টেক হিউমার – একজন প্রগ্রামার এর প্রেম কাহিনী আর একটা ছ্যাকা

হ্যালো গাইজ,

গত কদিন রসকস হীন লেখা লিখতে লিখতে আমার নিজের ই রস ফুরিয়ে গেছে, আপনাদের কি অবস্থা তা আন্দাজ করতে পারি, সো আজকে একটু আলাদা কিছু।

টানা করাত কোড লিখতে লিখতে প্রেমিকার গাল ফুলিয়ে বসে থাকা টা ভয়ানক রুপ নিয়েছে । বাধ্য হয়েই ফেসবুকে লগিন দিতে হলো । সাথে সাথে হামলে পড়লো এক নাইজেরিয়ান প্রফাইল পিকচার সহ সুন্দরী। তার বক্তব্য সে একজন কোটিপতি, আর আমার প্রফাইল দেখে আমার প্রতি আকৃষ্ট হয়েছে। তো এখন কি করতে হবে ? তাকে আমার মেইল দিতে হবে।

সাবধান !! এরা কিন্তু স্প্যামার, ভুলেও এদের কাছে নিজের কোন ইনফু দিতে যাবেন না, সুন্দর করে ব্লক দিয়া দেন। যাহোক গল্পে ফেরত আসি।

করাত ঘুম নাই, এর মাঝে প্রেমিকা জানাইলো তাকে ভুলে যাওয়া হইছে কিনা, মাথা ঝাকিয়ে লিখে ফেললাম , " নাহ, আমার হার্ডডিস্ক এত সহজে ভুলে যায় না, এটা একটা কোর আই সেভেন মানের প্রসেসর অপারেট করে, র‌্যাম ও ইনাফ, আমি সম্পুর্ন ঠিক আছি, আর কিছুই ভুলে যাই নি কোন ভাইরাসের আক্রমনে। "

জবাবে তিনি একটা স্যাড ইমো দিলেন।

এবার ভাবলাম তাকে খুশি করতে আমার কিছু লেখা তাকে দেখানো দরকার, লেখা টা তার মনিটরে প্রিন্ট করতে লিখে ফেললাম

#include <stdio.h>

int main ()

{

printf("I miss you alot") ;

return 0;}

আমার উদ্দেষ্য কিন্তু খারাপ ছিলো না, আমার তার মনিটরে আমার মনের কথাই প্রিন্ট করতে চাইছিলাম, উনি কিছু না বলে অফলাইন হয়ে গেলেন।  কেনো হইলেন কোন কারন জানি না আমি, সিস্টেমে কোন সমস্যা বা বাগ ও খুজে পাইলাম না। নারী মন, বিধাতা ভালো জানেন।

সেদিন কিবোর্ডের উপরে ঘুমানোর সময় দেখলাম বার্গার খাইতেচি আমি আর টেকটিউনের এ্যাডমিন সহ মডুরা , আরিফ ভাই আমার দিকে আদর করে একটা স্যান্ডুইচ এগিয়ে দিলেন, ছেলেটা দিন রাত জেগে টিউন করে, খা  ভাই খা বলে পিঠে হাত ও বুলিয়ে দিলেন। আমি নিয়ে যেই কামড় টা দিছি, টিট টিট করে উঠলো আমার এ্যালার্ম ঘড়িটা। খেয়াল করলাম আমার কি বোর্ড এর স্পেস বাটন টা নাই !!! খেয়ে ফেললাম নাকি !

হলো না প্রেম করা, এদিকে ক্লাসের সময় হয়ে যাচ্ছে, আজ আবার রেজাল্ট দেবার কথা।  বাথরুমে ঢুকে আয়নার দিকে তাকিয়ে চিল্লিয়ে উঠলাম !!! ওপস ভুত !!!!

ভুত না ডুড 😛 এটা তুমি নিজে, একটু পর জানান দিলো আমার ব্রেইন নামক শক্তিশালী যন্ত্রটা । কদিন না ঘুমানোয় চেহারার যে হাল হয়েছে তাতে আমারে আজকে ভীন গ্রহের এলিয়েন ভেবে বসতে পারে স্যার রা।

গেলাম কলেজে, যেয়েই খাইলাম ঝারি প্রথম ক্লাসে, গত পরীক্ষায় আমার অবস্থান খুবি খ্রাপ।

ঘটনা কি ?

ঘটনা কি ?

ঘটনা কি ?

স্যার আমার উপর বিরক্ত হয়ে খাতা টা আমাকেই দেখতে দিলেন, সেখানে আমি Thank You এর যায়গায় Tnx , Be এর যায়গায় b, To এর যায়গায় 2 আর sorry এর যায়গায় sry লিখে রাখছি শর্টকাটে 🙁 🙁 🙁 🙁 ফেসবুক রে, আর কত কেরে নিবি 🙁

ফেসবুকে আমি

Level New

আমি শিমুল শাহরিয়ার। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 11 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 90 টি টিউন ও 497 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমার সম্পর্কে আমি নিজেও খুব বেশী একটা জানি না । তাই কিছু বলার/লিখার সাহস পেলাম না , আমার সাইট http://www.fajlami.com


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 0

#include
#include

void main()
{
printf(” SEI MOJA PELAM..”);
getch();
}

package tech_humer;

public class ProgrammersLife {

public static void main(String[] args) {

boolean programmer = true;
if(programmer) {
System.out.println(“You are a programmer, So you have no life!”
+ “\n You are living in a dark Jungle!!”);
}

}

}

Level 0

Print*, ‘besh moja pelam’
end

#include
#include
Main()
{
printf9″bapok binodon pailam”)
getch(;)
}

@নেটমাষ্টার: থেঙ্কু

echo ‘Moja Moja’;

থেঙ্কি দিতে দিতে কখন জানি টেকটিউনের টপ টিউনমেন্টার হই গেলাম মাইরী !!!!!

#include
int main ()
{
char comment[10]={“Nice Tune”};
while (1)
{
printf (“%s\n”,comment);
}
return 0;
getch ();
}

Level 0