যতে আমাদের পুরণ হতে চলেছে।

শেষ কথা

আমরা যেসব ফোনগুলো ব্যবহার করি সেগুলোতে ফাস্ট চার্জিং সুবিধা ব্যবহার করা হলেও এটি হয়তোবা আমাদের জন্য অতটা মনের মত নয়। যেখানে আমরা চাই আরো দ্রুতগতিতে আমাদের এ স্মার্টফোনটি যেন চার্জ করা যায়। যেখানে শাওমি এজন্য নিয়ে আসছে ২০০ ওয়াট ক্ষমতা সম্পূর্ণ নতুন ফাস্ট চার্জিং সুবিধার স্মার্টফোন। যেটি দিয়ে হয়তোবা আমাদের চাহিদা পূরণ হবে। কেননা এ চার্জারটি দিয়ে আমরা আমাদের সেই ফোনটি মাত্র ৮ মিনিটে চার্জ করতে পারব।

বন্ধুরা, আমার আজকের টিউন টির বিষয়ে এ পর্যন্ত ছিল। যদি আপনাদের কাছে টিউনটি ভালো লেগে থাকে তবে টিউনটিতে কোনভাবেই একটি জোসস করতে ভুলবেন না। এছাড়া নিত্যনতুন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ভিত্তিক আমার পরবর্তী টিউন গুলো দেখার জন্য অবশ্যই আমাকে উপরের ফলো বাটন টি তে ক্লিক করে ফলো করে রাখবেন। এছাড়া আজকের টিউনটি যদি আপনার কাছে পছন্দ না হয়ে থাকে, তবে আমার প্রোফাইল থেকে অন্যান্য টিউন গুলো দেখে নিতে পারেন। যেখানকার কোন একটি টিউন এর মধ্যে আপনার কাছে কোন টিউন নিশ্চয়ই ভালো লাগবে ইনশাআল্লাহ।

আপনি এই লিংকে ক্লিক করে আমার পূর্বের টিউন গুলো দেখতে থাকুন এবং আমিও যাই পরবর্তী নতুন কোন টিউন আপনাদের জন্য নিয়ে আসতে। সে পর্যন্ত আমাকে ফলো করে রাখুন। আজকের এই ছোট্ট টিউনটি তবে এখানেই শেষ করছি। আসসালামু আলাইকুম।

Level 6

আমি আতিকুর ইসলাম। এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 মাস 1 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 160 টি টিউন ও 55 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 15 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

মানুষ পৃথিবীতে জন্মগ্রহণ করে। তারপর কিছুদিন সুখ-দুঃখ ভোগ করে। তারপর মৃত্যুবরণ করে। এটাই মানুষের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস। আমিও সেরকম একজন


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস