ক্যামেরার HDR মোড কি এবং ছবি তোলার সময় কেন এটি ব্যবহার করবেন?

Level 6
এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা

বন্ধুরা কেমন আছ সবাই? আশা করি আপনারা সকলেই আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন। তো বন্ধুরা, আমরা কিন্তু প্রয়োজনে কিংবা ও প্রয়োজনে বিভিন্ন ফটো তুলে থেকে মোবাইল দিয়ে। আপনারা যারা মোবাইল দিয়ে ফটো তুলে থাকেন তারা ক্যামেরা সেটিং এ একটি অপশন দেখতে পান HDR নামে। আপনাদের মধ্যে অনেকেই হয়তো জানেন না যে, এই HDR অপশনটি কি এবং এটি ফটো তোলার ক্ষেত্রে কোন কাজে ব্যবহার হয়। তো বন্ধুরা আজকের এই দিনে আমি আপনাদেরকে বলবো ক্যামেরার HDR কি এবং এটি কোন কাজে ব্যবহার হয়?

আমরা যখন কোন ফটো তুলি তখন আমাদের লক্ষ্য থাকে সেটি যেন অনেক সুন্দর হয়। কোন অবস্থাতেই যেন সেই ফটো তে কোন খুঁত থাকে না। এজন্য আমরা বারবার হয়তোবা সেই ফটোটি তুলতে থাকি এবং এসবের মধ্যে যেটি আমাদের কাছে ভালো লাগে সেটি রেখে দেই। তো বর্তমানে স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক কোম্পানি গুলো তাদের ফোনের ক্যামেরার ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্ব দিয়ে থাকে। কেননা বর্তমানে স্মার্টফোন ব্যবহারকারীরা ক্যামেরা এর দিকে সবচাইতে বেশি নজর দেয়।

আমাদের চলার পথের প্রতিটি মুহূর্তকে ক্যামেরাবন্দি করার জন্য দরকার একটি ভালো মানের ক্যামেরা যুক্ত ফোন। তবে ফোনে ক্যামেরা অনেক ভালো হলেও এক্ষেত্রে ছবি তোলার সঠিক নিয়ম যদি আমরা না জানি তবে হয়তোবা ভালো ছবি আমরা তুলতে পারবো না। এক্ষেত্রে আমরা হয়তো বা দোষারোপ করব সেই স্মার্ট ফোন প্রস্তুতকারক কোম্পানি কে। ঠিক একই রকমভাবে ভালো রকমের ছবি তোলার জন্য ফোনের ক্যামেরায় রয়েছে HDR মোড। যেটি ব্যবহার করার মাধ্যমে ছবি কি আরো সুন্দর করা সম্ভব।

ক্যামেরার HDR মোড কি?

আপনারা যারা স্মার্ট ফোন কিংবা ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলে থাকেন সেখানে আপনারা এই HDR মোড টি দেখতে পান। স্মার্টফোনের ছবি তোলার ক্ষেত্রে আপনারা হয়তোবা এটি লক্ষ্য করেন না যে এটি কোন কাজে ব্যবহার হয় অথবা লক্ষ্য করলেও আপনারা এটির আসল কাজ জানেন না। তো আপনি যদি এখনো না জেনে থাকেন যে এই HDR মোড কি এবং এটি কিভাবে কাজ করে তবে আজকের এই টিউন টি আপনি সম্পূর্ণ দেখতে থাকুন। আজকের এই টিউনে আমি বলতে চলেছি এইচডিআর কি এবং এটি কিভাবে কাজ করে এবং কোন কোন অবস্থায় HDR মোড কি ব্যবহার করা উচিত।

HDR এর পূর্ণরূপ হচ্ছে High Dynamic Range। এবার তবে আপনারা বলতে পারেন যে এটা আবার কি? আপনাদের কে বুঝানো সুবিধার্তে এই High Dynamic Range বা HDR কে পেছনে রাখা যাক এবং এটিকে বুঝানোর জন্য আপনাকে একটি উদাহরণ দেওয়া যাক। চলুন এ বিষয়টি নিয়ে নিচে আলোচনা করি।

আপনাদের সাথে কি এমন কখনো হয়েছে যে, আপনি একটি ফটো তুললেন সেখানে সেটির কিছু অংশ দেখা যাচ্ছে আবার কিছু অংশ দেখা যাচ্ছে না। অর্থাৎ, ফটোটি তোলার পর সেটির কিছু অংশে বেশি ব্রাইটনেস এর কারণে সেটি দেখা যাচ্ছে না আবার কিছু অংশে বেশি অন্ধকার এর কারণে সেটি দেখা যাচ্ছে না। এই সমস্যাটি আপনাদের মধ্যে অনেকেরই হয়তো বা হতে পারে। এমনকি এটি আমাদের সঙ্গে প্রায় প্রতিনিয়ত করতে থাকে। তবে আপনি কি জানেন যে এরকম ছবিতে কিসের অভাব রয়েছে?

কোন একটি অংশ অন্ধকার এবং কোনো একটি অংশ বেশি ব্রাইটনেস এর কারণে না দেখার যাবার কারণ হচ্ছে এখানে ডাইনামিক রেঞ্জ। অর্থাৎ ফটোটির Dynamic Range ততটা ভালো নয়। আর এরকম ফটো যদি আপনি HDR মোড চালু করে তোলেন তবে আপনার ফটোটি হবে অনেক Details পূর্ণ। যেরকম ভাবে নিচে এর একটি উদাহরণ দেওয়া হয়েছে। নিচের এই ছবিতে আপনারা দেখতে পাচ্ছেন যে, ছবিটিতে কিছুটা ব্রাইটনেস রয়েছে।

উপরের এই ছবিতে অতিরিক্ত ব্রাইটনেস এর কারণে আকাশের অবস্থা ভালো ভাবে দেখাাই যাচ্ছে না। যেখানে একটি ছবি কিন্তু পূর্ণাঙ্গ রূপ পাচ্ছে না। এভাবে করে যদি আমি আরো অন্য কোন ছবি তুলি তবে সে ক্ষেত্রে এরকম সমস্যা হতে পারে। যেখানে ও এরকম ডাইনামিক রেঞ্জ এর কারণে ছবিটি সম্পূর্ণ Details পূর্ণ হবে না। কিন্তু এই ছবিটি আপনি যদি HDR মোডে তুলতেন তবে সেটি এরকম হতো না। একই অবস্থানে থেকে আমি আরো একটি ছবি HDR মোডে তুলেছি।

এবার আপনি নিচের ছবিটিকে লক্ষ্য করুন। এখানে আপনি দেখতে পাচ্ছেন যে ছবিটিতে আকাশে অতিরিক্ত ব্রাইটনেস থাকা সত্ত্বেও ও সব জায়গা ভালোভাবে দেখা যাচ্ছে।

এখানের এই HDR মোড এর ছবিটি এবং সাধারণ অবস্থার ছবিটি থেকে কতটা আলাদা তা আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন। এখানে বেশি আলোর কারণে যেখানে ছবির ডিটেলস হারিয়ে গিয়েছিল সেখানে HDR মোড দিয়ে ছবি তোলার কারণে সেটি আপনি ফিরে পাবেন। তো এটিই মূলত সাধারন ছবি থেকে High Dynamic Range বা HDR এর পার্থক্য। এবার নিশ্চয়ই বুঝতে পারলাম যে, High Dynamic Range ছবির মধ্যে কিরকম পার্থক্য তৈরী হয়।

মানুষের চোখ একদম উজ্জ্বল আলো এবং কম আলোর ছবি দেখতে পারে না। একজন মানুষ তার চোখের সামনে যতগুলো বস্তু রয়েছে সেগুলো সে একসঙ্গে দেখতে পারে। কিন্তু একটি ক্যামেরা তা পারে না। একটি ক্যামেরা একসঙ্গে শুধুমাত্র একটি ছবিকে ভালোভাবে দেখতে পারে। তো এটিকে একটি উদাহরণের মাধ্যমে জানিয়ে নেওয়া যাক।

তো ধরুন আপনি একটি ঘরের ভিতরে বসে আছেন এবং সেখান থেকে আপনি দূর আকাশের মেঘগুলো কে দেখছেন। এক্ষেত্রে আপনি কি এখন সময় ঘরের ভেতরে থাকা বস্তু এবং আকাশের মেঘগুলো কে কিন্তু দেখতে পাবেন। কিন্তু একটি ক্যামেরা কিন্তু এটি একসঙ্গে করতে পারবে না। একটি ক্যামেরা হয়তোবা একসঙ্গে একটি মেঘকে ভালোভাবে দেখাবে, আবার কখনো বা ঘরের ভেতরে থাকা বস্তুগুলোকে ভালোভাবে দেখাবে। আর যখন সে আকাশের মেঘগুলো কে ভালো ভাবে আপনাকে দেখাবে, তখন দেখতে পাবেন ঘরের ভেতরে থাকা বস্তুগুলো কালো দেখাচ্ছে।

আর যদি সে ঘরের ভেতরে থাকা বস্তুগুলোকে ভালোভাবে দেখায় তবে আকাশকে সে বেশি উজ্জ্বল দেখাবে। যেখানে আকাশ এর ক্ষেত্রে আপনি কোন রকম Details খুঁজে পাবেন না। আর এখানেই এইচডিআর টি কাজে আসে। যেখানে HDR মোডে ছবি তুললে সেই ছবিটির সম্পূর্ণ বর্ণনা দেখতে পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে আপনি একই সময়ে সেই আকাশের মেঘগুলো এবং ঘরের ভিতরে থাকা বস্তুগুলো একই রকমভাবে দেখতে পারবেন।

HDR বা High Dynamic Range মোড কাজ কিভাবে করে?

আমাদের মনে এবার এসব প্রশ্ন হতে পারে যে তবে HDR কাজ কিভাবে করে? যেখানে আমরা একই সময়ে একই ক্যামেরা দিয়ে ছবি তুলছি সেখানে দুইটি ভিন্ন ছবি কেন আসবে। HDR মোড এবং সাধারন মোডে তোলা ছবিগুলো হয় ভিন্ন। দেখুন, আপনি যখন সাধারণ মুডে কোন ছবি তোলেন তখন আপনার ক্যামেরা টি শুধুমাত্র একটি ছবিই তোলে। কিন্তু আপনি যখন HDR মোডে ছবি তোলেন তখন আপনার ক্যামেরা টি একটি ছবি নয়, বরং সেখানে তিনটি ছবি তুলে থাকে।

ব্যাপারটি হয়তোবা আপনি বোঝেন নি। এবার আমি আপনাকে বুঝিয়ে দিচ্ছি। আপনি যখন HDR মোড টি চালু করে কোন ছবি তোলার জন্য ক্লিক করবেন তখন আপনার ক্যামেরা টি পরপর তিনটি ছবি তুলবে। যেখানে একটি ছবি থাকবে হাই ব্রাইটনেস এ তোলা, অন্যটি একেবারে কম আলোতে তোলা এবং অন্যটি সাধারণভাবে তোলা। এক্ষেত্রে যখন আপনার সেই ছবিটি হাই ব্রাইটনেসে তোলা হবে তখন সেটির সকল Details গুলো বেশি পরিমাণে দেখা যাবে।

এভাবে করে আবার যখন কম আলোর অন্ধকার একটি ছবি তুলবে তখন সেই ছবিটি সম্বন্ধে কম আলোর বর্ণনা গুলো দেখা যাবে। এক্ষেত্রে যেখানে হাই ব্রাইটনেস রয়েছিল, সে জায়গায় ছবিগুলোর সম্পূর্ণ বর্ণনা টি দেখতে পারে। আর এভাবে তিনটি ছবি তোলার পর সেগুলো সফটওয়্যারের মাধ্যমে বিশ্লেষণ করে একটি পূর্ণাঙ্গ ছবিতে রূপান্তরিত করা হয়। যেখানে আমরা একটি সম্পূর্ণ মনের মত ছবি পেয়ে যাই।

তো এবার প্রশ্ন হতে পারে যে এইচডিআর কে আমরা কোন কোন কাজে ব্যবহার করতে পারি? অর্থাৎ, HDR মোডে আমরা কখন এবং কোথায় ছবি তুলব?

HDR মোডে কখন ছবি তুলবেন?

দেখুন, উপরে আমার উদাহরণ দেওয়া দুইটি ছবি দেখে হয়তো বা বুঝে গিয়েছেন যে আপনারা কোন জায়গায় HDR মোডে ছবি তুলবেন। আপনার যদি কোন জায়গার ছবি তোলার ক্ষেত্রে একটি জায়গা বেশি উজ্জ্বল হয় এবং অন্য একটি জায়গা বেশি অন্ধকারাচ্ছন্ন বা ডার্ক হয় তবে এক্ষেত্রে HDR মোডে সেখানে ছবি তুলতে পারেন। এমন জায়গায় যদি আপনি HDR মোডে ছবি তোলেন তবে সেখানে একটি ভাল ফলাফল পাবেন। অনেক সময় দেখা যায় যে আপনি কারো একটি ছবি তুলছেন সেখানে তার ব্যাকগ্রাউন্ডে বেশি উজ্জ্বল আলো রয়েছে যার কারণে তার চেহারাটি ভালোভাবে ফোকাস হচ্ছে না, এ ক্ষেত্রে কেবল আপনারা HDR মোড টিকে ব্যবহার করতে পারেন। এটি হতে পারে আকাশের কারণে কিংবা পেছনে কোন লাইট রয়েছে যে কারণে আপনার ছবিতে বেশি পরিমাণ আলো চলে আসতে পারে।

যদি কোন সময় এমন হয় যে আপনি কারো ছবি তুলছেন যেখানে তার মুখের চেহারাটা কালো হচ্ছে এবং পেছনের ব্যাকগ্রাউন্ড অনেক উজ্জ্বল হয়ে যাচ্ছে তবে আপনি এই HDR মোড ব্যবহার করবেন। এতে করে আপনার ছবির ব্যাকগ্রাউন্ডে একটি ব্যালেন্স চলে আসবে এবং ছবিতে একটি ভালো রেজাল্ট পাবেন। এছাড়া আপনি কারো ছবি তোলার পরিবর্তে যেকোনো পরিস্থিতিতে যদি এরকম কোন সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকেন যে কোন জায়গায় উজ্জ্বল আলো এবং কোন জায়গায় অন্ধকারাচ্ছন্ন তবে সেসব জায়গায় HDR মোড ব্যবহার করতে পারেন। যেখানে সূর্যের আলো কিংবা অন্যকোন আলোটি কে কমিয়ে দিয়ে আপনাকে একটি সুন্দর ছবি উপহার দিবে।

কোন পরিস্থিতিতে HDR মোড ব্যবহার করা উচিত নয়?

এইচডিআর মোডে স্থির ছবি তোলা সবসময় সুবিধাজনক। কিন্তু এক্ষেত্রে আপনি যদি কোন মুভিং বা চলমান ছবি তোলেন সে ক্ষেত্রে ছবির কোয়ালিটি খারাপ হয়ে যেতে পারে। কেননা আপনি যখন এইচডিআর মোডে ছবি তুলবেন তখন আপনার ফোনের ক্যামেরা একসঙ্গে তিনটি ফটো তুলবে। আর সেই তিনটি ফটোতে ক্লিক করতে করতে আপনার সাবজেক্ট যদি মুভ হয় তবে আপনার ছবিতে কোনো পরিবর্তনই দেখতে পাবেন না। কেননা আপনি যখন সেই ছবিটি তোলার জন্য ক্যামেরা তে ক্লিক করবেন তখন সে অবস্থাতেই তিনটি ছবি তোলার আগেই সেই বস্তুটি ক্যামেরা থেকে দূরে সরে যাবে।

এসব কারণেই মূলত কোন চলমান বস্তুর ছবি নেওয়ার ক্ষেত্রে এই HDR মোড ব্যবহার করা উচিত নয়। তবে HDR মোডে চলমান কোন বস্তুর ছবি তুললে তেমন কোন পার্থক্য হয় না। এক্ষেত্রে আপনি সে সময়ে এই মোডে ছবি তুলে দেখতে পারেন।

দ্বিতীয়তঃ অন্ধকারাচ্ছন্ন অবস্থায় এইচডিআর মোডে ছবি তোলা উচিত নয়। রাতের বেলা যদি আপনি HDR মোড চালু করে ছবি তোলেন, সে ক্ষেত্রে আপনার সেই ফটোটি সাধারণ ছবির চাইতে কিছুটা ডার্ক হবে। রাত্রিবেলায় ছবি তোলার ক্ষেত্রে সবচাইতে ভালো হচ্ছে Night mode ব্যবহার করা। বর্তমানের প্রায় সকল ফোনের ক্যামেরাতেই আলাদা করে নাইট মোড থাকে। এক্ষেত্রে রাত্রি বেলায় ছবি তোলার ক্ষেত্রে সবচেয়ে ভালো নাইট ব্যবহার করা।

তো বন্ধুরা আমি আশা করছি যে আপনারা ইতিমধ্যে বুঝতে পেরেছেন যে HDR কি, আর এটিকে কোন কোন পরিস্থিতিতে ব্যবহার করা উচিত এবং কোন কোন পরিস্থিতিতে ব্যবহার করা উচিত নয়। যদি আপনার কাছে এই টিউনটি ভাল লেগে থাকে তবে জোসস করতে ভুলবেন না। টিউন টি কেমন লাগল তাও অবশ্যই টিউমেন্ট করে জানাবেন এবং আপনাদের বন্ধুদের কে জানাতে শেয়ার করবেন। আর আপনি যদি এরকমই টিউন দেখতে পছন্দ করেন তবে আমাকে ফলো করে রাখবেন ভবিষ্যতে নতুন কোন টিউন দেখার জন্য।

তো আজকের টিউনটি এ পর্যন্তই। সবাই যে যার অবস্থানে থেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করুন এবং করোনাভাইরাস মহামারী থেকে বাঁচার জন্য আল্লাহর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করুন। দেখা হবে তবে পরবর্তী টিউনে ইনশাআল্লাহ। শেষ সময় পর্যন্ত আমাকে ফলো করে সঙ্গেই থাকুন এবং দেখতে থাকুন টেকটিউনস। আসসালামু আলাইকুম।

Level 6

আমি আতিকুর ইসলাম। এইচএসসি ২য় বর্ষ, জুমারবাড়ী আর্দশ ডিগ্রি কলেজ, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 120 টি টিউন ও 51 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 13 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

মানুষ পৃথিবীতে জন্মগ্রহণ করে। তারপর কিছুদিন সুখ-দুঃখ ভোগ করে। তারপর মৃত্যুবরণ করে। এটাই মানুষের সংক্ষিপ্ত ইতিহাস। আমিও সেরকম একজন


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস