ছবি রিসাইজ আর রোটেট করা এতই সহজ!

এক বা একাধিক ছবি সিলেক্ট করে মাউসের ডান ক্লিকে যেই মেনুটা খোলে সেখানে Resize Images .... এবং Rotate Images .... আসলে কার না ভালো লাগে। বিশেষত ফেসবুক বা অন্য সাইটগুলোতে ছবি আপলোডের সময় এইরকম করা তো খুবই দরকার। এই কাজটাই করার উপায় জানিয়ে রাখি:
আগে দেখি কীভাবে কাজ করে: দেখুন ছবির উপর ডান ক্লিকে কী দেখাচ্ছে (একাধিক ছবির ক্ষেত্রেও একই তরিকা)

এরপর Resize Images ... এ ক্লিক করলে যেই অপশনগুলো আসবে সেটা দেখুন:

উপরের ছবিতে লক্ষ্য করলে দেখবেন যে, ইমেজের সাইজ ৩ ভাবে দেয়া যায়। প্রথমত নির্দিষ্ট সাইজ থেকে সিলেক্ট করে। অথবা সরাসরি কত পার্সেন্ট ছোট করবে সেটা বলে দিতে হবে। আর ৩য় অপশন হল কাস্টম পিক্সেল সাইজ। আমার ছবিটা পাশে বড়, তাই আমি শুধু পাশে ৬০০ পিক্সেল হবে বলে দিলাম। উচ্চতা অটোমেটিকভাবে ঠিক হয়ে যাবে। এছাড়া দেখুন নতুন যেই ছবিটা আসবে সেটা আগের ছবির সাথেই সেভ হবে, কিন্তু নামের সাথে .resized কথাটা ডিফল্টভাবে লেগে যাবে (‌Append), ফলে ওভাররাইট হওয়ার সুযোগ নাই। এখানে নিজের ইচ্ছামত যেকোনো কিছুই দেয়া যায়। ব্যাস কাজ শেষ। Resize বাটনে চাপ দিলেই কেল্লা ফতে।

একইভাবে রোটেট সিলেক্ট করলে নিচের মত অপশন আসবে:

আমি একটু দুষ্টামি করে ৪৫ ডিগ্রি দিলাম। আউটপুট দেখেন নিচে:

কিভাবে এই কেরামতি মার্কা মেরামতি আপনার ডান ক্লিকে আনা যায় জানতে কৌতুহল হচ্ছে নাকি? তবে নিচের ছবি দেখুন সব ফকফকা লাগবে:

উবুন্টুর সফটওয়্যার কয়েকভাবে ইনস্টল করা যায়। আমি সহজতমটা দেখাচ্ছি। মেনু থেকে উবুন্টু সফটওয়্যার সেন্টারে ক্লিক করলে যেই উইন্ডো খোলে সেটার সার্চ বক্সে লিখুন nautilus-image আর লেখার আগেই আপনাকে শর্টলিস্ট করে এরকম তিনটা নাম দেখাবে। সেখান থেকে nautilus-image-converter টার ডানদিকের ইনস্টল বোতামে চাপ দিন। আমি ইতিমধ্যেই ইনস্টল করে ফেলেছি দেখে ইনস্টল বোতামের বদলে রিমুভ বোতাম দেখাচ্ছে। সাইজ ৩-৪শ কিলোবাইট বলে মনে পড়ছে।

একই কাজ সিনাপ্টিক থেকেও করা যায়।

হ্যাপি বুন্টু মিন্টিং।

টিপসটার জন্য উবুন্টু মেইলিং লিস্টে সগীর ভাইয়ের প্রশ্নের জবাবে রিং ভাইয়ের উত্তরে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

Level 0

আমি শামীম। বিশ্বের সর্ববৃহৎ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির সৌশল নেটওয়ার্ক - টেকটিউনস এ আমি 14 বছর 5 মাস যাবৎ যুক্ত আছি। টেকটিউনস আমি এ পর্যন্ত 36 টি টিউন ও 449 টি টিউমেন্ট করেছি। টেকটিউনসে আমার 0 ফলোয়ার আছে এবং আমি টেকটিউনসে 0 টিউনারকে ফলো করি।

গুগল আমার সম্পর্কে জানে, কাজেই জানতে চাইলে আমার নাম বা ইউজার নামটা দিয়ে গুগল করুন ... :D


টিউনস


আরও টিউনস


টিউনারের আরও টিউনস


টিউমেন্টস

বাহ ভাল জিনিস তো।তবে বিলাই শাটলের কারনে পারবো না ইন্সটল করতে। 😡 জানালা দিয়ে ডাউনলোড করে মিন্টে ইন্সটল করা যাবে নাকি? 😯

    না পারার তো কথা না। ডিপেন্ডেন্সীগুলো ঝালেমা করতে পারে সেক্ষেত্রে বার বার উইন্ডোজে আসতে হবে। সিনাপ্টিক থেকে ডিপেন্ডেন্সি লিস্ট বের করলাম:
    libc6 (>=2.3.6-6~)
    libglade2-0 (>=1:2.6.1)
    libglib2.0-0 (>=2.18.0)
    libgtk2.0-0 (>-2.12.0)
    libnautilus-extension1 (>=1:2.29.1)
    imagemagick
    nautilus (>=2.21.0)
    বোঝা যাচ্ছে সবগুলোই আগে থেকে থাকার কথা। সবসহ ৩৪০ কিলোবাইট। আমার ২৯ কিলোবাইট নামানো হয়েছিল মনে হয়।

    বুঝতারলামনা … …. পোস্টের ক্যাটেগরি দেখতারেন।

শামীম ভাই ছবি আপলোড করার পর ফেসবুকেই রোটেট করা যায়। তবুও ধন্যবাদ 🙂 লিনাক্স এ যে ডিফল্ট ইমেজ ভিউয়ার থাকে সেটা অনেক কাজের। আর গিম্প তো দেওয়াই থাকে 👿

অফটপিক: আপনার ফ্লিকারে ছবিতে দেখলাম যে আপনি ডেক্সটপে কোনো কিছু রাখেন না। এখানে স্ক্রিনশটে তো মেলা কিছু দেখতে পাচ্ছি 🙄

    শামীম ভাই একটা সাহায্য করেন। আমি টিটি তে ছবি দিলে পাশে বর্ডার থাকে। অথচ আপনার ছবিতে কোনো বর্ডার নাই, সুন্দর লাগছে। কিভাবে করব? আমি তো আপলোড করার পর ছবির সব প্রোপারটিজ মুছে ফেলে ইনসার্ট করি 🙁

    ডেস্কটপ হল কাজের টেবিলের মত। যখন দরকার হয় সব এখানে রেখে কাজ করি। আবার সরিয়ে রাখি। এখনকার ডেস্কটপের বেশিরভাগই আমার ফোল্ডার বা ফাইল না …. এগুলো সব বউএর।

    আগের ভার্সনগুলোতে দেয়া থাকতো gthumb viewer – ওটা দিয়ে কাজ করতাম। এখন ১০.০৪ চলছে, মাঝে মাঝে একটু স্বাদ পাল্টাতে মন্দ লাগে না। গিম্প দিয়ে তো করা যায়ই। এছাড়া আমি PHatch ব্যবহার করি – ফটোগুলোকে ব্যাচ প্রসেসিং-এর জন্য দারুন কাজের জিনিষ।

    আমার ছবিগুলোতে কেন বর্ডার নাই এই ব্যাপারটা আমারও জানা নাই। তবে আমি ছবিগুলো টেকটিউনসে আপলোড করি না। পিকাসা এলবামে রেখে এখানে লিংক দিয়ে ছবি দেই — এটা কারণ হতে পারে।

    হুম্মম্মম্ম… বুয়েট পাস। এদেশ ওদেশ ঘুরেছেন। বউ বাচ্চা নিয়ে সুখের সংসার। কী সুন্দর বাড়ি। বার-বি-কিউ। ব্লা ব্লা :hotash:

    @শাওন
    কী কও মাথার উপর দিয়ে যায়। কোন ছবি দেখে এই মন্তব্য করলা … একটু বল দেখি। এদিকে আমার বয়স কর হয়েছে সেই খবর আছে নাকি? হিসাব করে দেখ এই ব্যাপারগুলো অর্জনের জন্য তোমার হাতে এ্যাতগুলো বছর আছে।

    খুব বেশী না তো! মাত্র ১৮ বছর। আর জন্মদিনটাও ৪ দিন কম বেশি। হেহে। ভালো থাকুন 🙂

Level 0

আমি এই কাজ পারি। nautilus দিয়ে আমি একসঙ্গে ১০০ টার মত ছবি রিসাইজ করেছি ।

    আগে কইবেন না মিয়া! যা যা পারেন, সময় পাইলে সচিত্র টিউটোরিয়াল বানিয়ে রাখেন। যারা ভয় পায় তাদের সেগুলো দেখিয়ে দিলে ভয় কিছুটা কাটবে মনে হয়। 😉

ভাই জানালার জন্য এধরনের কোন সফ্ট কি আছে?