হ্যাজার্ড সিম্বল কী?

প্রকাশিত
জোসস করেছেন
Level 4
২য় বর্ষ, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ, গাইবান্ধা

আশাকরি সবাই ভালো আছেন। বরাবরের মতো আজও নিয়ে এসেছি শিক্ষামূলক সুন্দর একটা বিজ্ঞানভিত্তিক টিউন। চলুন শুরু করা যাক। আমরা অনেক সময় রাসায়নিক পদার্থের ঝুঁকিপূর্ণতা সঠিকভাবে নির্বাচন করতে পারি না। কোন ধরনের রাসায়নিক পদার্থ কিভাবে ব্যবহার করতে হবে এ ব্যাপারেও আমরা যথেষ্ট জ্ঞান রাখিনা। ফলে যুগে যুগে ঘটে চলেছে অসংখ্য দূর্ঘটনা। আর এই দুর্ঘটনা এরাতেই বিজ্ঞানীরা কতিপয় রাসায়নিক চিহ্ন আবিষ্কার করলেন। এ সকল চিহ্নকে হ্যাজার্ড সিম্বল বলে। এসব চিহ্নের মাধ্যমে রাসায়নিক পদার্থের ঝুঁকি ও ঝুকির মাত্রা বোঝা যায়।

হ্যাজার্ড সিম্বল গুলো হলো-

বিষাক্ত

কোন পাত্রের উপর উপরিক্ত চিহ্ন দেখলে বুঝতে হবে বিষাক্ত রাসায়নিক পদার্থ। নিঃশ্বাসে, ত্বকে লাগলে অথবা খেলে মৃত্যু হতে পারে। এ ধরনের পদার্থ তালাবদ্ধ স্থানে সংরক্ষণ করতে হবে।

দাহ্য পদার্থ

এ ধরনের চিহ্ন কোনো পাত্রের উপর দেখলে বুঝতে হবে এগুলো দাহ্য রাসায়নিক পদার্থ। সহজেই আগুন ধরতে পারে। যেমনঃ পেট্রলিয়াম আগুন এবং ঘর্ষণ থেকে দূরে রাখতে হবে।

বিস্ফোরক

কোন পাত্র বা বস্তুর উপর এ ধরনের চিহ্ন দেখলে বুঝতে হবে এট বিস্ফোরক রাসায়নিক পদার্থ। নিজে নিজেই বিক্রিয়া করে বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে। নির্জন ও স্থিত জায়গায় সংরক্ষণ করা। সাবধানে নারাচাড়া করা।

পরিবেশ দুষক

এ ধরনের চিহ্ন কোনো পাত্রের উপর দেখলে বুঝতে হবে এটি পরিবেশ ও জলজ জীবের জন্য মারাত্নক ক্ষতিকর। যেমনঃ তারপিন তেল, বিভিন্ন ধরনের কীটনাশক ইত্যাদি। এ ধরনের পদার্থ নদীনালার পানিতে মিশতে দেয়া যাবে না।

জারক

এ ধরনের চিহ্ন কোনো পাত্রের উপর দেখলে বুঝতে হবে এটি রাসায়নিক জারক পদার্থ। ইহা নিশ্বাসে গেলে শ্বাসকষ্ট হতে পারে তকে লাগলে ক্ষত হতে পারে। সাবধানে ব্যবহার করা। জারন বিজারন করতে পারে না এমন পাত্রে সংরক্ষণ করা।

তেজস্ক্রিয় পদার্থ

এ ধরনের চিহ্ন কোনো পাত্রের উপর দেখলে বুঝতে হবে এটি অতিরিক্ত ক্ষতিকর আলোক রশ্নি। ইহা মানবদেহে ক্যন্সার সৃষ্টি করে। রশ্নি বের হতে না পারে এরকম পুরু বিষেশ পাত্রে সংরক্ষণ করা।

স্বাস্থ্য-ঝুঁকি

এ ধরনের চিহ্ন কোনো পাত্রের উপর দেখলে বুঝতে হবে ইহা দেহের শ্বাস প্রশ্বাস সংক্রান্ত তন্ত্রের জন্য সংবেদনশীল। বাইরে নিরাপদ স্থানে সংরক্ষণ করা।

তো বন্ধুরা এই ছিলো আজকের টিউন। ভালো লাগালে জোসস দিতে ভুলবেন না।

Level 4

আমি মোঃ তানজিন প্রধান। ২য় বর্ষ, গাইবান্ধা সরকারি কলেজ, গাইবান্ধা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 5 মাস 1 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 58 টি টিউন ও 55 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 10 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 4 টিউনারকে ফলো করি।

কখনো কখনো হারিয়ে যাই চিন্তার আসরে, কখনোবা ভালোবাসি শিখতে, কখনোবা ভালোবাসি শিখাতে, হয়তো চিন্তাগুলো একদিন হারিয়ে যাবে ব্যাস্ততার ভীরে। তারপর ব্যাস্ততার ঘোর নিয়েই একদিন চলে যাব কবরে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস