ম্যাজিকে ম্যাজিকে বিজ্ঞান শিখি (৩য় পর্ব)

বিষয় : মন্ত্রের সাহয্যে মোমবাতি নেভানো
একটি জলন্ত মোমবাতি আমরা বিভিন্নভাবে নেভাতে পারি । যেমন -ফুঁ দিয়ে , বাতাস করে, পানি ঢেলে ইত্যাদি । কিন্তু আজ আমরা মোমবাতির আগুন নিভাব মন্ত্রের সাহায্যে । চলৃন দেখি -

<

দরকার :
১। একটি কাঁচের বোল ।
২। একটি লাইটার বা ম্যাচ ।
৩। একটি ছোট সাইজের মোমবাতি ।
৪। ১০০ মি.লি. ভিনেগার ।
৫। ০.৫ টেবিল চামচ বেকিং সোডা ।

সতর্কতা : এই পরীক্ষাটি ১৩ বছরের নীচে কেউ করতে যাবেন না এবং সাথে অবশ্যই প্রাপ্তবয়স্ক কাউকে রাখবেন ।

কি করবেন :
১। প্রথমে মোমবাতিটি বোলের মাঝখানে রাখুন ।
২। তারপর ১০০ মি.লি. ভিনেগার বোলের মধ্যে সতর্কতার সহিত ঢালুন । একটু মিষ্টি গন্ধ পেতে পারেন এতে ভয় পাবেন না ।
৩। এরপর লাইটারের সাহায্যে মোমবাতিটি জ্বালিয়ে দিন ।
৪। তারপর ০.৫ টেবিল চামচ বেকিং সোডা ঢেলে দিন এবং একটু দূরে সরে গিয়ে নীচের মন্ত্রগুলো মনে মনে পড়ে হাতের মুঠোয় ফুঁ দিয়ে বোলের দিকে ছুঁড়ে মারুন ।

মন্ত্র : '' বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ভিত্তিক বাংলা ব্লগ টেকটিউনস আমার প্রিয় ব্লগ । এখানকার মডারেটর, টিউনার ও কমেন্টার সবাই সবার খুবই আপন । যারা টেকটিউনসের প্রতি অভিমান করেছে তাদের অভিমান ভেঙ্গে যাক । আর যারা টেকটিউনসের সাফল্যে ইর্ষান্বিত তাদের হিংসার আগুন নিভে যাক ।''
(এসময় বোলের মধ্যে প্রচন্ড বুদবুদ সৃষ্টি হতে পারে । এতে ভয় পাবার কিছু নেই ।)

মন্ত্র কিভাবে কাজ করে :
আমরা জানি অক্সিজেন গ্যাস আগুন জ্বালাতে সাহায্য করে এবং কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস আগুন নেভাতে সাহায্য করে । মন্ত্রের প্রভাবে বোলের মধ্যে রাখা ভিনেগার (দূর্বল এসিড) ও বেকিং পাউডার (বাই কর্বনেট) এর মধ্যে রাসায়নিক বিক্রিয়া ঘটে এবং অদৃশ্য কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস উৎপন্ন হয় । এগ্যাস যখন মোমবাতির আগুনের শিখার চারপাশে ঘিরে ধরে তখন অক্সিজেনের অভাবে মোমবাতির আগুন নিভে যায় ।

Level 0

আমি ছাত্র ও শিক্ষক। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 54 টি টিউন ও 1010 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

তুমি যদি শিক্ষিত হও,অশিক্ষিতকে আলো দেবে। না পারলে তুমি অহংকার করবেনা,তুমি দূর্ব্যবহার করবেনা,বিনয়ের সঙ্গে কথা বলবে,তুমি শিক্ষিত বলেই এ তোমার অতিরিক্ত দায়।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

মন্ত্র ta posondo hoycha……..

Jotil মন্ত্র ………………………………

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ভিত্তিক বাংলা ব্লগ টেকটিউনস আমার প্রিয় ব্লগ । এখানকার মডারেটর, টিউনার ও কমেন্টার সবাই সবার খুবই আপন । যারা টেকটিউনসের প্রতি অভিমান করেছে তাদের অভিমান ভেঙ্গে যাক । আর যারা টেকটিউনসের সাফল্যে ইর্ষান্বিত তাদের হিংসার আগুন নিভে যাক

Thank u……..

Level 0

রসায়ন বিষয়টিই হচ্ছে ম্যাজিক। তাই রসায়ন কে মনে প্রানে ভাল বাসি। আর আপনি যে রসায়নের গুরুত্ব পূর্ন বিষয় গুলো এত সুন্দর করে তুলে ধরেছেন তাতে যে কেউ ভালবাসতে বাধ্য। ধন্যবাদ।

    সুন্দর মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ।
    আমারও প্রিয় সাবেজক্ট রসায়ন ।
    তাই রসায়ন নিয়ে লিখতে ভাল লাগে ।

মত্রটা দারুন! চোখ ধাঁদানো পারফামেনস্।

মন্ত্রটা খুব বেশি ভাল হয়েছে। আর জয় ভাইয়ের মত করে বলতে চাই, রসায়ন বিষয়টিই হচ্ছে ম্যাজিক। তাই আরো আরো চাই।

ভালো লাগলো স্যার 🙂

রসায়ন আমার প্রিয় সাবজেক্ট . দারুণ ম্যাজিক। যে কেউ এক মুহুর্ত হলেও থমকে যাবে………..
আপনাকে অনেক ধন্যবাদ স্যার।

মন্ত্র পড়ে সঠিক সময়ে হাত ছুড়তে হবে। অক্সিজেন শেষ হওয়ার আগেই হাত ছুড়লে…. 🙁 😀
ধন্যবাদ স্যার আপনার টিউনের জন্য। 🙂

    অক্সিজেন শেষ হওয়ার আগে ছুড়লে সমস্যা নেই ।
    অক্সিজেন শেষ হয়ে গেলে তখন মন্ত্র ছুড়লে সমস্যা । মন্ত্রের জারিজুরি শেষ ।
    ধন্যবাদ ।

chemistry bortomane kharap chapter hoie geche.bolte gele baze chapter

হতে পারে কিন্তু আমার কাছে তা মনে হয়না ।
রসায়ন ভাল লাগাতে হলে রস আনয়ন করতে হবে ।
ধন্যবাদ ।

অয়াউ অয়াউ, জটিল ত, উপরে দেখলাম নতুন ধারাবাহিক লিখছেন, তাই ঘুরতে আসলাম। খুব বেশি ভালো লাগলো। সুন্দর স্টাইল আছে আপনার লিখায়। এভাবে লিখুন অনেক দূর এগিয়ে যাবেন আপনি। ভাল থাকুন 🙂

Level 0

জটিল

Level 0

প্লিজ ম্যাজিকে রসায়ন ঢুকায়েন না রসায়ন কে আমার খুব ভয় লাগে!!! আপনার টিউন গুলো একটার পর একটা শেষ করতেছি। কোনটা রেখে কোনটা প্রশংসা করব। এক কথায় খুব মজা পাচ্ছি। ধন্যবাদ।

ওরে মোর বিজ্ঞানের ম্যাজিক রে। আপনাকেতো কোন না কোন সম্মাননা দিতেই হয়।