গন বিলুপ্তি কি? এবং কেন আমাদের জানা দরকার?

প্রকাশিত
জোসস করেছেন

গন বিলুপ্তি বা Mass Extinction হল ভু তাত্ত্বিক সময়ের প্রেক্ষিতে তুলনা মূলক অল্প সময়ের মধ্যে পৃথিবীর দুই তৃতীয়াংশ প্রাণী বা উদ্ভিদ কুলের প্রাকৃতিক বিভিন্ন কারণে ধ্বংস বা বিলুপ্তি হওয়াকে কে বুঝায়। পৃথিবীতে এখন পর্যন্ত ৫ বার এই গনবিলুপ্তি ঘটেছে। যেমন অরডভিসিয়ান সময়ে, ডেভনিয়ান, পারমিয়ান, ট্রাইসসিক ও ক্রেটেসিয়াস সময়ে মত ৫ টি বৃহৎ গন বিলুপ্তি হয়েছে। এপর্যন্ত দুইটা প্রধান গন বিলুপ্তি একটা পারমিয়ান গন বিলুপ্তি, ক্রিতেসিয়াস গন বিলুপ্তি। এখানে এই দুইটা সম্বন্ধে প্রধান প্রধান আবিষ্কার গুলো ও কারণ বর্ণনা করা হল।

পারমিয়ান গনবিলুপ্তিঃ

এর মধ্যে পারমিয়ান সময়ের গন বিলুপ্তি ২৫৪ মিলিয়ন বছর আগে বা ২৫.৪ কোটি বছর আগে ঘটেছিল যা কিনা এ যাবত কালের মধ্যে সবথেকে ধ্বংসাত্মক এবং ৯০ শতাংশ সামুদ্রিক প্রাণী মারা যায় এবং ৮০ শতাংশ স্থলজ প্রাণী মারা যায়। বৈজ্ঞানিক তত্ত্ব প্রমাণের ভিত্তিতে  ধারনা করা হয় সাইবেরিয়াতে বিশাল এলাকা জুড়ে আগ্নেয় গিরির উদ্গিরনের কারণে বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি ও সামুদ্রিক জলের তাপমাত্রা ৮ ডিগ্রি পর্যন্ত বেড়ে যাওয়ার কারণে প্রাণীর বিলুপ্তি হয় হয়। তবে এই কারণ গুলো কয়েকটি সমন্বয়য়ে এই বিশাল পরিবর্তন হয়। যেমন পৃথিবীর তাপমাত্রা বেড়ে যাবার ফলে স্থলজ গাছাপালা সহ উদ্ভিদ গুলো আগুনে পুড়ে যায় যাকে বলে ফরেস্ট ফায়ার। এভাবে মাটির ক্ষয় সাধন হতে থাকে এবং অধিক পরিমাণে এই মাটি বা পুষ্টি কণা সমুদ্রের পানিতে মিশে ক্ষুদ্র এলজি র বৃদ্ধি পায় যার ফলে সমুদ্রের পানির দ্রবীভূত অক্সিজেন এর ঘটতি হয় আর এভাবে সমুদ্রের প্রাণী গুলো মারা যায়।

ক্রিটেসিয়াস গনবিলুপ্তিঃ

ক্রিটেসিয়াস গন বিলুপ্তি মূলত মহা শূন্য থেকে এস্টেরইড বা উক্লা পাতের ফলে হয়েছিল বলে বিজ্ঞানীরা প্রমাণ পেয়েছে। বর্তমান মেক্সিকোর চিক্সুলাব নামক এলাকায় আজ থেকে ৬৫ মিলিয়ন বছর আগে পড়েছিল বলে প্রমাণ পাওয়া যায়। এই প্রমাণের ভিত্তি হল অধিক পরিমাণ ইরিডিয়াম পাওয়া কারণ পৃথিবীর অন্য কোথায়ও এমন অধিক পরিমাণ ইরিডিয়াম পাওয়া যায় না। তাই এটা যে উল্কা থেকে এসেছে এটা প্রমাণিত। এই ক্রিটেসিয়াস গন বিলুপ্তির ফলে ৭৬ শতাংশ পর্যন্ত স্থলজ প্রাণী বিলুপ্ত হয় এর মধ্যে অতি পরিচিত ডাইনোসর রয়েছে। বলা হয়ে থাকে ডাইনসরেরা এই উল্কা পাতের ফলেই মারা পড়ে। তবে যে সব প্রাণী গর্তে বসবাস করে তারা রক্ষা পেয়েছিল বলে ধারনা করা হয়। জাপানের তহকু বিশ্ব বিদ্যালয়ের প্রফেসর  কুনিও কাইহ গবশনায় দেখেছেন যে উল্কা যদি মক্সিকতে না পড়ে অন্য কোথায় পড়ত তবে ডাইনোসর বিলুপ্তি নাও হতে পারত কারণ যেখানে  ডাইনোসর পড়েছিল তার নিচে বিশাল এলাকা জুড়ে ভূগর্ভ কয়লা ও তেল এর খনি ছিল। যার কারনে ২-৩ তিন বছর সমস্ত পৃথিবী অন্ধকারে ঢেকে যায় ক্ষুদ্র কার্বন কণা বায়ু মণ্ডলের স্টাতস্ফার পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ার জন্য সূর্যের আলো বাধা পায়। তাছাড়া পরে এসিড বৃষ্টির জন্য স্থলজ প্রাণী ও গাছাপালা মারা যায়।

গন বিলুপ্তি সম্বন্ধে বিস্তর গান রাখা দরকার কারণ বর্তমান পৃথিবীতে ইতি মধ্যেই ৬ তম গন বিলুপ্তি শুরু হয়েছে। অর্থাৎ মানবকুল রক্ষার জন্য এর থেকে আমাদের ব্যবস্থা নিতে হবে। যেমন অধিক কার্বন নিঃসরণ রোধ করে পৃথিবীকে তাপমাত্রা ঠিক রাখা এবং আমাদের জন্য বসবাসের উপযুক্ত করে  রাখা। তা না হলে ডাইনোসরদের মত মানবকুল ও বিলুপ্তি হয়ে পারে অনেকে সতর্ক করে দিয়েছে।

 

Level 0

আমি রমন কুমার বিশ্বাস। Asso. Prof., PSTU, Patuakhali। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 সপ্তাহ 3 দিন যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 2 টি টিউন ও 1 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

Dr. Raman Kumar Biswas, Ph.D. (Tohoku University, Japan & Associate Professor and Chairman Dept. of Disaster Resilience and Engineering Faculty of Environmental Science and Disaster Management Patuakhali Science and Technology University, Dumki, Patuakhali, Bangladesh-8602. Education Ph. D. (Oct 2016-Nov 2020) Tohoku University, Sendai, Japan. Thesis; “Terrestrial Ecosystem Collapse and Soil...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস