হেলথ চেক আপ ছাড়াই ব্যবহার করুন Windows 11

টিউন বিভাগ অন্যান্য
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

আসসালামু আলাইকুম, টেকটিউনস বাসী। সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা, ঈদ মোবারক।

কিছুদিন আগে Windows 11অপারেটিং সিস্টেম উন্মুক্ত করেছে মাইক্রোসফট। সে সাথে তারা এটাও নিশ্চিত করেছে, সব কম্পিউটারে ব্যাবহ্রত উইন্ডোজ ১০ ব্যবহার কারীরা বিনামুল্যে Windows 11আপগ্রেড করতে পারবে। তবে এই জন্য প্রয়োজন ১১ ব্যবহারের জন্য কনফিগারেশন হাডও্যায়ার।

ল্যাপটপ বা কম্পিউটারে ৪ জিবি র‍্যাম, গিগারাইট ৬৪ স্টোরেজ সহ, ৬৪ বিটের এ আর এম ব্যবহার কারীরাই Windows 11অপারেটিং সিস্টেম আপগ্রেড করে ব্যবহার করতে পারবে। এই তো গেল বেসিক কথাবার্তা। এইবার আসল কথাই আসি।

উইন্ডোজ ১১ চলবে কিনা তা যাচাই করার জন্য মাইক্রোসফট পিসি হেলথ চেক নামের এক্টি সফও্যায়ার সম্প্রতি তাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করেছিল। কিন্তু তারা সেটি আবার রিমুভ করে ফেলেছে। কিন্তু কেন করেছে জানি না, হয়তো লোড নিতে পারে নাই?হা হা হা!

তবে এখন পর্যন্ত Windows 11স্টেবল সংরক্ষন না এলেও ডেভেলোপারা পিভিউ সংরক্ষন মাধ্যমে Windows 11স্বাদ নিতে পারবেন আপনারা চাইলে। কিভাবে করবেন, সেটিই হচ্ছে আমার আজকের টপিক।
আসেন শুরু করি, প্রথমে আপনাকে http://www.insider.windows.com/en-us/getting-started এই লিংকে যেতে হবে। সেখানে গিয়ে Windows ইনসাইডার প্রোগ্রামে নিবন্ধন করতে হবে। সব কাজ শেষ হয়ে গেলে আপনি চলে আসুন পিসির সেটিং অপশনে। খেয়াল রাখতে হবে ও্য়েবসাইটে যে একাউন্ট দিয়ে রেজিট্রেশন করেছেন সেইম সেই একাউন্ট দিয়েই পিসিতে লগিন করতে হবে। অন্য ইউজার দিয়ে লগিন থাকলে আপগ্রেড আসবে না। এই বিষয়টা কিন্তু মাথায় রাখবেন।

সেটিংস থেকে Update & Security>Windows Insider Program যেতে হবে। এরপর Get Started এ ক্লিক করে ইনশট্রাকসন অনুযায়ি কাজ করেন। এরপর, Pick Your Insider Settings অপশনে ক্লিক করে Dev channel/Beta channel চুজ করেন। এরপর Windows আপডেট অপশনে গেলে দেখতে পারবেন, সেখানে Windows 11 আপডেট করার অপশন চলে এসেছে।

কিন্তু হ্যা, অনেক ক্ষেএ এই পদ্ধিতি অনুসরন করে, তেমন একটা ফল পাওইয়া যায় না। তখন কি করবেন? প্যারা নাই উপায় আছে। এই অবস্থায় আপনাকে তখন কম্পিউটার অন হওয়ার সময় কী বোর্ডের ফাংশনের কি চেপে BIOS Setting- এ যেতে হবে। সেখান থেকে এরপরে Options/Advanced ট্যাবে গিয়ে TPM ইনেবল করে দিতে হবে। মুলত, মাদারবোর্ডের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ভিত্তিতে BIOS Setting বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। এই TMP চালু বা বন্ধ করার অপশন কিন্তু বেশির ভাগ কম্পিউটারে উপরোল্লিখিত সেটিংসেই থাকে। এটি ইনেবল করে ফেললে সমস্যা ছাড়াই Windows 11 ব্যবহার করতে পারবেন।

তো এই ছিল আমার আজকের টিউন। কেমন লাগলো টিউমেন্ট করে জানাবেন আশাকরি। সবাইকে ধন্যবাদ।

Level 1

আমি সাখাওয়াত মহিম। , Mirpur। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 সপ্তাহ 5 দিন যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 13 টি টিউন ও 21 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 2 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 1 টিউনারকে ফলো করি।

বেঁচে থাকা দারুন একটা ব্যাপার।কিন্তু কয়জন বেঁচে থাকে।আমি বেঁচে থাকার চেষ্টা করি।সময় মূল্যবান।জীবন তার চেয়েও অনেক বেশী মূল্যবান।আর সম্ভাবনাময়,সুন্দর।বিশ্বদ্যিালয়ের পাঠ এখনো চুকিয়ে নেয়নি।সামনে আরও নিরস ভবিষ্যৎ।নিরস জীবন সরসভাবে কাটানোর প্রচেষ্টায় আমি সাখাওয়াত মহিম।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস