রিভিউ: BATTLEFIELD 3 এবং CALL OF DUTY: MODERN WARFARE 3 নিয়ে কিছু কথা

MW3 VS BF3

অবশেষে ২৫ অক্টোবরে বহুল প্রতিক্ষিত গেম BATTLEFIELD 3 বের হয়েছে। এর ২ সপ্তাহ পরে বের হবে এই সিরিজের গেমস এর একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বীর CALL OF DUTY সিরিজের MODERN WARFARE 3 তাই গেমিং বিশ্বে কোন গেমসদের নিয়ে এরকম উত্তেজনা কখন ও এর আগে হয়নি।

এই দুটি গেমস কে নিয়ে এই গেমসের ফ্যান,সমোলচকদের মাঝে অনেক তর্ক-বিতর্ক হয়েছে।তবে অনেক কল্পনার অবসান ঘটিয়ে BF3 রিলিজ পেয়েছে।
এই সিরিজের আগের গেমস BF2 BAD COMPANY 2 এর প্রি-অর্ডার থেকে ২৪ গুন বেশি প্রি-অর্ডার পেয়েছিল।তবে সার্বিকভাবে প্রি-অর্ডার সবচেয়ে বেশি করা হয়েছে এর একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বীর COD:MW3

সমলোচক এবং ভক্তদের সবচেয়ে বড় অভিযোগ ছিল COD সিরিজের গেমস এর gameplay একইরকম।COD সিরিজের MW2 একটি ব্লকবাস্টার শুটিং গেমস ছিল।এটি সেই সময় সবচেয়ে বেশি বিক্রিত ভিডিও গেমস এর রেকর্ড করে।তার পরের বছরে এই সিরিজের BLACK OPS,একই সিরিজের আগের গেমস MW2 এর গড়া রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড তৈরি করে এবং সারা বিশ্বে সবচেয়ে বেশি বিক্রিত ভিডিও গেমস এর রেকর্ড করে।XBOX 360 কনসোলের জন্য সবচেয়ে বেশি বিক্রিত হয়েছিল এই BLACK OPS গেমসটি।

কিন্তু গেমার এবং সমলোচকদের অভিযোগ সেই তুলোনায় BLACK OPS এর গেমপ্লে এবং গ্রাফিক্স এই সিরিজের আগের গেমস এর তুলনায় সেরকম নতুনত্ব কিছু ছিল না।তাছাড়া COD সিরিজের গেমস এর ম্যাপ ও খুব বড় না। Upcoming MW3 এর ডিমো এবং ট্রেইলার দেখে অনেকে অসন্তুস্ট হয়েছেন।তাদের অভিযোগ MW2 এর মাঝে এই গেমস এর সেরকম কোন পার্থক্য নেই।গেমপ্লে আগের মত এবং গ্রাফিক্স খুব একটি উন্নত করা হয় নি।

সেইদিক থেকে BATTLEFIELD সিরিজের গেমস গুলো বরাবর-ই তাদের ফ্যানদের নতুন কিছু দেয়ার চেস্টা করে আসছে।নতুন গেম ইঞ্জিন,নতুন মানের গ্রাফিক্স,নতুন গেমপ্লে,নতুন ম্যাপ দিয়ে সমলোচকদের সমলোচনা থেকে দূরে থাকার চেস্টা করেছে এবং তারা পেরেছেও।

BATTLEFIELD 3 REVIEW:

এই বছরের প্রথম দিকে EA GAMES এর CRYSIS 2 সেরকম জনপ্রিয় না হওয়ার কারনে এর পরবর্তী শুটিং প্লাটফর্ম BF3 যাতে একই অবস্থার সম্মুখিন না হয় সেই জন্য তারা সকল ধরনের ব্যবস্থাই নিয়েছে।BF3 তে নতুনত্ব আনার জন্য এবং এবং এর একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী COD এর UPCOMING MW3 কে Beat করার জন্য সবধরনের চেস্টাই তারা করেছে।

স্টোরিলাইনঃ

মূলত গেমসটি মাল্টিপ্লেয়ার মোড এর জন্য বিখ্যাত হলেও এইবার গেমসটিতে স্টোরিলাইন এবং সিঙ্গেল মোড এ যথেস্ট চেস্টা করা হয়েছে উন্নত করার।
তবে এইবার স্টোরিলাইনটার জন্য গেমসটির রেটিং গতবারের তুলনায় কম পেয়েছে।আমি যখন গেমসটি খেলি এর স্টোরিলাইন আমাকে BLACK OPS এর কথা মনে করিয়েছে। তাই আমার মতে এই গেমস এর স্টোরিলাইন আরো উন্নত করার দরকার ছিল।কারন এর সিঙ্গেল প্লেয়ার মোড এ এই গেম শেষ করতে ৫ থেকে ৬ ঘণ্টা লাগে।

গেমপ্লেঃ

DICE এর আগেও EA এর সাথে সফল গেমস বানিয়েছে।তবে এইবার DEVELOPER রা নতুন গেমিং ইঞ্জিন দিয়ে এই গেমটি বানিয়েছে।বাস্তবতার সাথে যথেষ্ট মিল রাখার চেস্টা করা হয়েছে।যেমন চাপ্টারে যখন আমি বিমানে উঠি এবং টেক অফ করি আমার কাছে পুরো জিনিসটা বাস্তব মনে হয়েছে।গেমস এর মুভমেন্ট গুলো আরো বাস্তব সম্মত করা হয়েছে।এইছাড়া আরো অনেক ধরনের গাড়িতে,বোটে উঠে যখন ফায়ারিং করেছিলাম তখন সত্যি তা অসাধারন ছিল।

গ্রাফিক্সঃ

নিঃসন্দেহে এই গেমসটি এই বছরের সেরা গ্রাফিক্সের গেমসগুলোর তালিকার প্রথম সারির দিকে থাকবে।গেমসটিতে নতুন ধরনের গ্রাফিক্স আনা হয়েছে।যা আমি নিজে সত্যিই অন্য কোন গেমস এ দেখিনি।গ্রাফিক্স বাস্তব না হলেও অন্যরকম ইফেক্ট আমি খেয়াল করেছি।যাদের মনিটর এর রিফ্রেশ রেট এবং এফপিএস ভালো তাদের জন্য চমক অপেক্ষা করছে। গেমসের চরিত্রগুলোর মুখের ইমোশনগুলো পারফেক্ট ছিল।খুব নিখুত ভাবে আশেপাশের পরিবেশ,আকাশ,ধোয়া,সাগর,বিমান,বড় যুদ্ধ জাহাজ,আগুনের গ্রাফিক্স আমার দেখা এই পর্যন্ত সেরা।

মাল্টিপ্লেয়ার মোডঃ

গেমসটির লিগ্যাল কপি আমার কাছে নেই।যার কারনে মাল্টিপ্লেয়ার মোডে খেলতে পারিনি।মাল্টিপ্লেয়ার মোড এ একসাথে ৬০ জন এই গেমসটি খেলতে পারবে।বলতে গেলে কেও যদি কো-অপেরেটিভ মোড এ খেলেন অবশ্যই এই গেমসটি সেরা গেমস তাতে কোন সন্দেহ নেই।আপনার টিম-মেটদের নিয়ে আপনাকে মাল্টিপ্লেয়ার মোড এর মিশন শেষ করতে হবে।

গেমপ্লে এর কিছু স্ক্রিনশটঃ

সিস্টেম রিকুইরমেন্টসঃ

উন্নতমানের গেমিং ইঞ্জিন এবং গ্রাফিক্স এর জন্য এর রিকুইরমেন্টস কিছুটা হাই।যারা মোটামুটি লো-কনফিগারেশন এ গেমসটি খেলতে চান তাদের দরকার হবে------

  • কোর ২ ডুয়ো প্রসেসর (২ গিগাহার্জ মানের)
  • ২ গিগাবাইট রাম।
  • ৫১২ এমবি গ্রাফিক্স কার্ড পিক্সেল সেডার ৪ মানের, ডাইরেক্ট এক্স ১০ সাপোর্টেড (ডাইরেক্ট এক্স ৯ হবে না)
  • হার্ডড্রাইভ ১৪ জিবি

যারা হাই কনফিগারেশনে গেমটি খেলতে চান তাদের থাকতে হবে

  • কোর ২ কোয়াড মানের প্রসেসর
  • ২ জিবি রাম
  • ১ জিবি গ্রাফিক্স কার্ড পিক্সেল সেডার ৫ মানে, ডাইরেক্ট এক্স ১১ সাপোর্টেড
    যেমন এটিআই এইচডি ৬৯৫০ , এনভিডিয়া ৫৬০

যারা এখন ও গেমসটি খেলেননি তারা খেলা শুরু করে দিন।আমি অপেক্ষায় রইলাম MODERN WARFARE 3 এর জন্য। ট্রেইলার দেখতে ক্লিক করুন

Level 0

আমি শরীফ আহমেদ জনম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর 9 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 6 টি টিউন ও 288 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

আমি এইবার বীরেশ্রষ্ঠ মুণ্সী আব্দুর রউফ রাইফেলস কলেজ থেকে কমারস ssc পরিক্ষা দি্যেছি।কম্পিউটার আমার জীবন সঙ্গী।এর সাথে বলতে গেলে আমার বিয়ে হয়েছে।জীবনে সংগ্রাম করার সময় আমি কম্পিউটারকে কাছে পেয়েছিলাম।ওকে ভাল করে জানার জন্য আমার অনেক চেস্টা আর আগ্রহ।তারই মাঝে এক্তা হল TechTunes-এ আসা।জানব,শিখব যা জানি সাধ্যমত হলে সবার সাথে শেয়ার...


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

ami Battelfild 2 er chaite COD MW1 & MW2 khele beshi moja paisi.COD er kahini + charecter amar besi posondo.Weapon gulor babohar kore beshi moja paisi COD e.COD khelar somoy amar mone hoy ami movie dekhsi. but BF2 otota valo lageni.
kal DVD shop e BF3 paisilam.Dekhi khele BF3 ta kmn koreche.
😉

    @শ্যাম সুন্দর:

    ভাই।Battlefield 2 এর বেশ কয়েকটা আছে।আপ্নে কোনটা খেলেছেন আমি জানি না।তবে আমার কাছে মোটামুটি ভালো লেগেছে।Battlefield গেমগুলো মূলত মাল্টিপ্লেয়ার এ খেলে বেশি মজা পাবেন।
    আর আমার সবচেয়ে ভালো লাগে call of duty এর গেমগুলো। 😀

Level 0

ভাইয়া আমার ইমেইল আইডি [email protected]
jodi paren ektu contact koiren to.

ami maatro kine niye ashlam!!!

আপনাের েক কইেস crysis 2 popularity পায় নাই?

    @hijack newton:

    crysis 2 একটা নির্দিষ্ট সমায় এর জন্য ছিল গেমারদের জন্য।এখন ও অনলাইন এ গেলে crysis 2 এর গেমারদের অভাব পরে।যেখানে call of duty আর battlefield এর অনলাইন এ গেলে অনেক গেমার পাওয়া যায় ।আর গেমস এর আগা-মাথা পেতেও আমার অনেক হিম-শিম খেতে হয়েছে।

capture nuke carrier alive! ekhane bae bae giye atke jacchi…. oder kotha moto E,pore LSM press kore jacchi…but hoyna ken! any solution?

এরকম কোন মিশন তো পাইলাম না ভাই 🙁

ব্যাটলফিল্ড ৩ আমার কাছে অসাম লেগেছে………:)