গ্যাস্টিকের সমস্যা সমাধানে কি করবেন

বাড়িতে অনুষ্ঠান হলে বা বিয়েবাড়িতে আমাদের দেশে ভাজাপোড়া এবং তৈলাক্ত খাবার ছাড়া একেবারেই চলেইনা। যার ফলে খাবার শেষে করে উঠতে না উঠতেই পেটে গ্যাসের উৎপাত শুরু হয়। গ্যাসের সমস্যা ছোট-বড় বা বুড়ো কাউকেই ছাড়ে না। করোনার মত যাকে পায় তার কাঁধে ভর করে।
তাই এ সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে আমাদের সবার বাড়িতেই অ্যান্টিডোট হিসেবে গ্যাস্টিকের নানান ঔষধ থাকে। যেহেতু গ্যাসের সমস্যা আমাদের নিত্যসঙ্গী তাই আমরা প্রায় সকলেই দিনে দুই থেকে তিনটা গ্যাসের ঔষধ সেবন করি। যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতির কারণ। তাই আজ আমি আপনাদের সাথে কথা বলব কিছু খাবার সম্পর্কে যা গ্যাসের সমস্যা নিবারণে অত্যন্ত কার্যকরী।

কিভাবে গ্যাস্ট্রিক থেকে মুক্তি পাবেন:
পেঁপে: আমাদের দেশে একটি অতি পরিচিত ফল। পেঁপেতে রয়েছে পাপায়া নামক এনজাইম যা হজম শক্তি বাড়াতে সহায়ক।
আদা: আদা সব চাইতে কার্যকরী অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদানসমৃদ্ধ খাবার। পেট ফাঁপা ও পেটে গ্যাস হলে আদা কুচি করে লবণ দিয়ে খান, দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্যাসের সমস্যা সমাধান হবে।
পুদিনা পাতার পানি: এক কাপ পানিতে ৫টি পুদিনা পাতা দিয়ে ফুটিয়ে খান। পেট ফাঁপা, বমিভাব দূরে রাখতে এর বিকল্প নেই।
রসুন: অ্যাসিডিটির সমস্যা কমাতে রসুনের কোনো বিকল্প হয় না বললেই চলে। এক্ষেত্রে এক কোয়া রসুন খেয়ে ফেললেই স্টমাকে অ্যাসিড ক্ষরণের মাত্রা স্বাভাবিক হতে শুরু করে। ফলে গ্যাস সংক্রান্ত বিভিন্ন উপসর্গ ধীরে ধীরে কমে যেতে শুরু করে।
শসা: শসা পেট ঠাণ্ডা রাখতে অনেক বেশি কার্যকর। এতে রয়েছে ফ্লেভানয়েড ও অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান যা পেটে গ্যাসের উদ্রেক কমায়।

Level 2

আমি মনিরুজ্জামান মুন্না। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 3 বছর 9 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 10 টি টিউন ও 0 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 1 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 2 টিউনারকে ফলো করি।


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস