কম্পিউটার প্রোগ্রামিং বা কোডিং কি কেন প্রোগ্রামিং শিখবো

Level 2
ছাত্র, বাংলাদেশ ওপেন ইউনিভার্সিটি, ঢাকা

প্রোগ্রামিং কি?

প্রোগ্রামিং হল এমন একটি প্রক্রিয়া যেখানে নির্দিষ্ট নির্দেশনাবলী তৈরি করা হয়, যাতে কম্পিউটার নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদন করতে পারে। এই প্রক্রিয়াটি বিভিন্ন প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করে সম্পন্ন হয়, যা কম্পিউটারের সাথে কার্যকর যোগাযোগ গড়ে তোলে। প্রোগ্রামিং এর মাধ্যমে আমরা সফটওয়্যার তৈরি, ওয়েব পেজ ডিজাইন, গেম ডেভেলপমেন্ট এবং আরও অনেক জটিল কার্য সহজে সম্পাদন করতে পারি।

প্রোগ্রামিং এর ইতিহাস ও বিবর্তন

প্রোগ্রামিং এর ইতিহাস ও বিবর্তন শুরু হয় ১৯৪০ এর দশকে, যখন প্রথম কম্পিউটার তৈরি হয়। প্রাথমিক সময়ে, প্রোগ্রামিং ছিল জটিল এবং সময়সাপেক্ষ, কারণ এটি হার্ডওয়্যারের স্তরে করা হতো। চার্লস ব্যাবেজের 'অ্যানালিটিক্যাল ইঞ্জিন' এবং এডা লাভলেসের অবদান প্রোগ্রামিং এর ভিত্তি গড়ে তোলে। ১৯৫০ এর দশকে, প্রথম উচ্চস্তরের প্রোগ্রামিং ভাষা যেমন ফোরট্রান এবং কোবল উদ্ভাবিত হয়, যা প্রোগ্রামিংকে আরও সহজ এবং অ্যাক্সেসযোগ্য করে তোলে। ১৯৬০ এবং ১৯৭০ এর দশকে, প্রোগ্রামিং ভাষা যেমন সি, বেসিক এবং পাস্কাল উন্নত হয়, যা আরও কার্যকরী এবং বহুমুখী প্রোগ্রাম তৈরিতে সহায়ক হয়। ১৯৮০ এর দশকে অবজেক্ট-ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং (ওওপি) যেমন সি+, স্মলটক এর উদ্ভব হয়, যা সফটওয়্যার ডিজাইন এবং উন্নয়নকে আরও কার্যকর করে। ২০০০ এর দশকে, নতুন প্রোগ্রামিং ভাষা যেমন জাভা, পাইথন, রুবি প্রচলিত হয়, যা ওয়েব ডেভেলপমেন্ট, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন এবং আইওটি প্রকল্পগুলিতে ব্যাপক ব্যবহার হতে থাকে। এই সময়ে, প্রোগ্রামিং আরও বহুমুখী এবং ইউজার-ফ্রেন্ডলি হয়ে উঠে, এবং কোডিং সম্প্রদায় ও ওপেন সোর্স প্রজেক্টগুলির বৃদ্ধি পায়।

প্রোগ্রামিং ভাষা

প্রোগ্রামিং ভাষা হল এমন ভাষা, যা ডেভেলপারদের কম্পিউটারের সাথে কথা বলতে এবং নির্দেশাবলী প্রদান করতে সাহায্য করে। এই ভাষাগুলি বিভিন্ন ধরনের হতে পারে এবং বিভিন্ন উদ্দেশ্যে ব্যবহৃত হয়।

কিছু জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ভাষা হল:

  • পাইথন (Python): একটি উচ্চ-স্তরের, বহুমুখী ভাষা যা সহজে শিখতে ও ব্যবহার করতে পারা যায়।
  • জাভা (Java): এটি একটি শক্তিশালী, অবজেক্ট-অরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ভাষা যা মোবাইল এবং ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়।
  • সি+ (C+): একটি মধ্য-স্তরের প্রোগ্রামিং ভাষা, যা সিস্টেম প্রোগ্রামিং এবং গেম ডেভেলপমেন্টে ব্যবহৃত হয়।
  • জাভাস্ক্রিপ্ট (JavaScript): ওয়েব ডেভেলপমেন্টের জন্য একটি অত্যাবশ্যক ভাষা, যা ওয়েবপেজে ইন্টারেক্টিভ উপাদান যোগ করতে ব্যবহৃত হয়।

প্রোগ্রামিং ভাষার বিকাশ ও বিবর্তন সময়ের সাথে সাথে চলমান, এবং নতুন ভাষা এবং ফ্রেমওয়ার্কের উদ্ভব ঘটছে যা ডেভেলপারদের আরও কার্যকরী ও নতুন সমাধান সরবরাহ করে।

প্রোগ্রামিং-এর প্রয়োগক্ষেত্র

প্রোগ্রামিং আধুনিক যুগের এক অপরিহার্য অংশ। এর ব্যবহার বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেখা যায়, যেমন:

  • ওয়েব ডেভেলপমেন্ট: ওয়েবসাইট ও ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন তৈরি ও ব্যবস্থাপনা।
  • মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট: স্মার্টফোনের জন্য বিভিন্ন ধরনের অ্যাপ তৈরি।
  • ডাটা বিশ্লেষণ: বড় ডাটা সেট থেকে তথ্য একত্রিত ও বিশ্লেষণ করা।
  • মেশিন লার্নিং ও আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স: যন্ত্রগুলিকে শিখতে এবং স্বাধীনভাবে কাজ করতে সাহায্য করা।
  • গেম ডেভেলপমেন্ট: বিনোদনের জন্য বিভিন্ন ধরনের গেম তৈরি।
  • সিস্টেম প্রোগ্রামিং: অপারেটিং সিস্টেম ও ড্রাইভার তৈরি করা।
  • সাইবার নিরাপত্তা: তথ্য সুরক্ষা এবং সাইবার আক্রমণ থেকে রক্ষা করা।

এই প্রয়োগক্ষেত্রগুলি হল কেবলমাত্র কয়েকটি উদাহরণ, প্রকৃতপক্ষে প্রোগ্রামিং-এর ব্যবহার আরও অসংখ্য ক্ষেত্রে দেখা যায়।

প্রোগ্রামিং-এর মৌলিক ধারণাসমূহ

প্রোগ্রামিং-এর মৌলিক ধারণাগুলি হল এমন কিছু বিষয়, যা সকল প্রোগ্রামিং ভাষায় প্রায় একই রকম ভাবে প্রযোজ্য হয়। এই ধারণাগুলি হল:

  • ভেরিয়েবল (Variable): ডাটা সংরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত একটি নাম যা মান পরিবর্তন করতে পারে।
  • ডাটা টাইপ (Data Types): ভিন্ন ভিন্ন ধরনের ডাটার শ্রেণীবিন্যাস, যেমন: ইন্টিজার, স্ট্রিং, বুলিয়ান।
  • ফাংশন (Function): নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদনের জন্য কোডের ব্লক, যা পুনরায় ব্যবহার যোগ্য।
  • লুপ (Loops): কোডের একটি অংশ পুনরাবৃত্তি করার জন্য ব্যবহৃত, যেমন: for, while লুপ।
  • কন্ডিশনাল স্টেটমেন্ট (Conditional Statements): যেমন if, else - এর মাধ্যমে শর্ত নির্ভর কোড ব্লক নির্ধারণ।
  • অ্যারে (Array): একই ধরনের ডাটা এলিমেন্টসমূহ সংরক্ষণের জন্য ব্যবহৃত।
  • অবজেক্ট (Object): বস্তুনিষ্ঠ প্রোগ্রামিং-এ ব্যবহৃত, যেখানে ডাটা এবং ফাংশন একত্রিত থাকে। এটি একটি সংগঠিত উপায়ে ডাটা সংরক্ষণ করে এবং কোডের পুনর্ব্যবহার সহজতর করে।
  • ইনহেরিটেন্স (Inheritance): একটি ক্লাস অন্য ক্লাস থেকে বৈশিষ্ট্য ও ফাংশন উত্তরাধিকার সূত্রে পায়, যা কোডের পুনরাবৃত্তি হ্রাস করে এবং কাঠামোগত দক্ষতা বৃদ্ধি করে।
  • পলিমরফিজম (Polymorphism): একই নামের মেথড বা ফাংশন বিভিন্ন ক্লাসে বিভিন্ন কাজ সম্পাদন করার ক্ষমতা।
  • এনক্যাপসুলেশন (Encapsulation): ডাটা এবং কোডকে একত্রিত করে রাখা, যা অন্যান্য কোড থেকে বিচ্ছিন্ন রাখে এবং ডাটা সুরক্ষা বৃদ্ধি করে।

এই মৌলিক ধারণাগুলি শিখে নিলে, যে কোন প্রোগ্রামিং ভাষায় কাজ করা যায় এবং নতুন ভাষা শেখাও সহজ হয়।

প্রোগ্রামিং টুলস ও এনভায়রনমেন্ট

প্রোগ্রামিং টুলস ও এনভায়রনমেন্ট হল সেই সব উপাদান ও সফটওয়্যার যা প্রোগ্রামারদের কোড লেখা, ডিবাগিং, এবং সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্টে সহায়তা করে। এগুলি নিম্নরূপ:

  • ইন্টিগ্রেটেড ডেভেলপমেন্ট এনভায়রনমেন্ট (IDE): কোড লেখা, সম্পাদনা, এবং ডিবাগিং-এর জন্য ব্যবহৃত একটি সমন্বিত সফটওয়্যার, যেমন Visual Studio, Eclipse।
  • কোড এডিটর (Code Editor): হালকা এবং দ্রুত কোড লেখার জন্য ব্যবহৃত, যেমন Sublime Text, VS Code।
  • কম্পাইলার ও ইন্টারপ্রেটার (Compiler & Interpreter): উচ্চ-স্তরের প্রোগ্রামিং ভাষার কোডকে মেশিন কোডে রূপান্তর করে।
  • ভার্সন কন্ট্রোল সিস্টেম (Version Control System): কোডের পরিবর্তন ট্র্যাক করে এবং কোলাবোরেশন সহজ করে, যেমন Git।
  • ডাটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (Database Management System): ডাটা সংরক্ষণ, পরিচালনা, এবং রিট্রিভ করার জন্য ব্যবহৃত, যেমন MySQL, MongoDB।
  • ডিবাগিং টুলস (Debugging Tools): কোডে ত্রুটি খুঁজে বের করা এবং সংশোধন করার জন্য ব্যবহৃত।
  • টেস্টিং ফ্রেমওয়ার্ক (Testing Frameworks): সফটওয়্যারের গুণমান নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন ধরনের টেস্ট পরিচালনা করে।

প্রোগ্রামিং-এ ক্যারিয়ার ও সুযোগ

প্রোগ্রামিং একটি দ্রুত বিকাশমান ক্ষেত্র যা বিভিন্ন ধরনের ক্যারিয়ার ও সুযোগ প্রদান করে। এই ক্ষেত্রে ক্যারিয়ারের সুযোগসমূহ নিম্নরূপ:

  • সফটওয়্যার ডেভেলপার: অ্যাপ্লিকেশন এবং সফটওয়্যার সিস্টেম ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্টে কাজ করা।
  • ওয়েব ডেভেলপার: ওয়েবসাইট এবং ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন তৈরি ও মেইনটেইন করা।
  • ডাটা সায়েন্টিস্ট: ডাটা বিশ্লেষণ, মডেলিং এবং ইন্টারপ্রিটেশন করা।
  • সিস্টেম এনালিস্ট: ব্যবসায়িক সমস্যা সমাধানের জন্য আইটি সল্যুশন ডিজাইন এবং বিশ্লেষণ করা।
  • গেম ডেভেলপার: ভিডিও গেম ডিজাইন এবং ডেভেলপ করা।
  • এআই প্রোগ্রামার: কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা অ্যাপ্লিকেশন এবং সিস্টেম ডেভেলপ করা।

প্রোগ্রামিং-এ সফল হতে হলে নিয়মিত শিক্ষা এবং প্র্যাকটিস প্রয়োজন।

Level 2

আমি মো সাগর হোসেন। ছাত্র, বাংলাদেশ ওপেন ইউনিভার্সিটি, ঢাকা। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 4 মাস 3 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 12 টি টিউন ও 7 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।

ফুলটাইম কন্টেন্ট রাইটার


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস