Yeti নামের একটি স্ট্রিমিং গেম প্ল্যার্টফর্মের উপর কাজ করছে গুগল

টিউন বিভাগ খবর
প্রকাশিত
জোসস করেছেন

গুগল! প্রথম দিকে এই নামটি আমরা শুধুমাত্র তাদের সার্চ ইঞ্জিনের জন্য আমাদের কাছে পরিচিত ছিলো। কিন্তু বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম এবং সার্চ ইঞ্জিনের পাশাপাশি বিভিন্ন সার্ভিসের জন্য আমরা গুগলকে এক নামে চিনে থাকি।

কিন্তু বর্তমানে গুগল গেমিং জগতেও নিজেদের নামকে নিজেকের ব্রান্ডকে একটি শীর্ষস্থানে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। যার নাম হলো “Yeti”
২০১৪ সালে সর্বপ্রথম আমরা গুগলের থেকে একটি অ্যান্ড্রয়েড ভিক্তিক গেমিং কনসোল মুক্তি পাবে বলে খবর পেয়েছিলাম কিন্তু পরবর্তীতে সেটি আর মুক্তি দেওয়া হয়নি।

২০১৪ সালের পর ব্রডব্যান্ড নেটের স্পিড সম্পুর্ণ বিশ্বেই বেড়ে যায় আর যার ফলে স্ট্রিমিং গেম নামের নতুন একটি অধ্যায় শুরু হয় গেমিং জগতে। বর্তমানে আমরা শুধুমাত্র সনি প্লেস্টেশনে Playstation Now স্ট্রিমিং সার্ভিসটি উপভোগ করতে পারছি। অন্য দিকে আরেকটি শীর্ষ স্থানীয় ব্রান্ড এনভিডিয়াও তাদের নিজস্ব স্ট্রিমিং সার্ভিস GeForce NOW ও ইত্যিমধ্যে তাদের কার্যক্রম শুরু করে দিয়েছে। অন্যদিকে মাইক্রোসফটেরও আগামী ৩ বা ৪ বছরের মধ্যেই এই স্ট্রিমিং প্রযুক্তিতে চলে আসার পরিকল্পনা রয়েছে।

গুগল ইয়েতি কি?


যারা নেটফ্লিক্স ব্যবহার করেন তারা বুঝবেন, গুগল ইয়েতি হচ্ছে গেমিং এর নেটফ্লিক্স। সাধারণত গেমিং এর জন্য আমাদেরকে ব্যয়বহুল হার্ডওয়্যার এবং গেমিং সফটওয়্যার ব্যবহার করার প্রয়োজন হয়। কিন্তু স্ট্রিমিং গেমিং সার্ভিসের মাধ্যমে গুগল তাদের গেমসগুলোকে রিমোট সার্ভারগুলোকে হোষ্ট করবে এবং গেমসগুলো আপনার টিভির পর্দায় স্ট্রিম করবে একটি ডেডিকেটেড হার্ডওয়্যারের মাধ্যমে।

গুগলের এই সার্ভিসটি উপভোগ করার জন্য ব্যবহারকারীদেরকে সাবক্রিপ্টশন কিনে নিতে হবে যেখানে জিরো ডাউনলোড সুবিধা থাকবে এবং পৃথিবীর প্রায় সকলই গেমসই আপনি যখন তখন আপনার ঘরে বসেই একটি ক্লিকেই খেলতে পারবেন।

আমরা এটা জানি না যে কবে গুগল ইয়েতি মুক্তি পাবে যেহেতু এটা এখনো অফিসিয়াল ভাবে রিভিলকৃত হয় নি তবে গুগল সাবেক প্লে-স্টেশন এবং এক্সবক্স এক্সিকিউটিভ ফিল হ্যারিসনকে গুগল ইয়েতি প্রজেক্টের প্রধান করে তাদের নির্মাণ কার্যাবলি শুরু করে দিয়েছে।

বর্তমানে ধারণা করা হচ্ছে যে গুগল তাদের এই স্ট্রিমিং সার্ভিসটি গুগল ক্রোমক্যাস্ট বা নতুন একটি কনসোলের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের সরবরাহ করবে। আর গুগলের থেকে একটি গেমিং কনসোল বাজারে অবশ্যই একটি বড় ইমপ্যাক্ট ফেলবে। যেমনটি গুগল ২০০৯ সালে তাদের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম দিয়ে পুরো মোবাইল মার্কেটকে বর্তমানে দখলে নিয়ে ফেলেছে। আর অন্য দিকে ২০০১ সালে এক্সবক্সের মাধ্যমে গেমিং দুনিয়ায় প্লে-স্টেশনের একটি উপযুক্ত প্রতিদন্ধি হিসেবে নিজের জায়গা করে নিয়েছিলো। তবে বর্তমানে গুগলের এই সার্ভিসের সবথেকে বড় প্রতিযোগী হবে হলো এক্সবক্স এবং প্লে-স্টেশন কারণ এরা আগে থেকেই গেমিং জগতে নিজেদের জায়গা দখলে রেখেছে আর প্লে-স্টেশন অলরেডি তাদের স্ট্রিমিং গেমিং সার্ভিস শুরু করে দিয়েছে।

অ্যান্ড্রয়েড টিভিতে চলবে:


যেহেতু এর নাম স্ট্রিমিং সার্ভিস, তাই সবার আগে আপনার চাই একটি মনিটর বা টিভি। আর এটি যেহেতু গুগলের পণ্য তাই আমরা ধরতে পারি যে এটি গুলের অ্যান্ড্রয়েড টিভিতেই চলবে। আর এক্সবক্স ওয়ান আর প্লে-স্টেশন ৪ এর সাথে গুগল টিভি প্ল্যাটফর্মে গুগল ইয়েতি মুক্তি পেলে প্রতিযোগীতার খেলা ভালোই জমে উঠবে। কারণ অনান্য ডিভাইসের থেকে গুগল অ্যান্ড্রয়েড টিভিতে রয়েছে স্ট্রিমিং অ্যাপসের বিশাল কালেক্টশন, সিম্পল মেনু সিস্টেম এবং আরো রয়েছে বেস্ট-ইন-ক্লাস ভয়েস সার্চ ফ্রম গুগল এসিস্টেন্স।

গেমস অফলাইনে খেলা যাবে:


ক্লাউড গেমিং এর সবথেকে বড় সমস্যা হলো এটির সাহায্যে কোনো গেমসই অফলাইনে খেলা যায় না। তবে আমরা আশা করতে পারি যে গুগল ইয়েতিতে আমরা অফলাইনে গেমস খেলতে পারবো। এর জন্য অ্যান্ড্রয়েডকে নুন্যতম x86 প্রসেসরের সার্পোট থাকতে হবে। এর জন্য গুগলকে এনভিডিয়ার টেগরা প্রসেসর এর সাহায্য নিতে হতে পারে কিংবা আলাদা করে গুগলের কাস্টম প্রসেসর তৈরি করতে হবে। আর স্ট্রিমিং কনসোল হিসেবে গুগল ইয়েতির বাজার দখলের জন্য এর অফলাইন ফিচারটি অবশ্যই গুগলের অর্ন্তভুক্ত করা উচিত।

ইউটিউব সেন্টারপিস:


প্লে-স্টেশন ৪ এবং পিসি গেমসগুলো ইতিমধ্যেই ইউটিউবকে তাদের গেমিং স্ট্রিমিং শেয়ারিং সাইট হিসেবে ইউটিউবকে ব্যবহার করা শুরু করে দিয়েছে। কিন্তু গুগলের নিজস্ব গেমিং কনসোল গুগল ইয়েতি ইউটিউবকে আরো গভীর ভাবে ব্যবহার করতে পারবে। যেমন লাইভ স্ট্রিমিং, ভয়েস কমান্ডের মাধ্যমে স্ট্রিমিং চালু, বন্ধ ইত্যাদি করা সুবিধা ইত্যাদি। আর ইউটিউবকে সেন্টার করে স্ট্রিমিং সার্ভিসকে গুগল আরো অধিক উন্নত করবে বলে আমরা আশা করছি।

তো গুগলের নিজস্ব একটি গেমিং কনসোল আসতে যাচ্ছে। এখন গেমারদের কাছে এর গ্রহণযোগ্যতা কতটুকু সেটা সময়ই বলে দিবে।

Level 10

আমি ফাহাদ হোসেন। Supreme Top Tuner, Techtunes, Dhaka। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 9 বছর 4 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 661 টি টিউন ও 428 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 119 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

যার কেউ নাই তার কম্পিউটার আছে!


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস