শেয়ারড হোস্টিং এর চেয়ে ভিপিএস হোস্টিং কেন এত জনপ্রিয়?

আপনাদের মাঝে আজ আবারও নতুন কিছু নিয়ে হাজির হলাম। সবাই কেমন আছেন? শেয়ারড হোস্টিং এর চেয়ে ভিপিএস হোস্টিং কেন এত জনপ্রিয় সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। আসুন সবার আগে জেনে নিই শেয়ারড হোস্টিং ও ভিপিএস হোস্টিং কি?

 

শেয়ারড হোস্টিং:- কিছু কিছু শব্দ আছে যে গুলো শুনলে বা পড়লেই বোঝা যায়, মানেটা কি বোঝাতে চাচ্ছে। ঠিক তেমনি শেয়ারড মানে বোঝা যাচ্ছে একে অপরের মাঝে কোন কিছু শেয়ার করা। এটি একটি common hosting solution। এবং স্বল্প খরচে শেয়ারড হোস্টিং ব্যবহার করা যায়। কখনো কি ভেবে দেখেছেন কেন এত খরচ কম?

শেয়ারড হোস্টিং শুধু ১বা ২ জনের সাথে শেয়ার করা নয়। এক সাথে ৩০০-৪০০ বা ১০০০ জনও শেয়ারড হোস্টিং ব্যবহার করছে। তাহলে ভেবে দেখুন আপনি ১০০০ জনের ভিতর একজন। তাই শেয়ারড হোস্টিং এর দাম কম। এবং লোডিং স্পিড কম।

 

ভিপিএস হোস্টিং :- ভিপিএস হল ভার্চুয়াল প্রাইভেট সার্ভার। এটা একটি বাক্তিগত কম্পিউটারের মত। আপনি আপনার নিজের প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবহার করতে পারবেন। আপনার ইচ্ছা মত ওয়েব সাইট হোস্ট করতে পারবেন। এতে আপনার ওয়েব সাইট এর লোডিং স্পিড বেড়ে যাবে এবং আপনার ওয়েব সাইট এর ভারসাম্যতা রক্ষা পাবে।

শেয়ারড হোস্টিং এর চেয়ে ভিপিএস হোস্টিং কেন জনপ্রিয়:- শেয়ারড হোস্টিং এর চেয়ে ভিপিএস  হোস্টিং বেশি জনপ্রিয়। কারণ, সবাই চাই কম দামে ভালো জিনিষ কিনতে। আসলে কম দামে কখনই ভালো জিনিস পাওয়া যায় না এই কথাটা কেউ বুঝে না। মনে করুন একটা শেয়ারড হোস্টিং এর দাম ৫০০ টাকা। এটা যখন একসাথে ১০০০ জন মানুষ ব্যবহার করে তখন প্রত্যেকের ভাগে ২ টাকা করে পড়ে। ফলে প্রত্যেকেরই সাশ্রয় হচ্ছে। কিন্তু যতই সাশ্রয় হোক সাইট এর লোডিং স্পিড নিয়ে তো কথা, ১০০০ মানুষ একই সাথে একটা শেয়ারড হোস্টিং ব্যবহারের ফলে সাইট এ লোডিং স্পিড কমে যায়, ভারসাম্যতা রক্ষা করা কঠিন হয়ে যায়, এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থা কমে যায়। এ ক্ষেত্রে ভিপিএস  হোস্টিং এর দাম একটু বেশি হলেও সাইট এ লোডিং স্পিড বেশি থাকে। ভিপিএসটা একজনই ব্যবহার করতে পারবে। এটা personal computer এর মত। ভিপিএস এর মাধ্যমে সাইট এর ভারসাম্যতা রক্ষা করা সহজ এবং এতে নিরাপত্তা বেশি থাকে। অধিক পরিমান ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের সুযোগ থাকায় আগের থেকে অনেক বেশি ভিজিটর আপনার ওয়েবসাইট এ প্রবেশ করতে পারবে।
শেয়ার্ড হোস্টিং এর সাথে ভিপিএস হোস্টিং এর তুলনা:- ভিপিএস হোস্টিং নিরাপদ এবং গতি আপগ্রেটেড।  শেয়ারড হোস্টিং এর তুলনায় বেশ কিছুটা ভাল। আপনি একটি সার্ভার ভাগ করে নিবেন, কিন্তু সার্ভারটি প্রকৃতপক্ষে অ্যাকাউন্টগুলির মধ্যে ভাগ করে নেওয়া হয়। ফলে আপনার আর্থিক ব্যয় কিছুটা হলে কমে যায়। এতে আপনার সাইট এর স্পিড কমে যাবে। আপনি যদি ভিপিএস হোস্টিং নেন তাহলে  আপনার নিরাপত্তা সম্পর্কে চিন্তা করতে হবে না। কারণ হল আপনি প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবহার করতে পারবেন এবং নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারবেন। ভিপিএস হোস্টিং মূলত নিজস্ব সম্পদের মত।

 

ওয়েব সাইট এর জন্য ভিপিএস হোস্টিং ভালো নাকি শেয়ারড হোস্টিং ভালো :-আপনি যদি একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার পরিকল্পনা করেন এবং আপনি এটি দিয়ে অর্থ উপার্জন করতে চান তবে VPS হোস্টিং আপনার জন্য ভালো।  যত তাড়াতাড়ি সম্ভব VPS হোস্টিং আপগ্রেড করে নিন। এটি আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য আরো নিরাপত্তা এবং আরো লোডিং স্পিড বাড়িয়ে দিবে।

যারা অন্য কোন কারণের জন্য একটি ব্লগ বা একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেছে এবং অর্থ উপার্জন করা লক্ষ্য নয়, তাদের জন্যই শেয়ারড হোস্টিং।

 

শেয়ার্ড হোস্টিং এবং ভিপিএস হোস্টিং এর মধ্য পার্থক্য :- আসুন এবার শেয়ার্ড ও ভিপিএস এর পার্থক্য জেনে নিই।

  • শেয়ার্ড হোস্টিং VPS হোস্টিং তুলনায় অনেক সস্তা।
  • শেয়ার্ড হোস্টিং সাধারণ সম্পদের মত আর VPS হোস্টিং বাক্তিগত সম্পদের মত।
  • যারা ব্যবসা শুরু করেছে বা সাইট এ ভিজিটর কম তাদের জন্য শেয়ার্ড হোস্টিং ভালো।
  • যাদের সাইট এ প্রচুর ভিজিটর আছে, তাদের সাইট এর লোডিং স্পিড এর জন্য ভিপিএস প্রয়োজন।
  • শেয়ার্ড হোস্টিংয়ের তুলনায় ভিপিএস হোস্টিং এর  পারফরমেন্স অনেক ভালো।

 

কখন  শেয়ারড হোস্টিং কে ভিপিএস  হোস্টিং এ ট্রান্সফার করতে হবে? :- একটা ওয়েব সাইট এর জন্য এই বিষয়টা কিন্তু খুবই জরুরি। একটা ওয়েব সাইট এ প্রাথমিক সময়ে শেয়ার্ড হোস্টিং ভালো। শেয়ার্ড হোস্টিং ব্যবহারের ফলে আর্থিক সাশ্রয় হবে। তারপর যখন সাইট এ ভিজিটর বেড়ে যায় এবং স্পিড এর প্রয়োজন তখন VPS হোস্টিং এ রূপান্তর করতে হবে।

 

কোন হোস্টিং এ বেশি নিরাপত্তা :- একই সাথে সবাই যে জিনিস ব্যবহার করা হয় সেটাতে সাধারণত নিরাপত্তা কম থাকবে এটাই স্বাভাবিক। ঠিক তেমনি অনেকে একই সাথে শেয়ার্ড হোস্টিং  ব্যবহারের ফলে নিরাপত্তা কমে যায়। কিন্তু ভিপিএস একটা ব্যক্তিগত সার্ভিস সিস্টেম। সবসময় ব্যক্তিগত জিনিষ একটু আলাদা হয়। নিরাপত্তা বেশি থাকে। তাই শেয়ার্ড হোস্টিং এর চেয়ে VPS হোস্টিং এ বেশি নিরাপত্তা থাকে।

 

পরিশেষে বলা যায় যে, সঠিক সময়ে এবং প্রয়োজন অনুযায়ী কাজ করাটা বুদ্ধিমানের কাজ। তাই ওয়েব সাইট এর জন্য প্রাথমিক ভাবে শেয়ারড হোস্টিং নেওয়া ভালো। সাইট এ যখন ভিজিটর বেশি আসবে তখন  শেয়ারড হোস্টিং থেকে ভিপিএস হোস্টিং এ রূপান্তর করতে হবে।

 

তো বন্ধুরা আজ অনেক কথাই হল। আগামীতে আবার নতুন কিছু নিয়ে দেখা হবে। সবাই ভালো থাকবেন।

লেখিকা ইয়াসমিন আক্তার ইতি। asst. Officer at http://www.mylighthost.com.

Level 0

আমি ইতি আক্তার। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 4 বছর 1 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 12 টি টিউন ও 1 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 5 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 10 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

Good post for who use vps. I have a vps site just check it here .. http://rdpground.com/

thanks