দক্ষিণ এশিয়ায় সেবা কমাতে পারে ফেসবুক, ইউটিউব

দক্ষিণ এশিয়ায় ফেসবুক এবং ইউটিউবসহ বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে৷এলেক্সা ব়্যাংকিংয়ে বাংলাদেশ ও ভারতে ওয়েবসাইট দুটির অবস্থান সেরা দশের মধ্যে৷কিন্তু দক্ষিণ এশিয়ায় ব্যবসায়িকভাবে একেবারেই সফল নয় তারা৷

ওয়েবসাইটের জনপ্রিয়তা অর্জন নিঃসন্দেহে ভালো খবর৷ কিন্তু ফেসবুক কিংবা ইউটিউব দক্ষিণ এশিয়ায় এই সফলতা ঠিক আনন্দের সঙ্গে কাজে লাগাতে পারছে না বলেই জানা গেছে৷ কারণ এই জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে ব্যবসা করাটা ঠিক হয়ে উঠছে না তাদের৷

ফেসবুক বা ইউটিউবের মত একেকটি ওয়েবসাইট রক্ষণাবেক্ষণ অনেক খরচের ব্যাপার৷ বিশেষত ব্যবহারকারী বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তাদের জন্য
পর্যাপ্ত ব্যান্ডউইডথ এবং স্পেস অ্যালোকেট করার জন্য প্রয়োজন হয় অফুরন্ত সার্ভার স্পেস৷ একইসঙ্গে এসব ওয়েবসাইটের সঙ্গে জড়িয়ে
আছে অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারীর বেতনভাতাসহ আরো অনেক বিষয়৷ অবাক হলেও সত্য, এখন পর্যন্ত লাভের মুখ দেখেনি ফেসবুক৷ অন্যদিকে,
ইউটিউব কিনে নিয়ে সমানে লোকসানের মুখ দেখছে গুগল৷ সবচেয়ে সঙ্গিন অবস্থায় আছে ইউটিউব সবচেয়ে সঙ্গিন অবস্থায় আছে ইউটিউবআর
তাই ইউটিউব বা ফেসবুকের মত জনপ্রিয় ওয়েবসাইটগুলো নাকি এশিয়া, আফ্রিকা এবং ল্যাটিন আমেরিকার বেশ কিছু দেশে তাদের সেবা বন্ধ বা
কম খরচের বিশেষ সেবা চালু রাখার চিন্তাভাবনা করছে, এমনটাই জানাচ্ছে দি নিউ ইয়র্ক টাইমস৷

গত বছর ভিওয়া নামক একটি ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট আফ্রিকা, এশিয়া, ল্যাটিন আমেরিকাসহ বেশ কিছু দেশে তাদের সেবা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেয়৷
প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার দিমিত্রি শাপিরো জানান, আমি স্বাধীন এবং মুক্ত যোগাযোগে বিশ্বাসী৷ কিন্তু এসব দেশের মানুষ তাদের নিজস্ব কনটেন্ট বারবার দেখার
জন্য প্রচন্ড ক্ষুধার্ত৷ তারা ঘন্টার পর ঘন্টা ওয়েবসাইট খুলে বসে থাকে, এক অর্থে যা আমাদের ব্যান্ডউইডথ খেয়ে ফেলার সামিল৷ ফলে এসব এলাকায়
ব্যবসা করা খুব মুশকি।

এই সমস্যায় আছে জনপ্রিয় সোশ্যাল নেটওয়ার্ক সাইট মাইস্পেসও৷ এজন্য তারা উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য কম ব্যান্ডউইডথ এর সংস্করণ চালু করেছে৷
ফলে ভারতে থাকা মাইস্পেসের প্রায় ৮ লাখ ব্যবহারকারী স্বল্প ব্যান্ডউইডথ এর মাইস্পেস দেখছে৷ খরচ কমানোর জন্যই মাইস্পেসের এই উদ্যোগ৷

তবে সবচেয়ে সঙ্গিন অবস্থায় আছে ইউটিউব৷ খরচ কমাতে ফেসবুকও চিন্তা করছে তার সার্ভারে থাকা ছবি এবং ভিডিওগুলোর কোয়ালিটি কমানোর ২০০৯ সালে এই সাইটটির লোকসান হবে অন্তত ৪৭০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার- ইতিমধ্যে অর্থনীতিবিদরা জানিয়ে দিয়েছে তা৷ প্রতি মাসে কোটি কোটি ভিডিও যোগ হচ্ছে এই সাইটে আর সেগুলো সামলাতে খরচ করতে হচ্ছে কাড়ি কাড়ি টাকা৷ ইউটিউব এর অনলাইন সেলস এন্ড অপারেশনস এর প্রধান টম পিকেট জানিয়েছেন, অনলাইন ভিডিওকে বিশ্ববাপী ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ নিয়ে এখনো এগিয়ে চলেছে ইউটিউব৷ গত দুই বছরে ভারত, ব্রাজিল এবং পোল্যান্ডের জন্য স্থানীয় সংস্করণও তৈরি করেছে সাইটটি৷ তবে এই মুহুর্তে আরো স্থানীয় সংস্করণ তৈরির দিকে নজর না দিয়ে ব্যবসার কথা ভাবছে ইউটিউব৷

টম জানান, ভবিষ্যতে আমরা হয়তো ব্যান্ডউইডথ এর একটি নির্দিষ্ট সীমা নির্ধারণ করে দেবো৷

খরচ কমাতে ফেসবুকও চিন্তা করছে তার সার্ভারে থাকা ছবি এবং ভিডিওগুলোর কোয়ালিটি কমানোর৷ এই সামাজিক ইউটিলিটি সাইটটির ৭০ শতাংশ ব্যবহারকারী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে অবস্থান করে৷ আর তাই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে অধিকাংশ ব্যবহারকারী হলেও উন্নয়নশীল দেশগুলো থেকে তেমন কোন ব্যবসায়িক সুবিধা পাচ্ছে না ফেসবুক৷ অন্যদিকে প্রতিমাসে ৮৫০ মিলিয়ন ছবি আর ৮ মিলিয়ন ভিডিও যুক্ত হচ্ছে এই সাইটে যা সংরক্ষণের খরচ অনেক৷ আর তাই খরচ কমাতে বিভিন্ন দেশে বা বিভিন্ন দেশের ব্যবহারকারীদের যুক্ত করা ছবি এবং ভিডিও-র কোয়ালিটি কমানোর কথা ভাবছে ফেসবুক৷ পাশাপাশি বিজ্ঞাপনদাতা খুঁজতে ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া এবং ফ্রান্সে লোক নিয়োগ করেছে সংস্থাটি৷

অবশ্য ফেসবুক, গতমাসে ঘোষণা দিয়েছিল যে আগামী বছরের মধ্যে লাভের মুখ দেখবে তারা৷ বলাবাহুল্য এই ঘোষণার পর পরই পদত্যাগ করেন ফেসবুকের
ফিন্যান্স বিভাগের প্রধান গিবিওন ইয়ু৷ শোনা যাচ্ছে, কোম্পানির এই বিলাসবহুল ঘোষণার মোটেই পক্ষে ছিলেন না তিনি৷

বিশেষজ্ঞদের মতে, জনপ্রিয় ওয়েবসাইটগুলো বিভিন্ন দেশে তাদের সেবা বন্ধ করলে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়বে৷ কিন্তু এই মুহুর্তে বিশ্ববাপী ছবি বা
ভিডিও সেবা চালানোর মতো আর্থিক সঙ্গতি অনেকেরই কেম আসছে৷ আর তাই অদুর ভবিষ্যতে দক্ষিণ এশিয়ার মত অঞ্চলগুলো থেকে ফেসবুক বা ইউটিউব মুখ ঘুরিয়ে নিলে কিইবা করার থাকবে৷

প্রতিবেদক: আরাফাতুল ইসলাম, সম্পাদনা: আবদুস সাত্তার

Level New

আমি azad Rahman। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 13 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 12 টি টিউন ও 144 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

হা হা এশিয়ান পাবলিক বড়ই ক্ষুদার্ত

Very shocking news .

খুবই দুঃখ জনক।।।।।