বিজ্ঞান প্রযুক্তি কি কেয়ামতের আলামত?

Peace be upon Everyone. সকলের উপর শান্তি বর্ষিত হোক, আজ প্রথম বাংলা ভাষি বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অনলাইন প্লাটফর্ম - টেকটিউনস এ জড়িত হলাম, যাতে সবার নিকট মূল্যবান কথা গুলো পৌঁছাতে পারি, আজকে যে টপিক বা কন্টেন্ট নিয়ে কথা বলব তা হল বর্তমান সময় অর্থাৎ Current World এবং কিয়ামতের আলামত নিয়ে মহা প্রলয়ের সিনটম নিয়ে, সাইন্স টেকনোলজির প্লাটফর্মে এ ধরনের লেখা আপনাদের হয়ত আশ্চর্য করতে পারে, কিন্তু দূর্ভাগ্যবশত এটাই সঠিক এবং বাস্তব যে এই মহাবিশ্বে বা এই দুনিয়ায় সবচেয়ে দামী ও মূল্যবান বস্তু বা সম্পদ হল জ্ঞান এবং বুদ্ধি (বিজ্ঞান)
আসমানী কিতাব অর্থাৎ (মহান আল্লাহ তায়ালার পক্ষ হতে পৃথিবীতে প্রেরণ করা গ্রন্থ কে বুঝানো হয়েছে) যেগুলো জ্ঞান বিজ্ঞানের উৎস, আমাদের পবিত্র মহাগ্রন্থ আল কোরআনে এই শব্দ দুটি কে এলেম এবং হেকমা নামে উল্লেখ করা হয়েছে, যাকে ইংরেজিতে Knowledge and intelligence or Science বলা হয়, এই জ্ঞান বুদ্ধি বা বিজ্ঞান এগুলো মহান আল্লাহ তায়ালার দান, তিনি যাকে ইচ্ছা তাকে দান করেন, জ্ঞানের সাথে বিজ্ঞানের কি সম্পর্ক এবং এই পৃথিবীতে হঠাৎ সাইন্স টেকনোলজির কেন আবির্ভাব হল সেই বিষয় নিয়ে একটা টিউন করব ইনশাআল্লাহ,

বর্তমান সময়ে পৃথিবীর অবস্থা,
প্রায় 51 কোটি বর্গ কিলোমিটার আয়তনের এই পৃথিবীতে সাতটি মহাদেশে বিভক্ত ২০৬ টি ভূখণ্ডে প্রায় ৮০০ কোটির বেশি মানুষের বসবাস, পৃথিবীতে সকলেই খুব শান্ত পরিস্থিতিতেই বসবাস করতেছিল, কিন্তু হঠাৎ Middle East বা মধ্যে প্রচ্যে ফিলিস্তিনি ইজরাইল যুদ্ধ, এবং বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের যুদ্ধের আশংকা বিশ্ববাসীকে একটা সংকট এবং আতংকময় পরিস্থিতিতে রেখেছে, এমন পরিস্থিতিতে আমাদের করণীয় কি?
আমরা মানবজাতি জানিনা ভবিষ্যৎ সময়ে কি ঘটতে পারে, আমেরিকার জনপ্রিয় সংবাদ ম্যাগাজিন Times, ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন BBC, আমেরিকান ক্যাবল নিউজ নেটওয়ার্ক CNN, কাতারের বৃহৎ সংবাদ মাধ্যম আল জাজিরা, কেও আপনাকে বলতে পারবে না এই যুদ্ধ বিগ্রহ পরিস্থিতি আমাদের মানব জাতিকে কোন দিকে ধাবিত করবে, তারা প্রতিনিয়ত ঘটা নিউজ বা সংবাদগুলো শুধু উপস্থাপনা করে আমাদেরকে জানিয়ে দেয়,
এই দুনিয়ার ইতিহাসে একমাত্র ব্যক্তি হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) যিনি এই পৃথিবীর অতীত ভবিষ্যত সবকিছু সম্পর্কে যানতেন, তিনি যা ভবিষ্যৎ বানী করেছেন সেগুলো দিনের আলোর ন্যায় বর্তমান বাস্তবায়িত হয়তেছে, তার রেখে যাওয়া ভবিষ্যৎ বানীর দিকেই দিন দিন গড়িয়ে যায়তেছে পৃথিবীর পরিবেশ পরিস্থিতি, মহান আল্লাহ তায়ালার পক্ষ থেকে শেষ নবী এবং রাসূল হযরত মোহাম্মদ সাঃ যে ভবিষ্যৎ বানী করেছেন সেগুলোকে কেয়ামতের আলামত বা সিনটম বলা হয়, তিনি অসংখ্য আলামত বর্ণনা করেছেন, এখন সেসব আসলাম চুড়ান্ত রুপ নিতেছে, কেয়ামতের প্রথম এবং প্রধান আলামত হল ইমাম মাহদী এবং দাজ্জালের আগমন,

ইমাম মাহদী,
তিনি পৃথিবীর শেষ সময়ে আবির্ভাব হবেন এবং সমর্গ বিশ্বে খেলাফত প্রতিষ্ঠিত করবেন, তিনি এক জায়গা থেকে সারা বিশ্বকে শ্বাসন করবেন পরিচালনা করবেন আর এই জন্যই গোটা পৃথিবীতে হঠাৎ প্রযুক্তির আবির্ভাব, এবং বিজ্ঞান প্রযুক্তি ব্যবহার করে মানুষ সারা বিশ্বকে একটা গ্লোবাল ভিলেজ বা গ্লোবাল ফ্যামিলিতে পরিনত করেছেন, আমরা খুব সহজেই বিশ্বের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে যোগাযোগ করতে পারি, এই গোটা পৃথিবী গ্লোবাল ভিলেজ হওয়া ইমাম মাহদীর আগমনের বড় একটা আলামত, ইমাম মাহদী পৃথিবীতে এসে ন্যায় জাস্টিস কায়েম করবেন, সারা দুনিয়া থেকে অন্যায় দূর করে ন্যায় সাম্য দ্বারা গোটা পৃথিবীকে ভরপুর করে দিবেন, তিনি এই পৃথিবীতে জন্মানোর পর থেকেই পৃথিবীতে এই বিজ্ঞান প্রযুক্তির আবির্ভাব ঘটেছে, তিনি এই প্রযুক্তি ব্যবহার করেই এক জায়গা থেকে সারা বিশ্বকে শ্বাসন করবেন এবং তিনি হবেন সামনের প্রজন্মের বিজ্ঞানী, তিনি হযরত মোহাম্মদ সাঃ এর সুন্নাহ অনুসরণ করে মহান আল্লাহ তায়ালার পক্ষ হতে প্রেরিত আসমানী কিতাবের সাহায্য পৃথিবীতে শ্বাসন ব্যবস্থা করবেন, মহানবী হজরত মোহাম্মদ সাঃ বলেছেন, দুনিয়ার ইতিহাসে মাত্র ৫ জন ব্যক্তি সারা বিশ্বকে শ্বাসন করবেন বা নেতৃত্ব দিবেন, তাদের মধ্যে চারজন ইতিমধ্যে অতীত হয়েছে, তাদের মধ্যে দুজন ছিলেন ইমানদার, একজন ছিলেন বাদশা জুলকারনাইন, এবং অন্যজন ছিলেন বাদশা সোলাইমান আঃ, বাকি দুজন ছিলেন কাফের একজন ছিলেন নমরুদ আরেকজন ছিলেন বখতিনসর, তারা চারজন ছিল সারা দুনিয়ার বাদশা, আরেকজন হবেন শেষ সময়ের ইমাম মাহদী তিনিও সমর্গ বিশ্ব শ্বাসন করবেন, যেহেতু কেয়ামতের আলামতের মধ্যে সর্বপ্রথম আলামত হল ইমাম মাহদীর আগমন তাই তার সম্পর্কে বিস্তারিত জানা প্রয়োজন, আমি নেক্সট বা পরবর্তী টিউনে ইমাম মাহদী, দাজ্জাল, এবং ঈসা আঃ, এবং কেয়ামতের অন্যান্য আলামত নিয়ে বিস্তারিত এবং বিষদ ভাবে আলোচনা করবো ইনশাআল্লাহ, আজ এই পর্যন্তই সকলেই ভাল থাকেন সুস্থ থাকেন, আল্লাহ হাফেজ।

Level 0

আমি সিয়াদ হাসান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 11 মাস 2 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 4 টি টিউন ও 1 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

Hello Everyone. I am scientists. I am Researching about Everything From Earth to Space.


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস