ম্যাজিকে ম্যাজিকে বিজ্ঞান শিখি (৯ম পর্ব)

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই ? আমি ভাল আছি । পরীক্ষা শেষ । আবার শুরু করলাম আমার ম্যাজিকে ম্যাজিকে বিজ্ঞান শিখি সিরিজের লেখা । ছোটবেলায় অনেক ফিল্মে দেখতাম জামায় আগুন জ্বলত, হাতে আগুন জ্বলত । তখন চিন্তা করতাম আগুনে কি তাদের হাত পুড়ে না । তারা কিভাবে একাজ করে । এ প্রশ্ন মনে হয় আপনাদেরও ছিল । আজ আপনাদের জন্য রয়েছে সেই ম্যাজিক যাতে করে আপনি ও দেখবেন আপনার হাতে আগুন জ্বলছে কিন্তু আপনার হাত পুড়ছে না বা কোন ক্ষতি হচ্ছেনা । তাহলে চলুন দেখি কি করতে হবে -

কি কি লাগবে :

  • ইথাইল এলকোহল (ড্রাগ স্টারে কিনতে পাওয়া যাবে)।
  • মোমবাতি
  • লাইটার বা ম্যাচ
  • পানির বালতি
  • কন্টেইনার (মাঝারি সাইজের)
  • পানি
  • ধাতুর তৈরি টংজস (চিমটার মত)
  • টাকার নোট
  • কাগজ
  • লবন
  • হ্যান্ড গ্লোভস

কি করতে হবে

কাজের দুইটি অংশ আছে । প্রথম অংশটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ এই অংশের কাজের উপর নির্ভর করবে আপনার সফলতা ।

প্রথম অংশ :

দ্রবণ প্রস্তুতি :

প্রথমে একটি বালতিতে পানি ভর্তি করে রেখে দিন । তারপর আপনাকে ইথাইল এলকোহল ও পানি মিশিয়ে দ্রবণ তৈরি করতে হবে । এক্ষেত্রে দ্রবণ তৈরি করার সময় পানি ও ইথাইল এলকোহলের পরিমান সমান হতে হবে অর্থাৎ দ্রবণে ৫০% হবে এলকোহল এবং ৫০% হবে পানি । অনেক সময় ইথাইল এলকোহলের বোতলের মধ্যে ৭০% এলকোহল ও ৩০% পানি থাকে । এক্ষেত্রে দ্রবণ তৈরি করার সময় আপনি ৭ আউন্স বা মি.লি. এলকোহল নিয়ে একটি পাত্রে ঢালবেন এবং ৪ আউন্স বা মি.লি পানি নিয়ে ঐ পাত্রে ঢেলে মিশ্রিত করে দ্রবণ তৈরি করবেন। এত এলকোহল ও পানির পরিমান সমান হবে। এভাবে আপনি পানি ও ইথাইল এলকোহলের দ্রবণ প্রস্তুত করবেন । খেয়াল রাখতে হবে দ্রবণে অবশ্যই এলকোহল ও পানি সমান পরিমানে থাকবে । পরিশেষে দ্রবণের মধ্যে সামান্য পরিমাণ লবণ মিশ্রিত করে নিন ।

দ্রবণ পরীক্ষা :

দ্রবণ প্রস্তুতি ঠিকমত হল কিনা তা পরীক্ষার করার জন্য একটি মোমবাতি জ্বালিয়ে নিন । তারপর ১/২/৫/১০/২০/৫০/১০০/৫০০/১০০০..... টাকার একটি নোট (অথবা কাগজ) টন্জ বা চিমটা দিয়ে ধরে দ্রবণের মধ্যে ভাল করে ভিজিয়ে নিন । তারপর নোটটি মোমবাতির শিখার উপর ধরে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে নোটের (কাগজের) চারপাশে আগুন ধরাই । যদি দেখা যায় যে নোটটি(কাগজটি) পুড়ে যাচ্ছে তাহলে দ্রবণ প্রস্তুতি ঠিক মত হয়নি। সাথে সাথে নোটটি(কাগজটি) বালতিতে রাখা পানি দিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলুন এবং পুনরায় দ্রবণ প্রস্তুত করুন সঠিকভাবে । আর যদি টাকার নোটটি(কাগজটি) না পুড়েই আগুন জ্বলতে থাকে তবে দ্রবণ প্রস্তুতি ঠিক ভাবে হয়েছে ।

দ্বিতীয় অংশ :

এবার আপনি হাতে গ্লোভস পরে নিন এবং হাতকে ভাল করে প্রস্তুতকৃত দ্রবণের মধ্যে ডুবিয়ে ভাল করে ভিজিয়ে নিন । তারপর আপনার হাত মোমবাতির আগুনের শিখার মধ্যে ধরুন । দেখবেন হতে আগুন জ্বলতে থাকবে কিন্তু পুড়বেনা । যখন হাতে একটু গরম অনুভব করবেন তৎক্ষনাৎ বালতির মধ্যে রাখা পানি দিয়ে আগুন নিভিয়ে ফেলুন ।

সতর্কতা :

পরীক্ষা করার সময় অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে শরীরে কোথাও যেন দ্রবণ না পরে এবং কোথাও যেন আগুন না লাগে । ছোটরা অবশ্যই বড়দের সাহায্য নিয়ে করবে কখনও একা একা করা যাবেনা এবং আগুন নেভানোর জন্য ব্যবস্থা রাখতে হবে ।

কেন এমন হয় :

যে বস্তুটি দ্রবণের মধ্যে ডুবানো হয় তার পৃষ্ঠতলে এলকোহলের উচ্চ বাষ্প চাপের কারনে পানি বাষ্প জমা হয় এবং যখন এলকোহল জ্বলতে থাকে তখন খুব বেশী তাপ উৎপন্ন হয়না । ফলে পৃষ্ঠতলের পানি বাষ্প বাষ্পাকারে উড়ে যায়না । এই পানি এলকোহল ও বস্তুর মধ্যে বাধা বা অন্তরক হিসেবে কাজ করে । তাই এলকোহল পুড়তে থাকে কিন্তু হাতের কোন ক্ষতি হয়না । কিন্তু এলকোহল পোড়া শেষ হয়ে গেলে হাত পুড়তে পারে তাই হাতে গরম লাগলে আগুন নিভিয়ে ফেলতে হবে । দ্রবণে লবন যোগ করা হয় কারণ এলকোহল হালকা নীল বর্ণের আগুন হিসেবে জ্বলে যা চোখে তেমন একটা ধরা পড়ে না । লবন যোগ করার ফলে আগুনের বর্ণ গাঢ হয় এবং লবণ, হাত ও এলকোহলকে পৃথক রাখতে সাহায্য করে ।

  • প্রথম প্রকাশ আমার শিক্ষার আলো ব্লগে ।
    • Level 0

      আমি ছাত্র ও শিক্ষক। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 54 টি টিউন ও 1010 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

      তুমি যদি শিক্ষিত হও,অশিক্ষিতকে আলো দেবে। না পারলে তুমি অহংকার করবেনা,তুমি দূর্ব্যবহার করবেনা,বিনয়ের সঙ্গে কথা বলবে,তুমি শিক্ষিত বলেই এ তোমার অতিরিক্ত দায়।


      টিউনস


      আরও টিউনস


      টিউনারের আরও টিউনস


      টিউমেন্টস

      ফাটাফাটি।

      সুন্দর টিউন। ধন্যবাদ চালিয়ে যান। সাথে আছি।

      Level 0

      super………….. sir

      Level 0

      আহারে যাদুকরদের ব্যবসা আজ থেকে বন্ধ হয়ে যাবে । চালিয়ে যান

        আপনি তো ভাল কথা মনে করে দিলেন !!
        ব্যবসা তো একটা শুরু করতে পারি !!!
        ধন্যবাদ ।

      ডিসকভারি চ্যানেল এ অনেক বার দেখেছি। ধন্যবাদ টিউন টি করার জন্য।

      আপনার এই ম্যাজিক টিউন গুলু সব একসাথে পড়া শুরু করলাম এখন …….. তার আগে মন্তব্য টা করে যাচ্ছি …… সব পড়ার পর ফিরে আসব আবার

      আমি যদি দ্রবণ পরীক্ষা না করেই হাতে পায়ে আগুন ধরাই তাইলে নিশ্চয়ই অনেক মজা হবে ! 😀

      অনেকদিন পর আপনার ক্লাসে যোগ দিতে পেরে অনেক ভাল লাগছে,
      ধন্যবাদ আপনাকে সুন্দরটির জন্য।

        আসসালামুআলাইকুম, আতাউর ভাই কেমন আছেন ?
        অনেক দিন পর !!!
        ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য ।

      আমার এই বিষয় নিয়ে অনেক দিনের কৌতুহল ছিল ।আজ আপনার টিউন পড়ে তা ১০০ তে ১০০ বুঝে গেলামা।জটিল হচ্ছে ।চালিয়ে যান স্যার

      বিপদ জনক!

      মজার তো! কিন্তু ১/২/৫/১০/২০/৫০/১০০/৫০০/১০০০ টাকার নোট নিয়ে কাজ করবো? বলেন কী! ১০০০ টাকা!!!! আমার একমাসের ইন্টারনেট এর বিল, সেটা অ্যালকোহোলের কাছে সঁপে দিব? :'(

        ডানের তিনটা শূন্য বাদ দিয়ে যা হয় তা দিয়ে করুন ।
        তাহলেতো আর মনে হয় সমস্যা হবেনা ।
        ধন্যবাদ মন্তব্যের জন্য ।

      বাউরে !! যদি হাত পুড়ে যায়?
      করুম না। ডর লাগে 😛 ।

      ফাইন ম্যাজিক 😀

      ভালো লাগলো। আমি এখন পর্যন্ত যাদুবিদ্যা বা তন্ত্র মন্ত্র ইত্যাদি বিশ্বাস করিনা। এক কথায় অলৌকিক কোন কিছুই আমি বিশ্বাস করিনা।
      আমি মনে করি সব কিছুর পেছনেই যুক্তিসংগত কারন রয়েছে। তবে যেহেতু কোরানে জিনের কথা আছে সুতরাং সেটা বিশ্বাস করি।
      জিনের ব্যাপারে আমার দৃষ্টিভংগি এরুপ যে তারা নিজেদের কাজ, সংসার নিয়ে ব্যস্ত থাকবে। আমরা যেমন তাদের জালাতন করিনা সেরকম তারাও অযথা আমাদের কোনদিনই জালাতন করেনা। জিনে ধরা রোগী যতগুলো দেখেছি সবগুলোই শারিরিক অথবা মানসিক সমস্যা। এই ধরনের আরোও কিছু ম্যাজিক আমাদের উপহার দিবেন আশা করি।