রহস্যময় কথা বলা পিঁপড়ার জীবন কাহিনী

রহস্যময় কথা বলা পিঁপড়ার জীবন কাহিনী

সকলের উপর শান্তি বর্ষিত হোক, আজ যে টপিক নিয়ে কথা বলব তা হল এই পৃথিবীর ছোট্ট একটা প্রাণী পিঁপড়া কে নিয়ে, এই পিঁপড়া বা পীপিলিকার নামে পবিত্র কুরআনে মহান আল্লাহ তায়ালা একটা সূরাহ রচনা করেছেন যার নাম হল সূরা “নমল” বা পিঁপড়া,

সেই সূরা নমলে মহান আল্লাহ তায়ালা পিঁপড়া নিয়ে যে ঘটনা উল্লেখ করেছেন তা হল,

হঠাৎ বাদশা সোলাইমান আঃ একদিন পিঁপড়াদের এলাকা বা কলোনি অতিক্রম করতেছিল ঠিক তখন, এক পিঁপড়া বাকি পিপড়াদের সতর্কবার্তা দিল এই বলে যে সোলাইমান এবং তার দল বল নিয়ে আমাদের এলাকা দিয়ে যায়তেছে তুমরা সবাই তোমাদের গৃহ সমূহের  ভিতর প্রবেশ করো নইত অজ্ঞাত অবস্থায় আমাদের কে পা দিয়ে পিষ্ট করে ফেলতে পারে, পিঁপড়ার কথা শুনে সোলাইমান আঃ মুচকি হাসলেন, এবং আল্লাহ তায়ালার নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করলেন, সূরা নামল - আয়াত ১৮-১৯, কেননা মহান আল্লাহ তায়ালা তাহাকে পিঁপড়াদের ভাষা বুঝতে পারার জ্ঞান দান করেছিলেন,

পবিত্র কোরআনের বর্ননার সাথে পিঁপড়ার সাদৃশ্য

মহাগ্রন্থ পবিত্র আল কোরআনে ১১৪ টি সূরার মধ্যে একটা সূরার নাম পিঁপড়ার নামে  হওয়ায় মানুষের কৌতূহল আগ্রহ বেড়ে যায় পিঁপড়া সম্মন্ধে জানার, তারপর শুরু হয় পিঁপড়া নিয়ে গবেষণা অনুসন্ধান, আর বের হয়ে যায় সব চাঞ্চল্যকর তথ্য উদঘাটন হয়ে যায় সব রহস্য,

পবিত্র কোরআনে সর্দার পিঁপড়া অন্যান্য পিপড়াদের তাদের নিজ নিজ গৃহে প্রবেশ করার কমান্ড করেছেন এখানে পবিত্র কুরআনে যে শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে সেটা বহুবচন শব্দ, তার মানে দারায় পিঁপড়াদের গৃহ বা ঘড় অনেকগুলো, বাস্তবতাও সেটাই পিঁপড়াদের ক্যারিডোর অসংখ্য, তারা এক দরজা  দিয়ে ঢুকে বা প্রবেশ করে অন্য দরজা দিয়ে বের হতে পারে।

এবং তাদের ঘড়ের ভিতর দিক টা দেখলে আপনারা হয়তো অবাক হতেন আমি একটা ভিডিও তে দেখেছিলাম কিছু ধাতব পদার্থ গলিয়ে পরিত্যক্ত পিঁপড়ার গর্তে ঢেলে দিতে, তারপর সেটা ঠান্ডা হয়ে গেলে উপরে উঠানোর পর দেখি অসংখ্য রাস্তা এক গর্ত থেকে অন্য গর্তে পৌঁছানোর জন্য।

পবিত্র কুরআনে বর্ণিত এক পিঁপড়া অন্য পিঁপড়াদের নির্দেশ করেছিল গৃহে প্রবেশের এবং বলেছিল সোলাইমান এবং তার বাহিনী দল বল আসতেছে, পিঁপড়া কিভাবে বুঝলেন তিনি(সোলাইমান) একা না তার সাথে অনেকজন রয়েছে, গবেষণায় দেখা গেছে পিঁপড়াদের কান নেই কিন্তু তাদের পায়ে রয়েছে এক ধরনের ভাইব্রেশন সেন্সর যার দ্বারা মাটিতে ঘটা কম্পন তরঙ্গ কে এনালাইসিস করে তারা সবকিছু বুঝতে পারে,

এবং পবিত্র কুরআনে বর্ণনা করা হয়েছে পিঁপড়া কথা বলে, গবেষণায় এটাও প্রমাণিত হয়েছে যে পিঁপড়া কথা বলে, তাদের ভাষা আমরা বুঝিনা কিন্তু সোলাইমান আঃ বুঝতে পেরেছেন, হয়তো এটাই আমাদের শিক্ষা যে মহান আল্লাহ যদি চান তাহলে তিনি মানুষ কে পিঁপড়ার ভাষা বুঝতে পারার সক্ষমতা দান করেন।

পিঁপড়াদের নিয়ে আরও কিছু অবাক করা তথ্য

একটা পিঁপড়া তার চেয়ে বিশ গুন বেশি ওয়েট বহন করতে পারে এবং এক স্থান থেকে অন্য স্থানে অনায়াসে নিজের চেয়েও বিশ গুন বড় বস্তু স্থানান্তর করতে পারে।

মানব মস্তিষ্কের পর সবচেয়ে বড় মাথা ওয়ালা প্রাণী হল পিঁপড়া।  মানুষের পরপরেই একমাত্র প্রাণী পিঁপড়া যারা নিজেদের মধ্যে মানুষের মত ভাষা ব্যবহার করে কনভারসেশন বা কথোপকথন করে।

মানবজাতির পরেই একমাত্র প্রাণী পিঁপড়া যারা নিজেদের মধ্যে রাষ্ট্র ব্যবস্থা তৈরী করে জীবনযাপন করে কেননা পিঁপড়াদের সর্দার এবং রাণী রয়েছে, তাদের বাসার গেইটে দারোয়ান বা পহরি রয়েছে বড় মাথা ওয়ালা পিঁপড়া গর্তের মুখে তার বড় মাথা ঢাল হিসাবে ব্যবহার করে, যাতে সেটা অতিক্রম করে কেও ঢুকতে না পারে।

পিপড়াদের পাকস্থলী দুইটা তারা দুজন পিঁপড়ার খাবার ধারণ করে রাখতে পারে, পিঁপড়ারা ছ'মাস খাদ্য সংগ্রহ মজুদ করে রাখে আর বাকি ছ'মাস সেগুলো ব্যবহার করে, কেননা বর্ষা কালে পিঁপড়াদের দেখা যায়না তারা সেসময়  তাদের গৃহের ভিতর থাকে,

পিঁপড়াদের খাবার বেশীদিন ধরে মজুদ রাখার জন্য তারা সেটাকে রোদে শুকাতে দেয়, এবং তাদের মধ্যে বাজার বা ক্রয়বিক্রয় করার প্রথা রয়েছে কেননা তারা ত নিজেদের মধ্যে কথা বলতে পারে, প্রাণী কুলের মধ্যে সবচেয়ে এক্টিভ সচল প্রাণী মনেহয় পিঁপড়া, তারা খুব কঠোর পরিশ্রম করতে পারে।

 

শেষ কথা

যে কেও চাইলে আপনারা পিঁপড়া নিয়ে গবেষণা অনুসন্ধান চালাতে পারেন, ছোট মাইক্রস্কোপ ব্যবহার করে অনেক কিছুই জানতে পারবেন পিঁপড়াদের ব্যাপারে, আমাদের প্রতিনিয়ত  অনেক খাবার নষ্ট হয়ে যেত আমাদের অজান্তেই  যদি পিঁপড়া না থাকতো কেননা এই পৃথিবীর সমস্ত মানুষ মিলে একটা খাদ্য কণা তৈরী করার সাধ্য নাই। এত ছোট প্রাণী কে আল্লাহ তায়ালা এত কিছু নেয়ামত ক্ষমতা দিয়ে তৈরী করেছেন কি এমন ন্যানো টেকনোলজি ব্যবহার করে আল্লাহ তায়ালায় ভাল জানেন।

Level 0

আমি সিয়াদ হাসান। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 মাস 1 সপ্তাহ যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 4 টি টিউন ও 1 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

Hello Everyone. I am scientists. I am Researching about Everything From Earth to Space.


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস