জেনে নিন ফাইভার সাফল্যের মূলমন্ত্র !

 

সবার শুভ কামনা করে শুরু করছি আজকের টিউন। অনেক দিন পর আবার লিকতে বসলাম, সবাই ভাল আছেন তো?

ফাইভারে নতুন নতুন বিক্রেতারা অনেক সহজেই ধৈর্য হারিয়ে ফেলে, তাদের একাউন্ট যাচাই করা ছেড়ে দেয় এবং ধীরে ধীরে অনলাইন আয়ের কথা ভুলে যায়, অথবা বলা যায় তারা নিরাশ হয়ে পরে। আমার একটি পরিক্ষীত প্রক্রিয়া আপনাকে সাহায্য করবে, কিভাবে আপনি একজন সফল ফ্রীলান্স্যার হতে পারবেন ফাইভারে খুব সহজেই।

"ফাইভারে টাকা আয় করাটা সহজ নয় এবং এর জন্য ৩০+ লাখ  প্রতিযোগীদের সাথে প্রতিযোগীতায় থাকতে হবে হবে"

মনোযোগী থাকুন এবং আপনার মন কে তৈরি করুন, যদি আপনি ভেবে থাকেন ফাইভারে টাকা আয় করা অনেক সহজ ও মজার, ফাইভারে যাওয়ার আগে চিন্তা ভাবনা করে নিন আরও ১০ বার।

 

আমি ফাইভারে আমার দ্বিতীয় একাউন্টে   ৩ ঘন্টার মধ্যে সেই গিগ টি বিক্রি হয়   $৭০ এ। তবুও আপনাকে এই কাজ সম্পর্কে সচেতন থাকতে হবে এবং আপনাকে অবশ্যই পেশাদারিত্ব বজায় রাখতে হবে। যদি আপনি পেশাদার এর মানে জানেন না আমার মতে, আপনি এখানে কাজ করার জন্য প্রস্তুত নন, আর আপনি যদি সত্যি এর মানে জানতে চান তাহলে আপনি এই বিষয়ে গবেষণা শুরু করুন আজই।

"কারণ পেশাদারিত্ব  ছাড়া আপনি  ফ্রিল্যান্সিং এ সফল হতে পারবেন না"

এমন আশা করবেন না যে কাজ খুব সহজেই আপনার কাছে চলে আসবে, আমি আমার জীবনের ১২ বছর বিভিন্ন দেশে পড়ালেখা করেছি এবং ইংল্যান্ডে  ৪টি মাল্টি ন্যাশনাল আই.টি কোম্পানিতে কাজ করেছি, আমি অনেক চাপের সম্মুখীন হয়েছি কিন্ত অনেক সহজে নিজেকে সামলে নিয়েছি আমার অভিজ্ঞতা দিয়ে। আপনি ভাবতে পারেন আপনার তো অভিজ্ঞতা নেই, আমার তখন গাইডলাইন ছিলনা আপনি এখন গাইডলাইন পাচ্ছেন তাই অভিজ্ঞতাটি মূখ্য বিষয় নয়।

আমি আপনাকে এটা বলছি যে কারো সাহায্যের আশা করবেন না।

ফ্রীলান্সিং এ নিজেকে সাহায্য নিজে করুন এবং অন্যের জন্যে সহায়ক থাকুন।
প্রথম গিগটি তৈরির জন্যে যথেষ্ট সময় নিন

সবচেয়ে বেশি গিগ বিক্রি করা মানুষ এবং একটিও গিগ বিক্রি না করা মানুষের উপর গবেষণার পর আমি বুঝতে পেরেছি কেন তারা একটিও গিগ বিক্রি করতে পারছেনা,

খারাপ ব্যাকরণের সঙ্গে এলোমেলো ও বেমানান লেখা তাও আবার অন্য বিক্রেতার কাছ থেকে কপি করে নেয়া, আমি নিজেও বলছি যে অন্য বিক্রেতার গিগ দেখুন, ধারণা নিন কিন্তু নকল করবেন না এবং নিজের গিগটি বানান অনন্য এবং সেরা। আমিও গিগ বানানোর আগে তাই করেছি, কিন্তু আমি শুধু ধারণা নিয়েছি আর বর্ণনা লিখেছি আমার গিগের নিজেই,

"কখনোই গুগল থেকে ছবি নিয়ে নিজের গিগে ব্যবহার করার কথা চিন্তাও করবেন না"

জনপ্রিয় বিক্রেতারা তাদের দক্ষতার জন্য জনপ্রিয়। "পেশাদারিত্বের" স্তর দেশের উপর নির্ভর করে হতে পারে। আপনি নিজেকে যথেষ্ট পেশাদার ভাবেন হয়ত, কিন্তু অন্যেরা তাতে একমত নাও হতে পারে। জনপ্রিয় বিক্রেতাদের কাছে যান তাদের গিগ পড়ুন, তাদের সেবা সম্পর্কে জানতে গিগ কিনতেও পারেন।

"আপনাকে একই জিনিষ ভিন্ন এবং অনন্য পদ্ধতিতে নিয়ে আসতে হবে"

কিন্তু আপনাকে অবশ্যই এমন কিছু উপস্থাপন করতে হবে যা আপনার নিজের লেখা। এটাই মূল কথা।

আরেকটা কথা না বললেই নয় দূংখজনক হলেও হলে সত্য আমি বাংলা টাইপ করতে পারিনা, শিখার চেষ্টা আমাকে এই টিউনটি লিখতে সাহায্য করেছে হৃদয় চৌধুরী।

আমার লিখা আরও টিউন পরতে এখানে ভিসিট করুন

ধন্যবাদ সবাইকে।

 

Level 0

আমি জালাল শামীম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 5 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 6 টি টিউন ও 1 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস