ইন্টারনেট ও ২০০৯ সাল (একটি সংখ্যাতাত্ত্বিক বিশ্লেষণ)

ঘটনাবহুল ২০০৯ সালকে পেছনে ফেলে আমরা ২০১০ এ পা দিয়েছি আরো তিন মাস আগে। কিন্তু তাই বলে তো আর ২০০৯ কে ভুলে গেলে চলবে না। তাই আসুন আজকের টিউনে জানার চেষ্টা করি আইটি ক্ষেত্রে কেমন গিয়েছে ২০০৯ সাল।

ইমেইল

  • ২০০৯ সালে মোট ৯০ ট্রিলিয়ন ইমেইল পাঠানো ও রিসিভ করা হয়।
  • গড়ে প্রতিদিন ইমেইল পাঠানো হয় ২৪৭ বিলিয়ন।
  • বিশ্বে মোট ইমেইল ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ১৪০ কোটি।
  • মোট ইমেইলের ৮১ ভাগই ছিলো স্পাম বা অবাঞ্চিত মেইল।
  • ২০০৮ সালের তুলনায় ২০০৯-তে স্পামের সংখ্যা বৃদ্ধি পায় ২৪ শতাংশ।
  • প্রতিদিন গড়ে স্পাম মেইল পাঠানো হয় ২০০ বিলিয়ন।

ওয়েবসাইট

  • ডিসেম্বর ২০০৯ পর্যন্ত ওয়েবসাইটের সংখ্যা ছিলো ২৩ কোটি ৪০ লক্ষ।
  • ২০০৯ সালে মোট ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েবে  মোট ৪ কোটি ৭০ লক্ষ নতুন ওয়েব সাইট যুক্ত হয়।

ওয়েব সার্ভার

  • ২০০৯ সালে অ্যাপাচি সার্ভারে চলা সাইট বৃদ্ধি পায় ১৩.৯ শতাংশ।
  • আই.আই.এস সার্ভারে চলা সাইট কমে যায় ২২.১ শতাংশ।
  • গুগল জিএফই সার্ভারে চলা সাইট বৃদ্ধি পায় ৩৫ শতাংশ।
  • এনজিংক্স সার্ভারে চলা সাইটের সংখ্যা বৃদ্ধি পায় ৩৮৪.৪ শতাংশ।
  • লাইটপিডি সার্ভারে চলা সাইট কমে যায় ৭২.৪ শতাংশ।

ডোমেইন নাম

  • ২০০৯ এর শেষ নাগাদ .com সংযুক্ত ডোমেইনের নামের সংখ্যা ছিলো ৮ কোটি ১৮ লক্ষ।
  • .net ছিল ১ কোটি ২৩ লক্ষ।
  • .org ছিল ৭৮ লক্ষ।
  • কান্ট্রি কোড টপ লেভেল ডোমেইনের সংখ্যা ছিল ৭ কোটি ৬৩ লক্ষ।
  • ২০০৮ এর তুলনায় ডোমেইনের নামের সংখ্যা বাড়ে ৮ শতাংশ।

ইন্টারনেট ব্যবহারকারী

  • ২০০৯ এর সেপ্টেম্বর মাসের শেষ নাগাদ পৃথিবীতে মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ১৭৩ কোটি।
  • ২০০৮ এর তুলনায় ব্যবহারকারীর সংখ্যা বৃদ্ধি পায় ১৮ শতাংশ।
  • এশিয়ায় ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল- ৭৩,৮২,৫৭,২৩০
  • ইউরোপে- ৪১,৮০,২৯,৭৯৬
  • উত্তর আমেরিকা- ২৫,২৯,০৮,০০০
  • দক্ষিণ আমেরিকা/ ক্যারিবিয় অঞ্চল- ১৭,৯০,৩১,৪৭৮
  • আফ্রিকা- ৬,৭৩,৭১,৭০০
  • মধ্যপ্রাচ্য- ৫,৭৪,২৫,০৪৬
  • ওশেনিয়া/অস্ট্রেলিয়া- ২,০৯,৭০,৪৯০

সোশ্যাল মিডিয়া

  • মোট ব্লগের সংখ্যা ছিল- ১২ কোটি ৬০ লক্ষ।
  • সামাজিক যোগাযোগ সাইটগুলোর শতকরা ৮৪ ভাগেরই পুরুষ ব্যবহারকারীর চাইতে নারী ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল বেশী।
  • নভেম্বর,২০০৯ পর্যন্ত টুইটারে মোট টুইট হয়েছে ২ কোটি ৭৩ লক্ষ।
  • ২০০৯-এ ফেসবুকের মোট ব্যবহারকারী ছিল ৩৫ কোটি।
  • ফেসবুক ব্যবহারকারীর মোট ৫০ ভাগই প্রতিদিন একবার হলেও লগইন করেছেন।
  • ফেসবুকের অ্যাক্টিভ অ্যাপ্লিকেশনের সংখ্যা ছিল ৫ লক্ষ।

ছবি শেয়ারিং

  • অক্টবর,২০০৯ পর্যন্ত ফ্লিকারে সংরক্ষিত ছবির সংখ্যা ছিল ৪০০ কোটি।
  • ফেসবুকে প্রতিমাসে আপলোড করা হয়েছে ২৫০ কোটি।
  • প্রতিমাসে ২৫০ কোটি হিসেবে বছরে মোট আপলোডকৃত ছবির সংখ্যা ৩০০০ কোটি!

ভিডিও শেয়ারিং

  • দিনে ইউটিউবে মোট ভিডিও দেখা হয় ১০০ কোটি।
  • নভেম্বর,২০০৯ পর্যন্ত প্রতিমাসে কেবলমাত্র যুক্তরাষ্ট্রে দেখা ইউটিউব ভিডিওর সংখ্যা ১২০০ কোটির বেশি।
  • একজন ইন্টারনেট ইউজার প্রতিমাসে গড়ে ৮২ টি অনলাইন ভিডিও দেখেন।
  • যুক্তরাষ্ট্রের অনলাইন ভিডিওর বাজারে ইউটিউবের অংশীদারিত্ব ছিল ৩৯.৪ শতাংশ।

ওয়েব ব্রাউজার

  • ওয়েব ব্রাউজারের জগতে এক্সপ্লোরার এখনো রাজত্ব করলেও ফায়ারফক্স তার অগ্রযাত্রা ধরে রেখেছে।
  • অন্যদিকে ক্রোম বয়সে নবীন হলেও ধীরে ধীরে বাজারে তার শেয়ার বাড়াচ্ছে।

এই হল আমার জানামতে ২০০৯ সালের ইন্টারনেটের অবস্থা। পরিসংখ্যানটি সবার কেমন লাগলো জানাবেন।

Level 0

আমি মেঘ রোদ্দুর। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 14 বছর 8 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 27 টি টিউন ও 373 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

নিজের কথা কিচ্ছু বলার নাই। মনে যা আসে তাই করে বেড়াই..... টেকনোলজির ব্যাপারে ব্যাপক আগ্রহ আছে বলেই টেকটিউনস-এ ঢু মারি.....


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

চমৎকার 🙂

Level 0

অনেক চমৎকারররররররররররররর

ধন্যবাদদদদদদদদদদ

চ-চ-ম-ম-ৎ-কা-কা-র, অ-অ-নে-নে-ক ধ-ধ-ন্য-বা-বা-দ।

খুব ভালো হয়েছে ।

ধারুন>>>><<<<<

nice tune………