মোবাইল দিয়ে ইনকাম করার সহজ দুটি উপায়

এই প্রজন্মের মানুষের টাকা রোজগার করার একটু বেশিই দরকার। আপনারও নিশ্চয় দরকার আছে। যারা নতুন রোজগারী তাদের তো আয়ের দরকার আছেই। যারা ইতোমধ্যে আয় রোজগার করছেন তাদেরও কিছু বাড়তি আয়ের নেশা হচ্ছে ইদানীং।

এই টিউনে আমি আপনাদের দেখাবো শুধু মোবাইল ব্যবহার করেই কত উপায়ে ইনকাম করা যায়। শুধু টিউন পড়েই কোন কাজে ইনভেস্ট করে বসবেন না। সবকিছু যাচাই, বাছাই করে, নিজ দায়িত্বে, নিজে ভালো বুঝে অবশ্যই কোন উপায় চেষ্টা করবেন।

 

মোবাইল দিয়ে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়?

মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকামের হাজারটা উপায় আছে। আপনি কোন উপায়ে ইনকাম করবেন সেটি একান্তই আপনার ব্যক্তিগত। আপনার জন্য শুধু অনেকগুলো উপায় বলে দিতে পারি। তবে তার আগে অবশ্যই কিছু বিষয় অবশ্যই জানতে হবে। মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকামের জন্য কি কি লাগবে জানেন?

প্রথমেই লাগবে একটি ভালো মানের ফোন। ভালো মানের বলতে আহামরি দামি ফোন লাগবে বিষয়টি সেরকম নয়। ভালো মান বলতে দুইটি বিষয় মাথায় রেখে বিবেচনা করতে হবে। প্রথমটি হলো ফোনটির স্পিড ভালো হতে হবে এবং ইন্টারনেট স্পিডও ভালো হতে পারে।

ফোনটি গরম হওয়া যাবে না এবং চার্জ ব্যাকআপ বেশি হতে হবে। ফোনের বিষয়টি বাদ দিলে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো অন্তত কোন একটি বিষয়ে আপনাকে পারদর্শী হতে হবে।

নূন্যতম উপরের বিষয়গুলো ঠিক থাকতে আপনি মোবাইল দিয়ে ইনকামের সবচেয়ে সহজ উপায় হিসেবে ফেসবুক ও ইউটিউবকে বেছে নিতে পারেন। চলুন জেনে নেয়া যাক ফেসবুক ও ইউটিউব থেকে কিভাবে আয় করবেন।

 

ফেসবুক থেকে মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকাম

ফেসবুক ছিলো এক সময়ের জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। কালের পরিক্রমায় ফেসবুক ব্যাপ্তি বৃদ্ধি পেয়েছে বহুগুণ। জীবনে অনেক ক্ষেত্রেই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকাও পালন করছে ফেসবুক।

অনলাইনে আয়ের ক্ষেত্রেও যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করছে ফেসবুক। ফেসবুক ই-কমার্স বা ফেসবুকের বিজনেস পেজ ব্যবহার করে আপনি শুরু করতে পারেন নতুন যে কোন ব্যবসা।

ই-কমার্স বর্তমানে জনপ্রিয় ব্যবসায়িক প্লাটফর্ম। নতুন একটি ই-কমার্স সাইট চালু করতে আপনাকে মোটামুটি ভালোই ইনভেস্ট করতে হবে, সময় দিতে হবে, পরিশ্রমও করতে হবে। তবে হাতের নাগালে ফেসবুক থাকে এত পরিশ্রমের কি-ইবা দরকার আছে?

আপনার ফেসবুক ই-কমার্স পেজে প্রোডাক্টের ছবি আপলোড করুন, পেজে বন্ধুদের ইনভাইট করুন। সেখান থেকেই সেল আসবে। আপনি চাইলে আপনার ফেসবুক পেজের সাথে একটি সংশ্লিস্ট পণ্য বিষয়ক পাবলিক গ্রুপও চালু করতে পারেবন। গ্রুপ থেকে বেশি বেশি লিড জেনারেট হয়। বেশি লিড মানেইতো বেশি অর্ডার আবার বেশি ইনকাম।

ই-কমার্সের কথা বাদ দিলেও ভিডিও মনিটাইজেশন থেকেও ইনকামের সুযোগ রয়েছে। ইউটিউটবের মতো ফেসবুকেও ভিডিও থেকে আয় করতে পারেন। এজন একটি ভালো মোবাইল হলেই যথেষ্ট। ভিডিও এডিটের কাজটাও মোবাইল দিয়েই করা যায় এখন খুব সহজে।

 

মোবাইল দিয়ে ইউটিউব থেকে ইনকাম

মোবাইল দিয়ে ইনকামের আরেকটি জনপ্রিয় মাধ্যম হলো ইউটিউব। বর্তমানে ইউটিউব দেখেন না এমন মানুষের সংখ্যা খুবই কম। তাই ইউটিউব হতে পারে আপনার মোবাইল দিয়ে টাকা ইনকামের এক অনন্য উপায়।

আপনি হয়তো ভাবছেন আপনি কি নিয়ে ভিডিও বানাবেন? এটা মোটেও ভাবার বিষয় নয়। বর্তমানে মানুষ প্রায় সব ধরনের ভিডিওই দেখে। তবে যদি আপনার বিশেষ কোন টপিক থাকে তবে সেটা আপনার জন্য ভালো।

ইউটিউবের জন্য ভিডিও বানাতে আজকাল বিশেষ ক্যামেরারও দরকার হয় না। হাতে হাতে অ্যান্ড্রয়েড, কম দামে এখন ভালো মানের অনেক ক্যামেরা ফোন বাজারে সহজলভ্য।

তাই মোবাইলের ক্যামেরা দিয়েই করে নিতে পারবেন ভিডিও শুট। কাইনমাস্টারের মতো আরও অ্যাপও আছে যেগুলো দিয়ে আপনার শুট করা ভিডিও নিজেই এডিট করতে পারবেন।

কিভাবে এডিট করবেন এ নিয়ে কোন চিন্তা নেই। ইউটিউবে হাজার হাজার টিউটোরিয়াল আছে যার বেশিরভাগই আপনার ট্রেইনার হিসেবে কাজে দেবে। ব্যাস হয়ে গেলো। এবার ভিডিওগুলো তুলে দিন ইউটিউব চ্যানেলে। অবশ্যই আপনার নিজে চ্যানেল হতে হবে।

ফেসবুক, টুইটার, ইন্টাগ্রাম এবং সব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আপনার ভিডিও শেয়ার দিন, প্রমোট করুন। এক সময় দেখবেন আপনার হাজার হাজার সাবস্ক্রাইবার হয়ে গেছে, ওয়াচটাইম হয়ে গেছে হাজার হাজার ঘণ্টা।

এবারই আপনার কপাল খোলার পালা। আবেদন করুন এডসেন্সের জন্য। ভিডিও বানান, আপলোড করুন আর ইনকাম করুন।

এই দুটি মাধ্যমই হলো ২০২৩ সালে মোবাইল দিয়ে ইনকামের সবচেয়ে সহজ এবং জনপ্রিয় মাধ্যম। অনেকেই কোমর বেঁধে নেমেছে। আপনিই বা কেন বসে থাকবেন?

Level 1

আমি সারোয়ার আলম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 6 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 10 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

শুন্য থেকে যাত্রা শুরু, শুন্যেই হবে শেষ...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Level 2

Good info.