প্রযুক্তিতে ঘটে যাওয়া ১০ টি অঘটন যা না ঘটলে হয়তো আমরা ১০০ বছর না, ১০০০ বছর পিছিয়ে যেতাম

পৃথিবীর ১০ টি বিস্ময়কর প্রযুক্তি আবিস্কার, যা না থাকলে পৃথিবী ১০০ বছর না, ১০০০ বছর পিছিয়ে যেত।

আসলে প্রযুক্তিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য এই ১০ টি প্রতিষ্ঠান ই সবার দোয়ারে গেছে।

যে কারনে আজ প্রযুক্তিতে এত বিপ্লব।

বাংলাদেশেও প্রযুক্তি বিপ্লব নিয়ে আসবে এই প্রতিষ্ঠানগুলো।

তাহলে ১০ টি প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে আসুন আমরা জানি-

মাইক্রোসফট-

আমরা প্রযুক্তির আজ যে এত অগ্রগতি দেখছি তার অধিকাংশ অবদান রাখছে এই মাইক্রোসফট। প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৭৫ সালে।

পরিসংখ্যান বলে বর্তমানে অধিকাংশ PC উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করে।

এই সেই মাইক্রোসফট যা গড়তে, তার পড়াশোনা পর্যন্ত ছাড়তে হইছিল।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

গুগল-

সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে বেশি পরিচিত এই গুগল প্রযুক্তির সব দিকে রেখেছেন সমান বিচরন। গুগল ছাড়া আসলে ইন্টারনেট জীবন কল্পনা করায় বৃথা।

গুগল হচ্ছে সেই বিশ্বপাঠশালা, যেখানে সব পাবেন আপনি।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 অ্যাপেল-

আধুনিক প্রযুক্তির শীর্ষ এই প্রতিষ্ঠানের অগ্রদূত স্টিভ জবস। প্রযুক্তিতে যে সেক্টরে তারা হাত দিয়েছেন, সেটা সেই সেক্টরে সব থেকে জনপ্রিয় হয়েছে।

অথচ এই স্টিভ জবস বিশ্ববিদ্যালয়ে পা রাখেন নি।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 ফেসবুক-

মার্ক জুকারবার্ক প্রতিষ্ঠিত ফেসবুক সবথেকে জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম।

২০০৪ সালে যাত্রা শুরু করে বর্তমানে এর ব্যবহারকারী ১০০ কোটি+

ফেসবুক ছাড়া এখন অনেকে জীবনটাই কল্পনা করতে পারে না।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 Intel-

কম্পিউটারের পার্টসের জন্য তারা সবার থেকে এগিয়ে। তারা প্রযুক্তি বিশ্বে দিয়েছে নানা চমক।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 অ্যামাজন-

বিশ্বব্যাপী কেনাবেচাকে সহজ করেছে এরকম কিছু সাইট।

পূরা বিশ্বটাকে তারা বানিয়েছে একটি সংঘবদ্ধ বাজার।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 Linked-in-

কর্মজীবীদের আড্ডাখানা এই লিঙ্কড-ইন। আপনার যোগ্যতা সাথে মিল রেখে পাবেন সারা বিশ্বে আপনার কলিগ।

যেটা কর্মজীবনকে বুঝতে শেখায়।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 oDesk-

অনলাইনে কাজ খোঁজার কিছু নির্ভরযোগ্য মাধ্যম এরকম সাইটগুলো। যেগুলো পূরাবিশ্বটাকে এক অফিসের মধ্যে এনে দিয়েছে।

এগুলো বর্তমান বিশ্বকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে অনেক দূরে।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 WikiPedia-

বিশ্বের শ্রেষ্ঠ বিশ্বকোষ। নির্ভরযোগ্য তথ্যের জন্য WikiPedia হয়েছে সমাদৃত।

অনলাইন বিশ্ব হয়েছে তথ্যের ভাণ্ডার।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

 Android-

মোবাইল প্রযুক্তিকে তারা এনেছে হাতের মুঠোয়। কম দামে এত সুন্দর অপারেটিং এর মোবাইল দেওয়া যায় মুলত এই  Android অপারেটিং সিস্টেম এর জন্য।

অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন, Android না থাকলে হয়তো হয়তো আমরা অনেক পিছিয়ে থাকতাম মোবাইল প্রযুক্তিতে।

ভার্চুয়াল অফিসিয়াল ঠিকানা

আসলে এগুলো অঘটন নয়। তবে অনেকে  অঘটনই বলেন।

কারন তারা না থাকলে প্রযুক্তি এত দূর আসতো কিনা সন্দেহ।

আর বাংলা ভাষায় টেকটিউনস সেই অঘটন ঘটিয়েছে, যে অবদান রাখে বাংলায় প্রযুক্তিতে বিশ্ব মান তৈরি করতে।

পৃথিবীতে প্রযুক্তির সহজলভ্যতা সৃষ্টিতে তারা সবথেকে বেশি অবদান রাখছে।

কোন জিজ্ঞাসা থাকলে আমাকে জানাতে ভুলবেন না।

ধন্যবাদ সবাইকে।

Level 0

আমি আইটি সরদার। Web Programmer, iCode বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 261 টি টিউন ও 1750 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 22 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমি ইমরান তপু সরদার (আইটি সরদার),পড়াশুনা শেষ করছি কম্পিউটার প্রযুক্তিতে (২০১৮); পেশা প্রোগ্রামার। লেখালেখি করি নেশা থেকে ফেব্রুয়ারি ২০১৩ থেকে। লেখালেখির প্রতি শৈশব থেকেই কেন জানি অন্যরকম একটা মমতা কাজ করে। আর প্রযুক্তি সেটা তো একাডেমিকভাবেই রক্তে মিশিয়ে দিয়েছে। ফলস্বরুপ এখন আমার ধ্যান, জ্ঞান, নেশা সবকিছু প্রোগ্রামিং এবং লেখালেখি নিয়ে।...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 2

Anroid os na thakle amra onek pisiye thaktam!! Amar mone hoy na. Er cheyeo valo os ase amra asole etake sohoj vabe niyesi.

    @saeedrony: যে ভাবেই নেই না কেন, আমাদের মতো দেশে Anroid না থাকলে কয় জন স্মার্ট ফোনের স্বাদ পেত। ধন্যবাদ।

    @saeedrony: android os is the best os for mobile platform till now. এর চেয়ে ফ্রি ভাবে এবং সহজ ভাবে আর কোন OS এ মোডিফিকেশন করা পসিবল না.

ভালো লাগলো। কিন্তু প্রতিটার পেছনেই কারন ছিলো, আরো বিস্তারিত বর্ননা আশা করলাম পরের লেখায়। ধন্যবাদ

Level 2

এগুলো আবিস্কারের আগেও পৃথিবী অনেক ভালো চলেছে। আর এগলো না হলে বিকল্প অন্য কিছু আসতো।

    @harun24hr: বিকল্প কি হতে পারত একটু চিন্তা করে বলবেন? হতে পারত তবে এখন হচ্ছে না কেন? হলেও অদের সমকক্ষ না কিন্তু।
    ধন্যবাদ।

আমি কখনই প্রযুক্তির বিরুদ্ধে নই। কিন্তু আমার ধারণা প্রযুক্তি আবিষ্কারের আগের যুগটা অনেক বেশী মানবিক এবং নান্দনিক ছিলো। রবীন্দ্রনাথের ছিন্নপত্র এর মতো লেখা আর কোনও সাহিত্যক কোনোদিনও লিখতে পারবেন না। কারণ এই ইমেইল এবং এসএমএসের যুগে মানুষ এখন চিঠি লিখতে ভুলে গেছে। এটা একটা মাত্র উদাহরণ।

    @মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান: আপনি ঠিক বলেছেন। প্রযুক্তি যত আগায় আমরা তত অলস হয়। তবে প্রযুক্তি বস।
    এটা আমাদের গ্রহন করতেই হবে। ধন্যবাদ আপনার সুন্দর কমেন্টের জন্য।

:O ক্যামনে কি?

Level 0

nice tune bro…..

আপনার ১০০ তম টিউনে আপনাকে স্বাগতম। খুব সুন্দর হয়েছে।

    @মোহাম্মাদ শুভ: ধন্যবাদ, উইশ করার জন্য। আবারও ধন্যবাদ।

      @আই,টি সরদার: নিয়মিত এমনই টিউন করতে থাকুন যাতে আপনার ১০০০ তম টিউনেও আপনাকে স্বাগতম জানাতে পারি।

খুব সুন্দর ।

Level 0

খুব ভালো লিখছেন

Level 0

ভালো লাগলো। খুব সুন্দর হয়েছে। শেয়ার করার জন্য ধন্যবাদ ভাই ।

সুন্দর করে গুছিয়ে লিখেছেন, আপনাকে ধন্যবাদ।