পাইলটদের দু:স্বপ্নের কয়েকটি বিমানবন্দর

বর্তমান আধুনিক যুগে যোগাযোগের একটি অন্যতম বাহন হচ্ছে এরোপ্লেন । আর এই এরোপ্লেনের স্টপেজ হিসেবে রয়েছে এয়ারপোর্ট । প্রতিদিন বিশ্বের বিভিন্ন এয়ারপোর্ট থেকে হাজার হাজার বিমান উঠানামা করছে । এসব বিমানবন্দরের মধ্যে কিছু বিমানবন্দর রয়েছে যেখানে পাইলটদের বিমান উঠানামা করাতে কোন ঝামেলা বা ভয়ের মুখোমুখি হয়না । কিন্তু পৃথিবীতে কয়েকটি বিমানবন্দর আছে যেখানে বিমান উঠানামা করাটা পাইলটদের কাছে দু:স্বপ্ন মনে হয় । টিউনার ভাইয়েরা আজকে আপনাদের সাথে এরকম কয়েকটি বিমানবন্দর সম্পর্কে শেয়ার করতে চাই ।

১। কানসাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

কানসাই আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর অবস্থিত জাপানের ওসাকায় । এটি ১৯৯৪ সালে নির্মাণ করা হয় । কৃত্রিম দ্বীপের উপর নির্মিত এই বিমানবন্দরটি লম্বায় ২.৬ মাইল এবং ১.৬ মাইল চওড়া । পৃথিবীর তাপমাত্রা বৃদ্ধিজনিত জলবায়ু পরিবর্তন ও সমূদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির ফলে আগামী ৫০ বছরের মধ্যে এই বিমানবন্দরটি ডুবে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে ।

২। মেডেইরা এয়ারপোর্ট

এটি পর্তুগালের সান্তাক্রুজে অবস্থিত । ১৯৬৪ সালে এটি নির্মাণ করা হয় । ছোট রানওয়ের জন্য এটি বিখ্যাত ছিল। এটি সুউচ্চ পর্বত ও সমুদ্র বেষ্টিত হওয়ায় অভিজ্ঞ পাইলটদের জন্য ও বিমান ল্যান্ডিং করাটা খুব কষ্টসাধ্য । এটির মূল রানওয়ে ছিল ১৪০০ মিটার লম্বা যা পরবর্তীতে আর ৪০০ মিটার বাড়ানো হয় । ২০০৩ সালে রানওয়ে দ্বিগুণ করা হয় ।

৩। জুয়াংকু ই রাসকুইন বিমানবন্দর

এই বিমানবন্দরটি নেদারল্যান্ডস এর অন্তর্গত ছোট একটি ক্যারিবিয়ান দ্বীপ সাবায় অবস্থিত । এটি ১৯৬৩ সালে নির্মাণ করা হয় । এটি সাবা দ্বীপের অধিকাংশ এলাকা নিয়ে অবস্থিত । এখন পর্যন্ত বড় ধরনের কোন দূর্ঘটনা না ঘটলেও এই বিমানবন্দরকে পৃথিবীর সবচেয়ে বিপদজনক বিমানবন্দরের একটি ধরা হয় । এটির রানওয়ের উভয় প্রান্ত উঁচু পাহাড়ের উপরে এবং শেষে সমূদ্র এবং এর এক সাইডে উঁচু পাহাড় ।

৪। আইস রানওয়ে

এটি এন্টার্কটিকা মহাদেশের রোজ আইল্যান্ডে অবস্থিত। এন্টার্কটিকায় গবেষণারত গবেষকদের কাছে বিভিন্ন জিনিসপত্র আনা নেওয়ার জন্য তিনটি এয়ার স্ট্রীপের মধ্যে এটি একটি । এটা পাথর বসানো কোন রানওয়ে নয় । পাইলটদের প্রসারিত বরফের উপর খুব সতর্কতার সহিত বিমান ল্যান্ড করাতে হয় ।

৫। প্রিন্সেস জুলিয়ানা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

পূর্ব ক্যারিবায়ান অঞ্চলের সেন্ট মার্টিন এর অবস্থিত এই বিমানবন্দরটি এই অঞ্চলের দ্বিতীয় ব্যস্ততম বিমানবন্দর । ১৯৪২ সালে এটি নির্মাণ করা হয় । ১৯৪৪ সালে নেদারল্যান্ডস এর সম্রাজ্ঞী জুলিয়ানা এই বিমানবন্দরে লান্ড করলে তার নামানুসারে এর নামকরণ করা হয় । এই বিমানবন্দরের ল্যান্ডিং স্ট্রীপ খুবই ছোট যা প্রায় ২১৮০ মিটার ।

৬। চার্চেভেল এয়ারপোর্ট

ফ্রান্সের চার্চেভেল হচ্ছে বিরাট এক স্কী এরিয়া । খুব ছোট রানওয়ে নিয়ে এখানে এই বিমানবন্দরটি অবস্থিত । বিমান অবতরণের সময় পাইলটদের খুব অল্প স্পীডে রানওয়ের ঢালু পান্তের দিকে যেতে হয় এবং টেক অফ করার সময় খুব স্পীডে রানওয়ের উঁচু প্রান্তের দিকে যেতে হয় । এখানে শুধু ব্যক্তিগত বা চার্টাড বিমান এবং হেলিকপ্টার উঠানামা করতে দেয়া হয় । টুমুরু নেবার ডাই মুভির প্রথম দৃশ্যে এই বিমানবন্দর দেখান হয় ।

৭। বার্রা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর

এই বিমানবন্দরটি স্কটল্যান্ডের অন্তর্গত বার্রা দ্বীপে অবস্থিত । এই দ্বীপের প্রসস্ত বীচের উপর ১৯৭৫ সালে এই বিমানবন্দর নির্মাণ করা হয় । এটি পৃথিবীর একমাত্র বিমানবন্দর যেখানে বীচের উপর বিমান ল্যান্ড করাতে হয় । এটি দিনে একবার জোয়ার ভাঁটায় ধুয়ে যায় ।

৮। লুকলা এয়ারপোর্ট

পূর্ব নেপালের লুকলা শহরে অবস্থিত এটি খুব ছোট একটি এয়ারপোর্ট । এটি ২৯০০ মিটার উঁচুতে অবস্থিত ও এর এক প্রান্ত বিরাট পর্বত বেস্টিত । ২০০৮ সালে এভারেস্ট বিজয়ী স্যার এডমন্ড হিলারীর নামে এটি পুণ: নামকরণ করা হয় ।

Level 0

আমি ছাত্র ও শিক্ষক। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 12 বছর যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 54 টি টিউন ও 1010 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

তুমি যদি শিক্ষিত হও,অশিক্ষিতকে আলো দেবে। না পারলে তুমি অহংকার করবেনা,তুমি দূর্ব্যবহার করবেনা,বিনয়ের সঙ্গে কথা বলবে,তুমি শিক্ষিত বলেই এ তোমার অতিরিক্ত দায়।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

অসাধারন হয়েছে। ধন্যবাদ আপনাকে।

অসাধারণ, অসাধারণ, অসাধারণ…

৫নং-টা Truly Dangerous…

Nice Tune ,
Thanks.

স্যার টিউনটা একটু ফরম্যাট করে দিলাম ….. সমস্যা নেই তো?

    কোন সমস্যা নাই, এডিট না করলেই হয় ।
    ম্যাজিকে ম্যাজিকে বিজ্ঞান শিখি (৪র্থ পর্ব)ও ফরমেট করার পর আমি একটু এডিট করতে গিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলেছিলাম ।
    ধন্যবাদ ।

    এডিট করার ক্ষমতা আমার নেই ….. মাঝে মাঝে একটু এডিট করে দেয়ার চেষ্টা করি ….. এই যা … ধন্যবাদ

দারুন হইছে……..ধন্যবাদ

ভ্য়ঙ্কর সুন্দর টিউন……………..

(ছাত্র ও শিক্ষক)
আশা করি ভাল আছেন।
আপনার টিউন গুলি সত্যি দারুন,শিক্ষা মূলক এবং সগ্রহে রাখার মত।
সময় পেলে আরো বেশি বেশি টিউন করতে পারেন।
ধন্যবাদ….

৬ নং এ ওটা কি? হারে হায়!

অসাধারণ!!! সত্যিই অনেক কিছু জানলাম। ধন্যবাদ স্যার।

৩ নম্বরটা দেখে তো আমার হাসি পাচ্ছে !!!

fantastic tune.aro kichu chaiiiiiiiiiiiiiiiiiii

Level 0

আপনাদের মত টিউনারদের জন্যেই সারাদিন টেকটিউনসে পড়ে থাকি।এত সুন্দর টউন করেন কি করে রে ভাই?খুব দুরুন হয়েছে।

    ধন্যবাদ ।
    সুন্দর কিছু করার ইচ্ছা থাকলে আপনিও সুন্দর কিছু করতে পারবেন ।

Level 0

খুব সুন্দর হয়েছে।তবে আমার একটা প্রশ্ন প্রায় বেশ কয়েকটি ঝুঁকিপূর্ণ বিমানবন্দরই সমুদ্র তীরে অবস্হিত কেন?
সমুদ্র তীরে হওয়াতে কি বিমানবন্দরের জন্য বিশেষ কোন সুবিধা পাওয়া যায়?
সম্প্রতি কাতার সরকারও সমুদ্রের বিস্তৃর্ন এলাকা মাটি দিয়ে ভরাট করে তাদের নতুন বিমানবন্দর নির্মান করছে যদিও
তাদের স্হলভাগে প্রচুর জায়গা রয়েছে।

    আপনাকে ধন্যবাদ ।
    আপনার প্রশ্নের উত্তর আমি শিউরলি দিতে পারছিনা বলে দু:খিত ।
    তবে মনে হয় সমূদ্রের তীরের কাছাকাছি পরিবেশটা ভাল আর উঁচু ভবন নেই যা বিমান উঠানামার জন্য সহায়ক ।

Level 0

আপনি ত জটিল শিক্ষক । ধন্যবাদ স্যার ।

স্যার সংগ্রহটা দারুন ভালো লাগলো ধন্যবাদ আপনাকে।

Level 0

Excellent. খুব ভালো।

Level 0

খুব ভালো।

ধারুন হয়েছে। ধন্যবাদ..

চমৎকার ফাটাফাটি টিউন 🙂

অসাধারন টিউন।

Level New

Exclusive tune….আপনার নাম টা আপনার টিউনের সাথে লিঙ্ক করা হইনি । ধন্যবাদ

    ব্যাপারটা আমি ঠিক বুঝিনা ।
    কি করে করব ? বলবেন কি ?
    মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ ।

Level 0

অজানা ও রোমাঞ্চকর বিষয়ে সুন্দর তথ্য উপাত্য দিয়ে জানাবার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।

আমার মনে হয় ৩নাম্বার টা সবচেয়ে ভয়ঙ্কর।

Level 0

ভয়ঙ্কর সুন্দর

Level 0

এত সুন্দর টউন করেন কি করে রে SIR? NO.3 IS VERY DANGEROUS. MANY MANY THANKS.