VTuber কি? কেন এর জনপ্রিয়তা বেড়েই চলছে?

টিউন বিভাগ প্রযুক্তি কথন
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

হ্যালো টেকটিউনস জনগণ, কেমন আছেন আপনারা সবাই? আশাকরি সবাই ভাল আছেন। এখন থেকে নিয়মিত আবার নতুন টিউন নিয়ে আমরা হাজির হলাম আপনাদের কাছে। আর টেকটিউনসের নিত্যনতুন টপিক আর সার্ভিস নিয়ে ভালো না থেকে আর উপায় আছে? আর এই নিত্যনতুন টপিক আর সার্ভিসের ধারা বজায় রাখার নিমিত্তে, আজকে আমি আপনাদের সাথে একদম নতুন একটি টপিক নিয়ে হাজির হলাম। আর আপনারা এই টিউনের মাধ্যমে জানতে পারবেন অনেক নতুন নতুন সব তথ্য।

VTubers হচ্ছে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি, শব্দ ও আচরণের পদ্ধতি পরিবর্তন করার মাধ্যমে অনলাইন কন্টেন্ট তৈরি করছে। এখানে একটা প্রশ্ন থেকেই যায়, VTubers কারা এবং কেন তারা একজন এভারেজ ইন্টারনেট ইনফ্লুয়েন্সার থেকে আলাদা।

ভার্চুয়াল ইউটিউবার্স

এই VTubers এর সম্পূর্ণ রূপ হচ্ছে “virtual YouTuber”। এটি অনলাইন কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের পক্ষে এমন এক ধরনের টার্ম বা শব্দ যা তাদের শ্রোতাদের কাছে তার কন্টেন্ট স্টিম করার সময় এভাটার বা কার্টুন ব্যবহার করে। তাছাড়া TikTok, YouTube, এবং Twitch এর মত VTubers হচ্ছে স্ট্রিমিং এবং ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম।

VTubers প্ল্যাটফর্মে বেশিরভাগ ইউজার হচ্ছে জাপানের এবং প্রায়শই জাপানি ভাষায় কন্টেন্ট তৈরি করে থাকে। তবে জাপানি কন্টেন্ট ক্রিয়েটরদের সাধারণত বিশ্বব্যাপী ফ্যান-ফলোয়ার রয়েছে। আর VTubers এর এভাটার বা কার্টুন গুলো প্রায়শই জাপানি অ্যানিমেটেড প্রোগ্রামের জন্য আকা ক্যারেক্টারগুলোর মত দেখতে (অন্যভাবে বলতে গেলে "anime" এর ক্যারেক্টারের মিত দেখায়)। বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ মানুষ "anime" দেখেন, আর তাই VTubers এর শ্রোতা সংখ্যা জাপানের বাইরেও উল্লেখযোগ্য হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে।

আগেই বলেছি VTubers এর সম্পুর্ণরূপ হচ্ছে “virtual YouTuber” যা ২০১৬ সালের শেষদিকে VTuber Kizuna AI দ্বারা নির্মিত হয়েছিল। তিনি বিশ্বের প্রথম এবং সবচেয়ে বড় VTubers হিসেবে বিবেচিত হয়। ইউটিউবে বর্তমানে তার ৪ মিলিয়নেরও বেশি ফ্যান-ফলোয়ার রয়েছে এবং তার অন্যান্য সোশ্যাল অ্যাকাউন্টগুলোতে এর থেকেও বেশি ফ্যান-ফলোয়ার রয়েছে। তার জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে পড়লে বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম থেকে কয়েক হাজার নতুন VTubers উঠে এসেছে, আর এরই ধারাবাহিকতায় গত কয়েক বছর ধরে জনপ্রিয়তার বিস্ফোরণ হচ্ছে।

VTubers এর কাজ কি?

VTubers সাধারণত ইউটিউবারদের মতই একই ধরনের কন্টেন্ট তৈরি করে। এছাড়া VTubers এর অনলাইন এক্টিভিটির মধ্যে রয়েছে লাইভ স্ট্রিমিং এ গেমস খেলা, তাদের ফ্যান-ফলোয়ার সাথে কথা বলা, ভাইরাল ট্রেন্ডে পার্টিসিপ্যান্ট করা এবং অন্যান্য ইনফ্লুয়েন্সারের সাথে সহযোগিতায় অংশগ্রহণ করা। এছাড়াও অনেক VTubers আছেন যারা ভয়েসওভার কাজগুলো করে থাকে এবং তাদের নিজস্ব পারসোনালিটির সাথে সম্পর্কিত অরিজিনাল কন্টেন্ট ক্রিয়েট করে।

যারাই VTuber এর সাথে যুক্ত হয়েছে তারাই আলাদা ব্যক্তিত্ব তৈরি করছে। তারা তাদের নিজস্ব নির্দিষ্ট ব্যক্তিত্ব এবং তাদের শ্রোতাদের সাথে কথা বলার বিশেষ ভঙ্গি অবলম্বন করে। এটা নির্ভর করে তারা কি ধরনের কন্টেন্ট তৈরি করে এবং তাদের ফ্যান-ফলোয়াররা কি ধরনের কন্টেন্ট পছন্দ করে তার উপর। তাছাড়া VTubers হতে কোন বাধা নেই পুরুষ এবং মহিলা উভয়ই হতে পারবেন, ফলে বিভিন্ন চমৎকার ক্যারেক্টার গ্রহণ করতে পারবেন এবং ফিকশন ও রিয়্যালিটির মধ্যে আবহ তৈরি কররে পারবেন।

আর বেশিরভাগ VTubers তাদের ফ্যান-ফলোয়ারদের কাছ থেকে সাহায্য ও অনুদান সংগ্রহ করে, পণ্যদ্রব্য বিক্রয় করেন এবং তাদের ভিডিও গুলোতে স্পন্সরশীপ গ্রহণের মাধ্যমে আয় করে থাকে। এছাড়াও Kizuna Al জাপানের পর্যটন অর্গানাইজেশনের ব্রান্ড এম্বাসেডর হওয়ার সাথে সাথে জাপানের পণ্যগুলোর বিশাল বিজ্ঞাপণ প্রচারে সাপোর্ট প্ল্যাটফর্ম হিসেবে VTuber ব্যবহৃত হচ্ছে।

VTuber প্রযুক্তি

এমন বেশ কয়েকটি বাণিজ্যিক প্রোগ্রাম রয়েছে যা ব্যবহার করে VTubers তাদের পছন্দসই চেহারা বানাতে পারবে এবং এভাটার বা কার্টুনের মাধ্যমে ভিডিও কন্টেন্ট তৈরি করতে পারবে। আর VTubers এর প্রোগ্রামগুলো Animoji এর মতোই অনুরূপ প্রযুক্তি ব্যবহার করছে, যা অ্যাপল ডিভাইসে একটি ফিচার, এই ফিচারের মাধ্যমে আপনি নিজেকে অ্যানিমেটেড ইমোজি বানিয়ে ম্যাসেজে সেন্ড করতে পারবেন।

VTuber এ ব্যবহৃত সর্বাধিক জনপ্রিয় অ্যাপগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে VRoid Studio, যা ব্যবহার করে ফ্রিতেই একটি কাস্টম এভাটার বা কার্টুন তৈরি করা যায়। আর এই প্রোগ্রামগুলো তাদের গতিবিধি এবং মুখের ভাবগুলো ট্র‍্যাক করতে মোশন-ক্যাপচার প্রযুক্তি ব্যবহার করে থাকে এবং সেই অনুসারে এভাটার বা কার্টুনটি এডজাস্ট করে। এটা VTubers কে ইলিউশান ছাড়াই ক্যামেরাকে মুভ করতে দেয়।

VTubers তাদের চেহারা পরিবর্তন করার পাশাপাশি ভয়েস চেঞ্জার ব্যবহার করে তাদের আসল ভয়েসকে পরিবর্তন করতে পারে। এই ভয়েস চেঞ্জার ব্যবহার করে তাদের ভয়েস একটু মোটা বা চিকন করে অথবা পুরোপুরি পরিবর্তন করে থাকে। যেহেতু বেশিরভাগ VTubers মিউজিক তৈরি করে, তার ভয়েস চেঞ্জার এর মাধ্যমে সেই মিউজিকগুলো তাদের নামের অধীনে প্রকাশ করতে পারে ফলে কপিরাইট লঙ্ঘন হাওয়ার কোন প্রশ্নই উঠে না।

দর্শকদের সাথে তাদের ব্যক্তিত্ব ফুটিয়ে তোলার পাশাপাশি VTubers তাদের পরিচয় গোপন রাখার জন্য এই প্রোগ্রামগুলো ব্যবহার করে থাকে। আর এই প্ল্যাটফর্মে ইনফ্লুয়েন্সারের প্রকৃত পরিচয় তাদের দর্শকদের প্রকাশ করা খুবই অস্বাভাবিক, আর তাই এই অ্যাপ্লিকেশানগুলো তাদের মুখ না দেখিয়েই কন্টেন্টগুলো দর্শকদের সামনে প্রকাশ করে।

VTuber ইন্ডাস্ট্রি

জাপানি অনলাইন সংস্কৃতির বিশাল একটি অংশ VTubers এ প্রবেশ করেছে, যার ফলে এটি তাদেরকে নিয়ে একটি শক্তিশালী শিল্প তৈরি হয়েছে। এর মধ্যে VTuber প্রযোজনা কোম্পানিগুলো অন্তর্ভুক্ত রয়েছে যা VTubers এবং তাদের ভিডিওগুলোকে স্কাউট, ট্রেনিং এবং প্রোডিউস করে। তাছাড়া Hololive Production, এর মত এগুলোর কয়েক ডজন ইউটিউব চ্যানেল এবং কন্টেন্ট ক্রিয়েটর এবং কয়েক মিলিয়ন ভিউ রয়েছে।
এছাড়াও VTuber এর মাধ্যমে জাপানের বাইরেও VTuber কালচার প্রসারিত হয়েছে, জাপানের বাইরের কন্টেন্ট ক্রিয়েটররা তাদের লাইভ স্ট্রিম এবং ভিডিও চলাকালীন মোশন-ক্যাপচার ফিচারটিকে তুমুলভাবে গ্রহণ করেছে।

ফিউচার কন্টেন্ট

কাল্পনিক চরিত্রগুলো সত্যিকারের মানুষের সাথে আলাপচারিতা দীর্ঘকাল ধরেই জনপ্রিয় সংস্কৃতিতে পরিণত হয়েছে। ২০০০ সালের প্রথম দিকে, অ্যানিমেটেড ব্যান্ড Gorillaz কয়েক মিলিয়ন রেকর্ডিং বিক্রি করেছিল। আর এই মোশন-ক্যাপচার প্রযুক্তি ব্যবহার করে হাজারো চলচ্চিত্র এবং ভিডিও গেমস তৈরি করা হয়েছে এবং এই ব্যয়বহুল প্রযুক্তিটি VTuber এর মাধ্যমে সহজলভ্য হয়েছে।

অন্তর্নিহিত প্রযুক্তিটি আরও উন্নত এবং অ্যাক্সেসযোগ্য হওয়ার সাথে সাথে আমরা VTubers এবং অ্যানিমেটেড ইনফ্লুয়েন্সাররা মিডিয়াতে শীর্ষস্থানীয় মিডিয়াতে ফিচার করতে দেখা যায়।

টিউন জোসস করুন, আমার টিউন শেয়ার করুন, টেকটিউনসে আমাকে ফলো করুন, আপনাদের মতামত জানান

আমি এরকম নিত্যনতুন কাজের সফটওয়্যার নিয়ে টেকটিউনসে হাজির হবো নিয়মিত। তবে সে জন্য আপনার যা করতে হবে তা হলো আমার টেকটিউনস প্রোফাইলে আমাকে ফলো করার জন্য 'Follow' বাটনে ক্লিক করুন। আর তা না হলে আমার নতুন নতুন টিউন গুলো আপনার টিউন স্ক্রিনে পৌঁছাবে না।

আমার টিউন গুলো জোসস করুন, তাহলে আমি  টিউন করার আরও অনুপ্রেরণা পাবো এবং ফলে ভবিষ্যতে আরও মান সম্মত টিউন উপহার দিতে পারবো।

আমার টিউন গুলো শেয়ার বাটনে ক্লিক করে সকল সৌশল মিডিয়াতে শেয়ার করুন। নিজে প্রযুক্তি শিখুন ও অন্য প্রযুক্তি সম্বন্ধে জানান টেকটিউনসের মাধ্যমে।

Level 8

আমি রায়হান ফেরদৌস। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 7 বছর 12 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 162 টি টিউন ও 129 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 57 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

সুন্দর ছিলো