চোখের জল কিম্‌বা পানি সে তো নোণতাই রয়ে যায়……।

এপারে তুমি  হাসি মল্লিক ওপারে হাসিনা ...../এপারে তোমার দাম পঞ্চাশ ও পারে  কত জানিনা ।।

রাতের অন্ধকারে আমি দেখেছি তোমায়  ।।/আমার বোউ বাজারে আমি দেখেছি তোমায় .....

দুদিকের কাঁটা তারে আমি দেখেছি তোমায় ।।

হ্যাঁ শুরু করলাম এক চিত্র কল্প ।

আমার দেশে যাকে আমরা বলি  জল , তাকেই তো আপনারা বলেন পানি ! যখন সেটা চোখ থেকে বের হয় তখন তা পর্যায়ক্রমে চোখের জল বা চোখের পানি । বিশুদ্ধ বাংলায়  যাকে অশ্রু বলা হয় ।আর চোখের জলই বলেন অথবা পানি দুটোই নোনতা , এমন কোন মানুষ নাই যারা এর স্বাদ জানেন  না !না একজনো নেই –

আপনাদের সামনে হাজির হয়েছি সম্পূর্ণ ভিন্ন অথচ মর্মস্পর্ষী একটি বিষয় নিয়ে । আমার একজন প্রিয় গায়ক অঞ্জন দত্তের একটি গানকে অবলম্বন করে গড়ে তোলা একটি চিত্র কল্প।এর মূল উদ্দেশ্য -  Sensitization হ্যাঁ  , শুধুই Sensitization, …………।





আচ্ছা, আসুন তো একটুন ভাবি !

কি মূল কারন রয়েছে সমাজের বিষবাস্প রূপ এই কলঙ্কময় এই জীবন ধারার পিছনে। হ্যাঁ একটি ই মূল কারন আর সেটি হল –

খাবার ! খাবার ! খানিকটা খাবার  ,

হতে পারে সেটি তার সন্তানের এক টুকরো শুকনো পাঁউরুটি র নিশ্চয়তার জন্য ...।।

অথবা  একবেলা বাসি ভাত আর আমানি ......

অথবা তার বৃদ্ধ বাপের  চিকিৎসার খরচ চালানো......

কিম্‌বা , তার রুগ্ন শিশুর চিকিৎসার খরচ জোগাড় করার জন্য .........।।

হয়তো বা ,পঙ্গু স্বামী টার বোঝা ...... সংসার চালানোর অর্থনৈতিক  বোঝা তার কাঁধে !

হ্যাঁ !হ্যাঁ  ! এরকম হাজার হাজার কারণ হতে পারে কিন্তু শখে নয় ! বিশ্বাস করুন  শখে নয় ! আমরা গত কালই প্রযুক্তি জগৎ এর এক বিস্ময়কর প্রতিভা তথা সফল ব্যবসায়ী স্টিভ জোবস্‌ এর মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা শুনেছি, তার আত্মার শান্তি কামনা করেছি ...... কিন্তু বেঁচে থেকেও স্টিভের মতো আমাদের  মায়েরা বোনেরা ,  এমন কি শিশুরা প্রতিদিন তিলে তিলে মৃত্যু  যন্ত্রণা ভোগ করছে, প্রতিদিন একটু একটু কর শেষ হয়ে যাচ্ছে তাদের জীবিনি শক্তি ......প্রতিদিন তার অভিসম্পাত জানিয়ে যাচ্ছে আমাদের তথাকথিত এই সভ্য সমাজের সভ্য মানুষ গুলোকে তাদের কান্না কি পৌঁছচ্ছে না আমাদের কানে ?

হয়তো অনেকে বলবেন এ এক পাগলের প্রলাপ ! এ রকম কত সমাজ সংশোধন ! সমাজ পরিবর্তণ ! নতুন ভোরের আগমণী গান গাইয়েদের দেখলাম ! কত জন এলো গেলো , কত জনই আসবে......

একদম হক কথা !  একটু র‍্যাশনাল অ্যাপ্রোচ দিয়ে ভাবা যাক , সোসিয়োলজি বা সমাজ বিজ্ঞানের দৃষ্টি কোন দিয়ে বিচার করলে প্রাচীন সিন্ধুসভ্যতার যুগ থেকে শুরু করে বর্তমান যুগের যে কোন সমাজ ব্যবস্থায় এই বিষয় টি রয়ে গেছে , হয়তো বা থাকবেও । অনেকে বলেন মানুষের মধ্যে তার ষড় রিপুর এই দ্বিতীয় রিপুর তাড়না থাকবেই এটাই অব্যশম্ভাবী , এটাই বাস্তব ,এটা সমাজের  একটি সেফটি ভালবের মত । সব কথাই মেনে নিলাম , তাহলে এই প্রবণতা ক্রমবর্ধমান কেন ? ডেমগ্রাফিক প্রোফাইল দিয়ে বিচার করলে তাহলে বলতে হয় সমাজে স্ত্রী পুরুষের আনুপাতিক ভারসাম্য যদি কম বেশি একই থাকে , তাহলে সেটির সীমাবদ্ধ উপস্থিতি ই কাম্য ছিল ।

কিন্তু তা তো হচ্ছে না ! দিন কে দিন এই প্রবণতা বাড়তেই আছে , তথ্য ঘাটলে দেখতে পাওয়া যাবে –এখন এই পাপের পঙ্কিল সাগরে বলিপ্রদত্ত হচ্ছে প্রচুর সংখ্যক শিশুরা ! হ্যাঁ এখন এটি ই সবথেকে চিন্তার বিষয় ! এখন ইউনেস্‌কো থেকে রেডক্রস যেদিকেই তাকান না –“ SAVE THE CHILD”  অথবা “STOP ABUSING THE CHILD ”    কিম্‌বা  “এরাও আমাদের ই সন্তান ” এর এত বিজ্ঞাপণের প্রয়োজন কেন ?

আমি আপনাদের আছ থেকে কোনো সোস্যাল কন্‌সেন্‌সাস এর তৈরীর জন্য আবেদন নিবেদন করছিও না । শুধু এইটুকু বলছি যে  --

স্টিভ জোব্‌স এর মৃত্যু যদি আমাদের কাঁদায় তবে হাজার হাজার “হাসি মল্লিক  ” বা “হাসিনা” রা  যে প্রতিদিন তিলে তিলে মারা যাচ্ছে ,বেঁচে থেকেও প্রতিদিন যারা তিলে তিলে শেষ হয়ে যাচ্ছেন , তাদের মৃত্যু আমাদের ভাবায় না ?আসুন তাদের কথা একটু  একটু ভাবি ! তাদের সন্তান দের জন্য একটু  ভাবি!

না হলে যে মুখ লুকোবার আর জায়গা থাকবেনা!

করুনা বা সিম্প্যাথি  নয় এম্প্যাথি দিয়ে ভাবুন ।এখন এই করুনা বা সিম্‌প্যাথি আর এম্‌প্যাথি -ইংরেজীতে আপাত দৃষ্টিতে সমার্থক মনে হলেও একটু তফাৎ রয়েছে, একটা ছোট্ট উধাহরন দিয়ে বিষয়টিকে পরিষ্কার করার চেষ্টা করি-

ধরা যাক, আপনার বাসায় একজন ছোট্ট মেয়ে পরিচারিকার কাজ করে , সারাদিন সে অক্লান্ত পরিশ্রম করে –শুধু দুইবেলা দুমুঠো খাবার এর জন্য ।দুপুর বেলায় কর্মক্লান্ত সেই শিশুটির মুখের দিকে তাকিয়ে আপনার বা আপনার মায়ের  মায়াও হয়তো হয় –হয়তো 

বলি ও -“ যা অনেক কাজ করেছিস! এখন একটু জিরিয়ে নে বাবা!” -এটি সিম্‌প্যাথি বা করুণা।

আর যদি আপনার কখনো মনে হয় যে শিশুটি সারা দিন অক্লান্ত পরিশ্রম করছে সে হয়তো আপনার ই নিজের বোন , বা আপনার ই নিজের মেয়ে , চোখ বন্ধ করলে যদি দেখতে পান যে – হয়তো কপালের ফেরে আপনি এখন যে অবস্থায় আছেন হঠাৎ করে একদিন তার পরিবর্তন হল –  আপনার বোনকে বা আপনার মেয়েকে  হয়তো অন্যের বাড়ীতে একই রকম কাজ করতে হচ্ছে , আপনাদের দুবেলা অন্নসংস্থান এর জন্য! চমকে উঠলেন ! হঠাৎ করে তাকে কাজ থামিয়ে দিয়ে , আপনি হয়তো বললেন , থাক অনেক হয়েছে তুই একটু  বিশ্রাম কর , আমি তোর কাজ করে দিচ্ছি!  - হ্যাঁ এটিকে বলে এম্প্যাথি! এই হল সিম্‌প্যাথি আর এম্‌প্যাথি এর মধ্যে সুক্ষ্ম তফাৎ। আমার এই পাগলের প্রলাপের মুল উদ্দেশ্য ই কিন্তু আপনাদের মধ্যে সিম্‌প্যাথি বা সহানুভূতি নয় এম্‌প্যাথি জাগ্রত করা, আপনাদের সেন্‌সিটাইজ করা ,আপনাদের শক্‌ দেওয়া !

সমাজ ব্যবস্থ্যার আমুল পরিবর্তণ আপনি বা আমি কেউই করে উঠতে পারবো না। এটি আমি মানি !  আর সেই চেষ্টাও আমি করছি না ! আমি শুধু আবেদন করছি প্লিজ করুণার চোখে নয় একটু এম্‌প্যাথেটিক্যালি বিষয় টিকে  ভাবুন! আমাদের মধ্যে বেশ কিছু মানুষ যদি এই রকম ভাবে ভাবতে শুরু করেন  হয়তো বা অবস্থাটির কিছুটা লাঘব হবে!

এর মধ্য কি আপনি আপনার সবথেকে প্রিয় বোনের মুখ দেখতে পান !

অথবা , এর মধ্যে কি আপনি আপনার সবথেকে প্রিয় জনের মুখের ছাপ ধরতে পারছেন না ?

কিসের প্রতীক্ষায় রয়েছে এই শিশুটি ?

অথবা এর কাছে প্রতিটি সকাল ী কেন একরকম ?

এরা সমাজ কে যে অভিসম্পাত করছে প্রতিদিন , মহান আল্লা আমাদের সেই অভিসম্পাত এর হাত থেকে বাচান!

মেসেজ টি অন্তত একজনের সাথে শেয়ার করুন , যাকে আপনি সবথেকে বেশি ভালোবাসেন , দেখবেন হয়তো একদিন ... , একদিন...... অথবা কোনো দিন ......

কারন চোখের জল কিম্‌বা পানি সে তো নোণতাই রয়ে যায়......।



আসুন এদের বন্ধন মুক্তির স্বপ্নকে সাহায্য নয় শুধুএকটু , শুধু একটুখানি সহানুভূতির নয় এম্‌প্যাথির চোখ দিয়ে দেখি !

বিঃ দ্রঃ- মূল যে গানটিকে আমি চিত্র কল্প দিলাম সেটি হয়তো সবার ই শোনা , তাই মূল গানটির কোনো লিঙ্ক দিলাম না ,তবু যদি কারো মনে হয় ,আসম্ভব সুন্দর এই গানটি আপনার চাই , আওয়াজ দেবেন ''''  আমি কান পেতে রই   ...।।

অনেকে অনুরোধ করায় মূল গান টির লিঙ্ক এখানে -

http://www.mediafire.com/?n9ole1nesrhfn3v

Level 0

আমি অপু.পশ্চিমবাংলা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 9 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 29 টি টিউন ও 709 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 4 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

i am azmalhossain, Native Place Kandi, Murshidabad, West Bengal.age 32 . MSc(Tech) in Agril Engg.Service-West Bengal Civil service WBCS(Executive) Officer , Presently posted as Deputy Magistrate and Deputy Collector, Malda.Hobby- painting, recitation. computer game .


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

নির্বাক!!!

    @জুয়েল:
    ধন্যবাদ !
    থাক থাক ! নির্বাক
    চুপ চাপ চেপেথাক !
    কথাকয় দুজনে
    কেউ নেই সেখানে!
    ভয় ভয় শুধু ভয় !
    এত কথা আর নয়

    ধন্যবাদ আপনাকে – আজমাল

ধন্যবাদ ভাইয়া ,অসাধারন হয়েছে ।

mp3 download link ta add koren to Ektu….

আমি বাকরুদ্ধ, হতবাক। অসাধারন টিউন।

    @Kazi Vai:
    আপনাদের ভালো লাগলেই মনে করব , আমরা একধাপ -অর্থাৎ sensitization এর দিকে কিছুটা এগোলাম । ভাইয়া ভালো থাকবেন ।

ভাইয়া আমি এই গানটা শুনি নাই। যদি একটু ডাউনলোড লিঙ্কটা দেন, ভালো হয়।

Level 0

অসামান্য

    @বনি:
    যদি সামান্য এই প্রচেষ্টা কে অসামান্য লাগে !
    বিন্দু থেকে সিন্ধু হতে কতক সম্য লাগে ?

    ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য ।

Level 0

ধন্যবাদ আপনাকে অসাধারণ একটি টিউনের জন্য।

ভাল লাগল>……….সবলীল লেখা পড়ে ভাল লাগল………

ধন্যবাদ ভাইয়া । আর ১ বার আমরা মানুষ এটা মনে করিয়ে দেয়ার জন্য …

    @nischup:

    মান+ হুশ =মানুষ , প্রথম টির কোনো অভাব না থাকলেও ২য়টির অভাব, প্রত পদে পদে অনুভব করি , ধন্যবাদ আপনাকে , ভালো থকবেন।দোওয়া করবেন। মনে রাখবেন আপনাদের এই একএকটি মন্ত্যব্য একজন টিঊনার কে সারা সারা রাত জেগে পরিশ্রমের অনুপ্রেরন দেয় , সে ভালো খারাপ যেরকম মানের ই হোক , আসল বস্তু তার ইচ্ছাশক্তি আর তার পরিশ্রম , এটার মূল্য দিয়েছেন , এটার জন্য আব্রো ধন্য বাদ ।

মেহেদী হাসান ভাই আপনাকে অসংখ্য ধন্য বাদ, এই টিঊন তাকে আরো presentable করার জন্য ।

Level 0

খুব সুন্দর একটা টিউন উপহার দিলেন ভাই। অসংখ্য ধন্যবাদ।

অসাধারন। আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ। ভালো থাকবেন।

Level 0

Awesome nice tune. Amra ki pari na oder develop korte ?

    @Naiba:
    ধন্যবাদ নাইবা আপনাকে , ” আমরা কি পারি না ? ” –হ্যা অবশ্যি পারি , শুধু দরকার এক সংবেদন শীল মনণ । ভালো থাকবেন ।

অঞ্জন দত্ত অযথাই কষ্ট করে গানটি গেয়েছেন।মানুষ কোন দিন পরিবর্তন হবে না।যদি পরিবর্তন হতোই তাহলে ভূপেন হাজারিকার “মানুষ মানূষের জন্য” গানটি থেকেই অনেক শিক্ষা নিত।
ভুল কথা মানূষ পরিবর্তন হচ্ছে না।হচ্ছে। মানূষ থেকে পশুতে পরিবর্তিত হচ্ছে।
একদিন এমন দিন হয়তো থাকবে না।আমাদের পরবর্তি জেনারেশন ” হিংস্র মানব ” রুপে আমাদের কথা বই-পুস্তকে পড়বে। তারা পড়বে আজ থেকে অনেক অনেক দিন আগে এক প্রকার মানূষ ছিলো,তারা ছিলো পশুর চাইতে হিংস্র ……………… কি লজ্জা পাচ্ছেন ???????????

    @প্রবাসী:
    ধন্যবাদ ভাইয়া আপনাকে ! আপনি বিষয় টিকে নিয়ে আপনার সুচিন্তিত মতামত দিয়েছেন ।আপনার বিশ্লেষনে আমি সহমত প্রকাশ করছি ভাইয়া । বর্তামান এই সমাজব্যাধির প্রতি আপনার ক্ষোভ স্বাভাবিক । আমার টিউনের উদ্দেশ্য ও কিন্তু তাই – Introspect ……..
    তার অর্থ এই যে আমরা আমাদের যেকোন রকম বিশ্লেষণ ই করি কোন কিছুর রেফারেন্সে বা সাপেক্ষে -যেমন আমরা বলি প্রাচীন মানুষ – আদিম ছিল, ছিল কুসংষ্কারাচ্ছন্ন, , -আজ আমাদের বিজ্ঞানের উন্নতির সাথে সাথে আমরা তাদের তদকালিন বিশ্বাস কে বলছি কুসংষ্কারচ্ছন্নতা !এটি আমাদের বর্তমান অবস্থার সাপেক্ষে (রেফারেন্সে) তাদের সমন্ধে আমাদের মূল্যায়ন। সিধান্ত -আমাদের মধ্যে কুসংষ্কারচ্ছন্নতা সেই আদিম যুগের তুলনায় নিশ্চিত ভাবেই কম বলেই আমরা আমদের রেফারেন্সে তাদের মূল্যায়ন করছি।

    এবার আপনার মন্তব্য কে কোট করছি … আমাদের পরবর্তি জেনারেশন ” হিংস্র মানব ” রুপে আমাদের কথা বই-পুস্তকে পড়বে। তারা পড়বে আজ থেকে অনেক অনেক দিন আগে এক প্রকার মানূষ ছিলো,তারা ছিলো পশুর চাইতে হিংস্র ”
    – আপনিও কিন্তু শেষ পর্যন্ত এক নতুন ভোরের স্বপ্ন দেখেন! আমাদের পরবর্তী জেনারেশন যদি আমাদের সমন্ধে তাদের এই মূল্যায়ন করে তবে ধরে নিতে পারি তাদের রেফারেন্সে আমরা যদি হিংস্র হই তবে তারা আমাদের এই হিংস্রতা পিছনে ফেলে অনেক এগিয়ে যাবে ।নিশ্চই তাদের বোধোদয় হবেই বলে তো তারা আমাদের এই আচরন কে হিংস্র বলে মূল্যায়ন করবে । সেই অনাগত ভোরের প্রতীক্ষায় আপনার মত আমি ও …… আবার আপনাকে আপনার সুচিন্তিত মতামতের জন্য ধন্যবাদ । দোওয়া করবেন ।ভালো থাকবেন ।

ধন্যবাদ আপনাকে না দেখা কষ্টগুলো মনে করিয়ে দিয়ার জন্য।

হৃদয় স্পর্শি একটা বিষয় উপস্থাপন করার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।
আমি শুধু একটা কথাই বলতে চাই আসুন সবাই সবাইর প্রতি আরো শ্রদ্ধাশীল হই,সহনশীল হই এবং ভালবাসতে শিখি একে অন্যকে,পৃথিবীটাকে করে তুলি ভালবাসাময়।

    @আতাউর রহমান:
    ধন্যবাদ আতাউর ভাই আপনাকে , সত্যি আমরা সবাই যদি সবার প্রতি আর একতু সহনুভুতিশীল ও শ্রদ্ধা শীল হই তবে -অবস্থার অনেকটা উন্নতি হয়তো হবে ,

Bolte ektuo lojja pachchi na j aami nijei akshomoy ei jogot tar proti khub aakorshito hoyechilam. Vabtam ei jogot ta na jani koto anonder. Prothom jedin ak potitaloy e gelam, shedin e bujhte parsilam, aami ak ovishopto jogot e eshe porsi. Aamar kokhonoi ekhaney aasha uchit hoi ni. Tar poro shoitan jokhon vor korey tokhon bibek khub kom e kaj korey! Porpor tin bar gelam. Tritiyo bar jawar por shoitan ke hotiye aamar bibek purapuri jegey uthlo! Shedin e protigya korlam, sense thaktey r konodino ei jogot e ashbo na abong r kokhono kono prostitute ke shudhui prostitute vab bo na! Ghotona ta aaj theke prai 3 bochor aager. J koidin giyechilam, janina kon karoney aamar shathey jara giyechilo, tara shobai entertained holeo aamar chokhey bar bar ei jogot er ei nirmom drishsho guloi beshi beshi thekchilo. Aamar ei decision er jonno ekhono aamar shei circle er kachey aami khub emotional vodai hishebey porichito. But aaj aapnar ei oshadharon tune dekhey mone holo aami moteo emotional vodai noi. Aamar intuition er jonno ekhon shotti aami khub proud feel korchi! Aamar shei kosom aami aajo vangini, sense thakte kokhono vangbo na boleo bishshash kori. Thank u very much.

    @পিয়াস:
    আপনার বাস্তব অভিজ্ঞতার কথা আমাদের সেয়ার করলেন , সত্যি এত করতে অনেক সৎ সাহস লাজে , আমি আপনাকে স্যালুত জানাই ! Hats off to U Bro ! Hats Off !

মন্তব্য করার মত যোগ্যতা নাই রে ভাই………ধন্যবাদ দিবার অ যে ভাষা নেই……।

Level 0

dada apnaka osonkhho dhonnobad……..ami ai gan ta khujsilam……apnar kotha gula pora khubi valo laglo……..

boraborer moto khub-i ekti mormorsporsi tune. dhonnobad diye choto korbo na. allah apnar o apnar poribarer mongol korun.

Level 0

ভাই অনেক ভালো একটা পোস্ট দিয়েছেন।

কথা বলার ভাষা হারিয়ে ফেলেছি । তবে আপনার অনুরোধ [{(বা আমাদের দায়িত্ব যা আমরা স্বীকার করিনা)}] রাখতে চেষ্টা করবো । আল্লাহ আপনার মঙ্গল করুক ।

ধন্যবাদ ভাইয়া ভালো থাকবেন ।:)

“”অপু.পশ্চিমবাংলা”” Dada ami tomar sathe thakbo..jiboner jekono somoy/sobsomoy..protigga boddo ami..sobsomoy jeno amon thaki…..tobarokhosen..Dhaka…dada plz tomar email address ta dibe..amarta [email protected]

আবার ও দারুন।আর আপনার বাড়ি পশ্চিমবাংলার কোথায় জানালে খুশি হব।

    @shohag ahmed:
    সোহাগ ভাই ধন্যবাদ । আমার বাড়ি পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দী নামক একটা ছোট্টট শহরে । আর চাকুরির সূত্রে গত প্রায় ৩ বছর থেকে মালদা জেলায় থাকি । যদি কখনো আসেন বা কেউ আপনার আত্মীয় আসেন সাদর আমন্ত্রন রইল। খুব খুশী হব । আমকে মেলে জানাবেন আমি দিটেইলস অ্যাদ্রেস জানিয়ে দেব ।
    মেল অ্যাড্রেস –
    [email protected]

ধন্যবাদ অপু ভাই আপনাকে ও ঢাকা তে আমন্ত্রন রইল।আশা করি কোন এক ছুটির ফাকে আমাদের এখানে আসবেন।আমার মাইল আড্ররেস ;[email protected] আর আপনার ফেইসবুক id টা শেয়ার করলে আর ও খুশি হব।

জানি না ,এটা পড়বেন কিনা ।

শুরুতে ভেবেছিলাম কবিতার বদলে কবিতায় কথা বলব।

হারিয়ে গেল ভাষা

মনে হল আমার শিক্ষার গৌরব মিথ্যা

PHD এর জন্য চেষ্টা করেছি কত

মনে দুঃখ ও ছিল তা নিয়ে

এখন তা আর নেই

এটাও তো গবেষণা

মনে আগুন জ্বালিয়ে গেল

ভাই আপনার তিনটা পোস্টই আমার মনকে ছুঁইয়ে গেছে। স্যালুট আপনাকে।