এসইও কিWhat is SEO-Search Engine Optimizition-YouTube Video

টিউন বিভাগ এসইও
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

বিষয়

আমরা একটা প্রশ্ন সব সময় করে থাকি যে, (এস ই ও কি)। বাংলাদেশে অনেকগুলো মেন্টর আছে যারা সব সময় এস ই ও করে। কিন্তু তারা এ বিষয়ে কাউকে কোন কিছু শিখাও না বা তারা এসইও নিয়ে খুব বেশি মতামত কখনো পাবলিস্ট ও করে না। তাই আমাদের নিজেদেরই সার্চ করে বের করতে হয় এসইও কি জিনিস এবং এসইও কিভাবে করে। আজকে আমরা আলোচনা করবো এস ই ও এই তিনটা কথার  মানে কি। এসইও এটার ফুল ফর্ম হলো সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এই জিনিসটা আসলে কি।

 স্টেপঃ এক
এসইও যদি করতে হয় সেটা যদি বলতে যাই তাহলে কমানোর ১০ দিন লাগবে। কারোন এসইও খুব বড় একটা জিনিস। যেটা সম্পর্কে  আপনাকে এক কথা বুঝানো সম্ভব না। কিন্তু এই এসইও কি সেটা আমি প্রাক্টিক্যালি আপনাকে বুঝাই দিতে পারি। যে এই জিনিসটা কি হয় মানে এটার কাজটা কি। মনে করেন যে, আপনার একটা  ওয়েবসাইট বা কোন একটি ইউটিউব চ্যানেল আছে। এখন আপনি আপনার ওয়েবসাইটে একটা কনটেন্ট আপলোড করলেন বা আপনি আপমার ইউটিউবে কোন ভিডিও আপলোড করলেন। তারপর এই ভিডিওটা আপনি ফেসবুকে শেয়ার করলেন বা আপনি গুগল প্লাসে শেয়ার করলেন। আরো যত বাকি সোশ্যাল নেটওয়ার্ক আছে আপনি সব গুলোতে শেয়ার করলেন, আপনার কাজ শেষ। আপনার কাজ শেষ হওয়ার পরে এখন আপনি আপনার ভিডিওটা আপনি দেখলেন বা আপনার কনটেন্ট টি দেখলেন যে খুব বেশি রেংক করল না, খুব বেশি মানুষ দেখল না বা ভাইরাল হলো না। তাই ঐ ভিডিও বা কন্টেন্ট ভাইরাল করার জন্য  এসইও করতে হয়। যেটাকে আমরা সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন বলে থাকি।

স্টেপঃ দুই
তো এসইও কিভাবে করে সেটা আমরা আগে একটু বুঝি। তো এখন আপনি একটি কন্টেন্ট আপলোড করলেন। কন্টেন্ট আপলোড করার পরে সব সোশ্যাল নেটওয়ার্কে শেয়ার করলেন। অর্থাৎ সবাইকে জানালেন জানানোর পরে। গুগলকে পুষ করলেন। যদি বাংলায় বলি তাহলে বলা হবে যে গুগলকে পুশ করা যে, আমার এই কনটেন্টে তুমি রাখো বা ইউটিউবকে পুশ করা যে, আমার এই ভিডিও তুমি ভাইরাল করো। এই পুষ করার সিস্টেমটা কেই এস ই ও বলে। আমরা চাচ্ছি যে আমাদের এই ভিডিওটা বা আমাদের এই কনটেন্টে যেন ভাইরাল হয়। সবাই জানোক এবং সবাই এটা দেখুক এটা কিন্তু আমাদের মন-মানসিকতা। এই যে, মন-মানসিকতার এমন মানসিকতা পরিপ্রেক্ষিতে আমরা যে কাজটা করে থাকি সেটাকেই নরমালি বলা হয়ে থাকে যে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন। সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর অর্থ হল যে গুগল একটা সার্চ ইঞ্জিন, গুগলে পাশাপাশি আরও অনেক সার্চ ইঞ্জিন রয়েছ, তবে সবাই গুগল ব্যবহার করে থাকে। তাই গুগল দিয়ে আপনাদের বুঝালাম।

স্টেপঃ তিন
যখন আমরা গুগলে সার্চ করি, তখন অনেক সময় সেটা কিন্তু আসে না। এটাই হলো মেইন কারণ যে গুগল এ কেন আসে না। কারণ ওটা ঠিক ভাবে আমরা অপটমাইজ করি নাই। তাই ঠিক ভাবে অপটমাইজ করার জন্য আরো একটি টিউন দিব।
আমি এখন আপনাকে বুঝিয়ে দিলাম যে এসইও জিনিসটা কী, এসইও জিনিসটা নরমালি হলো যে পুষ করা। আপনার যখন কোন ভিডিও রেংক করবে না বা আপনার যখন কোন কনটেন্ট  রেংক করবে না। তখন গুগলকে রিকোয়েস্ট করা গুগলের কাছে বারবার জানানো বা এই আপনার ভিডিও সব জায়গায় ছড়িয়ে ছড়িয়ে দিয়েছি গুগল কে বোঝানোর। যে আমার একটা কনটেন্ট আছে। এই কনটেন্ট জেনো মানুষ সার্চ করলেই, আমার কনটেন্ট যেন সবথেকে পপুলার হয় এবং সবার আগে আসে।

লেখকের কথা

আপনার ভিডিও পপুলার হওয়ার বা রেংক করার জন্য আমি একটি ইউটিউব ভিডিও এসইও টিউন দিব। যাতে আপনার ভিডিও সবার আগে আসে। এই রকম টিউন পেতে ফলো করুন এবং একটি জোস দিন। ধন্যবাদ।

(আসসালামুয়ালাইকুম)

Level 1

আমি মেহেদী হাসান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 1 মাস 4 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 10 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস