পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী ল্যাপটপ! কি আছে এতে?

কেমন আছেন সবাই? কাজে খুব ব্যস্ত থাকায় ইচ্ছে থাকা স্বত্বেও লেখালেখি খুব একটা হয়ে উঠছে না। আমি একজন কম্পিউটারের নিয়মিত পণ্য ও গ্যাজেট ব্যবসায়ী এবং নিত্যনতুন নানা ধরণের গ্যাজেটের প্রতি খুবই দূর্বল। ব্যবহার করার পাশাপাশি এগুলোর গোপন প্রযুক্তি নিয়ে চিন্তাভাবনা ও গবেষণা করতে ভালোবাসি।

আজকে আলোচনা করছি বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ল্যাপটপটি নিয়ে। যদিও এটি আমার কাছে নেই তবু লিখতে ভালো লাগছে। আমাদের দেশের বাজারে পরিচিত একটি ব্র্যান্ড ‘এসার’ কৃতিত্ব নিয়েছে এই ল্যাপটপটি তৈরীর। প্রচন্ড শক্তিধর ল্যাপটপটি তৈরী করা হয়েছে বাঘা বাঘা নির্মাতাদের সব পার্টসগুলো নিয়ে। কতটুকু হাইএন্ডের ল্যাপটপ আপনি দেখেছেন বা ব্যবহার করেছেন? যতটুকু ভেবে বের করতে পারবেন আমার মনে হয় তার থেকেও বেশী আছে এই ল্যাপটপে। এই ল্যাপটপটি হলো- Acer Predator 21x একে একে এর ফিচারগুলো তুলে ধরছি। দেখুন-

  • - একুশ ইঞ্চি মাপের পর্দার ল্যাপটপটির স্ক্রীন কিন্তু কার্ভড। অর্থাৎ বাকানো ডিসপ্লে।
  • - ইন্টেল কোর আই সেভেন সপ্তম প্রজন্মের প্রসেসর দেয়া হয়েছে এই পিসিতে (7820HK)। তাও আবার ওভারক্লক করা যায়।
  • - র‌্যাম দেয়া হয়েছে ৬৪ জিবি ডিডিআর-৪, ২৪০০ বাস।
  • - চারটি ৫১২ জিবি এসএসডি (সলিড স্ট্যাট ড্রাইভ) ও একটি হার্ড ডিস্ক ড্রাইভ একই সাথে চালানো সম্ভব এতে।
  • - উচ্চতর গেমিং নির্ভর করায় এতে দেয়া হয়েছে দুইটি এনভিডিয়া জিফোর্সের জিটিএক্স ১০৮০ মডেলের জিপিইউ, যাদের এক একটির মেমোরী ৮জিবি করে, অর্থাৎ সর্বমোট ভিডিও মেমোরী ১৬জিবি।
  • - ৭০-৭৫ হার্টজ স্ক্রীন রিফ্রেশ রেট আমরা দেখে আসছি। এতে রয়েছে ১২০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট।
  • - আই ট্র্যাকিং প্রযুক্তি যুক্ত করা হয়েছে এতে।
  • - সাউন্ডের জন্য দেয়া হয়েছে চারটি স্পিকার ও দুটি সাব উফার।
  • - ৫টি সিস্টেম ফ্যান সংযুক্ত করা হয়েছে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে।
  • - ফুল আকারের কীবোর্ড রয়েছে যা এলইডি লাইটিং যুক্ত।
  • - রয়েছে একটি ভিন্ন রকমের রিম্যুভেবল টাচপ্যাড যার অপরপিঠে নিউম্যারিক প্যাড।
  • - রয়েছে চারটি ইউএসবি ৩.০০ পোর্ট, ২টি ভিডিও পোর্ট, ল্যান ও অডিও পোর্ট ইত্যাদি।

৮.৮ কেজি ওজনের এই ল্যাপটপটি চালাতে প্রয়োজন হয় দুইটি এডাপটার যা একসাথে লাগিয়ে নিতে হয়। চালু অবস্থায় ল্যাপটপটি দেখতে আরো বেশী আকর্ষণীয় মনে হয় এর মধ্যে থাকা লাইটিং  এর কারণে। সবই ঠিক আছে কিন্তু সমস্যা হলো এর দাম। এটি কিনতে হলে গুণতে হবে ৯০০০ ডলার। অর্থাৎ প্রায় ৭২০০০০ টাকা। এতো কিছু জেনে নিশ্চয়ই আপনাদের এটি দেখতে ইচ্ছে হচ্ছে। ইউটিউবে অনেক রিভিউ আছে, তবে আপনাদের একটি বাংলা রিভিউর লিংক দিচ্ছি। এখানে ক্লিক করে দেখুন।

আবার শীঘ্রই আসব নতুন কোন ভিন্ন ধরণের টেকি আইটেম সম্পর্কে। ভাল থাকবেন সবাই।

Level 0

আমি Sam Thesyst। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 10 বছর 4 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 24 টি টিউন ও 78 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস