Walton Primo H10 Review: বেস্ট বাজেট কিলার স্মার্টফোন

বাজেট ফোনে জন্য দেশের বাজারে ওয়ালটন বরাবরই জনপ্রিয় একটি ব্র্যান্ড। প্রতিনিয়ত ওয়ালটন বাজারে নিত্যনতুন সাশ্রয়ী স্মার্টফোন আনবার মাধ্যমে নিয়মিত ভাবে গ্রাহক বিশ্বস্ততা অর্জন করে চলেছে। ওয়ালটন প্রতিনিয়ত গ্রাহকের সুবিধার কথা এবং সময়ের চাহিদার কথা চিন্তা করে দারুন দারুন মডেল এবং মানের স্মার্টফোন বাজারে নিয়ে আসে।

সেই ধারাবাহিকতায় ওয়ালটন সম্প্রতি বাজারে নিয়ে আসল তাদের বাজেট লাইনআপের নতুন স্মার্টফোন প্রিমো এইচ১০। প্রিমো এইচ সিরিজ দেশীয় স্মার্টফোনের বাজারে অন্যতম জনপ্রিয় এবং ক্রেতা-প্রিয় একটি স্মার্টফোন সিরিজ। কেননা ওয়ালটন এই এফ সিরিজের স্মার্টফোনে মাধ্যমে বাজারে খুবই সাশ্রয়ী দামে দারুন মানের স্মার্টফোন উপহার দেয়!

এর আগের এই সিরিজের জনপ্রিয় বিভিন্ন স্মার্টফোন ছিল প্রিমো এইচ৮, প্রিমো এইচ৯, প্রিমো রিচ৯ প্রো। এইসকল স্মার্টফোনের সফলতার পরে ওয়ালটন অনেক দিন পরে এইচ সিরিজের অধীনে নতুন কোন স্মার্টফোন বাজারে নিয়ে আসল।

একনজরে প্রিমো এইচ১০ ডিভাইস যা যা থাকছেঃ

  • অ্যান্ড্রয়েড ১১
  • হেলিও জি৩৫, ২.৩ গিগাহার্জ অক্টাকোর প্রসেসর
  • ৪ জিবি র‍্যাম, ৬৪ জিবি রম
  • ৬.৫২ ইঞ্চি ইনসেল আইপিএস ডিসপ্লে
  • ১৩+২+২ মেগাপিক্সেল ট্রিপল ক্যামেরা সেটাপ
  • ৮ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা
  • ৫০০০ এমএইচ ব্যাটারি

প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসটির বক্সে যা যা থাকছেঃ প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসটি, একটি ব্যাককভার, একটি চার্জিং এডাপ্টার, একটি ইউএসবি ডাটা ট্রান্সফার ও চার্জিং কেবল, একটি মিডিয়াম কোয়ালিটি হেডফোন, একটি সিম ইজেক্টর পিন এবং ওয়ারেন্টি কার্ড।

ডিজাইন এবং ডিসপ্লে

নতুন এই প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসটি বাজারে ২টি কালার ভেরিয়েন্টে পাওয়া যাবে। আর এই ৪টি কালার ভেরিয়েন্ট হচ্ছেঃ নীল, সবুজ, সোনালি এবং কালো। আর ওয়ালটন এই চারটি কালার ভেরিয়েন্টকে নামকরণ করেছে লেজার গ্রিন এবং ম্যাজিক ব্ল্যাক নামে। আপনার রুচিশীলতার সাথে যে কালারটি যায় আপনি সেই কালারের স্মার্টফোনটিই নিতে পারেন, কোন কালারই কোন কালারের চাইতে কম নয়।

ছবিতে প্রিমো এইচ১০ ডিভাইস

প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসটির টাচ স্ক্রিন যথেষ্ট রেস্পন্সিভ এবং একটি আপ-টু ১০ পর্যন্ত মাল্টিফিঙ্গার টাচ সাপোর্ট করে।

প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসটিতে থাকছে ২০ঃ৯ রেসিও সমৃদ্ধ ফুল ভিউ ইনসেক আইপিএস ডিসপ্লে প্যানেল।

যাদের বিগ ডিসপ্লে স্মার্টফোন পছন্দ তাদের জন্যেও এই প্রিমো এইচ১০ স্মার্টফোন এগিয়ে থাকবে। প্রিমো এইচ১০ স্মার্টফোনটির সাথে পাবেন ৬.৫২ ইঞ্চি সাইজের বিগ ডিসপ্লে। অনলাইন ক্লাস থেকে শুরু করে, মাল্টিমিডিয়া স্ট্রিমিং এমনকি গেমিং সব দিক দিয়েই যা আপনাকে যথেষ্ট সুবিধা দিবে। ডিসপ্লেটির রেজুলেশন ১৬০০*৭২০ পিক্সেল। আর এটি একটি আইপিএস প্যানেল বলে ভিউইং এঙ্গেল নিয়েও তেমন কোন সমস্যা পোহাতে হবেনা।

হার্ডওয়্যার

স্মার্টফোনটিতে পাবেন মিডিয়াটেক এর হেলিও জি৩৫ প্রসেসর। যা একটি অক্টাকোর ২.৩ গিগাহার্জ বাজস্পিডের প্রসেসর। আর এই প্রসেসর এর সাথে গ্রাফিক্স ইউনিট হিসেবে পেয়ে যাবেন পাওয়ারভিআর জিই৮৩২০ জিপিইউ।

ফোনটিতে থাকছে ৪ জিবি এলপিডিডিআর৪ র‍্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ। তাছাড়া এক্সট্রা মেমোরি কার্ড তো ব্যবহার করতে পারবেনই।

‘হেলিও জি৩৫’ কে বলতে পারেন এন্ট্রি লেভেল গেমিং প্রসেসর; যার কারনে গেমিং এর জন্য এই স্মার্টফোনটি দিয়ে খুব ভালো সিস্টেম অপটিমাইজেশন পাবেন। প্রিমো এইচ১০ স্মার্টফোনে হালের জনপ্রিয় ফ্রিফায়ার গেম আল্ট্রা সেটিংসেও খুব ভালোভাবে খেলা গিয়েছিল। আর পাবজির ডিফল্ট সেটিংসে গেমটি খুব স্মুথ ভাবে খেলা গিয়েছিল। ফোনটির এন্টুটু বেঞ্চমার্ক স্কোর ১১৯৮৮০।

আপ-টু ১০ পর্যন্ত মাল্টিফিঙ্গার টাচ সাপোর্ট বলে প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসটি দিয়ে গেমারদের বিভিন্ন মাল্টি প্লেয়ার গেমসগুলো খেলতে দারুন ভাবে সুবিধা হবে।

সফটওয়্যারঃ প্রিমো এনএক্স৬ ডিভাইসে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপারেটিং সিস্টেম। ফোনটিতে অ্যান্ড্রয়েড ১১ এর সকল সুবিধাই উপভোগ করতে পারবেন ব্যবহারকারিরা।

ক্যামেরা

স্মার্টফোনটির রিয়ারে প্রাইমারি সেন্সর হিসেবে পাওয়া যাবে একটি ১৩ মেগাপিক্সেল সেন্সর, একটি ২ মেগাপিক্সেল পোর্টরেট সেন্সর এবং ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর। পাশাপাশি পাবেন একটি শক্তিশালী ফ্ল্যাশ, যা খুবই স্বাভাবিক। তবে স্মার্টফোনটির রিয়ার ক্যামেরা সেটাপের মূল আকর্ষণ এর এপার্চার সাইজ।

অন্ধকারে ছবি কেমন আসবে না আসবে এই বিষয়ে চিন্তা নাও করতে পারেন। ক্যামেরার লেন্সের ফোকাল লেন্থ এর উপর এর ছবির মান অনেকটা নির্ভর করে থাকে। এই ফোকাল লেন্থকে প্রকাশ করা হয় এপারচার দ্বারা। এপারচার নাম্বার যত ছোটো হবে ক্যামেরার ওপেনিং তত বড় হবে। আর এই ফোনটির ডুয়াল ক্যামেরা মডিউলের প্রাইমারি সেন্সরে আপনি পাচ্ছেন এপারচার এফ১.৮। যা আপনাকে অবজেক্টকে তুলনামূলক ভালো ফোকাস পয়েন্টে রেখে খুব দারুন কিছু ছবি তুলতে সহায়তা করবে। এর এপারচার এফ১.৮ আপানাকে ব্যাকগ্রাউন্ড ব্লার করতে অনেক সুবিধা দিবে। আর লেন্স অপেনিং বড় বলে লো লাইটেও তুলতে পারবেন দারুন মানের ছবি। স্মার্টফোনটির রিয়ার ক্যামেরায় স্লো-মোশন ভিডিও রেকর্ডিং সুবিধাও পাবেন। স্মার্টফোনটির রিয়ার ক্যামেরায় সার্পনেস, ডিটেইলস, কালার টোন সবই ভালোই পাবেন।

ম্যাক্রো ফটোগ্রাফির জন্য প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসে পাওয়া যাবে ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো ক্যামেরা সেন্সর।

প্রাইমারি ক্যামেরা দিয়ে ১০৮০পি রেজুলেসনে ৩০ এফপিএসে ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন, ইআইএস সুবিধা সহ। সেলফির জন্য ফোনটির ফ্রন্ট প্যানেলে ওয়াটার ড্রপ নচের ভেতর পেয়ে যাবেন ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। আর এই ফ্রন্ট ক্যামেরার এপারচার এফ২। আর পেয়ে যাবেন ফেস ডিটেকশন অটোফোকাস সুবিধা। ফোনটির বকেহ মোডেও খুব ভালো ব্লারিনেস সহ পিকচার কোয়ালিটি পেয়ে যাবেন। ফ্রন্ট ক্যামেরা দিয়েও ১০৮০পি রেজুলেসনে ৩০ এফপিএসে ভিডিও রেকর্ড করতে পারবেন।

সিকিউরিটিঃ প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসে প্রাইমারি সিকিউরিটি ফিচার হিসেবে দেয়া রয়েছে একটি শক্তিশালী ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সিং এর পাশাপাশি প্রিমো এইচ১০ এর আরেকটি সিকিউরিটি ফিচার হচ্ছে ফেস আনলক সুবিধা। এই দুটি সিকিউরিটি ফিচারের মাধ্যমে, প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসের মাধ্যমে ব্যবহারকারিদের নিরাপত্তা একদম শতভাগ নিশ্চিত।

স্পেশাল ফিচারস

স্মার্টফোন যেটাই হোক! বাজেট হোক কিংবা ফ্ল্যাগশিপ হোক, যে বিষয়টি আমরা সবাই মাথায় রাখি, সেটা হচ্ছে সেই স্মার্টফোনের ব্যাটারি লাইফ কেমন। ব্যাটারি লাইফ কম হলে স্মার্টফোনে যত ভালো ফিচার থাকুক সেটা কিন্তু আমরা ঠিকভাবে উপভোগই করতে পারব না; আর সেকারনে ব্যাটারি লাইফ ভালো হওয়া একটি স্মার্টফোনের জন্য অনেক বেশি জরুরি। নতুন এই প্রিমো এইচ১০ স্মার্টফোন কিনলে ব্যাটারি নিয়ে আপনাকে কোন চিন্তা করতে হবেনা। কেননা স্মার্টফোনটির ভেতরে আপনি পেয়ে যাবেন ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। অনায়াসে ফুল চার্জে হেভি গেমিং করলেও একদিনের বেশি চার্জিং ব্যাকআপ পেয়ে যাবেন এই ফোনে।

তাছাড়াও প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসটিতে পেয়ে যাবেন স্মার্ট জেসচার সহ আরো নানারকম স্পেশাল ফিচারস সুবিধা। এই সকল স্মার্ট জেসচার সুবিধার মাধ্যমে ফোনটি স্লিপ মোডে থাকা অবস্থাতেও, আপনি নানানরকম সিম্বল ডিসপ্লেতে আঁকিয়ে বিভিন্ন ফাংশনাবিলিটি ও অ্যাপ সরাসরি চালু করতে পারবেন।


১২৯৯৯ টাকার এই বাজেটে ওয়ালটন প্রিমো এইচ১০ স্মার্টফোনে যা যা ফিচার প্রোভাইড করেছে, তা এই স্মার্টফোনকে বাজারে এক অন্য মাত্রায় নিয়ে গিয়েছে। আপনি যদি ১২ হাজারের বাজেটে একটি বেস্ট গেমিং স্মার্টফোন কিনতে চান, যাতে আপনি গেমিং ছাড়াও অন্য সব কাজ খুব ভালোভাবে চালিয়ে নিতে পারবেন! তাহলে আপনি নিঃসন্দেহে প্রিমো এইচ১০ স্মার্টফোনটি কিনতে পারেন।

ওয়ালটনের অন্যসব স্মার্টফোনের মতন প্রিমো এইচ১০ ডিভাইসেও পেয়ে যাবেন রেগুলার ১ বছরের সার্ভিস ওয়ারেন্টি, পাশাপাশি এডাপ্টার এবং ব্যাটারিতে ৬ মাসের ওয়ারেন্টি। তো দারুন এই স্মার্টফোনটি কিনতে এখনই চলে যেতে পারেন আপনার নিকটস্থ ওয়ালটন প্লাজা, ওয়ালটন স্মার্টজোন কিংবা যেকোনো রিটেইলার শপে!

Level 12

আমি Touhidur Rahman Mahin। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 8 বছর 7 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 326 টি টিউন ও 88 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 24 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

ভালোবাসি প্রযুক্তি নিয়ে লিখতে, ভালবাসি প্রযুক্তি নিয়ে ভাবতে।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস